X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

হিসাব নেই বিদেশ থেকে ফেরত আসা নারী শ্রমিকদের

আপডেট : ২২ মে ২০১৮, ১৩:৪৮

দারিদ্র্যের হাত থেকে মুক্তি ও কর্মসংস্থানের আশায় অনেক নারীই পাড়ি জমান বিদেশে। দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখলেও তাদের তেমন খোঁজই রাখা হয় না। সম্প্রতি বিদেশ থেকে চুক্তি অনুযায়ী কাজের মেয়াদ শেষ না করেই দেশে ফিরে আসছেন অনেক নারী শ্রমিক। তারা কেন এভাবে ফিরে আসছেন বা তাদের প্রকৃত সংখ্যাইবা কত তা জানা নেই সরকারি কর্তৃপক্ষের। এমনকি বেসরকারি সংস্থাগুলোও বিষয়টির কোনও হিসাব রাখতে পারেনি। প্রতিবছর কতজন নারী বিদেশে যাচ্ছেন তার হিসাব থাকলেও কতজন ফেরত এসেছেন তা কারও জানা নেই।

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের তথ্য অনুযায়ী, গত তিন দিনেই সৌদি আরব থেকে ৯২ জন নারী শ্রমিক দেশে ফিরে এসেছেন। তাদের মধ্যে ৬৬ জন এসেছেন শনিবার রাতে এবং ২১ জন রবিবার রাতে।

বাংলাদেশ থেকে প্রতিবছর সৌদি আরব, আরব আমিরাত, কুয়েত, ওমান, কাতার, বাহরাইন, লেবাননসহ বিশ্বের ১৮টি দেশে জনশক্তি রফতানি করা হয়। জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) দেওয়া তথ্যমতে, ২০১৭ সালে অভিবাসী নারীর সংখ্যা ছিল ১২ লাখ ১৯ হাজার ৯২৫ জন, যা মোট অভিবাসীর সংখ্যার ১৩ শতাংশ। দেশের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বেশি নারী বিদেশে যাওয়ার রেকর্ড। 

১৯৯১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত অভিবাসন প্রত্যাশী নারী শ্রমিকদের একা বিদেশে যেতে দেওয়া হতো না। ২০০৩ ও ২০০৬ সালে সেই নিয়ম কিছুটা শিথিল করা হয়। ২০০৪ সালের পর থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত নারী শ্রমিকদের অভিবাসন হার বাড়তে থাকে। ২০১৫ সালে এ সংখ্যা দাঁড়ায় মোট অভিবাসনের ১৯ শতাংশে। ২০১৬ সালে অভিবাসী নারী শ্রমিকের সংখ্যা নেমে আসে ১৬ শতাংশে এবং ২০১৭ সালে হয় ১২ শতাংশ।

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে সৌদি আরবে সবচেয়ে বেশি নারী শ্রমিক যায়। আবার নানা কারণে নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার আগে সেখান থেকেই সবচেয়ে বেশি নারী ফেরত আসেন। তবে কোনও সংস্থা কিংবা মন্ত্রণালয়, কারও কাছে এই ফেরত আসা শ্রমিকের বিষয়ে সঠিক কোনও তথ্য নেই।

নানা কারণে অনেক নারী শ্রমিক প্রায় প্রতিদিনই ফিরে আসছেন। কেউ চাকরি নিয়ে যাওয়ার এক মাসের মধ্যে, কেউবা ছয় মাসের মধ্যে। অভিবাসন খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলেই স্বীকার করছেন, নারী শ্রমিকরা ফেরত আসছেন। কিন্তু ঠিক কত নারী শ্রমিক এভাবে দেশে ফেরত আসছেন তার সঠিক কোনও হিসাব কেউ দিতে পারেনি।

শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থা জানিয়েছে, সৌদি আরব থেকেই সবচেয়ে বেশি নারী শ্রমিক ফেরত আসছে। গত কয়েক মাসে এই সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফেরত আসা নারীদের অনেকেই জানিয়েছেন, গৃহশ্রমিক হিসেবে যাওয়ার পর অনেকেই গৃহকর্তা ও পরিবারের সদস্যদের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। অনেকে যৌন নির্যাতনের মতো ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথাও জানিয়েছেন। এছাড়া কাজ না পারার অজুহাতে অনেক নারী শ্রমিককে চুক্তি মোতাবেক বেতন দেওয়া হয় না বলে অভিযোগ রয়েছে। কাজের কোনও কর্মঘণ্টা না মানার পাশাপাশি বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগে বাধা দেওয়া, অসুস্থ হওয়ার পর চিকিৎসা না দেওয়ার অভিযোগও পাওয়া যায়। এমনকি যেসব এজেন্সির মাধ্যমে তারা বিদেশ যান তাদের বিদেশের অফিসে নিয়ে এসেও তাদের নির্যাতন করার ঘটনা ঘটে।  

