X
মঙ্গলবার, ০৯ আগস্ট ২০২২
২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

সেবা নিতে এসে একজনও যেন বিমুখ না হন: শিক্ষামন্ত্রী

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
২৬ জুন ২০২২, ১৭:৫৪আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ১৭:৫৪

শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অধিদফতর, দফতরে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেবার মান বাড়াতে নির্দেশ দিয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, একজন সেবাগ্রহীতাও যেন বিমুখ না হন। অন্যদিকে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুর হাসান চৌধুরী বলেছেন, ‘সেবা নিয়ে পাবলিক পারসেপশন ভালো না, প্রভাবমুক্ত ও ভোগান্তিহীন সেবা দিতে হবে।’

রবিবার (২৬ জুন) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের সভাকক্ষে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা এবং বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মধ্যে ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তারা।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দীক ও ইউজিসি’র সচিব ড. ফেরদৌস জামান নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে এ চুক্তি স্বাক্ষর করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও বিশেষ অতিথি হিসেবে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির চূড়ান্ত মূল্যায়নে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ সরকারের ৫১টি মন্ত্রণালয়/বিভাগের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। তবে শিক্ষা সেক্টরে সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে পাবলিক পারসেপশন ভালো না থাকায় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী সেবার মান বাড়াতে কর্মকর্তা কর্মচারীদের নির্দেশ দেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, সেবার মান বাড়াতে হবে। কেউ যেন বিমুখ হয়ে ফিরে না যান। যদি সেবাগ্রহীতাকে তার কাজ করে দেওয়া সম্ভব নাও হয় তবু তিনি যেন তৃপ্তি নিয়ে ফেরত যেতে পারেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, হাই লেভেল অ্যাসেসমেন্ট ন্যূনতম মানদণ্ড। কিন্তু নাগরিক সেবা উন্নত হচ্ছে না।  যারা প্রান্তিক পর্যায়ের সেবাগ্রহীতা তারা সেবা পাচ্ছে না। উচ্চ পর্যায়ের পুরস্কার পেলেই জনগণের চিন্তা-ভাবনা ইতিবাচক হবে তা নয়। আমাদের সেবা সম্পর্কে পাবলিক পারসেপশন এখনও ভালো না। আমরা ভোগান্তিহীনভাবে সেবা দিতে পারছি না। জেলা ও উপজেলার শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে হবে। আমাদের বাজেট বাড়ছে কিন্তু সেবার মান বাড়ছে না। অর্থ অনেক খরচ হচ্ছে অথচ প্রভাবমুক্ত সেবা নিশ্চিত করতে পারছি না। প্রভাবমুক্ত ও ভোগান্তিহীন সেবা নিশ্চিত করতে হবে।

সেবার মান ও জবাবদিহি নিশ্চিত না হওয়ার বিষয়টি তুলে ধরে অনুষ্ঠানে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আবু বকর ছিদ্দীক বলেন, কিছুদিন আগে আমরা প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দিয়েছি ২৩৩ জনকে। এই পদোন্নতির জন্য আমরা ছাড়পত্র পেয়েছিলাম ডিসেম্বর মাসে। আমরা যদি জানুয়ারিতে পদোন্নতি দিয়ে দিতাম কোনও সমস্যা ছিল না। এতে কোনও বাধা ছিল না আমাদের। আমরা দিতে দেরি করায় আট জন মারা গেছেন, ২৪ জন পিআরএল এ গেছেন।  শেষ পর্যন্ত যখন প্রস্তাব পাঠাই তখন আরও একজন পিআরএল এ চলে গেছেন। আমার মনে হয়, তাদের এ ন্যায্য পাওনা থেকে আমাদের আল্লার কাছে জবাব দিতে হবে।

/এসএমএ/এমআর/
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর ‘বঙ্গবন্ধু’ উচ্চারণ সহজ হয়
শেখ হাসিনা দেশে ফেরার পর ‘বঙ্গবন্ধু’ উচ্চারণ সহজ হয়
কলকাতায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত
কলকাতায় বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপিত
দেশীয় গ্যাস কোম্পানিগুলো পাচ্ছে আরও অনুসন্ধান ও উত্তোলনের দায়িত্ব
জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস আজদেশীয় গ্যাস কোম্পানিগুলো পাচ্ছে আরও অনুসন্ধান ও উত্তোলনের দায়িত্ব
লঞ্চের ধাক্কায় বাল্কহেড ডুবে ২ শ্রমিক নিখোঁজ
লঞ্চের ধাক্কায় বাল্কহেড ডুবে ২ শ্রমিক নিখোঁজ
এ বিভাগের সর্বশেষ
দাখিল পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি প্রকাশ
দাখিল পরীক্ষার পরিবর্তিত সময়সূচি প্রকাশ
সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অর্গানোগ্রাম পরিবর্তন হচ্ছে
সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অর্গানোগ্রাম পরিবর্তন হচ্ছে
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দৈনিক ৮ ঘণ্টা অফিস নীতিমালায় নেই
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দৈনিক ৮ ঘণ্টা অফিস নীতিমালায় নেই
২০২০ সালের অনার্স তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষার ফল প্রকাশ
২০২০ সালের অনার্স তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষার ফল প্রকাশ
এক চিঠি নিয়ে কওমি ঘরানায় তোলপাড়, চলছে জরুরি বৈঠক
এক চিঠি নিয়ে কওমি ঘরানায় তোলপাড়, চলছে জরুরি বৈঠক