X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিলো হেফাজত (ভিডিও)

আপডেট : ০৪ এপ্রিল ২০২১, ০০:৫৭

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের একটি হোটেলে নারীসহ আটক হেফাজত নেতা মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিয়ে গেছে ইসলামপন্থী সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা। তবে পুলিশ দাবি করেছে, তারা মামুনুলকে পাহারা দেওয়ার পর হেফাজতের নেতাদের হাতে তুলে দিয়েছে।

শনিবার (৩ এপ্রিল) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে হেফাজতের কর্মীরা ওই রিসোর্টে হামলা চালায় এবং মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিজেদের কাছে নিয়ে যায়। এসময় মামুনুল হকের সঙ্গে থাকা নারীকেও নিয়ে গেছে তারা। তবে এসময় ওই হোটেল এলাকায় বেশ কিছু ভাঙচুর করেছে হেফাজতের কর্মীরা।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ কে এম মোশাররফ হোসেন জানান, হেফাজতের ঢাকা মহানগরের আমির এবং কেন্দ্রীয় হোজতে ইসলামের যুগ্ম সম্পাদক মামুনুল হক তার কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী আমেনা তাইয়্যেবাকে সাথে নিয়ে দুপুর দুইটা ৪০ মিনিটে সোনারগাঁ রয়্যাল রিসোর্টে আসেন। তারা ওই হোটেলের ৫ তলার একটি কক্ষে ওঠেন। তবে সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি জেনে যায় স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন। কয়েকদিন আগে হেফাজতের এই নেতাসহ অন্যদের রুদ্রমূর্তি ধারণের ঘটনার পর সত্যিই তিনি কী কারণে সেখানে এসেছেন এবং তার সঙ্গে থাকা নারীর পরিচয় কী তা জানতে ওই রিসোর্টে আসে পুলিশ। ওই কক্ষে তাদের পেয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করা হয়।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেছেন, এসময়  মামুনুল দাবি করেন, তার সঙ্গে থাকা নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। তার নাম আমেনা তাইয়্যেবা। তাকে নিয়ে সোনারগাঁওয়ের কারুশিল্প এলাকা ঘুরে অবকাশ যাপনের জন্য এই রিসোর্টে এসেছেন। তবে গত কয়েক মাস ধরে নানা ঘটনায় বিতর্কিত এই নেতাকে নারীসহ আটক ও জিজ্ঞাসাবাদ করার খবরে সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি স্থানীয় জনগণ ও স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরাও জেনে যায়। তারাও সেখানে যান। সেখানে মামুনুল হকের সঙ্গে পুলিশের কথোপকথন তাদের অনেকেই ফেসবুকে লাইভ করায় বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গে সারাদেশে ছড়িয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করেছেন, মাওলানা মামুনুলকে আটকের খবর পেয়ে বিভিন্ন মাদ্রাসা থেকে হেফাজতের কর্মীরা সেখানে জড়ো হয়ে ওই রিসোর্টে হামলা চালায়। তারা গেট ভাঙচুর করে। এরপর হেফাজতের কর্মীরা ওই হোটেলের প্রতিটি তলায় সবগুলো কক্ষ ভাঙচুর করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সেখান থেকে তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

তবে পুলিশ দাবি করেছে, তারা নিজেরাই হেফাজতের কর্মীদের হাতে তাদের নেতাকে তুলে দিয়েছে। এছাড়াও তাদের আরেকটি দলের কাছে মাওলানা মামুনুল হকের স্ত্রী আমেনা তাইয়েব্যাকে তুলে দিয়েছে।

তবে ওই ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, হেফাজতের নেতা-কর্মীরা যখন দল বেঁধে রিসোর্টটিতে ঢুকে ভাঙচুর শুরু করে তখন পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে।

জানা গেছে, রাত আটটার দিকে হেফাজতের নেতারা মামুনুল হককে ওই রিসোর্ট থেকে এক কিলোমিটার দূরে চৌরাস্তা হাবিবপুর ঈদগার পাশের একটি মসজিদে নিয়ে যায়। সেখানে বসে দলীয় কর্মীদের উদ্দেশে বক্তব্যও রাখেন মামুনুল হক।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা গেছে, ওই রিসোর্টের নিচতলার গার্ডরুম, অভ্যর্থনা কক্ষ, সুইমিংপুল ভাঙচুরসহ দোতলা ও তৃতীয় তলার আবাসিক কক্ষগুলোর সব কাচ ভেঙে দিয়েছে হেফাজতের কর্মীরা। 

