X
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে ধর্ষণ, ছাত্রলীগের কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩:৫৮

ছাত্রলীগের ছয় কর্মী


সিলেটের এমসি (মুরারি চাঁদ) কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ওই তরুণীর স্বামী শুক্রবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাতে বাদী হয়ে শাহপরাণ থানায় মামলা করেছেন। মামলায় এজাহার নামীয় আসামি করা হয়েছে ৬ জনকে। সেই সঙ্গে অজ্ঞাতনামা আরও ২/৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। এদিকে, এ ঘটনার পর আজ শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টার মধ্যে ছাত্রাবাস ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

আসামিরা হলো, এম. সাইফুর রহমান, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, তারেক আহমদ, অর্জুন লঙ্কর, রবিউল ইসলাম ও মাহফুজুর রহমান। এরা সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। আসামিদের মধ্যে তারেক ও রবিউল বহিরাগত, বাকিরা এমসি কলেজের ছাত্র। 
স্বামীকে বেঁধে গৃহবধূ সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনার অন্যতম হোতা ছাত্রলীগ ক্যাডার এম সাইফুর রহমানের রুম থেকে দেশীয় ও আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাত ২টার দিকে শাহপরাণ থানা পুলিশ এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে অভিযান চালায়। এসময় সাইফুরের রুম থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র, চারটি রামদা, একটি ছোরা ও জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়। 
শাহপরাণ থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। পুলিশ আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। সাইফুর রহমানের রুম থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র ও ছোরা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 
জানা যায়, শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামীকে সঙ্গে নিয়ে এমসি কলেজে বেড়াতে আসেন ওই তরুণী। ক্যাম্পাস থেকে ছাত্রলীগের ওই ৭ কর্মী মিলে স্বামীসহ ওই তরুণীকে তুলে নেয় কলেজ ছাত্রাবাসে। পরে তারা স্বামীকে বেঁধে মারধর করে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

ছাত্রাবাস ছাড়ার নির্দেশ

কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে ধর্ষণের ঘটনায় ছাত্রাবাস ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। শনিবার দুপুর ১২টার মধ্যে ছাত্রাবাস ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন হোস্টেল সুপার জামাল উদ্দিন।

তিনি জানান, এমসি কলেজের অধ্যক্ষ শনিবার দুপুরে জরুরি বৈঠক ডেকেছেন। সেখানে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। করোনার সময়ে হোস্টেল বন্ধ থাকলেও ছাত্ররা কীভাবে ছাত্রাবাসে থাকছে এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, 'কলেজ বন্ধ হোস্টেলও বন্ধ রয়েছে। তবে কিছু শিক্ষার্থীরা টিউশনি করানোর কারণে ছাত্রাবাসে থাকছেন। যারা এখন হল ছাড়বে না তাদের বিরুদ্ধে কলেজ কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নেবে।'

 

