X
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

দুর্বৃত্তের গুলিতে পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী নিহত

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২১, ২৩:৪৮

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে মো. মফিজ নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার (৯ এপ্রিল) বিকালে উপজেলার পশ্চিম সরফভাটা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের গঞ্জম আলী সরকার বাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। কাছ থেকে গুলি করে তাকে সন্ত্রাসীরা হত্যা করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সহকারী পুলিশ সুপার (রাঙ্গুনিয়া সার্কেল) আনোয়ার হোসেন শামীম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ তার মরদেহ উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে পাঠায়। মফিজকে সামনে থেকে দুই রাউন্ড গুলি করা হয়। তবে কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে সেটি এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার অথবা পূর্ব শত্রুতাকে কেন্দ্র করে কেউ তাকে হত্যা করতে পারে। বিষয়টি আমরা খতিয়ে দেখছি। ঘটনাস্থলে দুটি মোটরসাইকেল পাওয়া গেছে। আমরা ধারণা করছি, ওই দুটি মোটরসাইকেলে এসে দুর্বৃত্তরা তাকে গুলি করে হত্যা করে পালিয়ে যায়।’

নিহত মফিজ রাঙ্গুনিয়া থানা পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘মফিজের নামে থানায় অস্ত্র, ডাকাতি, বিস্ফোরকসহ মোট ছয়টি মামলা আছে। পাঁচ বছর জেল খেটে বছর দুয়েক আগে জামিনে ছাড়া পেয়েছিল সে।’

নিহত মফিজ সরফভাটা ২ নম্বর ওয়ার্ডের গঞ্জম আলী সরকার বাড়ির মো. আব্দুর রহমানের ছেলে। এর আগে ২০১৫ সালের ৩ মার্চ মফিজের বড় ভাই ইদ্রিসকেও গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় স্থানীয় ওসমান ও তোফায়েল বাহিনীকে দোষারোপ করা হয়। ওই ঘটনায় ওসমানের পরিবারের সঙ্গে মফিজের পরিবারের শত্রুতা চলে আসছিল।

ওই শত্রুতার জের ধরেই মফিজকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয়রা। তারা জানিয়েছেন, মফিজের পরিবারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে ওসমানের পরিবারের শত্রুতা চলে আসছিল। শত্রুতার জের ধরে ২০১৫ সালের ৩ মার্চ নিহত মফিজের বড় ভাই ইদ্রিসকে হত্যা করে ওসমান বাহিনী। এরপর ভাই হত্যার বিচার বদলা নিতে ওসমানের বড় ভাই উকিল আহমদকে কুপিয়ে হত্যা করে মফিজ বাহিনী। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ আরও বেড়ে যায়। গত বছর নিজ বাহিনীর এক সন্ত্রাসীর গুলিতে ওসমান নিহত হলে ওই গ্রুপের দায়িত্ব নেন তার ছোট ভাই তোফায়েল। ধারণা করা হচ্ছে, পূর্ব শত্রুতার জের ধরেই তোফায়েল বাহিনী মফিজকে হত্যা করে থাকতে পারে।

জানতে চাইলে পুলিশ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন শামীম বলেন, ‘দুই পরিবারে মধ্যে পূর্ব শত্রুতা আছে। শত্রুতার জের ধরে দুই পরিবারের দুই জন খুনও হয়েছেন। ওই শত্রুতার জের ধরেই মফিজ খুন হয়েছেন কিনা সেটি আমরা এখনও নিশ্চিত নই। সম্ভাব্য সব বিষয় মাথায় নিয়ে আমরা হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। এর সঙ্গে অন্য কোনও ঘটনা জড়িত কিনা সেটিও আমরা খতিয়ে দেখছি। তদন্ত করার আগে এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

ট্রাকের তেলের ট্যাংকিতে মিললো ১০ হাজার ইয়াবা

ট্রাকের তেলের ট্যাংকিতে মিললো ১০ হাজার ইয়াবা

করোনাকালে বিয়ের ৭৭ ভাগ কনের বয়স আঠারো’র নিচে

করোনাকালে বিয়ের ৭৭ ভাগ কনের বয়স আঠারো’র নিচে

ভারত থেকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়লো, সঙ্গে আরও কড়াকড়ি

ভারত থেকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়লো, সঙ্গে আরও কড়াকড়ি

আ.লীগ নেতার গাড়িতে মাদক পাচারচেষ্টা, চালক গ্রেফতার

আ.লীগ নেতার গাড়িতে মাদক পাচারচেষ্টা, চালক গ্রেফতার

হেফাজতের তাণ্ডব: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরও ৯ জন গ্রেফতার

