X
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ঈদের দিন মাদারীপুরে প্রীতিভোজ অনুষ্ঠিত হয় জেলা পুলিশের সব ইউনিটে

আপডেট : ২৭ মে ২০২০, ২৩:০৬

ঈদের দিন মাদারীপুর সদর থানায় প্যান্ডেলে খাটিয়ে প্রীতিভোজ আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান। সঙ্গে ছিলেন সাবেক ও বর্তমান জন প্রতিনিধিসহ কয়েকজন বিশিষ্টজন। পেছনের তিনজন পুলিশের কর্মকর্তা।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে সারা দেশের মতো মাদারীপুরেও সব ধরনের সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন না করার বিষয়ে বিশেষ নির্দেশনা ছিল জেলা প্রশাসনের। তবে পুলিশ কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে দেওয়া এই নিষেধাজ্ঞা মানেনি জেলার পুলিশ বিভাগ। মাদারীপুর সদর থানায় প্যান্ডেল টানিয়ে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। তাতে অংশ নেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান। এছাড়াও একই ধরনের আয়োজন করা হয় জেলা পুলিশের সব ইউনিটে। সেখানেও অংশ নেন অতিরিক্ত ও সহকারী পুলিশ সুপারসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এসব ছবি প্রকাশ করার পর সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে জেলার পুলিশ বিভাগের ওপর দিয়ে।

জেলা পুলিশের এই আয়োজনের ছবি পোস্ট করা হয়েছে খোদ জেলা পুলিশের ফেসবুক পেজসহ বিভিন্ন সার্কেল কর্মকর্তা ও থানা পুলিশের ফেসবুক পেজে। আর এতে জেলায় সাধারণ মানুষের মধ্যে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে এই আয়োজনের দায়ভারও স্বীকার করেছেন জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান।

মাদারীপুর সদর থানায় প্যান্ডেল খাটিয়ে বিশাল আয়োজন

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাস রোধে সর্বশেষ অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় ঈদের দিন কোনও সামাজিক আয়োজন না করার সরকারি নিষেধাজ্ঞা ছিল। তবে সে নির্দেশনা নিজেরাই না মেনে ঈদের দিন প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয় মাদারীপুর জেলা পুলিশের অন্তর্গত বিভিন্ন ইউনিটে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মাদারীপুর পুলিশ লাইন্স, সদর থানায়, কালকিনি, শিবচর, রাজৈর ও ডাসার থানাসহ জেলা পুলিশের আওতাধীন সব পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও পুলিশ ইউনিটে এমন প্রীতিভোজ  অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা পুলিশের ফেসবুকে পেজে মাদারীপুর সদর মডেল থানায় প্রীতিভোজ আয়োজনের ছবি পোস্ট করে লেখা হয়, ‘সচেতন হোন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে নিরাপদ থাকুন, নিরাপদ রাখুন।’

সদর থানায় জেলা পুলিশের এই আয়োজনে অংশগ্রহণ করেছেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল হান্নান, সদর থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞাসহ সব পুলিশ সদস্য। তবে এখানে অতিথি হিসেবে এসেছিলেন মাদারীপুরের পৌর মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ, মাদারীপুর জেলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি হাফিজুর রহমান যাচ্চু খান, মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান খান, মুক্তিযোদ্ধা নূরুল আলম বাবু চৌধুরীসহ কয়েকজন ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী।

মাদারীপুর মডেল সদর থানায় ঈদের দিনে পুলিশ সদস্যদের প্রীতিভোজ

এদিকে কালকিনির ডাসার থানা ভবনের মধ্যে এই আয়োজনে মাদারীপুর থেকে অংশগ্রহণ করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) বদরুল আলম মোল্লা, যিনি মাদারীপুর সদর মডেল থানা ও কালকিনি উপজেলার ডাসার ও কালকিনি থানার তদারক কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্বরত আছেন।

