X
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
১১ আশ্বিন ১৪২৯

২০ রুপির জন্য ২২ বছরের আইনি লড়াই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১১ আগস্ট ২০২২, ২০:৫৮আপডেট : ১১ আগস্ট ২০২২, ২০:৫৮

ভারতের এক ব্যক্তি রেলওয়ের টিকিটে অতিরিক্ত কেটে নেওয়া ২০ রুপি ফেরত পেতে প্রায় ২২ জনের আইনি লড়াইয়ে জিতেছেন। ১৯৯৯ সালে আইনজীবী তুংনাথ চতুর্বেদীর দুটি টিকিট কেনার সময় এই অতিরিক্ত অর্থ রেখে দেওয়া হয়েছিল। উত্তর প্রদেশের মথুরা ক্যান্টনমেন্ট রেল স্টেশনে ঘটনাটি ঘটেছিল। গত সপ্তাহে ভারতের একটি ভোক্তা আদালত তার পক্ষে রায় দিয়েছে এবং রেলওয়েকে সুদসহ অর্থ ফেরতের নির্দেশ দিয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এখবর জানিয়েছে।

৬৬ বছর বয়সী চতুর্বেদী বলেন, এই মামলা সংশ্লিষ্ট শতাধিক শুনানিতে আমি হাজির হয়েছি। কিন্তু মামলাটির জন্য আমার যে সময় ও শ্রম ব্যয় হয়েছে সেটির কোনও মূল্য হয় না।

ভারতের ভোক্তা আদালত বিভিন্ন সেবা নিয়ে অভিযোগের নিষ্পত্তি করে। তবে এই আদালতে মামলার জট থাকে। অনেক সাধারণ একটি মামলা নিষ্পত্তির জন্য কয়েক বছর সময় লেগে যায়।

উত্তরপ্রদেশে বসবাসকারী চতুর্বেদী মথুরা থেকে মোরাদাবাদ যাচ্ছিলেন। টিকিট বুকিংয়ের তার কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ নেওয়া হয়। প্রতিটি টিকিটের দাম ছিল ৩৫ রুপি। তিনি ১০০ রুপির নোট দিলে কাউন্টার থেকে ১০ রুপি ফেরত দেওয়া হয়। এর ফলে ৭০ রুপির বদলে ৯০ রুপি পড়ে তার টিকিট দুটির দাম।

টিকিট ক্লার্ককে তিনি অতিরিক্ত অর্থ কাটার কথা বললেও চতুবের্দী কোনও অর্থ ফেরত পাননি। ফলে তিনি নর্থ ইস্ট রেলওয়ে (গোর্খাপুর) ও বুকিং ক্লার্কের বিরুদ্ধে মথুরার একটি ভোক্তা আদালতে মামলা দায়ের করেন।

ভারতের বিচার ব্যবস্থার দীর্ঘসূত্রিতার জন্য রায় পেতে এত বছর লেগেছে বলে জানিয়েছেন চতুর্বেদী। তিনি বলেন, রেলওয়ে মামলাটি উড়িয়ে দিতে চেষ্টা করেছিল। তারা দাবি করেছিল, রেলওয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ ভোক্তা আদালত নয়, রেলওয়ের ট্রাইব্যুনালে মীমাংসা হওয়া উচিত।

রেলওয়ের দাবি, ভারতে রেল ভ্রমণ সংশ্লিষ্ট অভিযোগ মীমাংসার জন্য আধা-বিচারিক এই ট্রাইব্যুনাল গড়ে তোলা হয়েছে।

চতুর্বেদী বলেন, কিন্তু আমরা ২০২১ সালের সুপ্রিম কোর্টের একটি রুলিং কাজে লাগিয়েছি। যাতে বলা হয়েছে অভিযোগটি ভোক্তা আদালতে শুনানি হতে পারে।