/এসটি/

সম্পর্কিত

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

প্রাইভেট কার-পিকআপ সংঘর্ষে দাদা-নাতি নিহত

প্রাইভেট কার-পিকআপ সংঘর্ষে দাদা-নাতি নিহত

শেকলে বাঁধা অবস্থায় পুড়ে মৃত্যু 

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪১

বুড়িচংয়ে শেকল বাঁধা অবস্থায় এক মানসিক ভারসাম্যহীন তরুণের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে উপজেলার বাকশীমুল ইউনিয়নের খাড়েরা পশ্চিমপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই তরুণের নাম আলাউদ্দিন (১৯)। সে ওই এলাকার চটপটি বিক্রেতা আবদুল মমিনের ছেলে এবং কালিকাপুর আবদুল মতিন খসরু কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বুড়িচং থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন। পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে তিনি জানান, আলাউদ্দিন গত প্রায় তিনমাস আগে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন। এ জন্য তাকে ঘরের ভেতর শেকল দিয়ে বেঁধে রাখা হতো। মঙ্গলবার রাতে ওই ঘরের বৈদ্যুতিক মিটার থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়ে পুরো ঘর পুড়ে যায়। এ সময় আগুনে পুড়ে প্রাণ হারায় আলাউদ্দিন। ‘পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়দের অনুরোধে এবং মানবিক কারণে’ তার লাশ স্বজনদের কাছে দিয়ে আসা হয় বলেও জানান ওসি আলমগীর।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ফয়েজ আহমেদ বলেন, খাড়েরা গ্রামের আবদুল মতিন তার অন্যান্য সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চটপটি বিক্রি করতেন। করোনাকালে কলেজ বন্ধ থাকায় তাকে সহায়তা করতো আলাউদ্দিন। কিন্তু গত প্রায় তিন মাস আগে তার মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। এরপর থেকে তাকে ঘরের ভেতর শেকলে বেঁধে রাখা হতো। মঙ্গলবার রাতে তাদের ঘরে আগুন লাগে। এ সময় বাড়িতে কেবল তার মা, বড় ভাই এবং ভাইয়ের বউ ছিল। তাদের শোর-চিকৎকারে আশপাশের লোকজন এসে আলাউদ্দিনকে বাঁচানোর চেষ্টা করে, খবর দেওয়া হয় ফায়ার সার্ভিসে। প্রায় ঘণ্টাখানেকের প্রচেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। কিন্তু ততক্ষণে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনে পুড়ে মারা যায় আলাউদ্দিন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

‘একাদশ নির্বাচনের মতো খেলা শুরু করলে কঠিন খেসারত দিতে হবে’

‘একাদশ নির্বাচনের মতো খেলা শুরু করলে কঠিন খেসারত দিতে হবে’

মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের দায়ে গ্রেফতার ৪

মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের দায়ে গ্রেফতার ৪

‘মেজর সিনহাকে মুইন্যা পাহাড়ে নিয়ে হত্যার পরিকল্পনা ছিল’

‘মেজর সিনহাকে মুইন্যা পাহাড়ে নিয়ে হত্যার পরিকল্পনা ছিল’

কক্সবাজারের রিসোর্টে নারী পর্যটকের মরদেহ

কক্সবাজারের রিসোর্টে নারী পর্যটকের মরদেহ

স্ত্রীকে হত্যার ৩ দিন পর ‌‌‘অনুতপ্ত’ স্বামীর আহাজারি

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৪

ময়মনসিংহের নান্দাইলে স্ত্রীকে হত্যার তিন দিন পর স্বামী সাদ্দাম হোসেনকে (৪০) গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার গাঙাইল ইউনিয়নের শ্রীরামপুর এলাকার হাওর থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

সাদ্দাম হোসেন উপজেলার গাংগাইল ইউনিয়নের শ্রীরামপুর গ্রামের হাদিস মিয়ার ছেলে। গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাত ১২টার দিকে সুরাশ্রম এলাকার একটি হাওর থেকে তার স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তারের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নান্দাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ জানান, হত্যার পর থেকে সাদ্দাম হোসেন মানসিকভাবে কিছু বিপর্যস্ত হয়ে ওই হাওরে লুকিয়ে ছিল। তিন দিন পর অনুতপ্ত হয়ে দা হাতে সেই হাওরে আহাজারি ও চিৎকার করতে থাকে। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে গ্রেফতার করে। সাদ্দামকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানো হবে।

স্থানীয়রা জানায়, ১০ বছর আগে সাদ্দাম হোসেনের সঙ্গে নেত্রকোনার কেন্দুয়ার পাইকুড়া ইউনিয়নের সোহাগপুর গ্রামের মো. সিরাজের মেয়ে ইয়াসমিনের বিয়ে হয়। তাদের দুটি সন্তান রয়েছে। প্রায়ই বিভিন্ন বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে ঝগড়া হতো। কিছুদিন আগে পারিবারিক ঝামেলা মামলা পর্যন্ত গড়ায়। কয়েকদিন আগে দুই পরিবারের মধ্যে সমাঝোতা হয়। লাশ উদ্ধারের দুই দিন আগে স্বামীর বাড়িতে ফিরে আসেন ইয়াসিমন।