মাদারীপুর সদর থানার ১নং পুলিশ ফাঁড়ি, ২নং পুলিশ ফাঁড়ি, চরমুগরিয়া পুলিশ ফাঁড়ি, আঙ্গুলকাটা তদন্ত পুলিশ কেন্দ্র ও শ্রীনদী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের অংশগ্রহণ ও তদারকি করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মনিরুজ্জামান ফকির। রাজৈরে থানা ভবনের মধ্যে প্রীতিভোজের আয়োজনে অংশগ্রহণ করেন সহকারী পুলিশ সুপার (শিবচর সার্কেল) আবির হাসান। তিনি রাজৈর ও শিবচর থানা এলাকার দায়িত্বে রয়েছেন। আর সবচেয়ে বড় আয়োজন হয় পুলিশ লাইন্সের ক্যান্টিনে। এখানে মাদারীপুরের গোয়েন্দা পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ, রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সসহ পুলিশ লাইন্সের সব সদস্য অংশগ্রহণ করেন।

মাদারীপুর পুলিশ লাইন্সে করা হয় প্রীতিভোজের সবচেয়ে বড় আয়োজন। এখানে অংশ নেন গোয়েন্দা পুলিশ, ট্রাফিক পুলিশ, রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সসহ পুলিশ লাইন্সের সকল সদস্য।

তবে করোনার কারণে সারা দেশে কোনও ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও মাদারীপুর পুলিশের এই আয়োজন এবং সদর থানায় বিশাল আকৃতির প্যান্ডেল বানিয়ে উৎসব নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে চারদিকে। আবার এই আয়োজন পুলিশ সদস্যদের জন্য হলেও সেখানে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের অংশগ্রহণের যেসব ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার হয়েছে তাতে সামাজিক দূরত্ব মানা হয়নি বলেও সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এছাড়াও বেশ কয়েকজন বিতর্কিত ব্যক্তি কীভাবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এই দাওয়াতে অংশ নিলেন তা নিয়েও অনেক ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

মাদারীপুর পুলিশ লাইন্সে কর হয় সবচেয়ে বড় আয়োজন

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পুলিশ সদস্য ও পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে এমনটিই নির্দেশনা রয়েছে। তবে পুলিশ লাইন, পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও ফাঁড়িতে সার্বক্ষণিক যেসব পুলিশ সদস্য থাকেন এবং দায়িত্ব পালন করেন তাদের মধ্যে সামাজিক দূরত্ব মেনে পুলিশি দায়িত্ব পালন করা সম্ভব নয়। জেলার সদর মডেল থানার মধ্যে খেতে বসার মতো পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় একটি প্যান্ডেল করা হয়েছে। যেখানে পুলিশ সুপার ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছিলেন। অন্য সব জায়গায় যেমন রাজৈর, কালকিনি, ডাসার, শিবচর থানা ও পুলিশ ফাঁড়িতে কোনও প্যান্ডেল করা হয়নি। সেসব জায়গায় একটি কক্ষের মধ্যেই খাওয়ার আয়োজন ছিল। পুলিশ লাইনসহ বিভিন্ন তদন্ত কেন্দ্র ও ফাঁড়িতে স্বাভাবিক সময়ে যেসব কক্ষে সবাই মিলে খায় সেখানেই ঈদের দিন সবাই খাবার খেয়েছেন। ঈদের দিন হওয়ায় খাবারের মেন্যু একটু আলাদা ছিল এই আর কী। সদর থানায় প্রীতিভোজ অনুষ্ঠান এই কথাটি না লিখলে আর প্যান্ডেল না টানালে আর কোনও ঝামেলা থাকতো না। আসলে এসপি মহোদয় এসেছিলেন বলে সেখানে সবার একসঙ্গে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছিল।

