X
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪
১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

একাকিত্ব দূর করতে যে উপায় বেছে নিলো সুইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২১ নভেম্বর ২০২৩, ১৬:২৩আপডেট : ২১ নভেম্বর ২০২৩, ১৬:২৩

প্রচণ্ড শীতেও সূর্যের দেখা মিলছে না বা মিললেও খুবই অল্প সময়। এমনই একটা দেশ হলো সুইডেন। যেখানে বছরের কিছু সময় সূর্যের দেখা মিললেও তা থাকে ২৪ ঘণ্টায় মাত্র তিন ঘণ্টা। আর এই দেশটির বড় সমস্যা হলো একাকিত্ব। এই সমস্যাকে দূর করতে  রাস্তায়, বাসে, স্কুলে, কাজের জায়গায় একে অপরকে দেখা মাত্র ‘হাই’ বলার প্রচারণা শুরু হয়েছে সুইডিশরা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান এ খবর জানিয়েছে। 

সুইডেনের উত্তরের একটি শহর হলো লুলিয়া যেখানে মাইনাস ১০ ডিগ্রি তাপমাত্রার সত্ত্বেও  সমুদ্রের বরফ পানিতে প্রতিদিন নিয়ম করে সাঁতার কাটেন ক্যাটরিনা ইলিপারটুলা নামের ৪৪ বছর বয়সী এক নারী। শুনতে অবিশ্বাস্য মনে হলেও ঘটনা সত্য। গরমের দিনে সাঁতার না কাটলেও শীতে কাজে যাওয়ার আগে বেশ আরাম করেই বরফ পানিতে ভেসে বেড়ান তিনি। বেশ কয়েক বছর ধরে এ অভ্যাস গড়ে তুলেছেন তিনি। এছাড়া স্কিইং, বরফের রাস্তায় হাঁটার মতো নানা অভ্যাস গড়ে তুলেছেন স্থানীয় মানুষ। গবেষকদের মতে মানুষ এসব অভ্যাস গড়ে তুলছে একাকিত্ব থেকে। 

একাকিত্ব দূর করতে এবার উদ্যোগ নিয়েছেন সুইডেন মিউনিসিপিলিটি। কাজের জায়গা থেকে শুরু করে স্কুল, বাস সব জায়গায় ’হাই’ বলার ক্যাম্পেইন শুরু করেছে তারা। এর মাধ্যমে মানুষের একে অপরের মধ্যে যোগাযোগ বাড়ছে।

সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে ১৬ থেকে ২৯ বছর বয়সীদের মধ্যে, লুলিয়ার ৪৫ শতাংশ মানুষ একাকিত্বের ফলে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। তবে ৮৫ বছর বা তার বেশি বয়সীদের মধ্যে এই সংখ্যাটি অনেক কম। নারীদের মধ্যে যা ৩৯ শতাংশ এবং পুরুষদের মধ্যে ২৬ শতাংশ।

স্টকহোম স্কুল অফ ইকোনমিক্সের ওয়েলফেয়ার, ওয়েলবিং অ্যান্ড হ্যাপিনেসের অধ্যাপক মাইকেল ডাহলেন বলেছেন, একাকিত্ব - বিশেষ করে তরুণদের মধ্যে  একটি বৈশ্বিক সমস্যা এবং সুইডেনে শীতের সময়ের অন্ধকারের জন্য এ সমস্যা আরও প্রকট। তিনি বলেন, একাকিত্ব এবং বিচ্ছিন্নতা এই মুহূর্তে বিশ্বের যে কোনও জায়গায় বড় ধরনের একটি সমস্যা। আর শীতের দেশগুলোতে মানুষ কম বের হয়, সামাজিকভাবে যোগাযোগও কম হয়, তাই সমস্যাও জটিল হচ্ছে। 

এদিকে আসা কোস্কি নামের এক ব্যক্তি যিনি লুলিয়া মিউনিসিপিলিটিতে কর্মরত তিনিই মূলত এই অভিনব ‘হাই’ ক্যাম্পেইনের উদ্যোক্তা।  তিনি বলেন, আমরা চাই না লুলিয়া শুধু শহর হিসেবে বেড়ে উঠুক আমরা চাই নিরাপদ ও বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ গড়ে উঠুক। এই অভ্যাস গড়ে তোলা উচিত এতে করে বন্ধুত্বপূর্ণ সমাজ গড়ে উঠবে। 

/এসএসএস/
সম্পর্কিত
খারকিভে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৭
ভিয়েতনামে অগ্নিকাণ্ডে নিহত ১৪
ইরানের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়ন চায় বাহরাইন
সর্বশেষ খবর
খারকিভে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৭
খারকিভে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহত ৭
নির্মাণের ২ মাস পর থেকেই বন্ধ চট্টগ্রামের একমাত্র এস্কেলেটর ফুটওভার ব্রিজটি
নির্মাণের ২ মাস পর থেকেই বন্ধ চট্টগ্রামের একমাত্র এস্কেলেটর ফুটওভার ব্রিজটি
সোহাগসহ পাঁচ জনকে ফিফার সাজা
সোহাগসহ পাঁচ জনকে ফিফার সাজা
টাকা না পেয়ে পোস্ট অফিসে নারীর আত্মহত্যার চেষ্টা
টাকা না পেয়ে পোস্ট অফিসে নারীর আত্মহত্যার চেষ্টা
সর্বাধিক পঠিত
নেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
এমপি আজীম হত্যাকাণ্ডনেপথ্যে ২০০ কোটি টাকার লেনদেন, সিলিস্তাকে দিয়ে হানি ট্র্যাপ
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
পূর্ব তিমুরের মতো খ্রিষ্টান দেশ বানানোর চক্রান্ত চলছে: শেখ হাসিনা
কবে থেকে পরিকল্পনা ও কেন কলকাতায় হত্যা, জানালো ডিবি
এমপি আনার হত্যাকবে থেকে পরিকল্পনা ও কেন কলকাতায় হত্যা, জানালো ডিবি
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্র?
এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না আমার ভাই এমপি হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে: মেয়র সেলিম
এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না আমার ভাই এমপি হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে: মেয়র সেলিম