তিনি আরও জানান, বিচারকরা ছুটিতে থাকার কারণেও বিভিন্ন সময় শুনানি বিলম্বিত হয়েছে।

দীর্ঘ এই আইনী লড়াই শেষে বিচারকরা রেলওয়েকে ১৫ হাজার রুপি জরিমানা পরিশোধের নির্দেশ দিয়েছেন। আদালত নির্দেশ দিয়েছে, ১৯৯৯ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত ২০ রুপির জন্য প্রতি বছর ১২ শতাংশ সুদসহ ফেরত দিতে হবে। যদি ৩০ দিনের মধ্যে এই অর্থ পরিশোধ করা না হয় তাহলে সুদের হার বেড়ে দাঁড়াবে ১৫ শতাংশ।

চতুর্বেদীর দাবি, তিনি যে ক্ষতিপূরণ পেয়েছে তা তুচ্ছ। তাকে যে মানসিক ক্ষতির শিকার হয়েছেন তা পূরণ হয়নি। এমনকি তার পরিবারও মামলাটি চালানো থেকে তাকে নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেছে। তারা এটিকে সময়ের অপচয় বলে উল্লেখ করেছে। কিন্তু তিনি ছিলেন অটল।

চুতর্বেদী বলেন, বিষয়টি অর্থের নয়। এটি ছিল ন্যায় বিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই। তাই এটি ছিল যথার্থ। এছাড়া আমি নিজেই যেহেতু আইনজীবী ফলে মামলার পরিচালনা ও যাতায়াতের জন্য আমার অর্থ ব্যয় করতে হয়নি। তা না হলে ব্যয় অনেক হতো।

তিনি মনে করেন, সরকারি কর্মীর পদবী যা-ই হোক না কেন মানুষ যদি প্রশ্ন তুলে তাহলে কোনও ভুল করে ছাড় পাবে না। তার এই মামলা অনুপ্রেরণা হতে পারে তাদের জন্য যারা লড়াই কঠিন হলেও হাল ছাড়তে রাজি না।

 

/এএ/
সম্পর্কিত
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
ইতালির নির্বাচনে ডানপন্থী জর্জিয়া মেলোনির জয়
ইতালির নির্বাচনে ডানপন্থী জর্জিয়া মেলোনির জয়
যুক্তরাজ্য ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূতকে তলব ইরানের
যুক্তরাজ্য ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূতকে তলব ইরানের
তিন দিনের সাজা ভোগ করলেন ১১ মাস
তিন দিনের সাজা ভোগ করলেন ১১ মাস
বাংলা ট্রিবিউনের সর্বশেষ
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ২৯
নৌকাডুবিতে মৃত্যু বেড়ে ২৯
হাজারীবাগে কুরিয়ার সার্ভিস ডিপোতে ‘বিস্ফোরণ’, নিহত ১ 
হাজারীবাগে কুরিয়ার সার্ভিস ডিপোতে ‘বিস্ফোরণ’, নিহত ১ 
৯ ঘণ্টা পর আবার উদ্ধার অভিযান শুরু
৯ ঘণ্টা পর আবার উদ্ধার অভিযান শুরু
এ বিভাগের সর্বশেষ
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
অবশেষে কাঙ্ক্ষিত আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পেলো ইউক্রেন
ইতালির নির্বাচনে ডানপন্থী জর্জিয়া মেলোনির জয়
ইতালির নির্বাচনে ডানপন্থী জর্জিয়া মেলোনির জয়
যুক্তরাজ্য ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূতকে তলব ইরানের
যুক্তরাজ্য ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূতকে তলব ইরানের
রাশিয়াকে ‘বিপর্যয়কর’ পরিণতির হুঁশিয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের
রাশিয়াকে ‘বিপর্যয়কর’ পরিণতির হুঁশিয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের
নাগরিকদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছেন পুতিন: জেলেনস্কি
নাগরিকদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছেন পুতিন: জেলেনস্কি