এবার এফডিসিতে একাই কোরবানি দেবেন পরীমনি

Send
বিনোদন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৩:৫৪, জুলাই ২৯, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৭:৩৬, জুলাই ২৯, ২০২০

শেষ কোরবানির ঈদে এভাবেই মাংস বন্টন করলেন পরী ২০১৬ সালে বিএফডিসিতে কোরবানি দেওয়ার রীতি শুরু করেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। প্রথম বছর একটি দিয়ে কোরবানি শুরু হলেও পরের বছরগুলোতে যথাক্রমে দুটি, তিনটি ও চারটি করে গরু কোরবানি দেন এ নায়িকা।

২০১৭ সাল থেকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতিও একই উদ্যোগ নেয়। পরী ও সমিতির এই যৌথ কোরবানি কালচারের উদ্দেশ্য, অসচ্ছল ও কম আয়ের শিল্পীদের মাঝে মাংস বিতরণ করা।
তবে চলতি বছর করোনার কারণ দেখিয়ে শিল্পী সমিতি পিছু হটলেও পরীমনি অনড় রয়েছেন তার সিদ্ধান্তে। তিনি এবার এফডিসিতেই দিচ্ছেন কোরবানি। এবার তিনি দেবেন ৫টি গরু। কারণ এটি পঞ্চম বর্ষ।
পরীমনি বলেন, ‌‘মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে কোরবানি নিয়ে এবার একটু বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হচ্ছে। পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এ বছর ৫টি গরু কোরবানি দেবো। করোনার কারণে কোরবানি বন্ধ রাখার মানে নেই।’
এই নায়িকা জানালেন, চেষ্টা করবেন শিল্পী ছাড়াও চলচ্চিত্রের সকল অসহায় কলাকুশলীর মাঝে এই মাংস বিতরণ করার।

রানির বদলে নিজেকে এবার রাজা মনে হচ্ছে!

অন্যদিকে সাম্প্রতিক সময়ে নানা কারণে তোপের মুখে থাকা শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বললেন, ‘কসাইরা বিভিন্ন জায়গায় কাজ করবে। তাই তাদের নিয়ে কোরবানির আয়োজন করাটা অনেক ঝুঁকিপূর্ণ। এছাড়া বাড়ি বাড়ি গিয়ে মাংস পৌঁছে দেওয়াটাও কঠিন হবে। তাই এবার আমরা সমিতির পক্ষ থেকে কোনও কোরবানি দিচ্ছি না। তবে অসচ্ছল শিল্পীরা যেন মাংস কিনতে পারেন, এ জন্য নগদ অর্থ দিয়েছি।’
২০১৬ সাল থেকে পরীমনির হাত ধরে এফডিসিতে কোরবানি দেওয়াটা রীতিতে পরিণত হয়েছে। যার মধ্যদিয়ে এই নায়িকা এফডিসিকেন্দ্রিক অসহায় মানুষদের কাছে অসম্ভব প্রিয়। কারণ, পরীর এসব সামাজিক উদ্যোগ বরাবরই থাকে সমিতি ও রাজনীতিমুক্ত।

/এম/এমএম/এমএমজে/

লাইভ

টপ