X
সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৫ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

৪ কারণে কাজে ফিরতে পারেননি রানা প্লাজার আহত শ্রমিকরা

আপডেট : ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ১২:১৭

রানা প্লাজা ধসের পাঁচ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও অধিকাংশ শ্রমিক কাজে ফিরতে পারেননি। এর কারণ হিসেবে গবেষক ও শ্রমিক নেতারা চার ধরনের প্রতিবন্ধকতাকে চিহ্নিত করতে পেরেছেন। কারণগুলো হলো—শারীরিক প্রতিবন্ধকতা, সামাজিক সহায়তার অভাব, দুর্ঘটনার পর প্রশিক্ষণ না পাওয়া ও মানসিক অস্থিরতা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ভবন ধসে বেঁচে যাওয়া শ্রমিকরা ৫/১০ বছরেই সেরে উঠবেন—এমনটা ভাবার সুযোগ নেই। তাদের অনেকের জন্যই আজীবন চিকিৎসা সুবিধা বরাদ্দ করতে হতে পারে। কেননা, এ ধরনের ভিকটিমদের এক অসুখ থেকে আরেক অসুখের দিকে যাওয়ার প্রবণতা বেশি থাকে। ফলে যারা এসব শ্রমিককে চিকিৎসা সহায়তা দিতে অসুস্থতার মানদণ্ড নির্ধারণ করেছিলেন, তারা সেটি সঠিকভাবে করেছিলেন—তা বলা যাচ্ছে না। আর এ কারণেই অনেক ভুক্তভোগীর প্রয়োজন সত্ত্বেও চিকিৎসা সহায়তা চালিয়ে নেওয়ার সুযোগ হয়নি।

রানা প্লাজা মোটিফ জানা গেছে, রানা প্লাজার শ্রমিকদের ৪৮ দশমিক ৭ শতাংশ শ্রমিক এখনও কোনও কাজ করতে পারছেন না। অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের গবেষণা বলছে, জীবিত শ্রমিকদের মধ্যে ১২ শতাংশের শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আর ২২ শতাংশ শ্রমিক এখনও মানসিকভাবে বিধ্বস্ত। শ্রমিকরা কাজে যোগ দিচ্ছেন ঠিকই; কিন্তু বারবারই তারা কাজ ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন কিংবা মালিকপক্ষই তাদের কাজ থেকে ছাড়িয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছেন।

ওই দুর্ঘটনার পর শ্রমিকদের নিরাপত্তা ও পোশাক খাতের উন্নয়নে সরকার, মালিক ও ক্রেতারা যে উদ্যোগ নিয়েছেন, তার যথাযথ বাস্তবায়ন হচ্ছে না বলে অভিযোগ শ্রমিক নেতাদের। যদিও পাশাপাশি তারা এ-ও বলছেন, বেশিরভাগ ভুক্তভোগী শ্রমিক কোনোভাবেই নিরাপদ বোধ করছেন না।

২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা ধসের ঘটনা ঘটে। ওই ভবনে মোট পাঁচটি পোশাক কারখানায় পাঁচ হাজারের মতো শ্রমিক কর্মরত ছিলেন। এরমধ্যে ১ হাজার ১৫৩ জন শ্রমিক নিহত হন। আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় ২ হাজার ৪৩৮ জনকে।

অ্যাকশন এইড গবেষণার সঙ্গে সরাসরি যুক্ত অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের ম্যানেজার নুজহাত জেবিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ফলোআপের সময় কাজে যুক্ত না হতে পারার কারণ হিসেবে শারীরিক ও মানসিক সমস্যার কথাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বলেছেন। এছাড়া সামাজিক সহায়তার অভাবের কথাও এসেছে। আমরা নিবিড়ভাবে কথা বলতে গিয়ে জেনেছি, শ্রমিকেরা কাজ করার চেষ্টা করেন। কিন্তু কারখানায় গিয়ে কয়েকদিন পরপরই অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন দুই-তিন দিন ছুটি নিতে হয়। এভাবে প্রতি মাসে ৫/৬ কর্মদিবসে ছুটি কাটালে অসন্তুষ্ট হন মালিকপক্ষ।’

নিয়মিত ফলোআপ না রাখা শ্রমিকদের পুনর্বাসনকে ব্যাহত করেছে উল্লেখ করে নুজহাত জেবিন বলেন, ‘তাদের জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাতে ধারাবাহিকতা ছিল না। যারা প্রশিক্ষণ দিয়েছেন, তারা পরে গিয়ে জানতেই চাননি যে ওই প্রশিক্ষণ তারা কাজে লাগাতে পারছে কিনা।’