ঘটনার দিন সন্ধ্যার পর বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে নির্জন জায়গা থেকে এক শিশুর কান্নার শব্দ ভেসে আসে। কান্নার শব্দ কোথা থেকে আসছে, তা খুঁজতে গিয়ে ইয়াসমিনের রক্তাক্ত লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। এ সময় লাশের পাশে বসে তার শিশুকন্যা কাঁদছিল। স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে নিহতের ভাই বকুল মিয়া বাদী হয়ে সাদ্দাম হোসেনসহ পাঁচজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

বিপুল পরিমাণ চোরাই ডিজেলসহ গ্রেফতার ১

বিপুল পরিমাণ চোরাই ডিজেলসহ গ্রেফতার ১

মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের দায়ে গ্রেফতার ৪

মাদ্রাসাছাত্রীকে অপহরণের দায়ে গ্রেফতার ৪

কণ্ঠশিল্পী সালমার পার্কের উদ্বোধন

কণ্ঠশিল্পী সালমার পার্কের উদ্বোধন

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩৪

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে মসজিদে আজান দেওয়ার সময় মাইক সেটে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বরকত উল্লাহ গাজী (৭৫) নামে এক মুয়াজ্জিনের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার তারালী ইউনিয়নের রহিমপুর (পাচুলিয়া) গ্রামের মৃত মাদার গাইনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, বরকত উল্লাহ উপজেলার তারালী ইউনিয়নের রহিমপুর পাঞ্জেগানা মসজিদের মুয়াজ্জিনের দায়িত্ব পালন করতেন। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১ টার দিকে তিনি মসজিদে আজান দিতে যান। এ সময় মাইকের তার থেকে বিদ্যুতায়িত হয়ে ঘটনাস্থলেই তিনি প্রাণ হারান। 

খবর পেয়ে কালিগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক আশিষ কুমার ঘোষ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করেন।

সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কারও কোনও অভিযোগ না থাকায় মৃতদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

বিদ্যালয় বন্ধের সুযোগে ৯২ ছাত্রীর বাল্যবিয়ে, হতাশ শিক্ষকরা

বিদ্যালয় বন্ধের সুযোগে ৯২ ছাত্রীর বাল্যবিয়ে, হতাশ শিক্ষকরা

ইভ্যালির রাসেলের বিরুদ্ধে যশোরে মামলা

ইভ্যালির রাসেলের বিরুদ্ধে যশোরে মামলা

বিল গেটসের ফাউন্ডেশন থেকে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি তরুণী

বিল গেটসের ফাউন্ডেশন থেকে পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশি তরুণী

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৫

সোনালী ব্যাংকের কেন্দুয়া শাখার এক নারী গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে সাত লাখ টাকা উধাওয়ের ঘটনায় ব্যবস্থাপক আরিফ আহম্মদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পারভিন আক্তার নামের গ্রাহকের চেক জালিয়াতি করে টাকা তোলা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) ব্যবস্থাপককে প্রত্যাহার করে সোনালী ব্যাংকের নেত্রকোনা আঞ্চলিক কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার শাহজালাল মিয়াকে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ঘটনা তদন্তে হওয়া কমিটির প্রধান করা হয়েছে সোনালী ব্যাংকের নেত্রকোনা অঞ্চলের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) রাসমোহন সাহাকে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মিনহাজুল আলম ও প্রিন্সিপাল অফিসার আবু সিদ্দিক খান।

ব্যবস্থাপক আরিফ আহাম্মদকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্যাংকটির ময়মনসিংহ অঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মো. আবদুল মজিদ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চেক জালিয়াতি করে সাত লাখ টাকা তুলে নেওয়ার ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