রাজৈর থানায় প্রীতিভোজের আয়োজন

ওই পুলিশ কর্মকর্তারা বলেন, সদর মডেল থানার আয়োজনে পুলিশ সদস্যদের বাইরে কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি কেন অংশ নিলেন, তাদের সঙ্গে কেন দু’একজন নেতাকর্মী বা সহযোগীরা এসেছেন, বসেছেন, এতেই এই আলোচনা-সমালোচনা। এসব নিয়ে আমরা কোনও কথা বলতে চাই না। তাই বিষয়টি নিয়ে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন সবাই নীরব অবস্থানে রয়েছেন।

মাদারীপুর সদর মডেল থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিঞা সাংবাদিকদের বলেন, ‘ঈদের দিন নিজেদের খাওয়া-দাওয়ার জন্য সব সদস্যকে নিয়ে প্রীতিভোজের আয়োজন করি। তবে জেলা শহরের কয়েকজন বিশিষ্ট ব্যক্তি থানায় আমাদের শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন। খাওয়ার আয়োজনে তাদেরও আমরা অংশগ্রহণ করতে বললে তারা অংশগ্রহণ করেছেন।’

দাশের থানায় প্রীতিভোজের আয়োজন

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘এর দায়ভার জেলা পুলিশ সুপারের অর্থাৎ আমার।’ পুলিশের প্রীতিভোজ আয়োজনে বাইরের ও বিতর্কিত লোকজন অংশগ্রহণ করার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় আমরা সবার কাছে গুরুত্ব ও ভাবগাম্ভীর্য হারিয়েছি। শীঘ্রই তা ফিরিয়ে আনতে হবে।’

উল্লেখ্য, দেশের প্রথম করোনা আক্রান্ত ও প্রথম লকডাউন হওয়া জেলা মাদারীপুর। এ জেলায় শুরু থেকে এখন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ প্রশাসন কঠোর পরিশ্রম ও দায়িত্ব পালন করে স্থানীয়দের কাছে ব্যাপক আস্থা অর্জন করেছে।

 

/টিএন/এমওএফ/

সম্পর্কিত

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

আশুলিয়ায় ১৩ দিনেও খোঁজ মেলেনি শিক্ষকের

আশুলিয়ায় ১৩ দিনেও খোঁজ মেলেনি শিক্ষকের

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:৩২

করোনাভাইরাস রোধে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউনের মধ্যে যেকোনও জনসমাগম নিষিদ্ধ থাকলেও নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভা হলরুমে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের দুই শতাধিক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে চা-চক্রের আয়োজন করেছেন পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে সোমবার (২৬ জুলাই) বিকালে প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মীর উপস্থিতিতে এ চা-চক্রের আয়োজন করা হয়।

কাদের মির্জার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে চা-চক্র অনুষ্ঠানের চারটি ছবি আপলোড করলে, স্থানীয় সচেতন মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেন। স্থানীয়রা বলছেন, তার এ ধরনের কর্মকাণ্ড সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। একজন জনপ্রতিনিধির এমন কর্মকাণ্ডে এ ধরনের কাজে অনেকেই উৎসাহিত হবেন।

অনুষ্ঠানে নেতাকর্মীদের সমাগম

জানা গেছে, চিকিৎসার জন্য বুধবার (২৮ জুলাই) ভোর ৪টায় আমেরিকার উদ্দেশে উড়াল দেবেন বসুরহাটের পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) বেলা ১১টায় কোম্পানীগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেবেন। এ জন্য অনুসারীদের নিয়ে তিনি এ চা-চক্রের আয়োজন করেন।

লকডাউনে এমন অনুষ্ঠান আয়োজনের বিষয়ে জানতে কাদের মির্জার মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি। তবে চা-চক্র অনুষ্ঠানের পর নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে চারটি ছবি আপলোড করে কাদের মির্জা লেখেন, আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দর সঙ্গে চা-চক্রে দিকনির্দেশনামূলক আলোচনা হয়। কোম্পানীগঞ্জে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে ধৈর্য নিয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিই। আসুন, সবাই শান্তশিষ্ট কোম্পানীগঞ্জ প্রতিষ্ঠায় যে যার অবস্থান থেকে সহযোগিতা করি।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন ভঙ্গ করে এ ধরনের চা-চক্র করার কোনও সুযোগ নেই।

