X
সোমবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২২, ১০ মাঘ ১৪২৮
সেকশনস

‘ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ করে একটি চক্র সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করছে’

আপডেট : ০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:২৩

নতুন বর্ধিত ভাড়ার চেয়ে বেশি আদায়ের কারণে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘটছে বাগবিতণ্ডা, হাতাহাতি এবং বাস থেকে ফেলে দেওয়ার মতো ঘটনা। চুক্তিভিত্তিতে গাড়ি চালানোর কারণে অতিরিক্ত যাত্রীর আশায় বেপরোয়া গতির কারণেও ঘটছে প্রাণহানি। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঘটছে বাস ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ড। আর এসব ঘটনার জন্য পরিবহন মালিক ও একশ্রেণির পরিবহন নেতাদেরই দুষছেন বিশেষজ্ঞরা।

একদিকে ভাড়া নৈরাজ্য, অন্যদিকে পরিবহন শ্রমিকদের ক্রমাগত চাপ ও মালিকদের লোভের কারণে রাস্তায় কমছে না দুর্ঘটনা। সোমবার ২৯ নভেম্বর রাতে রামপুরা বাজার এলাকায় রাস্তা পার হতে গিয়ে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় পিষ্ট হয়ে মারা যায় একরামুন্নেসা স্কুল এন্ড কলেজের এসএসসি পরীক্ষার্থী মইনুদ্দিন ইসলাম দূর্জয়। মৃত্যুর পর ১২টি বাসে ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে এ ধরনের ভাঙচুর ও অগ্নিকাণ্ডের নেপথ্যে ষড়যন্ত্রের গন্ধ পাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। জোরদার রয়েছে সাইবার মনিটরিং। উস্কানিদাতাদের চিহ্নিত করে নেওয়া হবে আইনানুগ ব্যবস্থা।

সড়ক দুর্ঘটনায় শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় শিক্ষার্থীরা রাস্তায় আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। নিরাপদ সড়ক আন্দোলনে ৯ দফা দাবি বাস্তবায়ন চায় তারা। কিন্তু এ আন্দোলনকে কেন্দ্র করে কেউ যেন অরাজকতা তৈরি করতে না পারে, সে বিষয়ে তৎপর রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শিক্ষার্থীদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ার পুঞ্জীভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশই এ আন্দোলন। যে আন্দোলনে ঘি ঢেলেছে একটি কুচক্রী মহল।

নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবিব বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, কুচক্রী একটি মহলের যোগসাজশে ঘটনার পরবর্তী ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ ঘটানো হয়। ভাঙচুর কিংবা আগুন জ্বালিয়ে পুরো বিষয়টা তাদের তাদের দিকে নেওয়ার চেষ্টা করতে পারে। অতীতে এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলেই বলা যাচ্ছে এবারও তাদের ইন্ধন থাকতে পারে।

তিনি বলেন, নিম্নবিত্ত, নিম্ন মধ্যবিত্তরা বাসে চলাচল করে। তাদের সঙ্গে মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেওয়া হলো খেটে খাওয়া শ্রমিক, ড্রাইভার ও হেলপারদের। এরাও তো দিন আনে দিন খায়। গাড়ি চললে তাদের পরিবারের মুখে খাবার ওঠে। এই দুই শ্রেণিকে মুখোমুখি করে ফায়দা লুটছে পরিবহন মালিকরা। সেবার মান নিয়ে কোনও কথা বলে না ওরা। এমনকি ডিজেলের দাম কমানোর দাবি ছিল না তাদের। তাদের দাবি ছিল ভাড়া বাড়ানোর। বর্তমান পরিস্থিতিকে শুধু ভাড়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখার সুযোগ নেই।