রয়্যাল রিসোর্টে আবারও হামলা

এদিকে রাত সাড়ে আটটার দিকে হেফাজতের কর্মীরা জড়ো হয়ে মিছিল নিয়ে রয়্যাল রিসোর্টটির দিকে আবারও এগিয়ে আসে। এসময় হেফাজতের কর্মীরা পুলিশ ও র‌্যাবকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এ সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তাদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট, ফাঁকা গুলি, টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। হেফাজতের নেতাকর্মীরা রাস্তার বিভিন্ন পয়েন্ট আগুন ধরিয়ে র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর চারদিক থেকে ইটপাটকেল ছোড়ে। এসময় তাদের ছোড়া ইট পাটকেলের আঘাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর হয়। এ অবস্থা থেমে থেমে প্রায় ঘণ্টাখানেক চলতে থাকে। এ সময় আশেপাশের বাড়িঘরের মানুষদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পরে র‌্যাব ও পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা দুইশ থেকে আড়াইশ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে হেফাজতের নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দিয়ে রয়্যাল রিসোর্ট নিয়ন্ত্রণে নেয়।

হোটেলে থাকা বিদেশিরা ভীষণ আতঙ্কিত

রয়্যাল রিসোর্টের দক্ষিণ দিকের ভবনে এদিন বেশ কিছু বিদেশি অবস্থান করছিলেন। মামুনুল হককে নিয়ে সৃষ্ট পরিস্থিতি তারা বুঝতে না পারলেও হঠাৎ সেখানে প্রথমে পুলিশ ও পরে দাড়ি টুপি পড়া মারমুখী হেফাজত কর্মীদের দেখে প্রচণ্ড আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে যান। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রত্যক্ষদর্শী এক হোটেলকর্মী জানান, বিদেশি অতিথিরা প্রচণ্ড ভয় পেয়ে যায়। হেফাজতের কর্মীরা যখন প্রথমবার হামলা চালায় তখন তারা বিভিন্ন কক্ষ থেকে বের হয়ে ভবনের ওপরের তলার দিকে আশ্রয় নিতে থাকে। এরপর হেফাজতের উগ্র নেতা-কর্মীরা হোটলের নিচের দিকটা ভাঙচুর করে মামুনুল হককে নিয়ে চলে গেলে তারা অনেকে বের হয়ে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এরমধ্যে আবারও আরেকদল হেফাজতের কর্মী সেখানে এলে তারা আবারও ভয় পেয়ে ওপরের কক্ষগুলোর দিকে ছুটতে থাকেন। এরপর হেফাজত আবারও পাথর ছুড়লে আর পুলিশ-র‌্যাব গুলি করলে বিদেশিরা প্রচণ্ড ভয় পেয়ে যান। তারা নিজেদের মধ্যে ভয় ও আতঙ্কে কথা বলতে থাকেন। পরে তাদের অনেকে রাতেই হোটেল ছেড়ে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

পথে পথে আরও ভাঙচুর

এদিকে, মামুনুল হককে ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার পথে মোগরা পাড়া চৌরাস্তায় অবস্থিত সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগ রফিকুল ইসলাম নান্নুর শ্বশুরবাড়ি, নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সোহাগ রনির বাসভবন, মোগরাপাড়া চৌরাস্তায় আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে অতি উৎসাহী হেফাজতের কর্মীরা।

আরও পড়ুন:

নারীসহ রিসোর্টে গিয়ে জনগণের তোপের মুখে হেফাজত নেতা মামুনুল

কাকে নিয়ে রিসোর্টে গিয়েছিলেন মামুনুল হক?

যা বললেন মামুনুল হক

তুমি বইলো আমি সব জানি: ফোনালাপে স্ত্রীকে মামুনুল

ফোনালাপে স্ত্রীকে যা শিখিয়ে দিয়েছিলেন মামুনুল হক

/টিএন/

সম্পর্কিত

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৯

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে হাইকোর্টে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শুনানি শেষে বিচারপতি মজিবুর রহমান ও কামরুল ইসলাম হোসেন মোল্লার দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

শাহজাহান শিশিরের আইনজীবী এম কে রহমান বলেন, ‘এ রায়ের ফলে শাহজাহান শিশিরের উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালনে আর কোনও আইনগত বাধা রইলো না।’

এদিকে, উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করায় কচুয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসব ও আনন্দ বিরাজ করছে।

