সংসদে বিকেএসপি বিল পাস

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৫৩, জানুয়ারি ২৮, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৯:৫৫, জানুয়ারি ২৮, ২০২০

বিকেএসপিজাতীয় সংসদে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) বিল- ২০১৯ পাস হয়েছে। বিলে দেশি খেলাধুলার বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করার কথা বলা হয়েছে। মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বিলটি প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়।
এর আগে বিলের ওপর জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে পাঠানো এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলোর নিষ্পত্তি করেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। গত ১২ সেপ্টেম্বর বিলটি সংসদে তোলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী। পরে সেটি পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়।
১৯৮৩ সালের অধ্যাদেশকে আইনে রূপান্তর করতে বিলটি আনা হয়েছে। বিলে বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে এক-তৃতীয়াংশ সদস্য উপস্থিত থাকলে কোরাম এবং বছরে দুইবার সভা করার বিধান রাখা হয়েছে। বিলে বলা হয়েছে, যুব ও ক্রীড়ামন্ত্রীর দায়িত্বে যিনি থাকবেন তিনি হবেন বোর্ডের চেয়ারম্যান। ২১ সদস্যের পরিষদ হবে। মনোনীত সদস্যদের মেয়াদ তিন বছর। অধ্যাদেশে অন্যান্য যেসব বিষয় ছিল সেগুলোকে নতুন আইনে আগের মতোই রাখা হয়েছে।
বিলের তফসিলে ৪২টি দেশি খেলা তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। সেগুলো হলো, হাডুডু, ডাঙ্গুলি, গোল্লাছুট, সাতচাড়া, মোরগ লড়াই, বৌছি, ইচিং বিচিং, কানামাছি ভোঁ ভোঁ, দাঁড়িয়াবান্ধা, এক্কা-দোক্কা, কুতকুত, রুমাল লুকানো, ওপেনটি বাইস্কোপ, ফুল টুকা, দড়িলাফ, বিস্কুট দৌড়, সুইসুতা দৌঁড়, তৈলাক্ত বাঁশ, কলাগাছে উঠা, লাঠি খেলা, ঘুড়ি ওড়ানো, বালিশ যুদ্ধ, রশি টানাটানি, ষাড়ের লড়াই, গরুর গাড়ির দৌড়, ঘৌড় দৌড়, বস্তা দৌড়, বালিশ বদল, বলি খেলা, লুড়ু খেলা, পাঞ্জা লড়াই, লাটিম খেলা, গুলতি ছোড়া, ভেলা বাইচ, গুটি খেলা, তীর-ধনুক খেলা, চাকা দৌড়ানো, মার্বেল খেলা, কড়ি খেলা, হাড়ি ভাঙ্গা, হাঁস খেলা, ব্যাঙ দৌড়।
বিকেএসপিকে এসব দেশীয় খেলাধুলার বিষয়ে প্রশিক্ষণ ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে বলা হয়েছে।

 

 

 

/ইএইচএস/ওআর/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