তিনি আরও জানান, তদন্তে ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, কেন্দুয়া পৌর এলাকার বাদে আঠারোবাড়ি মহল্লার পূর্ণতা নামে এক নারী গত ৬ মাস ধরে ব্যাংকে এসে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, পেনশন ভোগীসহ অন্যান্য সহজ সরল গ্রাহকদের সঙ্গে মিশে তাদের হিসাব থেকে চেক লিখে দিয়ে টাকা তুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করে আসছেন। গত রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পূর্ণতা আক্তার (২৫) উপজেলার চিরাং ইউনিয়নের ছিলিমপুর গ্রামের পারভিন আক্তারের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে কৌশলে চেকের একটি পাতা ছিঁড়ে রেখে দেন। পরে পারভিনের স্বাক্ষর জাল করে ওই দিন দুপুরে ৭ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে তুলে নেন। তার মোবাইলে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের মেসেজ যাওয়ার পর বিষয়টি টের পেয়ে পারভিন আক্তার ওই ব্যাংকের কর্মকর্তাদের শরণাপন্ন হন। পরে সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর)  স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যস্থতায় ওই টাকা উদ্ধার করা হয়। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, এই জালিয়াতির ঘটনায় ব্যাংকের লোকজনও জড়িত আছে। অভিযুক্ত পূর্ণতা আক্তারের বাড়ি কেন্দুয়া পৌর এলাকার বাদে আঠারবাড়ি মহল্লায়। তিনি ওই এলাকার মামুন মিয়ার স্ত্রী।

এ বিষয়ে প্রত্যাহার হওয়া শাখা ব্যবস্থাপক আরিফ আহম্মদের মোবাইলফোনে একাধিকবার কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কণ্ঠশিল্পী সালমার পার্কের উদ্বোধন

কণ্ঠশিল্পী সালমার পার্কের উদ্বোধন

গরিবের ৮৪ বস্তা চাল সরানোর চেষ্টা

গরিবের ৮৪ বস্তা চাল সরানোর চেষ্টা

গরিবের ৮ কোটি টাকা আত্মসাৎ, ৩ কর্মকর্তা ৬ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

গরিবের ৮ কোটি টাকা আত্মসাৎ, ৩ কর্মকর্তা ৬ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ২৫ বছর পর ফিরে পেলেন বাবা-মা

হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ২৫ বছর পর ফিরে পেলেন বাবা-মা

পুলিশের পিটুনিতে জেলের মৃত্যুর অভিযোগ, পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৫২

পটুয়াখালীতে নৌপুলিশ সদস্যদের মারধরে মো. সুজন মিয়া (৩০) নামের এক জেলের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পটুয়াখালী পু‌লিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ। তিনি বলেন, কোনও ব্যক্তির দায় পু‌লিশ নেবে না। ঘটনার প্রকৃত কারণ উদঘাট‌নের জন্য জেলা পু‌লিশ ও নৌ পু‌লিশের পক্ষ থে‌কে পৃথক দু‌টি তদন্ত ক‌মি‌টি গঠন করা হ‌য়ে‌ছে। তদন্ত ক‌মি‌টির রি‌পো‌র্ট পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন তিনি। 

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপু‌রে কলাপাড়া উপজেলার বা‌লিয়াতলী এলাকা তেতুলিয়া নদীতে কা‌রেন্ট জাল জব্দ করার অভিযানকা‌লে নৌ পু‌লি‌শের পিটুনিতে সুজন হাওলাদার না‌মের এক জে‌লের মৃত্যুর অভি‌যোগ উঠে। এ ঘটনায় উত্তেজিত জনতা নৌপুলিশের চার সদস্যকে অবরুদ্ধ করে রাখে। 

