X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

সুয়েজ খাল থেকে যেভাবে সরানো হলো দানবাকৃতির জাহাজটি

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২১, ০৯:১৪

প্রায় এক সপ্তাহ সময় সুয়েজ খালে আটকে থাকার পর দুই লাখ টন ওজনের কন্টেইনারবাহী জাহাজ এভার গিভেন-কে শেষ পর্যন্ত মুক্ত করা হয়েছে। জাহাজটি এখন তার গন্তব্যে রওনা হয়েছে।

বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ জাহাজ চলাচলের পথে এভার গিভেন বেশ কয়েক দিন যাবত আড়াআড়িভাবে আটকে ছিল। এর ফলে অন্যান্য জাহাজকে ভিন্ন পথ ব্যবহার করতে হয়। চলুন দেখে আসা যাক কিভাবে ডিগার, ড্রেজার আর টাগবোট ব্যবহার করে জাহাজটিকে মুক্ত করা হলো।

গত ২১ মার্চ মিসরের মরুভূমিতে যে ঝড় হয়েছিল সেই ঝড়ের প্রবল বাতাস আর খালের পানিতে জোয়ারের চাপে ৪০০ মিটার দীর্ঘ জাহাজটি তার যাত্রাপথ থেকে সরে যায়। ঘুরে গিয়ে এটি আড়াআড়িভাবে খালের পথ আটকে ফেলে।

প্রতি ঘণ্টায় প্রায় ৫০টি জাহাজ বিশ্বের অন্যতম ব্যস্ত এই নৌপথটি ব্যবহার করে। কিন্তু এই ঘটনার পর সুয়েজ খালের দুই মুখে তৈরি হয় বিশাল যানজট।

রবিবার পর্যন্ত পাওয়া এক হিসাব অনুযায়ী, প্রায় ৪৫০টি মালবাহী জাহাজ ১২০ মাইল লম্বা এই খালের দুই দিকে সাগরে এবং পার্শ্ববর্তী পোর্ট সাঈদে আটকা পড়েছিল। অনেক জাহাজ ঘুরপথে চলে যেতে বাধ্য হয়।

খালটি এখন চালু হলেও এই জট ছাড়তে সাড়ে তিন দিন সময় লেগে যাবে বলে মিসরের কর্মকর্তারা জানাচ্ছেন।

খালটির তদারকি করে সুয়েজ ক্যানেল অথরিটি। এভার গিভেন-কে মুক্ত করতে এই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা প্রথমে ব্যবহার করেন টাগ-বোট। জাহাজ থেকে মোটা মোটা রশি ফেলে টাগ-বোট দিয়ে টেনে জাহাজটির মোড় ঘোরানোর চেষ্টা করা হয়।

টাগ-বোটগুলো যখন দানবাকৃতির এই জাহাজটিকে ঠেলে সরাতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছিল তখন আনা হয় মাটি খোঁড়ার ডিগার ও ড্রেজার। ডিগার দিয়ে জাহাজের যে অংশটি তীরে ঠেকে গিয়েছিল সেই জায়গার মাটি কেটে ফেলা হয়। আর ড্রেজার দিয়ে জাহাজের তলা এবং আশেপাশের কাদা ও বালি সরিয়ে ফেলা হয়।

ম্যারিটাইম বিশেষজ্ঞ স্যাল মার্কোগ্লিয়ানো বলছেন, এই ধরনের ড্রেজার সুয়েজ খালে হরদম ব্যবহার করা হয়। এদের কাজ খালের নাব্যতা বজায় রাখা। তিনি বলেন, ‘ড্রেজারগুলো থেকে লম্বা পাইপগুলো পানির তলায় গিয়ে মূলত কাদা আর বালি তুলে বাইরে ফেলে দেয়।’

