ঘরেই শবে বরাতের ইবাদত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০০:৩৪, এপ্রিল ১০, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ০০:৩৯, এপ্রিল ১০, ২০২০

 

এমন চিত্র  বাংলাদেশে আগে কখনও দেখা যায়নি। যেখানে শবে বরাতের রাতে মসজিদগুলোতে মুসল্লিদের উপচে পড়া ভিড় থাকতো, সেখানে এবার মসজিদগুলো বন্ধ। করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট এমন পরিস্থিতিতে জনসমাগম এড়াতে ঘরে বসেই শবে বরাতের ইবাদত করছেন মুসল্লিরা। তবে কোথাও কোথাও বাড়ির ছাদে অনেকে একসঙ্গে নামাজ পড়ছেন। যদিও বেশিরভাগ মানুষের ঘরে বসে ইবাদতের মধ্য দিয়ে অন্যরকমভাবে পালিত হচ্ছে পবিত্র শবে বরাত।

মাগরিবের নামাজের পর থেকেই রাজধানীসহ দেশের প্রায় সব মসজিদের মাইকে মুসল্লিদের ঘরে শবে বরাতের ইবাদত করতে আহ্বান জানানো হয়। কোথাও কোথাও মসজিদের মাইকে মিলাদ পড়া হয়েছে, মুসল্লিরা বাসা থেকে মিলাদে অংশ নিয়েছেন। অন্যান্য বছর ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে মিলাদ ও জিকির-আসগারসহ অন্যান্য কর্মসূচির করলেও এবার কোনও আয়োজন ছিল না। একই চিত্র দেশের প্রায় সব মসজিদেই। এবারের শবে বরাতের প্রার্থনায় সবার একটাই চাওয়া, বাংলাদেশ যেন করোনা থেকে দ্রুত মুক্ত হয়ে উঠে।

জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) তথ্য মতে, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ২১। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১১২ জন, যা গত দিনের থেকে দ্বিগুণেরও বেশি। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ৭০ জন পুরুষ এবং ৪২ জন নারী। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৩৩০ জন।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের  কারণে জনসমাগম বন্ধে ৬ এপ্রিল থেকে মুসল্লিদের ঘরে নামাজ পড়ার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। একই সঙ্গে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মুসল্লিদের মসজিদে না যেয়ে ঘরে ইবাদত করার আহ্বান জানিয়েছে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

 জনসমাগম ঠেকাতে  মসজিদে মুসল্লিদের প্রবেশ বন্ধ করা হলেও বিভিন্ন এলাকায় বাড়ির ছাদ নামাজ পড়তে দেখা গেছে। অনেকেই সেসব ছবি ফেসবুকেও শেয়ার করছেন।

 রশিদ আল রোহানী, একজন সংবাদকর্মী। থাকেন মোহাম্মদপুরে। শবে বরাতের ইবাদত পালন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, যেহেতু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ক্রমেই বাড়ছে ফলে বেশ কিছুদিন আগে থেকেই ঘরে থাকছি। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে যাচ্ছি না। মসজিদে নামাজ আদায় না করে গত কয়েকদিন ধরে বাসাতেই এবাদত করছি। আজ শবে বরাতেও রাতেও বাসাতেই নামাজ আদায় করছি। অথচ আগে প্রতি শবে বরাতের রাতে মসজিদে নামাজ আদায় করেছি। কিন্তু এবার একদমই ভিন্ন। বাসাতেই নামাজ আদায় করছি আর আল্লাহর কাছে দোয়া করছি, এই মহামারির হাত থেকে গোটা বিশ্বকে রক্ষা করুন।

রাজধানীর বড়কাটারা মাদ্রাসার  শিক্ষক  মাওলানা আনছারুল হক বলেন, জীবনে   এ প্রথমবার এমন পরিস্থিতি দেখতে হলো। শবে বরাতে রাতে ঘরে নামাজ পড়ছি। দোয়া করেছি যেন করোনার আঘাত থেকে বাংলাদেশ দ্রুত রক্ষা পায়।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে পরিত্রাণ কামনা করে পবিত্র শবে বরাতে বিশেষ দোয়া করার আহবান জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।  একই সঙ্গে কবরস্থান ও মাজারে জনসমাগম না করার আহ্বানও করেছে সংস্থাটি।

শবে বরাত মুসলমানদের কাছে লাইলাতুল বরাত নামেও পরিচিত। আরবি শব্দ লাইলা অর্থ রাত। অন্যদিকে ফার্সি শব্দ শব অর্থও রাত। আর বরাত অর্থ মুক্তি বা নিষ্কৃতি। শাবান মাসের ১৪ তারিখের এ রাতকে মুক্তির রাত বা নাজাতের রাত হিসেবে অবহিত করা হয়। এ রাতে সৃষ্টিকর্তার আছে পাপ থেকে মুক্তি কামনা করে প্রার্থনা করা হয়। এ রাতে অনেকেই নফল নামাজ, কোরআন তেলওয়াত ও দোয়া করে থাকেন। এছাড়া অনেকেই এ রাতে বাবা-মাসহ আত্মীয়দের কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন।

 

ছবি: সাজ্জাদ হোসেন


/সিএ/এমআর/

সম্পর্কিত

লাইভ

টপ