বাংলাদেশ দলের শ্রীলঙ্কা যাওয়ার তারিখ চূড়ান্ত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৮:১৯, আগস্ট ১২, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৮:২৬, আগস্ট ১২, ২০২০

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের সূচি এখনও জানা যায়নি। তবে বাংলাদেশ দলের তিন টেস্টের সিরিজ খেলতে যাওয়ার সময় চূড়ান্ত হয়েছে। আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যাবে মুমিনুল-মুশফিকরা। জাতীয় দলের সঙ্গে বিসিবির হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) স্কোয়াডও চড়বে একই বিমানে। আজ (বুধবার) মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সফর নিয়ে প্রাথমিক আলাপ করতে বৈঠকে বসেছিলেন বিসিবি পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান, বিসিবি পরিচালক ও এইচপির প্রধান নাঈমুর রহমান দুর্জয়, প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু ও নির্বাচক হাবিবুল বাশার।

করোনার কারণে প্রায় পাঁচ মাস ধরে ক্রিকেটের বাইরে জাতীয় দল। বেশ কয়েকটি সিরিজ ইতিমধ্যে বাতিল হয়ে গেছে। আগামী সেপ্টেম্বরে শ্রীলঙ্কা সফর দিয়ে তাই ক্রিকেটে ফেরার অপেক্ষায় বাংলাদেশ। এইচপি ও জাতীয় দল মিলে শ্রীলঙ্কায় প্রায় ৫০ জনের বড় বহর যাচ্ছে।

শ্রীলঙ্কায় দুটি তিন দিনের ম্যাচ ও পাঁচটি ওয়ানডে খেলবে এইচপি দল। ‍আর জাতীয় দলের তিন টেস্টের পাশাপাশি তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা। যদিও এখনও সূচি চূড়ান্ত হয়নি। শিগগিরই সফর সূচি চূড়ান্ত করবে বিসিবি ও লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড।

এইচপি দলের সফর নিয়ে বাংলা ট্রিবিউনকে দুর্জয় বলেছেন, ‘জাতীয় দল ও এইচপি দল একই সঙ্গে শ্রীলঙ্কা সফর করবে। এইচপির জন্য ২৪ জনের স্কোয়াড চূড়ান্ত করা হবে। জাতীয় দলের সিরিজ শুরুর আগে এইচপির কাজই হবে জাতীয় দলের অনুশীলনে সাহায্য করা।’

দেশ ছাড়ার আগে কয়েক দফা করোনা পরীক্ষার করা হবে। যারা নেগেটিভ আসবে তাদেরকেই সফরে নেবে বিসিবি। ক্যাম্প শুরু হবে ১০ থেকে ১৪ সেপ্টেম্বরের মধ্যে। দুর্জয় বললেন, ‘দেশ ছাড়ার আগে দুই দলের ক্রিকেটারদের দুবার করোনা টেস্ট করানো হবে। যারা নেগেটিভ হবে তারাই সফর করার সুযোগ পাবেন। এইচপি এবং জাতীয় দল একসঙ্গে ট্রাভেল করার আগে এখানে একটা সংক্ষিপ্ত ক্যাম্প হবে। সেপ্টেম্বরের ২৩ তারিখে আমাদের যাওয়ার পরিকল্পনা।’

মূল সিরিজ শুরুর আগের সময়টাতে এইচপি ও জাতীয় দলের সব খরচ বহন করবে বিসিবি। এ প্রসঙ্গে আকরাম খান বলেছেন, ‘জাতীয় দলের পূর্ণ প্রস্তুতির জন্য আমরা এইচপি দলকে আগেভাগে শ্রীলঙ্কা নিচ্ছি। এজন্য এইচপি দলের প্রথম তিন সপ্তাহের খরচ আমরা বহন করবো। ঠিক জাতীয় দলের জন্যও তাই। এইচপি দল যখন শ্রীলঙ্কায় আতিথেয়তায় চলে যাবে তখন ওরাই সবকিছু দেখবে।’

/আরআই/কেআর/

লাইভ

টপ