মিসরের অর্থনীতি সুয়েজ খালের ওপর বহুলাংশে নির্ভরশীল। করোনা মহামারির আগে দেশটির জিডিপির প্রায় দুই শতাংশ আসতো সুয়েজ খাল থেকে পাওয়া মাশুল থেকে।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, খাল বন্ধ থাকায় তাদের প্রতিদিন গড়ে এক কোটি ৫০ লাখ ডলার লোকসান হয়েছে। অন্যদিকে, লয়েডস লিস্টে প্রকাশিত পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, শত শত মালভর্তি জাহাজ আটকে থাকায় প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৯৬০ কোটি ডলারের ব্যবসা বন্ধ ছিল।

টাগ-বোট আর ড্রেজার ব্যবহার করেই শেষ পর্যন্ত এভার গিভেনকে মুক্ত করা হয়। এটা ব্যর্থ হলে তৃতীয় একটি উপায়ও বিবেচনার মধ্যে ছিল। তা হলো সব মালামাল ও জ্বালানি তেল সরিয়ে ফেলে জাহাজটিকে হালকা করে ফেলা।

সুয়েজ খাল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, আটকে পড়া জাহাজটিকে সরিয়ে নেওয়া পর খাল দিয়ে শতাধিক জাহাজ চলাচল করেছে। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

আমিরাতের বৃহত্তম র‍্যাফেল ড্র’র ঘোষণা, পুরস্কার ১৮০ কোটি টাকা

আমিরাতের বৃহত্তম র‍্যাফেল ড্র’র ঘোষণা, পুরস্কার ১৮০ কোটি টাকা

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা, বড় সাফল্য বলছে ফ্রান্স

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা করেছে ফ্রান্স

পারমাণবিক আলোচনা শুরুর আগে ইরানে গুরুত্বপূর্ণ রদবদল

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গুরুত্বপূর্ণ রদবদল

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন বদলের কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:১১

বিশ্ব ব্যাংকে কর্মরত থাকা অবস্থায় প্রতিবেদন বদলে দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা। বুধবার এক স্বাধীন অনুসন্ধানে দেখা গেছে, চীনের র‌্যাংকিং বাড়াতে কর্মীদের চাপ দিয়ে প্রতিবেদন বদলাতে বাধ্য করেছিলেন তিনি।

বিশ্ব ব্যাংকের অনুসন্ধানে দেখা গেছে, ২০১৮ ও ২০১৯ সালের ডুয়িং বিজনেস প্রতিবেদন তৈরিতে অনিয়ম হয়েছে। এরপরই প্রতিবেদন দুটি সরিয়ে নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সংস্থাটি। অনিয়মের ঘটনায় বিশ্ব ব্যাংকের তৎকালিন প্রধান নির্বাহী ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভার সম্পৃক্ততাও পাওয়া গেছে।

তবে বৃহস্পতিবার বুলগেরিয়ার নাগরিক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা ওই প্রতিবেদনটি প্রত্যাখান করেছেন। ২০১৯ সালের অক্টোবরে আইএমএফ-এ যোগ দেন তিনি। এক বিবৃতিতে জর্জিয়েভা বলেন, ‘বিশ্ব ব্যাংকের ২০১৮ সালের ডুয়িং বিজনেস রিপোর্টের ডাটা অনিয়ম তদন্ত এবং এর সঙ্গে আমার সম্পৃক্ততা নিয়ে দেওয়া বর্ণনার সঙ্গে আমি মৌলিকভাবে দ্বিমত পোষণ করছি।’

জর্জিয়েভা জানিয়েছেন তিনি আইএমএফ বোর্ডকে পরিস্থিতি জানিয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে এই ইস্যুতে বৈঠকে বসবে বোর্ড। তবে কখন এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে তা এখনও স্পষ্ট নয়।

সেন্টার ফর গ্লোবাল ডেভেলপমেন্ট এর জাস্টিন স্যান্ডেফার ওই প্রতিবেদনের মেথোডোলজি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের তার দিকের গল্পটা জানা প্রয়োজন, কিন্তু এই মুহূর্তে ভালো কিছু মনে হচ্ছে না।’

