ভারতে নিষিদ্ধ হলো ই-সিগারেট

Send
বিদেশ ডেস্ক
প্রকাশিত : ১০:২৪, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ | সর্বশেষ আপডেট : ১০:২৬, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে নিষিদ্ধ হওয়ার একদিনের মাথায় ভারতেও নিষিদ্ধ করা হলো ইলেক্ট্রনিক সিগারেট বা ই-সিগারেট। মঙ্গলবার দেশটিতে  এই সিগারেট বিক্রি, উৎপাদন, আমদানি এবং বিতরণ নিষিদ্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়। বলা হচ্ছিলো, এই সিগারেট তামাকের থেকে কম ক্ষতিকারক।  তবে এওে স্বাস্থ্যহানির আশঙ্কা থাকায় তা নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে জানান কর্মকর্তারা।

ভারতে তামাক জনিত রোগে ভুগে প্রতি বছর নয় লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়। দেশটিতে ১০ কোটির বেশি প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষ ধূমপান করে, যা চীনের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেতৃত্বাধীন ভারতের বিজেপি জোট সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের প্রথম একশ দিনের কর্মসূচির অগ্রাধিকারগুলোর মধ্যে ছিল ই-সিগারেট, হিট-নট-বার্ন স্মোকিং ডিভাইস, ভেপ এবং ই-নিকোটিন স্বাদযুক্ত হুকাগুলোর মতো বিকল্প ধূমপানযন্ত্র নিষিদ্ধ করা৷

ভারতের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বুধবার নয়াদিল্লিতে সাংবাদিকদের বলেন, "ই-সিগারেটের প্রভাব আজকের যুব সমাজের উপর কীভাবে পড়েছে তা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷''

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, সম্প্রতি মন্ত্রিসভার কয়েকজন সদস্য ই-সিগারেট নিষিদ্ধকরণ অধ্যাদেশ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এটা নিষিদ্ধের সুপারিশ করেন৷ অধ্যাদেশের খসড়ায় বলা হয়েছে, সরকারের এই সিদ্ধান্ত অমান্য করলে কোনো ব্যক্তিকে সর্বোচ্চ ১০ বছর কারাদণ্ডের পাশাপাশি পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে৷ দ্বিতীয়বার এটা অমান্য করলে তখন যদি জেল না-ও দেওয়া হয় তবে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হবে৷

এর আগে  মঙ্গলবার নিউ ইয়র্কে সুগন্ধিযুক্ত ই-সিগারেট নিষিদ্ধ করা হয়৷ বলা হয়, কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে দিন দিন ব্যবহারের হার ব্যাপকভাবে বেড়ে যাওয়া এবং স্বাস্থ্যহানির ঝুঁকি থাকায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে জুড়ে সম্প্রতি ফুসফুসজনিত নানা রোগে ভোগা মানুষের সংখ্যা বাড়ার সঙ্গে ই-সিগারেট পানের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক আছে।

/এমএইচ/

লাইভ

টপ