রানা প্লাজার শ্রমিকদের অনেকেই ‘রিকারিং ইনজুরি’ বা বারবার অসুস্থ হয়ে পড়ার প্রবণতার শিকার উল্লেখ করে অ্যাকশন এইড বাংলাদেশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ ধরনের ব্যক্তিরা একটি অসুখ থেকে সেরে উঠতে উঠতেই আরেকটি অসুখে আক্রান্ত হন। চিকিৎসার প্রয়োজন—এমন শ্রমিকের তালিকা যখন করা হয়েছিল, তখন হয়তো একজন শ্রমিকের ব্যথা ছিল না। ছয় মাস পর হয়তো তার ব্যথা বেড়েছে। ততদিনে তিনি চিকিৎসা সহায়তার তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন।’ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র ও ব্র্যাকের সহায়তায় প্রায় ৯শ’ জনের জন্য একটি চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম চলছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বাকিদের কী হলো? যে মানদণ্ডের ওপর ভিত্তি করে এই ৯শ’ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে, অন্যরা হয়তো সেইগুলোর মধ্যে পড়েন না।’

শ্রমিক নেতা মোশরেফা মিশু বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মারাত্মকভাবে আহতদের মধ্যে ৩১০ জনের তালিকা আছে আমাদের কাছে। তাদের কারও পা কাটা পড়েছে, কারও হাত কাটা পড়েছে, কারও মেরুদণ্ড ভেঙে গেছে। তাদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা যায়নি। অথচ মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ সভাপতি গত ২১ এপ্রিল সংবাদ সম্মেলনে বললেন, সবাইকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে। বললেন, রানা প্লাজা ট্রাস্টে ক্ষতিপূরণের টাকা পড়ে আছে, কেউ নিতে আসে না। এটি একেবারেই মিথ্যাচার। গুরুতর আহতদের চিকিৎসা চালানো সম্ভব হলে এতদিনে অনেকে সুস্থ হয়ে যেতেন।’ তিনি আরও বলেন, রানা প্লাজার শ্রমিক শিউলি, হালিমা, নিলুফা মারাত্মক আহত হওয়ার পরও তাদের পুনর্বাসন হয়নি।

কিছু শ্রমিক কাজে ফেরার উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু কাজ করতে গিয়ে তাদের শারীরিক জটিলতাগুলো প্রকট আকারে ফিরে এসেছে উল্লেখ করে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়নের নেত্রী জলি তালুকদার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তারা কাজে গিয়ে বিভিন্ন ধরনের নতুন জটিলতার মুখে পড়ছেন। এক রোগ থেকে আরেক রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আমরা স্থায়ীভাবে অক্ষম ও পঙ্গুদের ক্ষেত্রে পুনর্বাসনের ব্যবস্থার কথা বলেছিলাম। কিন্তু তেমন উদ্যোগ ‍গুছিয়ে করা হয়নি। আহত শ্রমিকের শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে যদি কাজ দেওয়া যেত, তাহলে তারা সেই করতে পারত। গুরুতর আহত কোনও শ্রমিক নিশ্চয় খানিকটা সেরে ওঠার পরও অন্য স্বাভাবিক শ্রমিকদের মতো কারখানায় কাজ করতে পারবেন না। এই নেত্রী মনে করেন, চিকিৎসার ধারাবাহিকতাটা থাকা জরুরি।’

/টিআর/চেক-এমওএফ/

সম্পর্কিত

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:২৪

জাতীয় পরিচয়পত্র ও শিক্ষা সনদের সঙ্গে মিল রেখে পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ করে দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত ভুক্তভোগীরা। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন করা হয়।

মানববন্ধনে ভুক্তভোগীরা জানান, গত কয়েক বছর যাবৎ পাসপোর্টের সংশোধন করার প্রচেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হওয়ায় তাদের জরুরি কাজ ও স্বাভাবিক জীবনযাপন জটিল হয়ে পড়েছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়াসহ সরকারি দফতরগুলোতেও নিজের পরিচিতি নিয়েও বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে। অনেকে দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষার জন্য চাইলেও যেতে পারছেন না বলেও অভিযোগ করেন তারা।

কুষ্টিয়া থেকে আসা আবুল হোসেন নামে এক ভুক্তভোগী জানান, দালালের মাধ্যমে তিনি পাসপোর্ট করান। পরে তাকে নামজনিত ঝামেলায় পড়তে হয়েছে। দুই বছর ধরে তিনি এই সমস্যা সমাধানে দ্বারে-দ্বারে ঘুরেও কোনও সুরাহা করতে পারেননি। বর্তমানে তার ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পর্যায়ে।

মানববন্ধন থেকে দাবি জানানো হয়, জাতীয় পরিচয়পত্র ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রের তথ্যের সাথে মিল রেখে পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ প্রদান করা হোক।

মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচিতে প্রায় ৭০ জন ভুক্তভোগী উপস্থিত উপস্থিত ছিলেন।

/জেডএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

পাসপোর্ট অধিদফতরের দুই কর্মকর্তাকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

বিআরটিএ ও পাসপোর্ট অফিসে র‍্যাবের অভিযান: ৫১ দালাল আটক

বিআরটিএ ও পাসপোর্ট অফিসে র‍্যাবের অভিযান: ৫১ দালাল আটক

পাসপোর্ট অধিদফতরের অক্ষমতা: প্রবাসীদের ভোগান্তির শেষ হবে কবে?

