গুলশান এভিনিউয়ের ঝুলন্ত তার সরাতে তৈরি হবে ‘রোড ক্রসিং’

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ০১:০৩, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | সর্বশেষ আপডেট : ১৩:০৯, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০

গুলশানের একটি সড়কের বিদ্যুতের খুঁটিগুলোতে দৃষ্টিকটুভাবে ঝুলছে ইন্টারনেটসহ বিভিন্ন তার। (ছবি: গুগল ম্যাপ থেকে নেওয়া)

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) রাজধানীর সৌন্দর্যবর্ধনে আগামী ১ অক্টোবর গুলশান এভিনিউয়ের ওভারহেড ক্যাবল বা ঝুলন্ত তার অপসারণ করবে। বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলামের সঙ্গে দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবির বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠকে এনটিটিএন প্রতিষ্ঠান, ক্যাবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)-এর প্রতিনিধি, ডিএনসিসির প্রধান প্রকৌশলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে আগামী ১ অক্টোবর গুলশান এভিনিউয়ের পাকিস্তান হাইকমিশন থেকে গুলশান এক নম্বরের শুটিং ক্লাব পর্যন্ত ঝুলন্ত তার অপসারণ করা হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে অন্য প্রধান সড়কগুলো থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণ করা হবে।

প্রসঙ্গত, ডিএনসিসি মেয়র ঢাকা উত্তরের ঝুলন্ত ক্যাবল অপসারণের জন্য ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় বেঁধে দেন। তখন বলা হয়েছিল, এরমধ্যে এসব এলাকা থেকে ক্যাবল সংশ্লিষ্টরা তার অপসারণ না করলে ডিএনসিসি ওইসব তার অপসারণ করবে।

পাকিস্তান দূতাবাসের সামনের রাস্তায় ঝুলছে ইন্টারনেটের তার। (ছবি গুগল ম্যাপ থেকে নেওয়া)

বৈঠকে অংশ নেওয়া আইএসপিএবির সভাপতি আমিনুল হাকিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমরা মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে খোলামেলা ও আন্তরিকতাপূর্ণ পরিবেশে কথা বলেছি। তিনি আমাদের কথা শুনেছেন। আমাদের দাবি দাওয়াও শুনেছেন। তিনিও কিছু পরামর্শ দিয়েছেন। এখন সেই মতে কাজ হবে। মেয়র মহোদয় পাকিস্তান হাইকমিশন থেকে শুটিং ক্লাব পর্যন্ত যেতে যেসব জায়গায় চার রাস্তার মোড় বা ডানে বামে রোড চলে গেছে সেখানে ‘রোড ক্রসিং’ (মাটির নিচ দিয়ে তার বসানো) করে দেবে। আমরা বলেছি কয়েকটা পয়েন্ট করে দিতে।

আমিনুল হাকিম আরও বলেন, আমরা পুরো জায়গাটা সরেজমিনে দেখে ঠিক করবো কোথায় কোথায় পয়েন্ট বসাতে হবে। আমাদের ধারণা ৬টার মতো পয়েন্ট তৈরি করে দিলে সমস্যার সমাধান হবে। ইন্টারনেট সার্ভিস দিতে কোনও সমস্যা হবে না।

আইএসপিএবি সভাপতি জানান, ডিএনসিসি মেয়র তাদের আশ্বাস দিয়েছেন, যেসব এলাকায় নতুন রাস্তা হবে সেখানে ‘সার্ভিস ডাক’ (ক্যানেল টাইপ) তৈরি করা হবে। এসব তার তখন সেখান দিয়ে অনায়াসে টেনে সার্ভিস দেওয়া সম্ভব হবে। এরইমধ্যে এই ব্যবস্থা উত্তরায় কিছু কিছু এলাকায় চালু হয়েছে বলে জানা গেছে।

/এইচএএইচ/টিএন/এমএমজে/

লাইভ

টপ