অপেক্ষা ষষ্ঠীর, সন্ধ্যার পর বন্ধ থাকতে পারে মণ্ডপ

Send
হাসনাত নাঈম
প্রকাশিত : ০৮:০০, অক্টোবর ২১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৫:৪১, অক্টোবর ২১, ২০২০

দুর্গা প্রতিমা

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা পঞ্জিকা মতে শুরু হলেও আনুষ্ঠানিকভাবে আরাধনার বাকি আর মাত্র একদিন। বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) মহাষষ্ঠীর মধ্য দিয়ে এক বছরের অপেক্ষার প্রহর শেষ হবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের। মন্দিরে মন্দিরে বাজবে শঙ্খ ও ঘণ্টা। আঙিনা মুখরিত হবে ধূপ-আগরবাতির গন্ধে। কিন্তু ভক্তরা সবাই এ বছর মেতে উঠবেন না আরাধনায়। শুধু প্রয়োজনীয় সংখ্যক ধর্মপ্রাণ হিন্দুদের নিয়ে পূজা অর্চনা করবেন পুরোহিতরা। এদিকে ‘সন্ধ্যার পর পূজামণ্ডপে প্রবেশ নিষেধ থাকতে পারে’—এমন ঘোষণা আসতে পারে বলে মনে করছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ।

মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর বেশ কয়েকটি মণ্ডপ ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিমার জন্য তৈরি হয়েছে মঞ্চ, আছে প্রয়োজনীয় সংখ্যক লাইট। তবে নেই বাড়তি আলোকসজ্জা ও সাউন্ড সিস্টেমের ব্যবস্থা। ভেতরে রয়েছে প্রতিমা। আয়োজকদের মানতে হচ্ছে সরকারি নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি। এর ফলে শুধু ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হবে এবারের দুর্গাপূজা। 

 

দুর্গা প্রতিমা

মণ্ডপ ঘুরে দেখা যায়, কোনও স্টেজেই এখনও বসানো হয়নি প্রতিমা। তবে সেগুলো বুধবার (২১ অক্টোবর) দুপুর থেকে রাতের মধ্যে বসানো হবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২২ অক্টোবর) সকালে ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান ও সন্ধ্যায় মঙ্গলপ্রদীপ জ্বালানোর মধ্য দিয়ে শুরু হবে পূজার আনুষ্ঠানিকতা।

প্রতিবছর কলাবাগান মাঠে তৈরি হয় প্রতিমা। কিন্তু মণ্ডপ হবে কি হবে না—সেই সিদ্ধান্ত নিতে দেরি হওয়ায় এবার সেভাবে প্রস্তুতি নিতে পারেনি ধানমন্ডি সার্বজনীন পূজা উদযাপন কমিটি। কমিটির সভাপতি শ্রী অমর কৃষ্ণ পোদ্দার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এ বছর প্রতিমা আমরা এই মাঠে বানাতে পারিনি। অন্য জায়গা থেকে কিনে আনতে হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে প্রতিমা মঞ্চে বসানো হবে। যেহেতু সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে উৎসব পালনের ঘোষণা করেছে, আমরা সেভাবেই প্রস্তুতি নিচ্ছি। মাঠে পুরোহিত ও প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভক্ত ছাড়া আর কেউ থাকবেন না।’

 

দুর্গা প্রতিমায় শিল্পীর তুলির আঁচড়কাওরান বাজারের মিডিয়াপাড়া পূজামণ্ডপের সুপারভাইজার বিপুল তালুকদার বলেন, ‘বুধবার সন্ধ্যায় আমরা প্রতিমা স্থাপন করবো। ষষ্ঠীর দিন সকালে পূজা হবে এবং সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত অনুষ্ঠান আছে। এই মঞ্চের বাইরে সবার জন্য একটি বড় এলইডির ব্যবস্থা থাকবে। যেখানে থেকে সবাই অনুষ্ঠানটি দেখতে পারবেন। অনুষ্ঠানটি রাতে আবারও অনএয়ার করা হবে। এবারের প্রতিমা পিতল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। আমরা ‘ঘট’ বিসর্জন দেবো।’

এবারের পূজা উদযাপন নিয়ে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্রী নির্মল কুমার চ্যাটার্জী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘বুধবার মহানগর সার্বজনীন পূজা উদযাপন কমিটি ঢাকা সিটির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করবে। সেখানে সন্ধ্যার পর পূজামণ্ডপ বন্ধ থাকার ঘোষণা আসতে পারে।’

 ছবি: নাসিরুল ইসলাম

/এইচএন/আইএ/এমএমজে/

লাইভ

টপ