নাগরিকত্ব আইন পাসের সিদ্ধান্ত ১০০০ শতাংশ সঠিক: মোদি

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ০০:০৩, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:০৭, ডিসেম্বর ১৬, ২০১৯

ভারতের পার্লামেন্টে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস করার সিদ্ধান্তকে ১০০০ শতাংশ সঠিক বলে দাবি করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রবিবার (১৫ ডিসেম্বর) ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় ঝাড়খণ্ড রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারণার সময় তিনি এ মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও পাকিস্তান থেকে নিপীড়নের মুখে ভারতে পালিয়ে যাওয়া হিন্দু, বৌদ্ধ, শিখ, জৈন, পার্সি ও খ্রিস্টানদের নাগরিকত্ব নিশ্চিতে সম্প্রতি আইন সংশোধন করেছে ভারত। ১২ ডিসেম্বর রাতে প্রেসিডেন্টের স্বাক্ষরের পরেই আইনে পরিণত হয়েছে বিতর্কিত বিলটি। এই বিতর্কিত আইন প্রত্যাহারের দাবিতে দেশজুড়ে সরব একাধিক রাজনৈতিক দল। চলছে দফায় দফায় আন্দোলন।

রবিবার ঝাড়খণ্ডে নাগরিকত্ব আইনের গুরুত্ব তুলে ধরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশে যেসব সংখ্যালঘু নির্যাতনের শিকার, তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন ও তাদের জীবনযাত্রার উন্নয়ন করা জরুরি। প্রতিবেশী দেশগুলোর ওই নির্যাতিত সংখ্যালঘুদেরকে এই আইন ভারতীয় নাগরিক হওয়ার সুযোগ করে দেবে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের পার্লামেন্ট নাগরিকত্ব আইনের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের সংশোধনী এনেছে, যার ফলে প্রতিবেশী তিন দেশের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের মধ্যে যারা সেখানে নির্যাতনের শিকার, তারা এখানে আশ্রয় পাবে। আমাদের সিদ্ধান্ত ১০০০ শতাংশ সঠিক। কংগ্রেসের কার্যক্রমে এটা প্রমাণ করে যে, পার্লামেন্টে পাস হওয়া সব সিদ্ধান্ত যথার্থ।’

এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, নাগরিকত্ব আইনের ইস্যুতে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের আন্দোলনে উসকানি দিচ্ছে কংগ্রেস। তিনি বলেন, ঝাড়খণ্ডের উন্নয়নে ঝাড়খণ্ড মুক্তিমোর্চা ও কংগ্রেসের কোনও পরিকল্পনা নেই। তথ্য: হিন্দুস্তান টাইমস

/এইচকে/

লাইভ

টপ