পাসপোর্ট অধিদফতরের অক্ষমতা: প্রবাসীদের ভোগান্তির শেষ হবে কবে?

বিদেশে একে একে বন্ধ হচ্ছে পাসপোর্ট সেবা!

বিদেশে একে একে বন্ধ হচ্ছে পাসপোর্ট সেবা!

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫০

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক গাড়িচালক আব্দুল মালেককে অস্ত্র আইনের মামলার ‍দুটি ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দুই ধারার সাজা একসঙ্গে অর্থাৎ ১৫ বছরের কারাভোগ করবেন তিনি। তবে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ‘ন্যায় বিচার পাননি’ বলে জানিয়েছেন তিনি।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় শেষে তাকে আবারও কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

আদালত থেকে বের হওয়ার সময় আব্দুল মালেক সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। র‌্যাব আমার বাসা থেকে কোনও কিছুই পায়নি। আমি ন্যায়বিচার পাইনি, আমি মিথ্যা মামলায় জেল খাটবো। কোনও অস্ত্র পায়নি আমার বাসা থেকে।

আদেশের দিন আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন মালেকের স্বজনরা। রায় ঘোষণার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা। আর মামলার রায়ে ‘অসন্তোষ’ প্রকাশ করে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২০

কুমিল্লা-৭ আসনের উপ-নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও কুমিল্লার আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার একক প্রার্থী হওয়ায় ডা. প্রাণ গোপালকে বিজয়ী ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছেন।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার বলেন, ১৯ সেপ্টেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল। জাতীয় পার্টি ও ন্যাপের প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেন। ফলে প্রার্থী হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রাণ গোপাল দত্তই ছিলেন। এই অবস্থায় একক প্রার্থী হিসেবে তাঁর নাম চূড়ান্ত করা হয়। যেহেতু একজন প্রার্থী, তাই আর প্রতীক দেওয়ার কোনও বিধান নেই। এই অবস্থায় প্রাণ গোপাল দত্তকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজয়ী ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এরপর গেজেট প্রকাশ করার জন্য নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠানো হবে।

গত ৩০ জুলাই কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য মো. আলী আশরাফের মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ৭ অক্টোবর ওই আসনে ভোট গ্রহণের কথা ছিল।

/ইএইচএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

সিলেট-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটগ্রহণ চলছে

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত চেয়ে রিট

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ স্থগিত চেয়ে রিট

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১৭

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সাবেক গাড়িচালক আব্দুল মালেক ওরফে মালেক ড্রাইভারের বিরুদ্ধে দায়ের করা অস্ত্র আইনের মামলার দুই ধারায় ১৫ বছর করে ৩০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে তিনি একই সঙ্গে এই সাজা ভোগ করবেন বলে রায়ে জানিয়ে দিয়েছেন আদালত, ফলে মোট ১৫ বছরের কারাভোগ করতে হবে তাকে।

আজ সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় শেষে আব্দুল মালেককে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

রায় ঘোষণার সময় আদালত প্রাঙ্গণে উপস্থিত ছিলেন মালেকের স্বজনরা। তারা সাজা শোনার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন তারা। এদিকে মামলার রায়ে ‘অসন্তোষ’ প্রকাশ করে উচ্চ আদালতে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তার আইনজীবীরা।

আদালত থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় আব্দুল মালেক সাংবাদিকদের উদ্দেশ করে বলেছেন, ‘আমাকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। র‌্যাব আমার বাসা থেকে কোনও কিছুই পায়নি। আমি ন্যায়বিচার পাইনি, আমি মিথ্যা মামলায় জেল খাটবো। কোনও অস্ত্র পায়নি আমার বাসা থেকে।’

এর আগে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলমের আদালত রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন ধার্য করেন।

গত বছরের ২০ সেপ্টেম্বর রাজধানীর তুরাগ থানাধীন কামারপাড়াস্থ ৪২ নম্বর বামনেরটেক হাজী কমপ্লেক্সের তৃতীয় তলার বাসা থেকে আব্দুল মালেককে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, পাঁচ রাউন্ড গুলি, দেড় লাখ বাংলাদেশি জাল নোট, একটি ল্যাপটপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় র‌্যাব-১ এর পুলিশ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে মামলা দুটি দায়ের করেন।