/এফআর/

সম্পর্কিত

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০১:২৭

করোনা মহামারির মধ্যে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে গত তিন মাসে ছয় হাজার ৫৬৮ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে করোনা রোগীও রয়েছেন। একই সময়ে ভারতীয় ও বাংলাদেশি মিলে ভারত গেছেন প্রায় দুই হাজার ১২০ জন।

সোমবার (২৬ জুলাই) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর মুজিবুর রহমান। তিনি বলেন, ভারতে যাওয়া যাবে সপ্তাহে সাত দিন ফেরা যাবে তিন দিন।

মুজিবুর রহমান বলেন, কলকাতায় বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন থেকে অনাপত্তিপত্র নিয়ে গত ২৬ এপ্রিল থেকে ২৬ জুলাই পর্যন্ত অর্থ্যাৎ তিন মাসে ছয় হাজার ৫৬৮ জন বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন। এদের মধ্যে করোনায় আক্রান্ত রয়েছেন ১৭ জন। অন্যদিকে বাংলাদেশ থেকে দুই হাজার ১২০ জন ভারতীয় ও বাংলাদেশি ভারতে গেছেন। তাদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আলী বলেন, ভারতফেরত যাত্রীরা নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকছেন। এসব পাসপোর্ট যাত্রীকে বেনাপোলের ১৪টি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রাখা হচ্ছে। এছাড়া ঝিকরগাছার গাজিরদরগা, সাতক্ষীরা, নড়াইল, খুলনা, মাগুরা ও ঝিনাইদহে কয়েকটি প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন রয়েছে। যাত্রীর পরিমাণ বাড়লে সেখানেও রাখা হয়।

তিনি বলেন, ভারতফেরত নারীদের নিরাপত্তায় পৃথক কোয়ারেন্টিন সেন্টার করা হয়েছে যশোর শহরের রেল রোডের জয়তী সোসাইটিতে। কোয়ারেন্টিনে নারী পুলিশ সদস্যের সঙ্গে সেখানকার নারী স্বাস্থ্যকর্মীরা দায়িত্বপালন করছেন। করোনা পজিটিভ ও গুরুতর অসুস্থদের যশোর জেনারেল হাসপাতাল ও বক্ষব্যাধিসহ অন্য হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

যেসব যাত্রী করোনায় আক্রান্ত কিংবা উপসর্গ নিয়ে দেশে ফিরছেন তাদের যশোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আলী।

/এএম/

সম্পর্কিত

রোগীকে ভর্তি না নেওয়ায় চিকিৎসককে পেটালেন স্বজনরা

রোগীকে ভর্তি না নেওয়ায় চিকিৎসককে পেটালেন স্বজনরা

রংপুরে করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

রংপুরে করোনায় আরও ১৬ জনের মৃত্যু

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

সিলেটে রেকর্ড মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

ঈদের পর খুলনায় বেড়েছে মৃত্যু 

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২১, ০০:২২

করোনাভাইরাস রোধে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন অমান্য করায় চতুর্থ দিনে ময়মনসিংহ জেলা, উপজেলা প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের ভ্রাম্যমাণ আদালত ৩৪০ মামলায় দুই লাখ ৩৯ হাজার ৭৩০ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন।

সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত সময়ে এসব জরিমানা আদায় করা হয়।

এ তথ্য নিশ্চিত করে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আয়েশা হক জানান, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে ১৪৮ মামলায় ৭২ হাজার টাকা, উপজেলা প্রশাসন ১৭৬ মামলায় এক লাখ ৬২ হাজার ৩৮০ টাকা এবং ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন ১৬ মামলায় পাঁচ হাজার ৩৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেছে।

তিনি আরও জানান, কঠোর লকডাউন শুরুর পর থেকে চার দিনে এক হাজার ৪৮৪ মামলার বিপরীতে আট লাখ ৬৩ হাজার ৪৭৫ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। সরকারি বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকার কথাও জানান তিনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করতে এসে জরিমানা গুনলো স্কুলছাত্র