শ্রমিকদের নিয়ে কাজ করা ওয়ারবি ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, ২০১৭ সালে তারা ১৭ জন নারী শ্রমিককে ফেরত এনেছেন। এসব নারীর সবাই প্রবাসে বিভিন্ন নির্যাতনের শিকার। ওয়ারবি ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, নারী শ্রমিকরা ফেরত এলেও তার সঠিক সংখ্যা আমাদের জানা নেই। এছাড়া তাদের ব্যাপারে আর অন্যান্য তথ্যও খুব বেশি নেই। আমাদের কাছে কোনও কেস আসলে  তা জানতে পারি।

বাংলাদেশ অভিবাসী মহিলা শ্রমিক অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শেখ রোমানা বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, গত জানুয়ারি মাসে তার তত্ত্বাবধায়নে ১৮ জন নারী শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। তাদের মধ্যে ১১ জন ছিল সুনামগঞ্জের। তবে সৌদি আরবে বাংলাদেশ দূতাবাসে ৩৫ জন নারী ফেরত আসার জন্য জড়ো হয়েছিলেন।

ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালেই প্রতি মাসে গড়ে ২০০ করে নারী শ্রমিক দেশে ফিরেছেন। সৌদি আরবের রিয়াদ এবং জেদ্দায় সেফ হোমগুলোতে গড়ে ২০০ জন করে নারী শ্রমিক আশ্রয় নিয়েছেন। ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রামের প্রধান শরিফুল হাসান বাংলা ট্রিবিউনকে  বলেন, বিগত ২-৩ বছরে অন্তত হাজার পাঁচেক নারী সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরে এসেছেন। এই নারীদের একটি বড় অংশ নানা ধরনের নির্যাতনের শিকার। আমি সংখ্যার দিক দিয়ে বিবেচনা করতে চাই না। কারণ, বাংলাদেশের একটি মেয়ে নির্যাতনের শিকার হলে সেটা আমাদের কাছে বড় বিষয় হওয়া উচিত।

জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) কাছে সৌদি আরবে যাওয়া নারী শ্রমিকের পরিসংখ্যান থাকলেও ফেরত আসা নারী শ্রমিকের ব্যাপারে কোনও তথ্য নেই। বিএমইটি’র ইমিগ্রেশন এবং প্রটোকল বিভাগের পরিচালক ড. আতিউর রহমানের বলেন, আমাদের নারী শ্রমিকদের বিষয়ে একটা সেল আছে। সেখানে পরিসংখ্যান বিভাগের কর্মকর্তার কাছে এই তথ্য থাকতে পারে। আর পরিসংখ্যান বিভাগের কর্মকর্তা মো. নাসিরুজ্জামান বলেন, এ সম্পর্কে তথ্য আমাদের কাছে নেই। তবে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের কাছে থাকতে পারে।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সির (বায়রা) যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ চৌধুরী নোমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, কত সংখ্যক নারী শ্রমিক চুক্তি শেষ করার আগেই দেশে ফেরত আসছেন তা বলা মুশকিল। গত ৩-৪ বছর আগের একটি সরকারি হিসাব ছিল। সেখানে বলা হয়েছিল, ফেরত আসা নারী শ্রমিকের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৪ হাজার।

শামীম আরও বলেন, এসব নারী নানা কারণে ফেরত এসেছেন। সংশ্লিষ্ট দেশে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে এসব নারীকে ফেরত আনা নিশ্চিত করা সম্ভব হলে তাদের সম্পর্কে সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে। এর মাধ্যমে কত নারী শ্রমিক এভাবে দেশে ফিরে আসছেন তারও একটা হিসাব পাওয়া সম্ভব হবে।  

