X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বাংলাদেশের প্রসিদ্ধ মসজিদ

৮০০ বছর আগের মসজিদ?

আপডেট : ০১ মে ২০২১, ১০:০০

বাংলাদেশের যে স্থাপনাশৈলী এখনও বিমোহিত করে চলেছে অগণিত মানুষকে, তার মধ্যে আছে দেশজুড়ে থাকা অগণিত নয়নাভিরাম মসজিদ। এ নিয়েই বাংলা ট্রিবিউন-এর ধারাবাহিক আয়োজন ‘বাংলাদেশের প্রসিদ্ধ মসজিদ’। আজ থাকছে নীলফামারীর আঙ্গারপাড়া বড়বাড়ী জামে মসজিদ।

কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারবে না মসজিদটি কে ও কবে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। স্থাপত্যশৈলীর নিদর্শনের পাশাপাশি রহস্য হয়েই দাঁড়িয়ে আছে আঙ্গারপাড়া বড়বাড়ী জামে মসজিদ।

মসজিদটি দৈর্ঘ্যে ৩৮ ফুট ও প্রস্থে ৯ ফুট নীলফামারী সদরের কুন্দুপুকুর ইউনিয়নের আঙ্গারপাড়া বড়বাড়ী নামে পরিচিতি লাভ করে মসজিদটি। কিন্তু এর নির্মাণ সম্পর্কে কারও পরিষ্কার ধারণা নেই। জেলা থেকে ১২ কিলোমিটার পূর্ব-দক্ষিণে গেলে দেখা যাবে মসজিদটি।

তিন গন্বুজের প্রাচীন মসজিদটিতে আছে ৮টি মিনার। তিন ফুট দৈর্ঘ ও দুই ফুট প্রস্থের তিনটি দরজা আছে। মাঝের দরজার ওপরে পাথরে খোদাই করা আরবি লিপি আছে।

মাঝের দরজার ওপরে পাথরে খোদাই করা আরবি লিপি মসজিদের মুয়াজ্জিন মো. শফিকুল ইসলাম (৫৫) জানান, ওতেই সম্ভবত লেখা আছে মসজিদের ইতিহাস। তবে ফলকনামাটি পুরনো ও ক্ষয়ে যাওয়ায় কী লেখা আছে পড়া যায় না। তিনি জানান, ২১ বছর ধরে এই মসজিদের খেদমতে আছি। কিন্ত কারও মুখে শুনিনি এটা কে বা কত সালে তৈরি হয়েছে।

মসজিদের নিয়মিত মুসুল্লি আব্দুল মজিদ (৬৪) বলেন, ফলকটা পড়ে দেখেছি। তাতে আরবি ৬১৬ হিজরি লেখা আছে মনে হয়। একটি নাম কোনওরকম বোঝা যায়-মাহমুদুল্লাহ হাসান। মসজিদের সামনে রয়েছে দুটি কবর। অনেকেই বলে কবর দুটি কোনও এক দম্পতির।

মসজিদের সামনে রয়েছে দুটি কবর মসজিদের ভেতর কথায় কথায় মো. ইউনুস আলী (৭০) বলেন এক জনশ্রুতির কথা। ১৯৮১ সালের দিকে এলাকার আসাদুজ্জামান কবির নামের এক বৃদ্ধ তার পারিবারিক সমস্যার সমাধান পেতে ফরিদপুরের এক পীরের দরবারে গিয়েছিলেন। ওই পীর নাকি তাকে বলেছিলেন, আপনাকে এরপর থেকে এতোদূর আসতে হবে না। বাড়ির পাশে তিন গম্বুজওয়ালা যে মসজিদ আছে, ওটার সামনে পূর্বদিকে এক কামেল অলি শুয়ে আছেন। তার কবরের খেদমত করলেই হবে।

এরপর ওই পীরের কথামতো নিদৃষ্ট স্থানে খনন করে দুটি প্রাচীন কবর পান আসাদুজ্জামান। তখন সেখানে নিজস্ব অর্থায়নে একটি টিনের ঘরের নিচে কবর দুটি বাঁধিয়ে দেন তিনি। মসজিদের শিলালিপি থেকে ধারণা করা হয়, এর একটি কবর মাহমুদুল্ল্যা হাসানের।

মসজিদটি দৈর্ঘ্যে ৩৮ ফুট ও প্রস্থে ৯ ফুট। মসজিদটির ইটের পুরু ২ ইঞ্চি, লম্বায় ১০ ইঞ্চি। ইট ও কবর দুটির ইটের মাপ, রং ও নকশা এক হওয়ায় ধারণা করা হয় তারাই মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন।