জাস্টিন স্যান্ডেফার বলেন, ‘আন্তর্জাতিকভাবে ম্যাক্রোইকোনোমিক ও ফিনান্সিয়াল তথ্য পর্যবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে আইএমএফ, আর এর প্রধান ডাটা অনিয়মে জড়িত ছিলেন এই অভিযোগ মারাত্মক।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তানে তালেবান শাসনে ‘কঠিন পরীক্ষা’র মুখে ত্রাণ সংস্থাগুলো

তালেবান শাসনে ত্রাণ সংস্থাগুলোর ‘কঠিন পরীক্ষা’

জলবায়ু পরিবর্তনে ‘চরম ঝুঁকিতে’ বাংলাদেশের শিশুরা: ইউনিসেফ

জলবায়ু পরিবর্তনে ‘চরম ঝুঁকিতে’ বাংলাদেশের শিশুরা: ইউনিসেফ

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

করোনা টিকার বুস্টার ডোজ বন্ধের আহ্বান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার

দ্বিতীয় মেয়াদে জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস

দ্বিতীয় মেয়াদে জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:১৭

ভারতের রাজধানী শহর দিল্লিতে ডেঙ্গু আক্রান্ত বাড়তে শুরু করেছে। এই বছর শহরটিতে ১৫৮ রোগী পাওয়া গেছে। গত বছর এই সময় পর্যন্ত রোগীর পরিমাণ ছিলো ১৩১ জন। এর মধ্যে এবছর সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহেই পাওয়া গেছে ৩৪ ডেঙ্গু রোগী।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আবহাওয়া দফতর সামনের কয়েক মাসে আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়ায় মশার বংশবৃদ্ধির সুযোগও বাড়বে। তবে নগর কর্মকর্তাদের দাবি আক্রান্তের পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে ২/৩ গুণ বাড়লেই কেবল পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক বলে মনে করা হয়।

দক্ষিণ দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আমাদের কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ মশা নিরোধক ওষুধ রয়েছে। সেগুলো নিম্নাঞ্চল, নদীর তীর এবং অন্যান্য এলাকায় ছিটানো হবে। যেসব স্থানে মশা থাকতে পারে সেসব বাড়ি এবং আশেপাশের এলাকাতেও আমরা ফগার ম্যাশিন ব্যবহার করছি।’ ওই কর্মকর্তা জানান, সম্প্রতি নির্মাণাধীন এলাকা এবং সরকারি কার্যালয়ের যেসব স্থানে মশা বংশবৃদ্ধি করতে পারে সেসব স্থানে ব্যাপক আকারে মশা নিধন কার্যক্রম চালানো হয়েছে।

ওই কর্মকর্তা জানান, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া এবং ম্যালেরিয়া নিয়ন্ত্রণে মোট ১ হাজার ১৩০ কর্মকর্তা, এক হাজার তিনশ’ মাঠ কর্মী কাজ করছেন। এর পাশাপাশি ৫৫০টি ফগিং মেশিন, আটটি ভারি গাড়ি, চারটি পাওয়ার ট্যাঙ্কার, এক হাজার ৭০টি হ্যান্ড পাম্প এবং ৪৬টি মোটর পাম্প ওষুধ ছিটানোর কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

এদিকে, পূর্ব দিল্লি মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন মাসব্যাপী মশা নিধন কার্যক্রম শুরু করেছে। এছাড়া সেখানে চারটি জ্বর চিকিৎসার হাসপাতাল চালু করা হয়েছে। এক কর্মকর্তা বলেন, ‘আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে আর আমরা নতুন গাইডলাইন জারি করেছি।’

/জেজে/

সম্পর্কিত

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

বাংলাদেশকে ভারতের কূটনৈতিক স্বীকৃতির দিনে পালিত হবে ‘মৈত্রী দিবস’  

বাংলাদেশকে ভারতের কূটনৈতিক স্বীকৃতির দিনে পালিত হবে ‘মৈত্রী দিবস’  

