পার্থ বড়ুয়ার কণ্ঠে প্রথম রবীন্দ্রসংগীত এবং... (ভিডিও)

Send
সুধাময় সরকার
প্রকাশিত : ১৬:০৫, মে ০৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২২:৫৯, মে ০৮, ২০২০

পার্থ বড়ুয়া। ছবি: সংগৃহীতসোলস ব্যান্ড কিংবা পার্থ বড়ুয়া—দুটো নামই বহু বছর ধরে সমার্থক। তবে এই চেনা পরিচয় পেরিয়ে সংগীতশিল্পী পার্থ বড়ুয়া নিজের জাত চিনিয়ে চলেছেন বহুভাবে। যার শুরুটা সম্ভবত হয় বিটিভি থেকে, শচীন কর্তার ‘বাঁশি শুনে আর কাজ নাই’ গানটি কণ্ঠে তুলে।

তিনি এরপর সংগীত পরিচালক হিসেবে ক্ষমতা দেখিয়েছেন অসংখ্য পুরনো গানকে নতুন জীবন দিয়ে। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের গান থেকে শুরু করে হারানো দিনের দুই বাংলার অসংখ্য গান তিনি নতুনরূপে তুলে ধরেছেন প্রায় সব প্রজন্মের শিল্পীর কণ্ঠে। যার বেশিরভাগই অকুণ্ঠ প্রশংসার দাবি তৈরি করে চলেছে অন্তর্জালে। যেমন নজির দেশের জীবিত অথবা মৃত, আর কোনও ব্যান্ড ঘরানার শিল্পীর বায়োগ্রাফিতে নেই। তার অভিনয়ের প্রসঙ্গ এই সংবাদে তোলাই থাক।


সেই বহুমাত্রিক কাজের ধারাবাহিকতাই সম্ভবত রাখলেন আবারও। প্রথম কোনও রবীন্দ্রসংগীত কণ্ঠে তুললেন পার্থ বড়ুয়া এবং সেটি উপহারস্বরূপ নিজের ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশ করলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬০তম জন্মদিনে (৮ মে)। ‘দাঁড়িয়ে আছো তুমি আমার গানের ওপারে’ শিরোনামের গানটি গাওয়ার পাশাপাশি এর নতুন সংগীতায়োজন করেছেন পার্থ নিজেই। গানটির ভিডিও এখন প্রশংসা কুড়াচ্ছে ইউটিউব হয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।
পার্থ বড়ুয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রবীন্দ্রসংগীত তো হৃদয়ে থাকে সবসময়। যদিও গাওয়া হয় না সময় সুযোগে আর উপলক্ষের অভাবে। এবার কোয়ারেন্টিনে থেকে সাহস করে গাইলাম। রবীন্দ্রসংগীত আসলে শুনতে যতটা সহজ মনে হয়, গাইতে ততটাই কঠিন। এবং সেটি যদি স্টাফ নোটেশন ফলো করে গাইতে হয়, আরও কঠিন। আমি চেষ্টা করেছি সঠিকভাবে গাইবার। দেখা যাক কেমন প্রতিক্রিয়া পাই।’


পার্থ বড়ুয়া জানান, এই কোয়ারেন্টিনে তিনি সোলস-এর নতুন অ্যালবাম গোছানোর পাশাপাশি আরও একটি রবীন্দ্রসংগীত তৈরি করে রেখেছেন। সেটিও প্রকাশ করবেন শিগগিরই।
তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে এমন একটি ঘরবন্দি সময় আমাদের জন্য দরকার ছিল। আমরা খুব উড়ছিলাম। থামার কথা ভুলেই গিয়েছিলাম। বাসায় থেকে অনেক পড়ছি, শিখছি, শুনছি। অনেক গান হাফডান ছিল। এক এক করে সব গুছিয়ে নিচ্ছি। সোলস-এর ছয় গানের অ্যালবাম শেষ করলাম। আরও অনেক কাজ করবো ঘর থেকে মুক্তি পাওয়ার আগে। যদি বেঁচে থাকি।’
পার্থ বড়ুয়া সম্প্রতি ব্যস্ত সময় কাটালেন ‘ঘরে বসে আয়নাবাজি’ ওয়েব সিরিজের শুটিং নিয়ে। ঘরে থেকেই তিনি ধারণ করেছেন এই সিরিজের দৃশ্যগুলো। যেখানে তিনি অভিনয় করেছেন ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার সেই সাংবাদিক চরিত্রেই। এতে তার নির্মাতা ও সহশিল্পী থাকছেন একই—অমিতাভ রেজা চৌধুরী, চঞ্চল চৌধুরী ও নাবিলা।
শিগগিরই এই সিরিজটি উন্মুক্ত হবে অন্তর্জালে। পার্থ বলেন, ‘এটি আয়নাবাজি সিনেমার জনপ্রিয় চরিত্রগুলোকে ধরে চলমান মহামারিতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে তৈরি হচ্ছে।’ 
অভিনয়ই নয়, সাধারণ মানুষকে সচেতন করে তুলতে সম্প্রতি এই শিল্পী প্রকাশ করেছেন ‘কিপ ডিসটেন্স’ নামের একটি বিশেষ গান-ভিডিও।

/এমএম/

লাইভ

টপ