২০০১ সালে স্থানীয়দের সহযোগিতায় একটি পাকা কক্ষ নির্মাণ করে পুরনো মসজিদের সঙ্গে যুক্ত করে ছয়টি সারি বাড়ানো হয়। এখন সেখানে দেড় শ’ জনের মতো নামাজ আদায় করতে পারেন।

মসজিদটির বয়স যদি ৮০০ বছরই হয়ে থাকে তবে প্রাচীনতম মুসলিম সভ্যতার এক গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন এটি।

 

 

 
 
/এফএ/

সম্পর্কিত

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে মাঝিপাড়ায় হামলা: ‘অন্যতম হোতা’সহ গ্রেফতার ২

রংপুরে মাঝিপাড়ায় হামলা: ‘অন্যতম হোতা’সহ গ্রেফতার ২

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১১:০০

সম্প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে প্রস্তুত করা দু’টি ভুয়া সুপরিশ ও একটি ডিও লেটার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে পাওয়া গেছে। এ কারণে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর যেকোনও সুপারিশ ও  ডিও লেটারের প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা গ্রহণের আগে মন্ত্রণালয় থেকে সঠিকতা যাচাই করার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়/বিভাগ/সংস্থাকে অনুরোধ করা হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের পাঠানো যেকোনও সুপারিশ ও  ডিও লেটার যাচাইপূর্বক পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করা হয়েছে।

 

/এসএসজেড/আইএ/

সম্পর্কিত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০০

ই-ভ্যালি পরিচালনায় উচ্চ আদালতের নির্দেশনায় বোর্ড গঠন করায় আশার আলো দেখছেন গ্রাহকরা। কিন্তু ই-অরেঞ্জের গ্রাহকরা এখনও হতাশ। তাদের প্রায় হাজার কোটি টাকা লোপাট করা ই-অরেঞ্জ কর্তৃপক্ষের কেউ জেলেকেউ পলাতক। নেপথ্যের মূল হোতা বনানী থানার সাবেক পুলিশ পরিদর্শক শেখ সোহেল রানা ভারতের জেলে বন্দি। তাকে ফিরিয়ে আনার প্রাথমিক চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেনগ্রাহকদের অর্থ কোথায় সরানো হয়েছে তা সোহেলই বলতে পারবে। যে কারণে সোহেলকে ঘিরেই আটকে আছে তদন্ত।

১৭ আগস্ট ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে তাহেরুল নামে এক ব্যক্তি প্রথম মামলা দায়ের করেন। এরপর একে একে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে অন্তত ২৪টি মামলা হয়েছে। এ ছাড়া পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডির ফাইন্যান্সিয়াল ক্রাইম ইউনিট মানি লন্ডারিং আইনে একটি মামলা দায়ের করেছে। কিন্তু কোনও মামলার তদন্তেই অগ্রগতি নেই।

গুলশান থানায় দায়ের হওয়া প্রথম মামলায় প্রতিষ্ঠানটির মালিক সোনিয়া মেহজাবিনতার স্বামী মাসুকুর রহমানআমান উল্লাহ ও রাসেলসহ কয়েকজন কর্মকর্তা কারাবন্দি। প্রথমে তদন্ত করেছে গুলশান থানা পুলিশ। পরে মামলাটি সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারে হস্তান্তর করা হয়।

মামলার বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) শিউলি আক্তার বলেন, ‘নতুন কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। তবে অভিযান চালানো হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র ও ই-অরেঞ্জ গ্রাহকরা বলছেনই-অরেঞ্জ এর নেপথ্যে থেকে পুরো বিষয়টি পরিচালনা করেছিল বনানী থানার সাবেক পরিদর্শক তদন্ত শেখ সোহেল রানা। সামনে ছিল তার বোন সোনিয়া মাহজাবিন। গ্রাহকদের অর্থ আত্মসাতের পর দায় থেকে বাঁচতে প্রতিষ্ঠানটি বিথী আক্তার নামে অজ্ঞাত এক নারীর কাছে হস্তান্তর করে তারা। কইসঙ্গে নিজেদের প্রতিষ্ঠানের একজন কর্মকর্তাকে দিয়ে আরেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলাও করিয়েছিল। পুলিশের একজন র্ধ্বতন কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে শেখ সোহেল রানা দৃষ্টি ঘোরাতে এই ফন্দি এঁটেছিলেন। শেষ পর্যন্ত এক গ্রাহকের মামলায় তাদের পুরো কৌশল ভেস্তে যায়।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়সোহেল রানা ব্যাংকিং চ্যানেলে অর্থ স্থানান্তর না করে বেশিরভাগ সময় নগদ উত্তোলন করেছেন। অদিতিবাবুফজলুমিলন ও জোবায়ের নামে কয়েকজন ব্যক্তির নামেও বিপুল পরিমাণ নগদ অর্থ তুলেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংক টের পেতে পারে এই শংকায় নগদ তুলতেন তিনি।