ভারতে প্রতিদিন গড়ে খুন ৮০, ধর্ষণ ৭৭

ভারতে প্রতিদিন গড়ে খুন ৮০, ধর্ষণ ৭৭

রাশিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:০৯

তিন দিনের পার্লামেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। এই নির্বাচনের আগে বিরোধীদের ওপর ব্যাপক দমন পীড়ন চালানোর অভিযোগ রয়েছে। নির্বাচনে অংশ নিতে দেওয়া হয়নি ক্রেমলিনের সবচেয়ে কঠোর সমালোচক আলেক্সাই নাভালনিকেও।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় দেশ রাশিয়া। ১১টি টাইম জোনে বিস্তৃত অঞ্চলে শুক্রবার পার্লামেন্ট ও স্থানীয় নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। মস্কোর বাসিন্দারা যখন ঘুমাতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তখন পূর্বাঞ্চলীয় চুকুতখা এবং কামচাটকা এলাকার বাসিন্দারা ভোট দিতে কেন্দ্রে দৌড়াচ্ছেন।

কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশনের প্রধান ইলা পামফিলোভা এক সরাসরি সম্প্রচারে বলেন, ‘চলুন ভোট দেই।’ রবিবার পর্যন্ত ভোট দিতে পারবেন ভোটাররা।

প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের অনুগত দল ইউনাইটেড রাশিয়ার পার্লামেন্টের প্রভাব কমার কোনও ইঙ্গিত এই নির্বাচনে নেই। ১৪টি দল এই নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তান পরিস্থিতি নিয়ে পুতিন ও ইমরান খানের ফোনালাপ

এক মাসের মধ্যে পুতিন-ইমরান দ্বিতীয় ফোনালাপ

পুতিনের সম্ভাব্য উত্তরসূরি রুশ প্রতিরক্ষা প্রধান?

রাশিয়ায় কে হচ্ছেন পুতিনের উত্তরসূরি?

ঘনিষ্ঠদের করোনা, সেলফ-আইসোলেশনে পুতিন

সেলফ-আইসোলেশনে পুতিন

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

৩ দেশের চুক্তি চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা: চীন

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৩

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ নিরাপত্তা চুক্তি স্বাক্ষরের কঠোর সমালোচনা করেছে চীন। বেইজিং এই চুক্তিকে চরম দায়িত্বজ্ঞানহীনতা এবং সংকীর্ণমনস্কতার পরিচয় বলে অভিহিত করেছে।

ওই চুক্তির আওতায় অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমবারের মতো পারমাণবিক ক্ষমতাসম্পন্ন সাবমেরিন তৈরির প্রযুক্তি দেবে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। মূলত বিরোধপূর্ণ দক্ষিণ চীন সমুদ্রে বেইজিংয়ের প্রভাব খর্ব করতেই এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, ওই জোটটি আঞ্চলিক শান্তির মারাত্মক ক্ষতি সাধন করবে এবং অস্ত্র প্রতিযোগিতা জোরালো করে তুলবে। তিনি এই চুক্তিকে অচল স্নায়ু যুদ্ধের মানসিকতা বলে অভিহিত করে বলেন তিনটি দেশই নিজেদের স্বার্থের ক্ষতি করলো।

চুক্তিটির সমালোচনা করে একই ধরনের সম্পাদকীয় প্রকাশ করেছে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদপত্র। গ্লোবাল টাইমস বলেছেন অস্ট্রেলিয়া এখন চীনের শত্রুদের সঙ্গে মিলিত হয়েছে।

গত ৬০ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো নিজেদের সাবমেরিন প্রযুক্তি অন্যদের দিতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে কেবল যুক্তরাজ্যকেই এই প্রযুক্তি দেয় তারা। এই প্রযুক্তি পাওয়ার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া পারমাণবিক শক্তি চালিত সাবমেরিন তৈরি করতে পারবে যা প্রচলিত সাবমেরিনের চেয়ে বেশি দ্রুত গতিতে চলতে সক্ষম এবং শনাক্ত করা কঠিন। নতুন সাবমেরিন কয়েক মাস পর্যন্ত পানিতে ডুবে থাকতে পারবে আর বেশি দূরত্বে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়তে পারবে। তবে অস্ট্রেলিয়ার দাবি সাবমেরিনে অস্ত্র মোতায়েনের কোনও ইচ্ছা তাদের নেই।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