/আরএ/চেক-এমওএফ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৭

পূজার সময়ে সন্ত্রাসী ঘটনার প্রচারণা মোকাবিলার জন্য বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য যেসব দেশে বাংলাদেশি কূটনীতিকরা কর্মরত রয়েছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা সাংবাদিকদের কাছে সঠিক তথ্য তুলে ধরার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এ তথ্য জানান।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বিদেশে যদি এ বিষয় নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা চালানো হয়, তবে আমাদের দূতাবাসগুলো যাতে সেটি কাউন্টার করতে পারে, তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা ঘটলে সেটার বিষয়ে অগ্রগতি আমরা সবসময় আমাদের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে শেয়ার করে থাকি, যাতে তারা যে দেশে কাজ করছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা  সংবাদপত্রকে এ বিষয়ে জানাতে পারেন।’

স্থিতিশীলতা

বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য হচ্ছে স্থিতিশীলতার মাধ্যমে অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জন করা। কিন্তু এ ধরনের ঘটনার কারণে মূল লক্ষ্য থেকে বিচ্যুতি ঘটতে পারে।

এ বিষয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘স্থিতিশীলতার কারণেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি এবং এ ধরনের বিশৃঙ্খলা যদি শক্ত হাতে দমন না করা যায়, তাহলে আমাদের অগ্রগতি ব্যাহত হবে।’

সমাজের সবারই দায়িত্ব হচ্ছে এ ধরনের ঘটনা সমূলে উৎপাটন করা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অনেক দেশ অর্থনৈতিকভাবে অগ্রগতি সাধন করেছে। কিন্তু সমাজে বিভিন্ন সমস্যা আছে, কিন্তু আমরা তো এ ধরনের সমাজ চাই না। প্রগতিশীল একটি দেশ হিসেবে এগিয়ে যেতে চাই, যেখানে অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতি একসঙ্গে হবে।’

সরকারের অবস্থান

এটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য বিষয় জানিয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘আমরা চাই বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় থাকুক। আমরা সবসময় বার্তা দিয়ে আসছি যে বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। ধর্ম যার যার উৎসব সবার—এই বার্তাটি আমরা সবসময় দিয়ে থাকি।’

গুজব বা আইসিটির মাধ্যমে অপপ্রচার অত্যন্ত বিপজ্জনক জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট অনেকে পছন্দ করেন না, কিন্তু এটি ছাড়া তো উপায় নাই।’

সরকারের অবস্থান শক্ত ছিল এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছিল, যাতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অপপ্রচার দ্রুত না ছড়ায়, বলেন তিনি।

/এসএসজেড/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৩

লন্ডন সফররত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সেখানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক, কলামিস্ট ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরীর চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, হাসপাতালে দর্শনার্থী সংক্রান্ত বিধিনিষেধের কারণে রাষ্ট্রপতি টেলিফোনে আবদুল গাফফার চৌধুরীর খোঁজ-খবর নেন। এসময় তিনি যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিমের মাধ্যমে আবদুল গাফফার চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা পাঠান।

প্রেস সচিব জানান, গাফফার চৌধুরী তার খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। রাষ্ট্রপতি আবদুল গাফফার চৌধুরীর আশু আরোগ্য কামনা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন, তিনি সুস্থ হয়ে শিগগিরই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, গাফফার চৌধুরী নিউমোনিয়া জটিলতায় গত ৬ অক্টোবর থেকে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

গত ৯ অক্টোবর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জার্মানির বার্লিনে যান রাষ্ট্রপতি। সেখান থেকে যুক্তরাজ্যের লন্ডন যান তিনি।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:২০

সারা দেশে নবনির্মিত ৩৭টি সেতু উদ্বোধন করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ভার্চুয়ালি “ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের’’ আওতায় এসব সেতু উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ।

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী জানান, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ৮২টি সেতু নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ পর্যন্ত ৬১টি সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে ২৫টি সেতু আগেই উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ ৩৫টি সেতু উদ্বোধন করা হলো।

মন্ত্রী আরও জানান, রংপুর সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-১-এর অধীনে প্রায় ৫৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৯টি সেতু এবং রাজশাহী সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-২-এর অধীনে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৬টি সেতু রয়েছে। অবশিষ্ট ২২টি সেতুর কাজ চলমান। এছাড়াও রংপুর সড়ক জোনের আওতায় জিওবি অর্থায়নে নির্মিত দুটি সেতু বুড়িতিস্তা ও শান্তিপুর-ললতই-ভাটা সেতুও আজ উদ্বোধন করা হলো।