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন মনে করেন, শিক্ষার্থীরা একটি দাবি নিয়ে রাস্তায় নামেনি। শুধু হাফ ভাড়া কার্যকর করে সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়। শিক্ষার্থীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে নিরাপদ সড়কের দাবিতে। এজন্য তারা ৯ দফা দাবি উপস্থাপন করেছে। এ বিষয়ে সরকারকে দৃশ্যমান পদক্ষেপ নিতে হবে। তা না হলে শিক্ষার্থীদের পুঞ্জীভূত ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ চলতেই থাকবে।

বুয়েট-এর এক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এআরআই)-এর অধ্যাপক ড. হাদিউজ্জামান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমাদের পরিবহন সেক্টরে যে বিশৃঙ্খল পরিবেশ চলছে, এটা কমাতে পরিবহনগুলোকে একটি নির্দিষ্ট কাঠামোর মধ্যে আনতে হবে। টিকিট সিস্টেমের কোনও বিকল্প নেই। সিস্টেমটি আগে ছিল। হঠাৎ উধাও হয়ে গেল। যাত্রীদের সুকৌশলে জিম্মি করা হচ্ছে। যে কারণে বাগবিতণ্ডা লেগেই আছে।

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, কোনও একটি দুর্ঘটনার পর বাসে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটছে। একটি চক্র সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করছে। এসব নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।

ডিএমপির গোয়েন্দা শাখার অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সরকার এরই মধ্যে শিক্ষার্থীদের বেশকিছু দাবি মেনে নিয়েছে। তারপরও অনেকে নিরাপদ সড়কের দাবিতে সড়কে অবস্থান করছে। এসব বিষয় আমরা নজরদারিতে রাখছি। দেখতে পাচ্ছি এসব ঘটনায় অনেকে উস্কানি দিচ্ছে। এসব প্রতিরোধে আমাদের সাইবার মনিটরিং জোরদার রয়েছে। ট্রাফিক সিকিউরিটি সিস্টেম সেফটি নিয়েও সবাইকে অবহিত হওয়া দরকার। সড়কের সেফটি নিয়ে আমরা একটি ক্যাম্পেইন শুরু করবো। যারা পেছনে থেকে আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে নেওয়ার উস্কানি দিচ্ছে তাদেরকেও পেট্রোলিং-এর আওতায় আনছি।

/এফএ/এলকে/
সম্পর্কিত
এসবিএসি’র সাবেক পরিচালক ক্যাপ্টেন মোয়াজ্জেমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
এসবিএসি’র সাবেক পরিচালক ক্যাপ্টেন মোয়াজ্জেমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
দৃশ্যমান স্থানে গণপরিবহনের ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ও কার্যকরের নির্দেশ
দৃশ্যমান স্থানে গণপরিবহনের ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ও কার্যকরের নির্দেশ
ক্রিকেটার নাসির ও তার স্ত্রীর অভিযোগ গঠন বিষয়ে আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি
ক্রিকেটার নাসির ও তার স্ত্রীর অভিযোগ গঠন বিষয়ে আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি
অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র-মালামাল ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারে পুরস্কৃত যারা
অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র-মালামাল ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারে পুরস্কৃত যারা
সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
এসবিএসি’র সাবেক পরিচালক ক্যাপ্টেন মোয়াজ্জেমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
এসবিএসি’র সাবেক পরিচালক ক্যাপ্টেন মোয়াজ্জেমকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
দৃশ্যমান স্থানে গণপরিবহনের ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ও কার্যকরের নির্দেশ
দৃশ্যমান স্থানে গণপরিবহনের ভাড়ার চার্ট প্রদর্শন ও কার্যকরের নির্দেশ
ক্রিকেটার নাসির ও তার স্ত্রীর অভিযোগ গঠন বিষয়ে আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি
ক্রিকেটার নাসির ও তার স্ত্রীর অভিযোগ গঠন বিষয়ে আদেশ ৯ ফেব্রুয়ারি
অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র-মালামাল ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারে পুরস্কৃত যারা
অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র-মালামাল ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারে পুরস্কৃত যারা
সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ৮৫ বার পেছালো
সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ৮৫ বার পেছালো
© 2022 Bangla Tribune