আইএসের নামে ষড়যন্ত্র হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ১৪:১১, এপ্রিল ২৮, ২০১৬ | সর্বশেষ আপডেট : ০৩:২১, এপ্রিল ২৯, ২০১৬

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল

 

 


স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালবাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত করতে আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটস-এর (আইএস) নামে ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেন, আমরা যখন এগিয়ে যাচ্ছি, তখন মানুষ হত্যা করে বলা হচ্ছে, এই হত্যাকাণ্ড আইএস চালাচ্ছে। অথচ বাংলাদেশে কোনও আইএস নেই। বৃহস্পতিবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে ধর্মীয় সম্প্রীতি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ সব কথা বলেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দেশে কোথাও বিচ্ছিন্ন কোনও ঘটনা ঘটলেই কিছুক্ষণের মধ্যে বলা হয়, এর জন্য দায়ী আইএস। মানুষ হত্যা করে আইএস প্রতিষ্ঠার ষড়যন্ত্র সফল হতে দেওয়া হবে না। তিনি বলেন, কিছু একটা ঘটার সঙ্গে-সঙ্গে বলা হচ্ছে আইএস করেছে। হত্যা সবই নাকি আইএস করেছে। কোনও ঘটনার সঙ্গেই আইএস’র সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। তাহলে আইএস আসে কোথা থেকে?
আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, কয়েকজন বিপথগামী ব্যক্তি আইএস-এর মতবাদ বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত করতে চান। কিন্তু তাদের এ ইচ্ছা কখনও পূরণ হবে না। তারা ওই পথ ছেড়ে শান্তির পথে যেন চলে আসেন। দুই-একজনকে হত্যা করে দেশকে জঙ্গি রাষ্ট্র বানানো সম্ভব নয়। বাংলাদেশে কোথা থেকে আইএস আসবে? আইএস নেই। আছে কিছু স্থানীয় উগ্র জঙ্গি। আর এ সুযোগ নিয়েই কিছু একটা হলেই বাংলাদেশে আইএস আছে বলে প্রচারের প্রয়াস চলে।



বাংলাদেশের বহু মানুষ বিচার পায় না: প্রধানমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া একটি মহলের সহ্য হচ্ছে না। তারা আন্তর্জাতিকভাবে ষড়যন্ত্র করছে। হত্যাসহ নানা ধরনের অরাজকতা সৃষ্টি করছে। দেশের শান্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে। ইসলাম কখনও কোনও দিন খুন, হত্যা, লুটতরাজ, সন্ত্রাসে বিশ্বাসী ছিল না। অন্য যেকোনও ধর্মের মানুষও উস্কানি দেয় না। বাংলাদেশে মন্দিরে পূজা হচ্ছে, পাশেই মসজিদে আজান হচ্ছে, নামাজ হচ্ছে। প্যাগোডা কিংবা গীর্জাতেও প্রার্থনা চলছে। কেউ কখনও বাধা দেয় না। এটা ধর্মীয় সম্প্রীতির রয়েছে বলেই সম্ভব। কিন্তু যাদের এই ধর্মীয় সম্প্রীতি পছন্দ হচ্ছে না তারাই হত্যা খুনের মতো নানা ঘটনা ঘটিয়ে বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা চালাচ্ছে।

বাংলাদেশের মানুষ হত্যা-সহিংসতা পছন্দ করে না। বাংলাদেশের পুলিশ সদস্যরা সর্বদা সচেষ্ট রয়েছেন। মানুষ মেরে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে থমকে দেওয়ার ষড়যন্ত্র সফল হতে দেওয়া হবে না। এ জন্য সবার সহযোগিতা প্রয়োজন—বলেও মন্তব্য করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

 

মানুষ জানে গুম-খুন সরকারের ইশারায়: গয়েশ্বর

বাংলাদেশ পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) একেএম শহীদুল হকের সভাপতিত্বে ধর্মীয় সম্প্রীতি সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন—ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া, অতিরিক্ত কমিশনার শেখ মারুফ হাসান, শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানের ঈমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ, মাওলানা আতাউল্লাহ, গোলাম মাওলানা নকশবন্দি, আর্চ বিশপ পেট্রিক ডি রোজারিও, স্বামী ধ্রুবেশান্দ মহারাজ, শ্রী সত্যেন্দ্র নাথ, ওবায়দুর রহমান খান নদভী, অশোক বড়ুয়া প্রমুখ।

/সিএ/বিটি/এফএস//এমএনএইচ/

 





লাইভ

টপ