সিআইডির ফাইন্যান্সিয়াল ক্রাইমের এক কর্মকর্তা জানানই-অরেঞ্জের বেশিরভাগ অর্থই বিদেশে পাচার হয়েছে বলে তারা জানতে পেরেছেন। পুরো কাজটি করেছে সোহেল রানা। কিন্তু সে ভারতে বন্দি থাকায় তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না।

মামলা হওয়ার পর ২ সেপ্টেম্বর পালিয়ে নেপাল যাওয়ার পথে বাংলাদেশ-ভারতের উত্তর সীমান্তে বিএসএফের হাতে গ্রেফতার হ শেখ সোহেল রানা। তাকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হয় পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের পক্ষ থেকে। পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের এআইজি (এনসিবি) মহিউল ইসলাম বলেন, ‘শেখ সোহেল রানাকে ফিরিয়ে আনতে ভারতীয় পুলিশের এনসিবি শাখায় তিনটি চিঠি পাঠানো হয়েছিল। কোনও চিঠিরই জবাব আসেনি। পরে স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সোহেলকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছে।

ই-অরেঞ্জের বিরুদ্ধে প্রথম দায়ের করা মামলার বাদি ও ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহক তাহেরুল ইসলাম বলেন, ‘সোহেল রানাকে পালিয়ে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। প্রথম যখন মামলা হয় তখনই তাকে আটক বা গ্রেফতার করেনি পুলিশ। এমনকি তার বোন সোনিয়া যার কাছে ই-অরেঞ্জের মালিকানা হস্তান্তর করেছে বলে দাবি করেছে, সেই বিথীকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি।

তিনি আরও বলেন, ‘আমার প্রায় ১৭ লাখ টাকার অর্ডার করা ছিল। গিফট ভাউচার কেনা ছিল সাড়ে ৮ লাখ টাকার। টাকা ফেরত পাওয়ার আশা দেখছি না। ই-ভ্যালির মতো ই-অরেঞ্জের গ্রাহকদের টাকা ফেরত দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া উচিত সরকারের। না হলে আমরা পথে বসবো।

তদন্ত সূত্রে জানা গেছেই-অরেঞ্জের নতুন মালিক হিসেবে যে বিথি আক্তারের কথা বলা হচ্ছে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তিনি সোহেল রানার দ্বিতীয় স্ত্রী বলে জানা গেছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা ধারণা করছেনসোহেল বিদেশে পালিয়ে যাওয়ার আগেই বিথী দেশ ছেড়েছেন। এ ছাড়া টাকা উত্তোলনকারী বাকিদেরও পরিচয় পাওয়া যায়নি।

ই-অরেঞ্জের ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহক কমিউনিটির এক মুখপাত্র আরাফাত বলেন, ‘আমরা উচ্চ আদালতে রিট করার পরিকল্পনা করছি। আদালত যদি ই-ভ্যালির মতো কোনও আদেশ দেতবে কিছুটা আশা আছে।’

 

 

 
 
/এফএ/

সম্পর্কিত

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৯

রাজধানীর মিরপুর ও দক্ষিণখানে পৃথক ঘটনায় দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি)ভর্তি করা হয়েছে। এসব ঘটনায় অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেছে সংশ্লিট থানার পুলিশ।

মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পারুল খান জানিয়েছেন, মিরপুরের বড়বাগ এলাকায় শিশুটির একটি মা মেসে কাজ করেন। মাঝেমধ্যেই শিশুটিকে সেখানে নিয়ে যান।

গত ১৯ অক্টোবর শিশুটিকে নিয়ে কাজে যান। সেখানে পাশেই হোমিও ওষুধ বিক্রি করেন আব্দুল কাদের (৫৫) নামে এক ব্যক্তি। শিশুটি তাকে নানা বলে ঢাকতো। ওই দিন শিশুটি খেলা করছিল, তখন ওই হোমিও ওষুধ বিক্রেতা তাকে আদর করার নামে যৌন নির্যাতন করে। বিষয়টি তার মা প্রথমে বুঝতে পারেননি। পরে শিশুটির অসুস্থতা বোধ করলে তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে তার মাকে জানায়। পরে তার মা থানায় অভিযোগ করেন।

