শবে কদরের রাতে প্রার্থনায় মগ্ন মুসল্লিরা

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:৩২, জুন ১২, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:৪৩, জুন ১২, ২০১৮

সারাদেশে যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পালিত হচ্ছে পবিত্র লাইলাতুল কদর। লাইলাতুল কদর মুসলমানদের কাছে শবে কদর নামেও পরিচিত। মঙ্গলবার (১২ জুন) সন্ধ্যা থেকেই সারাদেশের মসজিদগুলোতে চলছে ওয়াজ মাহফিল। মহিমান্বিত এই রাতে কুরআন তিলাওয়াত, হামদ-না’ত, ওয়াজ মাহফিল, মিলাদ, কিয়াম ও বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে প্রার্থনা করছে মুসলিম সম্প্রদায়।

আরবি শব্দ ‘লাইলাতুল’ অর্থ রাত  এবং ‘কদর’ শব্দের অর্থ মর্যাদা। অর্থাৎ লাইলাতুল কদর অর্থ মহিমান্বিত রাত। ইসলাম ধর্ম অনুসারে, লাইলাতুল কদর মানুষের জন্য সৌভাগ্য বয়ে আনে। এই রাতে মানবজাতির ভাগ্য পুনর্নির্ধারিত হয়। এ কারণে লাইলাতুল কদরের রাত অত্যন্ত পুণ্যময়। এই রাতের ইবাদত হাজার মাসের ইবাদতের চেয়েও অধিক পূণ্যের।

মঙ্গলবার দুপুরে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদে ‘পবিত্র লাইলাতুল ক্বদরের গুরুত্ব ও তাৎপর্য’ শিরোনামে ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওয়াজ পেশ করেছেন বায়তুল মামুর জামে মসজিদের খতিব ড. মাওলানা আবদুল মুকিত আল আজহারী। ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিলে সাধারণ মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করেন।

এছাড়াও রাতে তারাবিহ নামাজের পর রাত ১০টা ৪৫ মিনিটে ‘লাইলাতুল কদরের ফজিলত ও করণীয়’ শিরোনামে ওয়াজ, মিলাদ ও দোয়ামাহফিল অনুষ্ঠিত হবে। ওয়াজ পেশ করবেন ঢাকা নেছারিয়া কামিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা কাফিলুদ্দীন সরকার সালেহী ও বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান।

এছাড়া মসজিদগুলোতে এশার নামাজ শেষে অনুষ্ঠিত হয় মিলাদ মাহফিল। শবে কদর, জাকাত ও রমজানের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা করেন খতিবরা। মুসল্লিরা যিকির এবং তাহাজ্জুদ নামাজ আদায়ের মাধ্যমে ইবাদত করছেন।

 

/এএইচ/

লাইভ

টপ