হেফাজতের তাণ্ডব: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরও ৯ জন গ্রেফতার

অটোচালকের টাকা ছিনতাই: তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

অটোচালকের টাকা ছিনতাই: তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

মাইক্রোবাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত

মাইক্রোবাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত

রিমান্ড শেষে কারাগারে মুফতি ফখরুল ইসলাম

রিমান্ড শেষে কারাগারে মুফতি ফখরুল ইসলাম

গালকাটা রাজন ও চায়না বাবুল কারাগারে

গালকাটা রাজন ও চায়না বাবুল কারাগারে

খালেদা জিয়া দেশে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সুবিধা পাচ্ছেন: ড. হাছান মাহমুদ

খালেদা জিয়া দেশে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সুবিধা পাচ্ছেন: ড. হাছান মাহমুদ

সর্বশেষ

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

‘স্বাধীনভাবে’ উন্নত চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন খালেদা জিয়া

‘স্বাধীনভাবে’ উন্নত চিকিৎসা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন খালেদা জিয়া

জামিন নিয়ে প্রধান বিচারপতির সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা চান ডা. জাফরুল্লাহ

জামিন নিয়ে প্রধান বিচারপতির সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা চান ডা. জাফরুল্লাহ

কাবুলে স্কুলের কাছে বোমা হামলায় নিহত অন্তত ২৫

কাবুলে স্কুলের কাছে বোমা হামলায় নিহত অন্তত ২৫

বার্সেলোনাকে এগিয়ে যেতে দিলো না আতলেতিকো

বার্সেলোনাকে এগিয়ে যেতে দিলো না আতলেতিকো

ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা চায় দেশি এয়ারলাইন্স, আশ্বাস প্রতিমন্ত্রীর

ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা চায় দেশি এয়ারলাইন্স, আশ্বাস প্রতিমন্ত্রীর

‘মানবিক কারণে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের চাকরি দিয়েছি’

রাবির সদ্য বিদায়ী উপাচার্যের দাবি‘মানবিক কারণে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের চাকরি দিয়েছি’

বিশ্বায়ন প্রসঙ্গে অর্থনীতি সমিতির ওয়েবিনার

বিশ্বায়ন প্রসঙ্গে অর্থনীতি সমিতির ওয়েবিনার

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর আরেকটি ঘাঁটি দখল করলো কারেন বিদ্রোহীরা

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর আরেকটি ঘাঁটি দখল করলো কারেন বিদ্রোহীরা

একচেটিয়া বাজার ভাঙতে পেরেছে ‘নগদ’: বিটিআরসি চেয়ারম্যান

একচেটিয়া বাজার ভাঙতে পেরেছে ‘নগদ’: বিটিআরসি চেয়ারম্যান

ঈদযাত্রা রোধে দুই ফেরিঘাটে বিজিবি’র পাহারা

ঈদযাত্রা রোধে দুই ফেরিঘাটে বিজিবি’র পাহারা

‘গ্যাস ঘাটতি মেটাতে পার্বত্য চট্টগ্রামে অনুসন্ধান শুরু করতে হবে’

‘গ্যাস ঘাটতি মেটাতে পার্বত্য চট্টগ্রামে অনুসন্ধান শুরু করতে হবে’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

করোনায় আক্রান্ত ৯০ শতাংশের শরীরে অ্যান্টিবডি: গবেষণা

আ.লীগ নেতার গাড়িতে মাদক পাচারচেষ্টা, চালক গ্রেফতার

আ.লীগ নেতার গাড়িতে মাদক পাচারচেষ্টা, চালক গ্রেফতার

হেফাজতের তাণ্ডব: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরও ৯ জন গ্রেফতার

হেফাজতের তাণ্ডব: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরও ৯ জন গ্রেফতার

মাইক্রোবাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত

মাইক্রোবাস চাপায় ব্যবসায়ী নিহত

খালেদা জিয়া দেশে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সুবিধা পাচ্ছেন: ড. হাছান মাহমুদ

খালেদা জিয়া দেশে সর্বোচ্চ চিকিৎসা সুবিধা পাচ্ছেন: ড. হাছান মাহমুদ

কাদের মির্জার অনুসারীদের বিরুদ্ধে মামলা, আটক ৩

কাদের মির্জার অনুসারীদের বিরুদ্ধে মামলা, আটক ৩

ট্রাকচাপায় দুই পথচারী নিহত, আহত চার

ট্রাকচাপায় দুই পথচারী নিহত, আহত চার

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

হাতিয়ায় ইউপি সদস্য প্রার্থীকে হত্যার ঘটনায় আটক ৭

© 2021 Bangla Tribune