স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না নেত্রকোনায়

Send
হানিফ উল্লাহ আকাশ, নেত্রকোনা
প্রকাশিত : ২০:৩৯, আগস্ট ১২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:৩৯, আগস্ট ১২, ২০২০

মাস্ক ছাড়াই চলাফেরা করছেন মানুষদিন যতই যাচ্ছে ততই স্বাস্থ্যবিধির বিষয়ে ততই অসচেতন হয়ে পড়ছে নেত্রকোনায় সাধারণ মানুষ। যার ফলে করোনা সক্রামন বেড়েই চলছে এ জেলায়। সামাজিক দূরত্ব বা স্বাস্থ্যবিধি মানতে এখন প্রশাসনের পক্ষ থেকেও তেমন নজরদারি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ফলে শহর-বন্দরেও অবাধে মাস্ক ছাড়া ও সামাজিক দূরত্ব না মেনে চলাফেরা করছে মানুষ। এতে করে জেলায় বাড়ছে করোনা সংক্রামনের ঝুঁকি। শহরের মানুষের এমন অসচেতন কর্মকাণ্ড দেখে গ্রামের মানুষও করোনার ঝুঁকি ভুলে অনেকটা আগের মত জীবনযাপন করছেন। রাস্তা-ঘাট, চা দোকান, গণপরিবহন, অটো রিক্সা’সহ সব ক্ষেত্রেই মাস্ক পরার প্রতি অনীহা তাদের।
নেত্রকোনায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এ পর্যন্ত ৫ জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও শনাক্তের হার দিন দিন বাড়ছে। এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪৮ জন। নেত্রকোনা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত মার্চ থেকে গত ৯ আগস্ট পর্যন্ত জেলায় ৮ হাজার ৩৯৬ জনের নমুনা টেস্টের জন্য ময়মনসিংহ ল্যাবে পাঠানো হয়। ৮ হাজার ৩৬৩ জনের ফল এসেছে। যার মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৬৪৮ জন। করোনা পজিটিভ নিয়ে মারা গেছেন ৫ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৫৯ জন।
মাস দুয়েক আগেও নেত্রকোনায় করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার যে প্রবণতা ছিল এখন তার লেশ মাত্র নেই। মাস্ক ছাড়াই চলাফেরা করছে লোকজন। করোনার আগে মানুষ যেভাবে চলাফেরা করতো এখনও প্রায় সেভাবেই চলছেন।

নেত্রকোনার সিভিল সার্জন ডা. তাজুল ইসলাম বলেন, জনসাধারণ যাতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলে সেজন্য স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হলেও গ্রামাঞ্চলের লোকজন তা মানছেন না। তারপরও আমরা আমাদের কাজ করছি।
মাস্ক না পরেই কাজ করছেন তারা শহরের বাস টার্মিনাল, মাছ বাজার, মুদি দোকান, ঔষদের দোকান, শপিং মল, গণপরিবহন কোথাও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। এ বিষয়ে প্রশাসনের নজরদারি ও গণসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য আবারও কাজ করার পরার্মশ দিচ্ছেন সচেতন নাগরিকরা। বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য কাজ করছেন বলেও দাবি করেছেন তারা। নেত্রকোনা আব্দুর রহমান ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের চেয়ারম্যান দিলওয়ার খান বলেন, সরকার একটু নমনীয় হওয়ায় মানুষের মধ্যে করোনা সচেতনতা কমে গেছে। এছাড়া প্রশাসনের নজরদারি কম থাকায়  স্বাস্থ্যবিধি মানার যে ভীতি তাও কমে গেছে, এ জন্যই বর্তমানে এমন পরিস্থিতি। আমরা যেভাবে পারি মানুষকে সচেতন করার চেষ্ঠা করছি। পাশাপাশি যদি প্রশাসন একটু নজর দেয় তাহলে স্বাস্থ্যবিধি পালনে সাধারণ মানুষ সচেতন হবে।
নেত্রকোনা জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক সাবিহা সুলতানা জানান, বুধবার (১২ আগস্ট) আমরা করোনা প্রতিরোধ কমিটির একটি সভা করেছি। সেখানে সীদ্ধান্ত হয়েছে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ও সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে আবারও মাস্ক বিতরণ, সামাজিক দূরত্ব মানার জন্য সচেতনতামূলক মাইকিংসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

/আরআইজে/

লাইভ

টপ