স্কুলছাত্রীকে বিয়ে করতে এসে জরিমানা গুনলো স্কুলছাত্র

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের কোভিড ওয়ার্ডে চিকিৎসক সংকট

ময়মনসিংহ মেডিক্যালের কোভিড ওয়ার্ডে চিকিৎসক সংকট

পথচারীর প্রাণ বাঁচাতে গিয়ে খাদে ইউএনওর গাড়ি

পথচারীর প্রাণ বাঁচাতে গিয়ে খাদে ইউএনওর গাড়ি

মেয়াদোত্তীর্ণ ও সৌজন্য ওষুধ বিক্রি, ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা

মেয়াদোত্তীর্ণ ও সৌজন্য ওষুধ বিক্রি, ৫ ফার্মেসিকে জরিমানা

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৫

পাহাড় থেকে কক্সবাজারের টেকনাফের প্রধান সড়কে একটি বন্যহাতি নেমে এসেছে। ধারণা করা হচ্ছে, খাবারের খোঁজে হাতিটি পাহাড় থেকে নেমে এসেছে। সোমবার (২৬ জুলাই) রাত ১১টায় টেকনাফ পৌরসভার নাইট্যাং পাড়ায় বন বিভাগের পাশে প্রধান সড়কে অবস্থান করছে হাতিটি। এ সময় হাতিটি সড়কের পাশের কয়েকটি গাছ ভেঙে ফেলায় কক্সবাজার-টেকনাফ প্রধান সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এ বিষয়ে দক্ষিণ বন বিভাগ টেকনাফের রেঞ্জ কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক আহমেদ বলেন, ‘প্রচণ্ড বৃষ্টিতে রাতে প্রধান সড়কে একটি পাহাড়ি হাতি নেমে আসার খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পৌঁছে আমাদের লোকজন হাতিটিকে পাহাড়ের ভেতরে ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে।’

টেকনাফ সদর সিবিজি সভাপতি মাহমদুল্লাহ বলেন, ‘সোমবার রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টিতে পাহাড় থেকে প্রধান সড়কে একটি বন্যহাতি নেমে এসে গাছপালা ভেঙে ফেলছে। এতে রাস্তার দু’পাশে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছি। হাতিটিকে পাহাড়ে ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছি।’

স্থানীয় বাসিন্দা মো. আরাফাত বলেন, ‘পাহাড়ি একটি বন্যহাতি প্রধান সড়কে নেমে এদিক-ওদিক ছুটছে। এতে এখানকার বাসিন্দারা ভয়ের মধ্য রয়েছেন।’ 

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ পারভেজ চৌধুরী বলেন, ‘পাহাড়ি হাতিটি সড়কে নেমে আসার খবর পেয়ে বন বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করছি। যাতে এটি নাফ নদের সীমান্তে না যাওয়ার আগে পাহাড়ের ভেতরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।’

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন টেকনাফ সীমান্তে নাফ নদে দুটি হাতির দেখা মেলে। সেদিন সন্ধ্যায় পাঁচ ঘণ্টা চেষ্টার পর টেকনাফ জালিয়াপাড়া প্যারাবন থেকে হাতি দুটিকে বনাঞ্চলে ঢুকিয়ে দেন দক্ষিণ বন বিভাগ টেকনাফ ও এলিফ্যান্ট রেসপন্স টিমের সদস্যরা। তবে রবিবার সকালে আবার নাফ নদে নেমে আসে হাতি দুটি। পরের দিন শাহপরীর দ্বীপ এলাকার সমুদ্র সৈকত থেকে ট্রলারের সহতায় হাতি দুটিকে উদ্ধার করে টেকনাফে পাহাড়ে দিকে নিয়ে আসার সময় আবার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। যদিও দক্ষিণ বন বিভাগ টেকনাফ কর্মকর্তারা দাবি করে আসছিলেন, হাতি দুটিকে তারা পাহাড়ে ঢুকিয়ে দিতে সক্ষম হয়েছেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা করোনায় আক্রান্ত

সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমা করোনায় আক্রান্ত

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০২১, ২৩:৪০

বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা চিকিৎসার জন্য আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে কোম্পানীগঞ্জে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠায়’ সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। সোমবার (২৬ জুলাই) বিকালে পৌরসভা মিলনায়তনে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে চা-চক্রে তিনি এ নির্দেশনা দেন।

এরপর সন্ধ্যা ৬টায় তার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে লিখেছেন-

আমেরিকা যাওয়ার প্রাক্কালে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দর সঙ্গে চা-চক্রে দিকনির্দেশনামূলক আলোচনা হয়। কোম্পানীগঞ্জে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে ধৈর্য নিয়ে কাজ করার নির্দেশনা দিই। আসুন, সবাই শান্তশিষ্ট কোম্পানীগঞ্জ প্রতিষ্ঠায় যে যার অবস্থান থেকে সহযোগিতা করি।

আবদুল কাদের মির্জার চা-চক্রে উপস্থিত নেতাকর্মীরা

আমার অনেক আগে আমেরিকা যাওয়ার কথা ছিল। নানা কারণে যেতে পারিনি। আগামীকাল মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) আমেরিকার উদ্দেশে কোম্পানীগঞ্জ ত্যাগ করব। সেখানে চিকিৎসা নিতে আমার প্রায় ১০ দিন সময় লাগতে পারে। এ সময় আপনারা সবাই শান্ত থাকবেন। কোনও অনুষ্ঠান করতে হলে সংগঠনের ঊর্ধ্বতন নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলোচনা করে করবেন। আমি চাই, শান্তির জনপদ কোম্পানীগঞ্জে শান্তি ফিরে আসুক।

চা-চক্রে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইস্কাদার হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. ইউনুছ, সহ-সভাপতি হাসান ইমাম বাদল, জামাল উদ্দিন, আইনবিষয়ক সম্পাদক শঙ্কর ভৌমিক, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আজিজুল হক এবং কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সর্বশেষ

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

লকডাউনে কাদের মির্জার চা-চক্রের আয়োজন

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ভারত থেকে তিন মাসে ফিরলেন সাড়ে ৬ হাজার বাংলাদেশি

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

ময়মনসিংহে ৩৪০ মামলায় আড়াই লাখ টাকা জরিমানা আদায়

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

আনজাম মাসুদের সঙ্গে এবার ১৪ জন কণ্ঠশিল্পী!

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

রণক্ষেত্র আসাম-মিজোরাম, কেন্দ্রের হস্তক্ষেপের আহ্বান

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

টেকনাফের প্রধান সড়কে বন্যহাতি

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

আমেরিকায় যাওয়ার আগে ‘শান্তি প্রতিষ্ঠার’ ডাক কাদের মির্জার

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

৪৬ আফগান সেনাকে আশ্রয় দিলো পাকিস্তান

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে আসায় মৃত্যু বাড়ছে

টিকা দিতে কারিগরি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

টিকা দিতে কারিগরি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সম্পত্তি নিয়ে বিরোধে ৮ জনকে কুপিয়ে জখম

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

১৫০০ টাকায় ফেরিঘাট থেকে গাজীপুর!

আশুলিয়ায় ১৩ দিনেও খোঁজ মেলেনি শিক্ষকের

আশুলিয়ায় ১৩ দিনেও খোঁজ মেলেনি শিক্ষকের

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

পুড়ে গেছে ৩৬টি বসতঘর, বেঁচে আছে কবুতরগুলো

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

অক্সিজেন কারখানায় অভিযানে শ্রমিকদের মারধরের অভিযোগ

মেয়র আইভীর মায়ের মৃত্যু

মেয়র আইভীর মায়ের মৃত্যু

স্কুলশিক্ষার্থীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

স্কুলশিক্ষার্থীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

© 2021 Bangla Tribune