টানা বৃষ্টি না হলে কমবে না এই ভ্যাপসা গরম

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৯:৩৭, জুন ০৬, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২০:০২, জুন ০৬, ২০২০

দাবদাহে অস্থির মানুষ একটু স্বস্তির আশায়। ছবি-ইন্টারনেট

একদিকে থেমে থেমে বৃষ্টি অন্যদিকে ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। বাতাসে জ্বলীয় বাষ্প এবং আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি হলেও বৃষ্টির পরিমাণ বেশি না হওয়ার কারণে এই ভ্যাপসা গরম লাগছে। আর কয়েকদিন পর থেকেই শুরু হবে বর্ষার বৃষ্টি। তখন টানা বৃষ্টিতে এই গরম থাকবে না বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়াবিদ আফতাব উদ্দিন বলেন, গত কয়েকদিনের তাপদাহ কমতে দরকার টানা ভারী বৃষ্টি। টানা বৃষ্টি না হওয়া এবং বৃষ্টির পরিমাণ কম হওয়ার কারণে বাতাসে আর্দ্রতা থাকার পরও গরম অনুভূত হচ্ছে। তিনি বলেন, অল্প বৃষ্টির কারণে মাটি থেকে ভাপ উঠছে তাই আবহাওয়া ভ্যাপসা হয়ে যাচ্ছে। ফলে তাপমাত্রার চেয়েও গরম বেশি অনুভূত হচ্ছে।

শনিবার ( ৬ জুন) দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল খুলনায় ৩৫ দশমিক ২ ডিগ্রি। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ঢাকা, আজ ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ময়মনসিংহে ৩২ দশমিক ৮, চট্টগ্রামে ৩৩ দশমিক ৫, সিলেটে ৩৩ দশমিক ৮, রংপুরে ৩৩ দশমিক ৬, রাজশাহীতে ৩৩ দশমিক ৭ এবং বরিশালে ৩৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, এখন যে বৃষ্টি হচ্ছে তা পশ্চিমা লঘুচাপের প্রভাবে। পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও এর আশেপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। পূর্বাভাসে বলা হয়, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়; রংপুর, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং খুলনা ও রাজশাহী বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

এদিকে আজ শনিবার দিবাগত রাত ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, ময়মনসিংহ, সিলেট, কুমিল্লা, নোয়াখালী এবং চট্টগ্রাম অঞ্চলগুলোর ওপর দিয়ে পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ২ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দেশের অন্য এলাকায় পশ্চিম বা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। একইসঙ্গে বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর নৌ-হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

/এসএনএস/এমআর/এমএমজে/

লাইভ

টপ