আগে স্বপ্ন ভেঙেছেন নাদাল, এবার ঠিমের সামনে জোকোভিচ

Send
স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশিত : ২৩:০৮, ফেব্রুয়ারি ০১, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:০৯, ফেব্রুয়ারি ০১, ২০২০

জোকোভিচ ও ঠিমের শিরোপার লড়াই২০১৮ আর ২০১৯ সালে ফ্রেঞ্চ ওপেনের ফাইনালে উঠলেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। ‘কিং অব ক্লে’ রাফায়েল নাদালকে হারানো তো সোজা কথা নয়! অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নাদালকে হারিয়ে প্রতিশোধ নিয়ে টুর্নামেন্টের সফলতম খেলোয়াড়ের ‍মুখোমুখি ডমিনিক ঠিম। রবিবার নোভাক জোকোভিচের বিপক্ষে ফাইনালের আগে তার মুখের হাসিতে আনন্দ আর কষ্ট মিলেমিশে একাকার।

হাসতে হাসতেই ঠিম বলছেন, ‘নোভাক তো অস্ট্রেলিয়ার রাজা, ৭ বারের চ্যাম্পিয়ন, সবার চেয়ে বেশি। গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনালে আমাকে সব সময় যেন সেই টুর্নামেন্টের রাজার সামনে দাঁড়াতে হয়!’

ক্যারিয়ারের আরেকটি কঠিন ফাইনালে জোকোভিচকে ফেবারিট মেনে তার মন্তব্য, ‘এখানেই খেলতে নিঃসন্দেহে তিনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। অনেকদিন ধরেই তিনি অস্ট্রেলিয়ায় সেরা টেনিস খেলছেন। ফাইনালে তাই কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে আমাকে।’ 

মুখোমুখি লড়াইয়ে জোকোভিচ এগিয়ে ৬-৪ ব্যবধানে। হার্ড কোর্টেও সার্ব তারকা এগিয়ে ৩-১ এ। এ বছর জোকোভিচ ১২ ম্যাচের সবগুলো জিতলেও ঠিমের রেকর্ড ৭-২।

১৬টি গ্র্যান্ড স্লাম জিতে ফেদেরার-নাদালের ঠিক পরেই আছেন জোকোভিচ। ফাইনাল প্রতিপক্ষের প্রশংসায় উচ্ছ্বসিত দ্বিতীয় বাছাই, ‘তার (ঠিমের) খেলা ধীরগতির কোর্টের জন্য বেশি উপযোগী। নিঃসন্দেহে ক্লে কোর্ট তার প্রিয় সারফেস। তবে ইদানীং হার্ড কোর্টে সে অনেক উন্নতি করেছে।’

ইন্ডিয়ান ওয়েলস মাস্টার্সের উদাহরণ দিয়ে জোকোভিচ বলেছেন, ‘গত বছর ইন্ডিয়ান ওয়েলসের ফাইনালে সে রজারকে (ফেদেরার) হারিয়েছে। ওই সাফল্য অন্য সারফেসের বড় টুর্নামেন্ট জয়ের আত্মবিশ্বাস এনে দিয়েছে তাকে।’

/এএআর/পিকে/

লাইভ

টপ