তিনি জানান, সেতুগুলো দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সড়ক নেটওয়ার্ক স্থাপন এবং সাসেক করিডোর, এশিয়ান হাইওয়ে, বিমসটেক ও সার্ক হাইওয়ের সঙ্গে সংযুক্তি ঘটাতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে। এছাড়াও উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকাসহ সারা দেশের নিরাপদ, উন্নত ও ব্যয়সাশ্রয়ী যোগাযোগ স্থাপনসহ দেশের জাতীয় অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে রূপান্তরের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। 

অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত মি. ইতো নাওকি, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ মি. ইহুও হায়েকাওয়া, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক খান মোহাম্মদ কামরুল আহসানসহ সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

/এসআই/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৯

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে, সে লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনার্স কোর্সের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে, যাতে শিক্ষার্থীরা নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে। পাশাপাশি যেন তারা দেশে-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ গ্রহণ করতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাসে উপাচার্যের কনফারেন্স রুমে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা এই কোভিডের সময়ে অনলাইনে এবং সামনা-সামনি ক্লাস শুরু করতে যাচ্ছেন। এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। আপনাদের অনেক নতুন স্বপ্ন রয়েছে। সেই স্বপ্নগুলো বাস্তবে রূপ দিতে হবে। সে জন্যে সরকার এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আপনাদের পাশে রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক দিকনির্দেশনা এবং পরামর্শে আপনাদের জন্য অনার্স ডিগ্রির পাশাপাশি নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, যাতে আপনারা নানারকম দক্ষতা নিয়ে গড়ে উঠতে পারেন। দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হতে পারেন। নিজেরা উদ্যোক্তা হতে পারেন, কিংবা কর্মসংস্থানের জন্য দেশে-বিদেশে নানা সুযোগ তৈরি হয়, সেটি গ্রহণ করতে পারেন।’

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান শিক্ষার্থীদের রাষ্ট্র সৃষ্টির বিপ্লব সম্পর্কে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে ইতিহাস চেতনা থাকতে হবে। একইসঙ্গে আশা করবো, এই প্রজন্ম সমসাময়িক বিশ্ব সম্পর্কে সব রকমের ধারণা নিয়ে একটি সঠিক ধারায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আত্মনিয়োগ করবে।’

তিনি শিক্ষার্থীদের দেশপ্রেমিক নাগরিক হয়ে গড়ে ওঠার আহ্বান জানিয়ে আরও বলেন, ‘আমাদের বিজ্ঞান ভাবনা, অসাম্প্রদায়িক সমাজ, ধর্মনিরপেক্ষ সমাজ, গণতান্ত্রিক সমাজ— এই যে অভীষ্ট লক্ষ্য, সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য নবীন প্রজন্ম নিজেদের তৈরি করবে। খবর: বাসস

/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

দুই হাসপাতালে নতুন পরিচালক

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০২

রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেক হাসপাতালে নতুন পরিচালক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এই নিয়োগ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নতুন পরিচালক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ফজুলল কবীরকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই সেনা কর্মকর্তাকে ওই পদে নিয়োগ দিতে তার চাকরি স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে ন্যস্ত করা হয়।

অপরদিকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল গোলাম কিবরিয়াকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিতে তার চাকরি সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে ন্যস্ত করা হয়।

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমদকে সেনাবাহিনীতে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

 

 

 

 

/এসআই/আইএ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

দুই হাসপাতালে নতুন পরিচালক

দুই হাসপাতালে নতুন পরিচালক

মিশরীয় বিমান লিজ প্রক্রিয়ায় অভিযুক্তদের লিখিত বক্তব্য চেয়েছে সংসদীয় কমিটি

মিশরীয় বিমান লিজ প্রক্রিয়ায় অভিযুক্তদের লিখিত বক্তব্য চেয়েছে সংসদীয় কমিটি

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বকেয়া ২ কোটি টিকা কবে পাবে বাংলাদেশ?

বকেয়া ২ কোটি টিকা কবে পাবে বাংলাদেশ?

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

সর্বশেষ

প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সেলফি তোলায় পুলিশ সদস্যদের নোটিস

প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সেলফি তোলায় পুলিশ সদস্যদের নোটিস

‘স্বাধীনতাবিরোধীরাই সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা চালাচ্ছে’

‘স্বাধীনতাবিরোধীরাই সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা চালাচ্ছে’

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি বদলি

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ মডেল থানার ওসি বদলি

© 2021 Bangla Tribune