ক্রেজি রিচ এশিয়ানস: বিত্তশালী তৈরির ইতিবৃত্ত

Send
বাংলা ট্রিবিউন রিপোর্ট
প্রকাশিত : ২৩:০৩, নভেম্বর ০৯, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট : ২৩:০৫, নভেম্বর ০৯, ২০১৮

এশিয়ায় প্রতিদিনই বিত্তশালীদের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে। এর অন্যতম কারণ এশিয়ানদের পাশ্চাত্য সংস্কৃতি ও খাদ্যাভ্যাসের ওপর নির্ভরতার ক্রমাবনতি, সৃষ্টিশীল উদ্ভাবনের প্রতি ঝোঁক এবং নিজস্ব সংস্কৃতি নির্ভরতা। এমনটাই মত গোয়েন রবিনসনের।

‘ঢাকা লিট ফেস্ট - ২০১৮’-এর দ্বিতীয় দিন (৯ নভেম্বর) বাংলা একাডেমির বটতলায় বিকালের ‘ক্রেজি রিচ এশিয়ানস’ সেশনে তিনি এ মত দেন।

‘ক্রেজি রিচ এশিয়ানস’ একটি চলচ্চিত্রের নাম হলেও আলোচনার ব্যাপ্তি ছড়ায় এশিয়ার জনমানুষ, সংস্কৃতি ও বিশেষত অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডে।

নিশীথ হাজারির সঞ্চালনায় এ সেশনে উপস্থিত ছিলেন এশিয়ার অপরাধ ও অপরাধী বিষয়ক হংকংভিত্তিক সাংবাদিক প্যাট্রিক উইন, লেখক ও সমালোচক গুয়েন রবিনসন এবং লেখক চন্দ্রহাস চৌধুরী।

‘ক্রেজি রিচ এশিয়ানস’ সিনেমার প্রসঙ্গে প্যাট্রিক উইন মাদক নিয়ে এশিয়ার বর্তমান চিত্র তুলে ধরেন। এশিয়ায় মাদকের ব্যাপকতার কারণ হিসেবে তিনি চিহ্নিত করেন এশিয়ার ঘন জঙ্গল, উঁচু-নিচু পাহাড়ি অঞ্চল, নদী-নালা বা সমুদ্রপথে সহজ যাত্রার নিশ্চয়তা এবং এ অঞ্চলের বিশাল জনসংখ্যাকে। পাচারকারীদের বিরুদ্ধে আইনের যতসামান্য প্রয়োগ এবং মাদক সম্রাটদের খুব সহজে আত্মগোপনের সুযোগ এ অঞ্চলে মাদকের ব্যাপকতা বাড়াচ্ছে বলেই তার মত।

গোয়েন রবিনসন জানান, বর্তমানে এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি বিত্তশালী মানুষ বেরিয়ে আসছেন সিঙ্গাপুর সিটি আর ইন্দোনেশিয়া থেকে। কিন্তু রাষ্ট্র হিসেবে বিত্তশালী ও অর্থনৈতিক প্রভাবকের ভূমিকায় রয়েছে চীন। যার অন্যতম কারণ তাদের অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও অভিনবত্ব যা ‘ক্রেজি রিচ এশিয়ানস’-এ অনেকটাই প্রতিফলিত। এশিয়ায় প্রতিদিনই বিত্তশালীদের তালিকা দীর্ঘ হওয়ার ব্যাখ্যায় গোয়েন বলেন, এশিয়ানদের পাশ্চাত্য সংস্কৃতি ও খাদ্যাভ্যাসে নির্ভরতা কমা, সৃষ্টিশীল উদ্ভাবনের প্রতি ঝোঁক এবং নিজস্ব সংস্কৃতি নির্ভরতাই প্রভাবক হিসেবে কাজ করছে।

ভারতীয় লেখক চন্দ্রহাস চৌধুরী ভারতের দ্রুত পরিবর্তনশীল অর্থনৈতিক অবস্থার কথা উল্লেখ করে বলেন, ভারত এখন চরম দারিদ্র্য আর তৃণমূলে গণতন্ত্র চর্চার ক্রমাগত বাধার দুষ্টচক্র থেকে খুব দ্রুত বেরিয়ে আসছে। মানুষ ভোট দিচ্ছে, উন্নয়নের পথে সমস্যাগুলো সমাধানেও বেশ আগ্রহী হচ্ছে, যার ইতিবাচক প্রভাব পড়ছে অর্থনীতিতে এবং সর্বোপরি সাধারণ মানুষের জীবনে।

অর্থনীতি এবং মানব উন্নয়ন সূচকে কে বেশি এগিয়ে, চীন না ভারত? একজন দর্শকের এমন প্রশ্নের জবাবে চন্দ্রহাস ভারতের উন্নয়নের বিষয়ে আশা ব্যক্ত করে বলেন, বিগত সত্তর বছরে ভারত একটু একটু করে আজকে উন্নয়নের যে সূচকে অবস্থান করছে তা চীনের উন্নয়নের ইতিহাস থেকে অনেকাংশেই এগিয়ে।

 

/এইচআই/এফএএন

লাইভ

টপ