নিহত জেলের পরিবারের অভি‌যোগ, পুলিশ সদস্যরা সুজন‌কে পিটিয়ে হত্যা করেছে।  

প্রত্যক্ষদর্শী এক জেলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন , নৌপুলিশের সদস্যরা ট্রলারযো‌গে জেলেদের অনেকক্ষণ ধাওয়া করলে জেলেরা তাদের ট্রলারটি তীরে ভিড়িয়ে চার জন দৌ‌ড়ে পালিয়ে যান। এসময় ট্রলারে থাকা সুজনকে পুলিশ সদস্যরা ধরে ফেলে এবং অনেক মারধর করে। এক পর্যায়ে ট্রলারে রাখা জালের ওপর সুজন অচেতন হয়ে পড়ে যান। এ সময় পুলিশ পিটিয়ে সুজনকে হত্যা করেছে এমন খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। পরে বিক্ষুব্ধ জনতা পুলিশ সদস্যদের ট্রলারসহ অবরুদ্ধ করে রাখেন। অপরদিকে অচেতন সুজনকে প্রথমে স্থানীয় বাবলাতলা বাজারে নিয়ে যান স্থানীয়রা। ওই বাজারের এক পল্লী চিকিৎসক দেখে জানান সুজন জীবিত নেই। স্বজনরা সেখান থেকে তাকে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কম‌প্লে‌ক্সে নি‌য়ে গে‌লে দা‌য়িত্বরত চি‌কিৎসক সুজন‌কে মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশের মারধরে জেলের মৃত্যুর কথা শুনে ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্থানীয়রা বালিয়াতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এবিএম হুমায়ুন কবির বলেন, স্থানীয় মানুষ পুলিশ সদস্যদের অবরুদ্ধ করে রেখেছিল। পরে কলাপাড়া ও মহিপুর থে‌কে ২০ থে‌কে ২৫ জন পুলিশ এসে‌ স্থানীয়দের শান্ত করে পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে নিয়ে যায়। 

পটুয়াখালী পু‌লিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, স্থানীয় অনেক লোকজন জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেছেন। সেখানে কলাপাড়া সা‌র্কেলসহ ম‌হিপুর থানার ওসির নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সদস্যরা কাজ করছেন। যদিও বিষয়‌টি নৌপুলিশের, সেখানে জেলা পুলিশের কোনও সদস্যদের সঙ্গে কিছু হয়নি। তারপরেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখ‌তে আমরা সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি।

 

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

রিমান্ডে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন এহসানের রাগীবসহ ৪ ভাই

রিমান্ডে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন এহসানের রাগীবসহ ৪ ভাই

খালি হচ্ছে বরিশালের করোনা ওয়ার্ড

খালি হচ্ছে বরিশালের করোনা ওয়ার্ড

পিটুনিতে জেলের মৃত্যু, ৪ পুলিশকে আটকে রাখলো জনতা

পিটুনিতে জেলের মৃত্যু, ৪ পুলিশকে আটকে রাখলো জনতা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

ছাদের পিলারে ঝুলছিল দুই বোনের লাশ

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

সুনামগঞ্জ থেকে আন্তজেলা বাস চলাচল বন্ধ ঘোষণা

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

লন্ডনে ছুরিকাঘাতে সিলেটের যুবক নিহত

প্রাইভেট কার-পিকআপ সংঘর্ষে দাদা-নাতি নিহত

প্রাইভেট কার-পিকআপ সংঘর্ষে দাদা-নাতি নিহত

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

পরিবারের ৪ সদস্যকে অজ্ঞান করে স্বর্ণালংকার ও টাকা লুট

চিঠি লিখে বিশ্বজয় বাংলাদেশি কিশোরীর

চিঠি লিখে বিশ্বজয় বাংলাদেশি কিশোরীর

বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাইমারির প্রধান শিক্ষিকাসহ নিহত ২

বাস-সিএনজি সংঘর্ষে প্রাইমারির প্রধান শিক্ষিকাসহ নিহত ২

হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু, নিরাপত্তাকর্মী-স্বজনদের সংঘর্ষ

হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু, নিরাপত্তাকর্মী-স্বজনদের সংঘর্ষ

ডেঙ্গুতে মারা গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা

ডেঙ্গুতে মারা গেলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা

ছেলেদের কাছে মায়ের ভিডিও পাঠিয়ে টাকা আদায়, গ্রেফতার ২

ছেলেদের কাছে মায়ের ভিডিও পাঠিয়ে টাকা আদায়, গ্রেফতার ২

সর্বশেষ

শেকলে বাঁধা অবস্থায় পুড়ে মৃত্যু 

শেকলে বাঁধা অবস্থায় পুড়ে মৃত্যু 

স্ত্রীকে হত্যার ৩ দিন পর ‌‌‘অনুতপ্ত’ স্বামীর আহাজারি

স্ত্রীকে হত্যার ৩ দিন পর ‌‌‘অনুতপ্ত’ স্বামীর আহাজারি

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কথা বলতে চায় তালেবান

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

কুয়েত ও সুইডেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেখ হাসিনার বৈঠক

© 2021 Bangla Tribune