সেকশনস

পিকে হালদারের আরও দুই সহযোগী গ্রেফতার

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২১, ১৭:২৬

কানাডায় পালিয়ে থাকা প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পিকে হালদারের আরও দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। তারা হলেন, সুকুমার মৃধা ও তার মেয়ে অনিন্দিতা মৃধা। বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) তাদের দুদকে তলব করে প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাদের গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন দুদকের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।

দুদক সূত্র জানায়, পিকে হালদার ও তার পরিবারের সদস্যদের কর ফাইলের কাজ করেন সুকুমার অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের মালিক সুকুমার মৃধা। এই সুকুমার মৃধার অফিসের ঠিকানা ব্যবহার করে পিকে হালদার নিজের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। সুকুমার মৃধার মেয়ে অনিন্দিতা মৃধা তার প্রতিষ্ঠান উইন্টেল ইন্টারন্যাশনাল পিকে হালদারের এফএএস ফাইন্যান্স থেকে ৪০ কোটি টাকা ও ইন্টারন্যাশনাল লিজিং থেকে ৬০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে আর পরিশোধ করেনি। ঋণের এসব অর্থ পিকে হালদার নিজের বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করে বিদেশে পাচার করেছেন।

দুদক কর্মকর্তারা জানান, তারা এখন পর্যন্ত পিকে হালদারের ৬২ জন সহযোগীকে শনাক্ত করেছেন। তারা সবাই পিকে হালদারকে অর্থ আত্মসাৎ ও পাচারে সহযোগিতা করেছেন। এর আগে গত ৪ জানুয়ারি পিকে হালদারের মামাতো ভাই শঙ্খ ব্যাপারীকে গ্রেফতার করে দুদক। এছাড়া ১৪ জানুয়ারি গ্রেফতার করা হয় পিকে হালদারের আরেক সহযোগী অবন্তিকা বড়ালকে।

দুদক কর্মকর্তারা বলছেন, এখন পর্যন্ত পিকে হালদার ও তার সহযোগীদের মোট এক হাজার ৫৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা জব্দ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছরের জানুয়ারিতে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে ২৭৫ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জন ও পাচারের অভিযোগে মামলা করে দুদক। সেই মামলার তদন্তে এখন পর্যন্ত প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের তথ্য পেয়েছে মামলার তদন্ত সংস্থা। তবে মামলা দায়েরের আগেই পিকে হালদার পালিয়ে কানাডা চলে যান। পাচারের টাকায় কানাডায় তিনি ব্যবসা করছেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তাকে ধরিয়ে দিতে ইন্টারপোল রেড নোটিশ জারি করেছে।

দুদক সূত্র জানায়, এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ছিলেন পিকে হালদার। একই সময়ে তিনি চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস (আইএলএফএসএল), পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এফএএস ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড এবং বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফাইন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি) নিজের নিয়ন্ত্রণে ধরে রাখেন। এসব প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের কাছ থেকে টাকা তুলে তা আত্মসাৎ ও বিদেশে পাচার করে। এর মধ্যে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের গ্রাহকের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতেই দুদক তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান ও পরে মামলা দায়ের করেন।

বাবা ও মেয়ে রিমান্ডে

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও অর্থপাচারের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় গ্রেফতার পিকে হালদারের সহযোগী ইনকাম ট্যাক্সের অ্যাডভোকেট সুকুমার মৃধা ও তার মেয়ে অনিন্দিতা মৃধার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ কে এম ইমরুল কায়েশ রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

এদিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামি সুকুমার মৃধা ও তার মেয়ে অনিন্দিতা মৃধাকে আদালতে হাজির করে তিন দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত উভয়ের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

/এমএইজে/এনএল/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ, ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষ, ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু বর্বর হত্যাকাণ্ড: সিপিবি

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু বর্বর হত্যাকাণ্ড: সিপিবি

মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি বিএনপির

মুশতাকের মৃত্যুর ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি বিএনপির

২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন গুতেরেজ

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন গুতেরেজ

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে মেঘনা থেকে ৭ জন আটক

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে মেঘনা থেকে ৭ জন আটক

বীর মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে নাম বাদ পড়ায় শোকে মৃত্যু!

বীর মুক্তিযোদ্ধার তালিকা থেকে নাম বাদ পড়ায় শোকে মৃত্যু!

খুলনায় ২৪ ঘণ্টা পরিবহন চলাচল বন্ধের ঘোষণা

খুলনায় ২৪ ঘণ্টা পরিবহন চলাচল বন্ধের ঘোষণা

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

সর্বশেষ

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে রাবিতে প্রতিবাদ

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে রাবিতে প্রতিবাদ

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

‘করোনার ১০ মাসে তথ্যপ্রযুক্তিতে ১০ বছর এগিয়েছি’

‘করোনার ১০ মাসে তথ্যপ্রযুক্তিতে ১০ বছর এগিয়েছি’

২৪ সেকেন্ডে গোল করেও জিততে পারেনি মুক্তিযোদ্ধা

২৪ সেকেন্ডে গোল করেও জিততে পারেনি মুক্তিযোদ্ধা

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

তিন মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৪

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

বান্দরবানে ভালুকের আক্রমণে আহত ৩

শামীমার দেশে ফেরার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানালো যুক্তরাজ্যের সুপ্রিম কোর্ট

শামীমার দেশে ফেরার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানালো যুক্তরাজ্যের সুপ্রিম কোর্ট

চলে গেলেন পাবনার তালিকাভুক্ত একমাত্র নারী মুক্তিযোদ্ধা ভানু নেছা

চলে গেলেন পাবনার তালিকাভুক্ত একমাত্র নারী মুক্তিযোদ্ধা ভানু নেছা

ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা চালকসহ নিহত ২

ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশা চালকসহ নিহত ২

মেসি-রোনালদো নন, সর্বকালের সেরা ফেনোমেনন রোনালদো

ইব্রাহিমোভিচের চোখেমেসি-রোনালদো নন, সর্বকালের সেরা ফেনোমেনন রোনালদো

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

ঘুরে দাঁড়ানো শেয়ার বাজার ফের গতিহীন

জামিন পেলেন ভারতের দলিত অ্যাকটিভিস্ট নদ্বীপ

জামিন পেলেন ভারতের দলিত অ্যাকটিভিস্ট নদ্বীপ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে মেঘনা থেকে ৭ জন আটক

ডাকাতির প্রস্তুতিকালে মেঘনা থেকে ৭ জন আটক

লেখক মুশতাকের মৃত্যুর বিচারের দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভ

লেখক মুশতাকের মৃত্যুর বিচারের দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভ

কওমি শিক্ষার্থীদের কর্মমুখী ও সাধারণ শিক্ষার সুযোগ দেবে সরকার

কওমি শিক্ষার্থীদের কর্মমুখী ও সাধারণ শিক্ষার সুযোগ দেবে সরকার

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, মধ্যরাতে বিক্ষোভ

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যু, মধ্যরাতে বিক্ষোভ

আপত্তির মুখে দেশে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা খোলার অনুমোদন

আপত্তির মুখে দেশে বিদেশি বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা খোলার অনুমোদন

কাশিমপুর কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু

কাশিমপুর কারাগারে লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যু

পি কে হালদার ও তার সহযোগীদের ৭০ একর জমি  ক্রোকের আদেশ

পি কে হালদার ও তার সহযোগীদের ৭০ একর জমি  ক্রোকের আদেশ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.