এর আগে কচুয়া শহীদ স্মৃতি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে কোটি টাকা ব্যয়ে ছয়তলা ভবন নির্মাণে অনিয়মের সূত্র ধরে চাঁদপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদফতরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী নুরে আলমকে মারধরের অভিযোগে মামলা করা হয়। পরে গত ২৩ জুলাই স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে চেয়ারম্যান শাহজাহান শিশিরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তার স্থলে প্যানেল চেয়ারম্যান সুলতানা খানমকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে প্রকৌশলীর মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠান। তিন মাস ১২ দিন কারাভোগের পর ওই বছরের ৭ ডিসেম্বর তিনি হাইকোর্ট থেকে জামিন পেয়ে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পান।

এদিকে, গত ১ সেপ্টেম্বর মহানগর দায়রা জজ ঢাকা আদালতে হাজির হয়ে ধানমন্ডি থানায় দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা (আইসিটি) মামলায় স্থায়ী জামিন প্রার্থনা করেন শিশির। ওই আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। বর্তমানে তিনি ঢাকার কেরাণীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগারে রয়েছেন।

এই আইসিটি মামলা থেকেও আদালতের মাধ্যমে শাহজাহান শিশির জামিন পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন বলেও তার আইনজীবী মো. ইব্রাহিম খলিল মজুমদার জানিয়েছেন।

কচুয়া পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি কামাল হোসেন অন্তর বলেন, ‘এ রায়ের মাধ্যমে সত্যের জয় হয়েছে। আমরা উচ্চ আদালতের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

/এমএএ/

সম্পর্কিত

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

দুই বছরের কাজ চার বছরেও হয়নি, ৩৪টি বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে অনিশ্চয়তা

দুই বছরের কাজ চার বছরেও হয়নি, ৩৪টি বিদ্যালয় ভবন নির্মাণে অনিশ্চয়তা

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৮

যশোরে ‘পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময় গণপিটুনিতে’ রবিউল ইসলাম (৪৫) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় যশোর জেনারেল হাসপাতালে তিনি মারা যান।

নিহত রবিউল চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে। যশোর শহরের পালবাড়ি মোড় এলাকায় ভাড়া বাসায় থাকতেন।

যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘রবিউল একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ। আজ বিকালে চুড়ামনকাটিতে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময় স্থানীয় লোকজন তাকে পিটুনি দেয়। গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে তার মৃত্যু হয়। পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে রবিউল হৃদরোগী ছিলেন।’

যশোর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক সালাউদ্দিন স্বপন বলেন, ‘রবিউলের শরীরে চাপা আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে ৪টা ২৫ মিনিটের দিকে হাসপাতালে আনা হয়। আনার পর প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যার দিকে মারা যান।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩২

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণ ও উপযুক্ত বিচারের দাবিতে সড়ক অবরোধ, বিক্ষোভ ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৪টার দিকে টঙ্গীর চেরাগ আলী, স্টেশন রোড, হোসেন মার্কেট, বোর্ডবাজার এলাকায় তারা অবরোধ করেন। বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে প্রায় দুই শতাধিক বিক্ষোভকারীর একটি দল স্লোগান দিতে দিতে টঙ্গী রেলগেট এলাকায় এসে অগ্নিসংযোগ করে। তবে পুলিশের ধাওয়ায় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে সড়ক থেকে সরে যান। বিক্ষোভকারীরা কোন পক্ষের তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলমের অপসারণসহ উপযুক্ত বিচারের দাবিতে টঙ্গী স্টেশন রোড ও আশপাশের এলাকায় বিক্ষোভ করেন তারা। একপর্যায়ে টঙ্গী আহসান উল্লাহ মাস্টার উড়াল সেতুর নিচের রেলগেটে বর্জ্য এনে আগুন ধরিয়ে। ঘটনার কিছুক্ষণ পর পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের রেলগেট এলাকা থেকে সরিয়ে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

টঙ্গী রেল স্টেশনের মাস্টার রাকিবুর রহমান জানান, এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম, ঢাকা-ময়মনসিংহ, ঢাকা-রাজশাহী রেলপথের ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এসব রেলপথের কমপক্ষে আটটি ট্রেনের যাত্রা বিলম্ব ঘটে। পরে পুলিশ এসে বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া করলে কমপক্ষে দেড় ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তবে কোনও ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের তথ্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে জাহাঙ্গীর আলমের করা বিতর্কিত মন্তব্যের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে গত কয়েকদিন ধরে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে আলোচনা চলছে।

মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, একটি মহল তার উন্নয়ন কার্যক্রমে ঈর্ষান্বিত হয়ে ফেসবুকে ভিডিও সুপার এডিট করে তাকে রাজনৈতিকভাবে হেয় করার চেষ্টা করছে। তিনি ওই ভিডিওটির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবেন বলেও জানান।

/এফআর/

সম্পর্কিত

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:০২

দুর্গাপূজা উপলক্ষে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে রফতানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। সে লক্ষ্যে বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) ৭৮ মেট্রিক টন ইলিশ দেশটিতে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টা পর্যন্ত সময়ে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশভর্তি ট্রাক বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে প্রবেশের জন্য গেট পাস হয়েছে।

বেনাপোল স্থলবন্দর মৎস্য কোয়ারেন্টিন পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ‘দুর্গাপূজা উপলক্ষে এবার ভারতে দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দিয়েছে সরকার। এসব ইলিশ রফতানির অনুমতি পেয়েছে বাংলাদেশের ৫২টি রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ মেট্রিক টন রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ দ্বিতীয় চালানে ১৭ ট্রাকে ২০৯ মেট্রিক টন ইলিশ ভারতে যাচ্ছে। গতকাল ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ইলিশ দেশটিতে যায়। পর্যায়ক্রমে বাকি মাছ আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে ভারতে পৌঁছাবে।’

বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট বিশ্বাস ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী নূরুল আমিন বিশ্বাস বলেন, ‘প্রতি কেজি ইলিশের রফতানি মূল্য ধরা হয়েছে ৮৫০ টাকা। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করানো হচ্ছে। ইলিশের রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো ৫২টি।’

উল্লেখ্য, দেশে ঘাটতি থাকায় ২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধ করে সরকার। তবে গত বছর দুর্গাপূজা উপলক্ষে ভারতে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছিল সরকার।

/এফআর/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

পরাজিত ইউপি সদস্য প্রার্থীর দুই পা ভেঙে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

এক্স-রে মেশিন পলিথিনে মোড়ানো, রোগীরা ছুটছেন এদিক-সেদিক

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫৭

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় রাজশাহী মহানগর বিএনপির তিন শীর্ষ নেতা রাজশাহী মহানগর দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করতে গেলে মূল নথি না থাকায় নতুন করে দিন ধার্য করেন বিচারক। বিচারক ইলিয়াস হোসাইন কোর্ট থেকে নথি তলব করে পুনরায় আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর আত্মসমর্পণের আদেশ দেন।

মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী আলী আশরাফ মাসুম জানান, বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক রাসিক মেয়র ও সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিনু, বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি, সাবেক রাসিক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এবং বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন আদালতে আত্মসর্মপণ করেন।

উল্লেখ্য, গত ২ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে বক্তব্য দেওয়ায় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলুসহ তাদের বিরুদ্ধে রাজশাহী জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসকের কাছে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার আবেদন করে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ। জেলা প্রশাসক সেটি অনুমোদনের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠান।

গত ১৬ মার্চ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে মামলাটি অনুমোদন হয়ে আসে। ৩১ মার্চ রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলায় তাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম বাদী হয়ে এই মামলা করেন। মামলায় গত ২৬ আগস্ট উচ্চ আদালত থেকে চার সপ্তাহের আগাম জামিন পান তারা।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত শহীদুল্লাহ গ্রেফতার

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

হাটে টোল বেশি নেওয়ায় লাখ টাকা জরিমানা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

শিশুকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ

কাপড়ের রঙ দিয়ে আইসক্রিম তৈরি, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

কাপড়ের রঙ দিয়ে আইসক্রিম তৈরি, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

শাপলা বিক্রির টাকায় চলে সংসার 

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

সাউন্ডবক্স বাজিয়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টা!

কাঁচপুরে শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জ-রাবার বুলেট

কাঁচপুরে শ্রমিকদের ওপর লাঠিচার্জ-রাবার বুলেট

করোনার উপসর্গে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

করোনার উপসর্গে স্কুলছাত্রীর মৃত্যু

সর্বশেষ

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

গুলশানে তিন ফার্মেসিকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং ‘লিভ দ্য গেম’ (ভিডিও)

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থিম সং ‘লিভ দ্য গেম’ (ভিডিও)

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

ধর্ষণ মামলায় ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত নেতা সবুজের বিরুদ্ধে চার্জশিট

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

উপজেলা চেয়ারম্যানকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ ঘোষণা

© 2021 Bangla Tribune