X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

কাশিমপুর কারাগার থেকে সোনারগাঁ থানায় রিমান্ডে মামুনুল হক

আপডেট : ১৮ মে ২০২১, ২০:১৯

গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে হেফাজতে ইসলামের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মামুনুল হককে তিন দিনের রিমান্ডে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় নেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১৮ মে) সকালে তাকে এ কারাগার থেকে থানায় নেওয়া হয়। কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারের ডেপুটি জেলার দেলোয়ার জাহান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

দেলোয়ার জাহান জানান, নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দায়ের নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের মামলায় তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ওই মামলার তিন দিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে তাকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়। মঙ্গলবার থেকে তার তিন দিনের রিমান্ড কার্যকর হবে।

এর আগে গত ১১ মে রাতে কেরানীগঞ্জ কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মামুনুল হকসহ ১৪ হেফাজতে ইসলামের নেতাকে কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

প্রাইভেটকার চালক হত্যায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

প্রাইভেটকার চালক হত্যায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় আরও ৪ জন গ্রেফতার

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:১৮

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারে পূজামণ্ডপ ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানসহ আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

রবিবার (২৪ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টায় সেনবাগ উপজেলার সেবারহাট থেকে সাবেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে গ্রেফতার করে সেনবাগ থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো—সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও জামায়াত নেতা হারুন অর রশীদ, বেগমগঞ্জের কালিকাপুর গ্রামের মৃত হাজী মফিজ উল্যার ছেলে মো. আনোয়ারুল ইসলাম (২৯), চৌমুহনী পৌরসভার আলীপুর গ্রামের মৃত আবুল খায়েরের ছেলে মো. আবু তালেব (৪৭) ও চৌমুহনী পৌরসভার হাজীপুর গ্রামের মৃত সৈয়দ আহম্মদের ছেলে মো. ফরহাদ (২৭)।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম জানান, পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে রবিবার বেগমগঞ্জ উপজেলা থেকে তিন আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বিকালে তাদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।  

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী জানান, চৌমুহনীতে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুর এবং দুই ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানকে রবিবার রাতে উপজেলার সেবারহাট থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোমবার (২৫ অক্টোবর) সকালে পূজামণ্ডপ ও মন্দিরে হামলা এবং হিন্দু সম্প্রদায়ের দুই ব্যক্তি নিহতের ঘটনার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে অভিযুক্ত আসামিকে নোয়াখালী চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সোপর্দ করা হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় করা মামলা সিআইডিতে

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় করা মামলা সিআইডিতে

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা: সাবেক ওসির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা: সাবেক ওসির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

চাঁদপুরে ২১ দিনে ২১৮ জেলের কারাদণ্ড

চাঁদপুরে ২১ দিনে ২১৮ জেলের কারাদণ্ড

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় করা মামলা সিআইডিতে

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০০

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন রেখে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ঘটনায় মো. ইকবালের বিরুদ্ধে করা মামলা সিআইডিতে পাঠানো হয়েছে। কুমিল্লা কোতোয়ালি থানায় করা এই মামলার বাদী পুলিশ।

ইকবাল হোসেন ছাড়াও মামলার আসামিরা হলেন নগরী দারোগাবাড়ি মাজারের দুই খাদেম ফয়সাল ও হুমায়ুন এবং জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ নম্বরে কল দিয়ে বিষয়টি জানানো ইকরাম। ইকবালসহ চার আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শনিবার (২৩ অক্টোবর) সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

পুলিশের কাছ থেকে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ।

তিনি বলেন, কোরআন অবমাননার ঘটনায় ইকবালের বিরুদ্ধে করা মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। এই মামলায় এখন পর্যন্ত চার জন গ্ৰেফতার হয়েছেন। 

শনিবার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মিথিলা জাহান নিপার আদালতে দুপুর ১২টার দিকে ইকবালসহ চার জনকে হাজির করা হয়। পরে পুলিশ ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। 

এম তানভীর আহমেদ বলেন, পুলিশের কাছ থেকে সিআইডিকে যেহেতু মামলাটি তদন্তের জন্য দেওয়া হয়েছে, সে জন্য সিআইডি আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করবে।