চলতি বছর ১১ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক মেহেদী হাসান চৌধুরী ড্রাইভার মালেককে একমাত্র আসামি করে অস্ত্র মামলায় চার্জশিট আদালতে দাখিল করেন।

পরে গেল ১১ মার্চ ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত আসামি মালেকের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে মামলাটির বিচারের জন্য আদেশ দেন। 

করোনার প্রাদুর্ভাব কিছুটা কমে গেলে ৫ সেপ্টেম্বর ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত এই মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায় শেষ করেন। মামলাটির ১৩ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেছেন আদালত।

এরপর ৬ সেপ্টেম্বর মামলাটি ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ রবিউল আলম এর আদালতে পরবর্তী বিচার কাজের জন্য বদলির আদেশ দেন মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালত।

র‌্যাবের ভাষ্য, তিনি পেশায় স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলের একজন ড্রাইভার এবং তৃতীয় শ্রেণির কর্মচারী। তার শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত। তিনি ১৯৮২ সালে সর্বপ্রথম সাভার স্বাস্থ্য প্রকল্পে ড্রাইভার হিসেবে যোগদান করেন। পরবর্তীতে ১৯৮৬ সালে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিবহন পুলে ড্রাইভার হিসেবে চাকরি শুরু করেন।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

বিমানবন্দরে ল্যাবের বিষয়ে ইউএই'র সম্মতি আসতে পারে আজ: বেবিচক

আপডেট : ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৫০

হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার ল্যাবের স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিকিউর (এসওপি) নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সম্মতি আজ আসতে পারে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মফিদুর রহমান।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) ‘বিশ্ব পরিচ্ছন্নতা দিবস’ উপলক্ষে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ‘পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা সপ্তাহ-২০২১’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান।

বেবিচক চেয়ারম্যান বলেন, ল্যাপ স্থাপনের জন্য সাতটি প্রতিষ্ঠানকে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত করা হয়েছে। এদের মধ্যে ছয়টি প্রতিষ্ঠান এসওপি জমা দিয়েছে। তা সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাঠানো হয়েছে। এগুলো যেন আন্তর্জাতিক মান সম্পন্ন হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। ইউএই থেকে অনুমতি পেলে ল্যাব স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

তিনি জানান, বিমানবন্দরে বহুতল কার পার্কিং ভবন নিরাপদ, ল্যাব স্থাপনে কোনও ঝুঁকি নেই। আরব আমিরাতের যাত্রীদের করোনা টেস্টের ফি একই হবে, যদি কোনও যাত্রী ভুল রিপোর্টের কারণে বিদেশ থেকে ফিরে আসে তাহলে ও-ই প্রতিষ্ঠানকে আর্থিক জরিমানাসহ শাস্তি দেওয়া হবে।

/সিএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

১৬০ ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

ইউপি নির্বাচন অবাধ-নিরপেক্ষ হবে: আশা ইসির

ইউপি নির্বাচন অবাধ-নিরপেক্ষ হবে: আশা ইসির

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

ফাঁসানো হয়েছে, দাবি ড্রাইভার মালেকের

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের ড্রাইভার মালেকের ১৫ বছরের সাজা

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মালেকের বিরুদ্ধে মামলার রায় আজ

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

কনস্টেবল নিয়োগে জালিয়াতির নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি টিআইবি’র

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

সিটি ইউনিভার্সিটিকে সাড়ে ৬২ লাখ টাকা জরিমানা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলায় এক সাংবাদিকের জামিন

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

বড় ভাইকে খুন করে হত্যা মামলার বাদী সাজে রিপন

মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও রেজিস্ট্রারকে তলব

মাদ্রাসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও রেজিস্ট্রারকে তলব

গাজীপুরের জেলা রেজিস্ট্রার ও তার স্ত্রীর সম্পদ অনুসন্ধান করছে দুদক 

গাজীপুরের জেলা রেজিস্ট্রার ও তার স্ত্রীর সম্পদ অনুসন্ধান করছে দুদক 

সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন কেন নয়: হাইকোর্ট

সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন কেন নয়: হাইকোর্ট

সর্বশেষ

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

কক্সবাজারে নির্বাচনি সহিংসতায় নিহত ২

বন অধিদফতরে এসএসসি ও এইচএসসি পাসে চাকরির সুযোগ

বন অধিদফতরে এসএসসি ও এইচএসসি পাসে চাকরির সুযোগ

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

হাঁটুপানি মাড়িয়ে ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা (ফটোস্টোরি)

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

পাসপোর্ট সংশোধনের সুযোগ চেয়ে মানববন্ধন

ভ্যাস সেবায় অনিয়ম: রবি ও বাংলালিংককে জরিমানা

ভ্যাস সেবায় অনিয়ম: রবি ও বাংলালিংককে জরিমানা

© 2021 Bangla Tribune