এসআই বলেন, ‘আমরা শারীরিক পরীক্ষা জন্য ঢামেক হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি)ভর্তি করেছি। অভিযুক্ত আব্দুল কাদেরকে (৫৫) গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপর দিকে, দক্ষিণখান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিজিয়া খাতুন জানিয়েছেন, শনিবার সন্ধ্যার দিকে বাড়ির মালিক মুক্তা বেগম ভাড়াটিয়া কিশোরী (১৫) কে বলেন, একই এলাকার প্রতিবেশী আলামিন (২৫) এর কাছ থেকে একশত টাকা নিয়ে আসো। পরে কিশোরী কিছুই বুঝতে পারেনি, সে পাশেই একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে যায়। সেখানে আলামিন তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ চেষ্টা করে, সে বাধা দিতে জোরাজুরি করায় প্রথমে মারধর করে, এক পর্যায় জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। সে সময়ে আলামিনের দুই সহযোগী গেইটে পাহারা দেয়। পরে কিশোরী নিজেই থানায় এসে মামলা করেন।

তিনি বলেন, আমরা অভিযুক্ত আলামিনকে গ্রেফতার করে রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠিয়েছি। আর ভিকটিম কে শারিরীক পরিক্ষার জন্য ঢামেক হাসপাতালে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার (ওসিসি) ভর্তি করা হয়েছে।

/এআইবি/এআরআর/জেজে/

সম্পর্কিত

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে আহত ৩

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫০

রাজধানীতে পৃথক ঘটনায় ছুরিকাঘাতে স্কুল ছাত্রসহ তিন জন আহত হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যার পরে রাজধানীর মিরপুর ও উত্তরা পশ্চিম থানা এলাকায় এসব ঘটনা ঘটেছে। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

আহতরা হচ্ছেন,  মিরপুর সরকারি বেঙ্গল মিডিয়াম উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী আজার উদ্দিন রিয়াদ (১৬) মিরপুরের নুরজাহান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র আল আমিন (১৫) এবং উত্তরা পূর্ব থানা এলাকায় আল আমিন (২০) নামে এক টিসার্ট বিক্রেতা।

সত্যতা নিশ্চিত করেন ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মোঃ বাচ্চু মিয়া। তিনি বলেন, আহত তিন জন ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিষয়গুলি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবহিত করা হয়েছে।

মিরপুরে রবিবার সন্ধ্যা ছয়টায় ক্রিকেট স্টেডিয়াম এর বিপরীত পাশে ন্যাশনাল বাংলা হাই স্কুলের পেছনে রাস্তায় দুইজনকে ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় দুজনকে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় ঢামেক হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

মিরপুর ২ নম্বরের স্থায়ী বাসিন্দা আহত রিয়াদ জানান, বাসার পাশেই কোচিং করতে গিয়েছিল। সেখানে পূর্ব পরিচিত রাহুলের চাচাতো ভাই বখাটে শরিফ (১৭) তার পথরোধ করে, উল্টাপাল্টা কথা বলে এক পর্যায়ে  পিঠে ছুরিকাঘাত করে‌। এলাকার ছোট ভাই আলামিন তাকে বাধা দিতে গেলে তাকেও ডান হাতে এবং পিঠে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।

তবে আরেক জন জানিয়েছেন শরিফ মাদক সেবী। সে এর আগেও এরকম ঘটনা ঘটিয়েছে।

অন্য দিকে, উত্তরা পূর্ব থানার জয়নাল মার্কেট এর সামনে ৬নং সেক্টর ১০নং রোডে কামাল হোসেন (২০) এক টি-শার্ট বিক্রেতা ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছে।

রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় দিকে তার বন্ধু শুভ (২২) কামালের কাছ থেকে মোবাইল ফোন চাওয়াকে কেন্দ্র করে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে শুভ ছুরিকাঘাত করে কামালকে। তার পিঠে রক্তাক্ত জখম হয়েছে।

আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তার অন্য বন্ধুরা।

/এআইবি/এআরআর/জেজে/

সম্পর্কিত

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

রাজধানীতে দুই শিশু যৌন নির্যাতনের শিকার, অভিযুক্তরা গ্রেফতার

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

রাজারবাগ পীর সিন্ডিকেটের মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেন প্রধান বিচারপতি

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:৫২

রাজারবাগ পীর ও দরবারের বিরুদ্ধে দুদক, সিআইডি ও সিটিটিসিকে তদন্ত করতে বলা হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের করা আবেদনের শুনানি থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের কার্য তালিকা অনুসারে মামলাটি শুনানির শুরুতে এ ঘটনা ঘটে।

