সংকটাপন্ন এন্ড্রু কিশোর, গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ

Send
রাজশাহী প্রতিনিধি
প্রকাশিত : ২৩:১২, জুলাই ০৫, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০৪:০৬, জুলাই ০৬, ২০২০

এন্ড্রু কিশোরকিংবদন্তি সংগীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা বেশ সংকটাপন্ন।

সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে দেশে ফেরার পর রাজশাহী মহানগরীর মহিষবাথান এলাকায় বোন ডা. শিখা বিশ্বাসের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন ক্যানসারে আক্রান্ত এই শিল্পী। শিল্পীর দুলাভাই ক্যানসার বিশেষজ্ঞ ডা. প্যাট্রিক বিপুল বিশ্বাসের তত্ত্বাবধানে আছেন তিনি।
এন্ড্রু কিশোরকে দেখাশোনার দায়িত্বে থাকা শফিকুল আলম বাবু জানান, সিঙ্গাপুর থেকে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরলেও এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক অবস্থা ভালো যাচ্ছে না। রবিবার (৫ জুলাই) সকাল থেকে তার অবস্থার আরও অবনতি ঘটে। তবে তাকে নিয়ে কোনও গুজব না ছড়ানোর অনুরোধ করেছেন স্বজনরা।
এন্ড্রু কিশোরের দুলাভাই ডা. প্যাট্রিক বিপুল বিশ্বাস বলেন, ‘বাসার দোতলার একটি কক্ষে এন্ড্রু কিশোর আছেন। তার শরীরের অবস্থা এই ভালো তো এই খারাপ। আমরা দেশবাসীর কাছে তার জন্য দোয়া চাইছি। একইসাথে বলছি, কেউ নিশ্চিত না হয়ে কোনও দুঃখজনক তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করবেন না।’
গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর শরীরের নানা জটিলতা নিয়ে সিঙ্গাপুর চিকিৎসা করাতে গিয়েছিলেন এন্ড্রু কিশোর। শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তার শরীরে ব্লাড ক্যানসার ধরা পড়ে। এরপর থেকেই সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন এই শিল্পী। ছয়টি ধাপে তাকে ২৪টি কেমোথেরাপি দেওয়া হয় সেখানে। এরপর ১১ জুন রাতে একটি বিশেষ ফ্লাইটে তাকে দেশে আনা হয়। তারপর থেকে তিনি রাজশাহীতে আছেন।
এদিকে এন্ড্রু কিশোরের পরিবারের সঙ্গে ঢাকা থেকে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন দেশের আরেক নন্দিত শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ। রবিবার সন্ধ্যায় তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘সত্যি বলতে এন্ড্রুদার অবস্থা ভালো নয়। আমরা আসলে একটা মিরাকলের অপেক্ষায় আছি। উনার দুই সন্তানই দেশের বাইরে থাকেন। তারাও দুই একদিনের মধ্যে দেশে আসবেন। দেখা যাক কী হয়। এখন এমন এক পরিস্থিতির মধ্যে আছি, চাইলেই তো ছুটে যেতে পারছি না। আমি গত সপ্তাহে দীর্ঘ সময় টেলিফোনে কথা বলেছি দাদার সঙ্গে। কত কথা, কত স্মৃতি। তিনিই সব বলে গেছেন, আমি শুধু কাতর হয়েছি। এমনও অনেক স্মৃতি তুলে এনেছেন, যেটা নিজেও ভুলে গেছি। এখন দূর থেকে দোয়া করা ছাড়া আর কিছু করার নেই। আরেকটি বিষয়, গুজব থেকে নিজেদের বিরত রাখা। এটা কিন্তু ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ।’
এন্ড্রু কিশোর বাংলা চলচ্চিত্রের সর্বাধিক সিনেমায় গান গাওয়া একমাত্র শিল্পী। চলচ্চিত্রে তার চেয়ে বেশি জনপ্রিয় গান আর কারও নেই। তার গাওয়া উল্লেখযোগ্য গানের মধ্যে রয়েছে ‘জীবনের গল্প আছে বাকি অল্প’, ‘হায়রে মানুষ রঙিন ফানুস’, ‘ডাক দিয়াছেন দয়াল আমারে’, ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি’, ‘আমার বুকের মধ্যে খানে’, ‘আমার বাবার মুখে প্রথম যেদিন শুনেছিলাম গান’, ‘ভেঙেছে পিঞ্জর মেলেছে ডানা’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘পড়ে না চোখের পলক’, ‘পদ্মপাতার পানি’, ‘ওগো বিদেশিনী’, ‘তুমি মোর জীবনের ভাবনা’, ‘আমি চিরকাল প্রেমের কাঙাল’ প্রভৃতি।
বাংলা চলচ্চিত্রের গানে অবদান রাখার জন্য তিনি কয়েকবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

/এমএম/এমওএফ/

লাইভ

টপ