তালেবানকে হটাতে মার্কিন অস্ত্র চান মাসুদ

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

অস্ট্রেলিয়ার কাছে বড় অংকের ক্ষতিপূরণ দাবি করতে পারে ফ্রান্স

জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি: মমতা

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩২

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া ও উত্তরবঙ্গে শিশুদের মধ্যে অজানা জ্বর নিয়ে ক্রমেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। এই রাজনৈতিক চাপানউতোরের মধ্যে জ্বরের জেরে শিশুমৃত্যুর খবর অস্বীকার করলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন রাজ্যের পাঁচ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা জ্বরে শিশুমৃত্যু সংক্রান্ত সব দাবি উড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, ‘দন্ত করে দেখেছি, যেই শিশুরা মারা গেছে, তাদের অন্য রোগ ছিল। জ্বরে কোনও শিশুর মৃত্যু হয়নি।’

এদিকে মালদহ মেডিক্যাল কলেজে আরও তিন শিশুর মৃত্যুর খবর মিলেছে। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার স্বাস্থ্যভবন থেকে বিশেষ দল যাচ্ছে উত্তরবঙ্গে। এর আগে জলপাইগুড়ি হাসপাতালে তিন শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছিল। তবে এই সব শিশু অজানা জ্বরে মারা যায়নি বলে দাবি করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী দাবি করেছেন, উত্তরবঙ্গে অজানা জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি প্রায় ৭৫০ জন শিশু। তার মধ্যে ছয় জন মারা গিয়েছে। শুধু মালদহ জেলাতেই ২০০-র বেশি শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চিঠিতে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে ছাড়েননি শুভেন্দু। বিরোধী দলনেতার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোনওরকম গুরুত্ব দিচ্ছে না বিষয়টি নিয়ে। কারণ, সরকার ভবানীপুরের উপনির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত। তাই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ এবং স্বাস্থ্য প্রতিনিধিদল পশ্চিমবঙ্গে পাঠানোর বিশেষ অনুরোধে করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মানসুখ মান্ডভিয়াকে চিঠি দেন শুভেন্দু অধিকারী। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

/এমপি/

সম্পর্কিত

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

দিল্লিতে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

মোদির ঘুম কেড়ে নেওয়ার হুঁশিয়ারি এসএফজে-র

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

লেবাননে ইরানি তেল ট্যাংকারের বহর

আমিরাতের বৃহত্তম র‍্যাফেল ড্র’র ঘোষণা, পুরস্কার ১৮০ কোটি টাকা

আমিরাতের বৃহত্তম র‍্যাফেল ড্র’র ঘোষণা, পুরস্কার ১৮০ কোটি টাকা

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা, বড় সাফল্য বলছে ফ্রান্স

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা করেছে ফ্রান্স

পারমাণবিক আলোচনা শুরুর আগে ইরানে গুরুত্বপূর্ণ রদবদল

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গুরুত্বপূর্ণ রদবদল

দুর্ঘটনায় ভিড় করলে ২৩ হাজার টাকা জরিমানা

দুর্ঘটনায় ভিড় করলে ২৩ হাজার টাকা জরিমানা

ইদলিবে আরও সেনা এবং সামরিক সরঞ্জাম পাঠালো তুরস্ক

ইদলিবে সামরিক উপস্থিতি বাড়ালো তুরস্ক

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

আসাদের সঙ্গে বৈঠক পুতিনের

কোনও হুমকি সহ্য করা হবে না: ইরান

কোনও হুমকি সহ্য করা হবে না: ইরান

জেনারেল সিসির আমন্ত্রণে মিসরে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

জেনারেল সিসির আমন্ত্রণে মিসরে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষ

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় ‘পীর’ গ্রেফতার

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

ড্রেনে পড়েছিল ২ যুবকের লাশ

বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিবেদন বদলের কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

প্রতিবেদন বদলানোর কথা অস্বীকার করলেন আইএমএফ প্রধান

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

© 2021 Bangla Tribune