X
বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪
৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

‘চাঁদাবাজিতে জড়িতরা ঈদযাত্রায় চাঁদা বন্ধের দায়িত্ব পান’

বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
১০ জুন ২০২৪, ১৪:৩০আপডেট : ১০ জুন ২০২৪, ১৪:৩০

বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেছেন, যারা সড়কে চাঁদাবাজিতে জড়িত তাদের ওপর ঈদযাত্রায় চাঁদা বন্ধের দায়িত্ব দেওয়া হয়। এ কারণে তারা চাঁদাবাজি বন্ধের সিদ্ধান্ত আটকে দেয়।

সোমবার (১০ জুন) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি আয়োজিত এক আলোচনায় তিনি এ সব কথা বলেন।

ঈদ যাত্রায় ৯০ শতাংশের বেশি যাত্রীকে দুই-তিন গুণ বেশি ভাড়া দিতে হয় বলে মন্তব্য করেন মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধ না করে বরং যাত্রীরা স্বল্প দূরত্বে গেলেও রুট পারমিটের শেষ গন্তব্য পর্যন্ত ভাড়া দেওয়ার নির্দেশনা দিয়ে থাকে।’

তিনি বলেন, ‘লক্কড়-ঝক্কড় বাস চালাতে যারা পৃষ্ঠপোষকতা করেন, তাদের ওপর ঈদযাত্রায় এ সব বাস চলাচল বন্ধের দায়িত্ব দেওয়া হয়। প্রতি ঈদে ফিটনেসবিহীন বাসের ছাদে, খোলা ট্রাকে, পণ্যবাহী পরিবহনে যাত্রী বহন কঠোরভাবে নিশেধের ঘোষণা বিভিন্ন পক্ষ থেকে দেওয়া হলেও প্রকৃতপক্ষে পরিবহন সংকট, বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের কারণে নিম্ন আয়ের লোকজনের এ সব পরিবহনে যাতায়াত ঠেকানো যায় না। বরং এ সব পরিবহন যাদের বন্ধ করার কথা তারা জায়গায় জায়গায় এ সব যানবাহন আটকে উৎকোচ নেন।’

যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব বলেন, ‘দেশের সড়ক-মহাসড়কে নসিমন-করিমন, ভটভটি, অটোরিকশা চলাচলে যারা উপকারভোগী, তাদের ওপর এ সব বযানবাহন চলাচল বন্ধের দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। বাস্তবে সড়কে নৈরাজ্য, বিশৃঙ্খলা থেকে যারা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে উপকারভোগী সড়ক দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণের দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে তাদের ওপর। এতে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। প্রতি ঈদে সড়ক দুর্ঘটনা ও পরিবহনে বিশৃঙ্খলায় প্রাণহানি এবং মানুষের যাতায়াতে হয়রানি ও ভাড়া নৈরাজ্য বেড়েই চলেছে। সরকারের ধারাবাহিকতায় কোটি কোটি টাকা খরচ করে সড়কে অবকাঠামো উন্নত করলেও পরিবহনে বিশৃঙ্খলা ও সড়ক দুর্ঘটনায় সরকারের ইমেজ প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে।’

/এএজে/আরকে/
সম্পর্কিত
ঈদুল আজহায় ৫ দিনের ছুটি পাচ্ছেন সরকারি চাকরিজীবীরা
ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ দিতে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ 
কোরবানির পশুর হাটে জাল নোট ও প্রতারণা ঠেকাতে ‘ডিজিটাল সেবা’
সর্বশেষ খবর
নিরাপত্তা হুমকির মুখে পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডারকে উন্নত করছে ন্যাটো
নিরাপত্তা হুমকির মুখে পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডারকে উন্নত করছে ন্যাটো
‘সুপার এইট’ মিশনে বাংলাদেশের সামনে এবার ডাচরা
‘সুপার এইট’ মিশনে বাংলাদেশের সামনে এবার ডাচরা
বাংলাদেশে ১০ শিশুর মধ্যে ৯ জনই পারিবারিক সহিংসতার শিকার: ইউনিসেফ
বাংলাদেশে ১০ শিশুর মধ্যে ৯ জনই পারিবারিক সহিংসতার শিকার: ইউনিসেফ
ঈদসংখ্যা
ঈদসংখ্যা
সর্বাধিক পঠিত
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
ড. ইউনূসের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে: দুদক পিপি
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা, আমরা বাংলাদেশের সার্বভৌমত্বকে সম্মান করি: ডোনাল্ড লু
কাঁপছে সেন্টমার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
কাঁপছে সেন্টমার্টিন, আকাশে উড়ছে যুদ্ধবিমান
‘কমিশনার ১৭০ কোটি টাকা মাফ করে দেন, এনবিআরের চেয়ারম্যান কোথায়?’
‘কমিশনার ১৭০ কোটি টাকা মাফ করে দেন, এনবিআরের চেয়ারম্যান কোথায়?’
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং
সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ, সতর্ক করে বিজিবির মাইকিং