অধ্যাপক ড.তালুকদার মনিরুজ্জামান পারিবারিক কবরস্থানে শায়িত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২২:৩৩, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:১২, ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯

অধ্যাপক তালুকদার মনিরুজ্জামান

প্রখ্যাত রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. তালুকদার মনিরুজ্জামান আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার (২৮ ডিসেম্বর)  রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। রবিবার (২৯ ডিসেম্বর) মরহুমের জানাজা শেষে গাজীপুরের পারিবারিক কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রাক্তন অধ্যাপক ও নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মনিরুজ্জামান ব্রেন স্ট্রোক করলে ৯ ডিসেম্বর তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছিল। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।

১৯৩৮ সালের ১ জুলাই সিরাজগঞ্জের তারাকান্দি গ্রামে জন্ম অধ্যাপক মনিরুজ্জামানের।

অধ্যাপক মনিরুজ্জামানের ছেলে সাদিদ মুনির বলেন, রবিবার বাদ আসর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে তাঁর বাবার জানাজা হয়।

বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান জানান, গাজীপুরে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

অধ্যাপক মনিরুজ্জামান মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর ও শত নাগরিক। শোকবার্তায় মির্জা ফখরুল বলেন, দেশে গণতন্ত্রের ঘাটতিতে বর্তমানে যে নৈরাজ্যকর অবস্থা বিরাজমান সেটির অবসানের জন্য ড. তালুকদারের মতো একজন রাষ্ট্রবিজ্ঞানীর বেঁচে থাকা ছিল জরুরি। রাষ্ট্র-সমাজে গণতন্ত্রের বিকাশের অপরিহার্যতা ছিল ড. তালুকদারের চিন্তা, গবেষণা ও মননের অনুষঙ্গ। রাষ্ট্রবিজ্ঞান চর্চায় দেশের প্রখ্যাত রাষ্ট্রবিজ্ঞানীদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম।

শত নাগরিকের শোকবার্তায় বলা হয়, জাতীয় অধ্যাপক ড. তালুকদার মনিরুজ্জামানের মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। তাঁর মৃত্যুতে বাংলাদেশের সুধী সমাজ, একাডেমিক জগত এবং জাতীয় জীবনে এক বিরাট শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাস রচনায় এবং দেশীয়-আঞ্চলিক-আর্ন্তজাতিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ক রচনায় তাঁর অবদান অনস্বীকার্য।

শত নাগরিকের বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ (আহ্বায়ক), সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুর রউফ, প্রফেসর ড. আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী, অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ড. মাহবুব উল্লাহ, প্রফেসর আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, রুহুল আমিন গাজী, আবদুল হাই শিকদার (সদস্য সচিব), ড. ওয়াকিল আহমেদ, ড. খন্দকার মুশতাহিদুর রহমান, ড. সদরুল আমিন, ড. তাজমেরী এস এ ইসলাম, ড. মোসলেহ উদ্দীন তারেক, এম আব্দুল্লাহ, সৈয়দ আবদাল আহমদ, কাদের গণি চৌধুরী, ড. রাশিদুল হাসান, জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ড. আব্দুর রহমান সিদ্দিকী, ড. আখতার হোসেন খান, ড. মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন (মালয়েশিয়া), প্রফেসর ইশাররফ হোসেন (মালয়েশিয়া), ড. কেএমএ মালিক (যুক্তরাজ্য), শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ (আয়ারল্যান্ড), আতিকুর রহমান সালু (যুক্তরাষ্ট্র), জয়নাল আবেদিন (যুক্তরাষ্ট্র), মঞ্জুর আহমেদ (যুক্তরাষ্ট্র), আবদুল্লহিল বাকী (ফ্রান্স), তমিজ উদ্দিন (ইতালি), ড. এবি এম সিদ্দিকুর রহমান নিজামী প্রমুখ।

 

/এএইচআর/টিএন/

লাইভ

টপ