আদালতে পীরদের আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী এম কে রহমান। রিটকারীদের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী জেড আই খান পান্না। তার সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির।

এদিন মামলাটির শুনানির আগে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমাকে এ মামলা থেকে বাদ দিয়ে রাখেন। বেঞ্চের অপর জ্যেষ্ঠ বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলীর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ বিষয়ে আদেশ দেবেন।’

এরপর এই মামলার শুনানি হয়। শুনানি শেষে মামলাটির আদেশের জন্য সোমবার (২৫ অক্টোবর) দিন নির্ধারণ করেন আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতির সরে দাঁড়ানোর বিষয়ে জানতে চাইলে মামলার সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা জানান, প্রধান বিচারপতি চাইলে যেকোনও মামলা থেকেই নিজেকে সরিয়ে নিতে পারেন। মূলত মামলার বিষয়ে বাইরে থেকে কোনও হস্তক্ষেপ কিংবা ব্যক্তিগত কারণে মামলা থেকে বিচারপতিদের সরে দাঁড়ানোর নজির এর আগেও অনেক রয়েছে।

এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরিফের সব সম্পদের তথ্য খুঁজতে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক), তাদের জঙ্গি সম্পৃক্ততা আছে কিনা, তা তদন্ত করতে কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) এবং উচ্চ আদালতে রিটকারী ৮ জনের বিরুদ্ধে করা হয়রানিমূলক মামলার বিষয়ে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এসব আদেশ দেন।

পরে ওই আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন জানানো হয়েছিল। গত ১১ অক্টোবর চেম্বার আদালত হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত না করে আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুরসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে ভুক্তভোগী ৮ ব্যক্তির পক্ষে অ্যাডভোকেট শিশির মনির হাইকোর্টে  রিটটি দায়ের করেন।

রিটকারীদের মধ্যে শিশু, নারী, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মাদ্রাসার শিক্ষক ও ব্যবসায়ী রয়েছেন। তাদের প্রত্যেকে রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর ও তাদের মুরিদদের হয়রানিমূলক মামলার শিকার।

রিট আবেদনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ও আইজিপিসহ মোট ২০ জনকে বিবাদী করা হয়।

/বিআই/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

সোহেলেই আটকে আছে ই-অরেঞ্জের তদন্ত

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কুইজ’ এর চূড়ান্ত লটারি অনুষ্ঠিত

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

২০ দিনে দুই হাজারেরও বেশি জেলে গ্রেফতার

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

মাল্টায় বৈধভাবে অভিবাসন খরচ ২ লাখ টাকার বেশি নয়: আয়েবা

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে হামলা: ‘অপপ্রচার চালিয়ে আলোচনায় আসতে চেয়েছিল সৈকত’

রংপুরে মাঝিপাড়ায় হামলা: ‘অন্যতম হোতা’সহ গ্রেফতার ২

রংপুরে মাঝিপাড়ায় হামলা: ‘অন্যতম হোতা’সহ গ্রেফতার ২

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

মসজিদে একই ওয়াক্তে একাধিক জামাত করা যাবে কি?

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্য মক্কার দুই মসজিদে ব্রেইল কোরআন শরিফ

জুমার খুতবায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় কথা বলার আহ্বান

জুমার খুতবায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় কথা বলার আহ্বান

পূর্ণিমা তিথিতে ঘরে ঘরে মা লক্ষ্মীর বন্দনা

পূর্ণিমা তিথিতে ঘরে ঘরে মা লক্ষ্মীর বন্দনা

ছবিতে জশনে জুলুস

ছবিতে জশনে জুলুস

ঈদে মিলাদুন্নবীতে রাজধানীতে বর্ণাঢ্য জশনে জুলুস

ঈদে মিলাদুন্নবীতে রাজধানীতে বর্ণাঢ্য জশনে জুলুস

সর্বশেষ

চীনের হাইপারসোনিক পরীক্ষা কি নতুন অস্ত্র প্রতিযোগিতার ইঙ্গিত?

চীনের হাইপারসোনিক পরীক্ষা কি নতুন অস্ত্র প্রতিযোগিতার ইঙ্গিত?

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় প্রথম দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

সিনহা হত্যা মামলা: ষষ্ঠ দফায় প্রথম দিনের সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া ডিও লেটার

আইডি নাম্বার পাচ্ছে সব সিটি ও পৌর সড়ক

আইডি নাম্বার পাচ্ছে সব সিটি ও পৌর সড়ক

© 2021 Bangla Tribune