এর আগে মামলার অন্যতম আসামি ইকবালকে কক্সবাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়। পরে কক্সবাজার থেকে কুমিল্লায় আনা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ইকবাল পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার বিষয়টি স্বীকার করেন। পূজামণ্ডপে হনুমানের কোলে কোরআন রেখে গদাটি একটি পুকুরে ফেলে দেওয়ার কথাও অস্বীকার করেন। 

গত ১৩ অক্টোবর কুমিল্লার নানুয়াগিঘির পাড় পূজামণ্ডপে কোরআন অবমাননার ঘটনায় নগরীর বিভিন্ন জায়গায় পূজামণ্ডপ ও মন্দির ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। 

/এএম/

সম্পর্কিত

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় আরও ৪ জন গ্রেফতার

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় আরও ৪ জন গ্রেফতার

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা: সাবেক ওসির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা: সাবেক ওসির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০১

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ১১ হাজার লিটারের সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুরে এর উদ্বোধন করেন মৌলভীবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নেছার আহমদ। পরে হাসপাতাল হলরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, এই অক্সিজেন প্ল্যান্ট বড় একটা জোগান। প্রতি লিটার তরল অক্সিজেন থেকে ৮৬০ লিটার গ্যাসীয় অক্সিজেন উৎপন্ন হয়। এটি সম্পন্ন হওয়ায় হাসপাতালের ২৫০ শয্যার প্রতি শয্যায় অক্সিজেন লাইন থাকবে, প্রয়োজনে রোগীর চাপ বিবেচনায় অতিরিক্ত রাখা যাবে। এ ছাড়া অপারেশন থিয়েটারসহ যেখানে প্রয়োজন সেখানে লাইন রাখা যাবে। ফল রোগীরা আগের চেয়ে বেশি সেবা পাবেন।

এদিকে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের চাহিদা অনুসারে, স্বাস্থ্য অধিদফতরের অনুরোধে ইউনিসেফের অর্থায়নে সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্যোগ নেওয়া হয়।

উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা জহুরা আলাউদ্দিন, জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান, হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. কে এম হুমায়ুন কবির, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেল আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া, সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হিমাংশু লাল রায়, সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুর্শেদ, পৌর মেয়র ফজলুর রহমান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, মৌলভীবাজার বিএমএ সভাপতি ডা. শাব্বির হোসেন খান প্রমুখ।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সরকারের পদত্যাগ করা উচিত: ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

বাঁশ কাটায় প্রতিবেশীকে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:৪০

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে ঘরের ওপর নুয়ে পড়া বাঁশ কাটায় আল ইসলাম (৩৫) নামে একজনকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) বিকালে খুলনার একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

আল ইসলাম কালীগঞ্জের বারোবাজার ইউনিয়নের বাদুরগাছা গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় কালীগঞ্জ থানায় একটি মামলা হয়েছে।

কালীগঞ্জের সুবর্নসরা পুলিশ ক্যাম্পের তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মতিয়ার রহমান জানান, আল ইসলামের বাড়ির ওপর প্রতিবেশী সোহেল হোসেনের ঝাড়ের বাঁশ নুয়ে পড়েছিল। বাঁশগুলো কেটে নিতে দীর্ঘদিন ধরে বলা হলেও কাটছিলেন না সোহেল। গত ১৮ অক্টোবর আল ইসলাম নিজেই ঘরে চালে নুয়ে পড়া তিনটি বাঁশ কেটে দেন। 

এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে সোহেল হোসেন ও তার পরিবারের লোকজন ধারালো অস্ত্র, লোহার রড ও লাঠিসোটা নিয়ে আল ইসলামের বাড়িতে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। আল ইসলাম বাড়ির মধ্যে অনধিকার প্রবেশ ও গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে সোহেল, হবিবর শেখের ছেলে মস্ত ও তার স্ত্রী শান্তা খাতুন, হবিবর শেখের স্ত্রী আনু খাতুন ও মেয়ে শিলিফা খাতুন হামলা করে। স্বামীকে ঠেকাতে গিয়ে আল ইসলামের স্ত্রী নাজনীন নাহার শিলাকে হেনস্তা করা হয়। তারা আল ইসলামকে কুপিয়ে ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে যায়। 

শিলা জানান, প্রথমে তাকে কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যার হাসপাতলে ভর্তি করা হয়। সেখানে ভর্তির পর আল ইসলামের অবস্থা সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে। পরে খুলনার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হলে রবিবারর বিকালে তিনি মারা যান। 

কালীগঞ্জ থানার ওসি মাহফুজুর রহমান মিয়া জানান, এ ঘটনায় গত শুক্রবার থানায় একটি মামলা হয়েছে। আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

স্বামী হত্যায় স্ত্রীর যাবজ্জীবন

ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো দুই স্কুলছাত্রের

ট্রাকচাপায় প্রাণ গেলো দুই স্কুলছাত্রের

স্বামীকে হত্যার পর ঘরের সামনে দা হাতে বসেছিলেন স্ত্রী

স্বামীকে হত্যার পর ঘরের সামনে দা হাতে বসেছিলেন স্ত্রী

ভাইয়ের মৃত্যুর দোয়া অনুষ্ঠান শেষে ফেরা হলো না বোনের

ভাইয়ের মৃত্যুর দোয়া অনুষ্ঠান শেষে ফেরা হলো না বোনের

পুঁজি হারানোর আশঙ্কা পান চাষিদের

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ২২:৩৬

হিলিতে ক্রেতা সংকটের কারণে দাম না পেয়ে পান বিক্রি করতে না পেরে হতাশ চাষিরা। লাভের আশায় চাষাবাদ করলেও দাম না পেয়ে পুঁজি হারানোর আশঙ্কায় রয়েছেন তারা।
 
স্থানীয় সূত্র জানায়, সীমান্তবর্তী ঘাসুড়িয়া নন্দিপুর ও মাধবপাড়া এলাকার ৩৭ হেক্টর জমিতে ৩৬৫টি পানের বরজ রয়েছে। উপজেলার মধ্যে এই অঞ্চল শুধুমাত্র পান চাষের ওপর নির্ভরশীল। স্থানীয় চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন এলাকায় যায় পান।

গত বছর যে প্রতি পোয়া (৪০ বিরা) পানের দাম ছিল তিন হাজার ৬০০ থেকে চার হাজার ২০০ টাকা সেই পান এখন বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে এক হাজার ৪০০ টাকা। চিকন পান ১০০-২০০ টাকা। ক্রেতার অভাবে বিক্রি করতে না পেরে পান ফেলে দিচ্ছেন কেউ কেউ।

পানহাটিতে পান কিনতে আসা পাইকার আনিসুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পানের দাম অনেক কম। দাম কম হলে আমাদের জন্য সুবিধা হয়। আমরা বেশি করে কিনতে পারি এবং দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাতে পারি। এতে লাভ একটু বেশি হয়।

পান কিনতে আসা আরেক পাইকার আব্দুল মান্নান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, রবিবার ও  বৃহস্পতিবার বাজার বসে এই হাটে। পানের বাজার একটু কম। তবে গত হাটে দাম বেশি ছিল। এ জন্য পান কিনতে পারিনি। আজ দাম কম। এ জন্য বেশি করে কিনেছি। এমন দাম থাকলে পাইকার এবং ক্রেতার জন্য সুবিধা। পানের দাম কমের মূল কারণ বরজে বিভিন্ন রোগ দেখা দিয়েছে। মান একটু খারাপ হওয়ায় চাহিদা কম। এ জন্য দাম কম। 

হিলিতে ক্রেতা সংকটের কারণে দাম না পেয়ে পান বিক্রি করতে না পেরে হতাশ চাষিরা

পান বিক্রি করতে আসা ধরঞ্জয় বর্মন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পানের বাজার দিন দিন খারাপ হচ্ছে। গত হাটের চেয়ে এই হাটে দাম পোয়া (৪০ বিরা) প্রতি ৪০০-৫০০ টাকা কম। আবহাওয়ার কারণে বরজে পচন ধরায় পান ঝরে পড়ছে। এতে ক্ষতির মুখে পড়ছি। পানের মান খারাপ হওয়ায় দাম পাচ্ছি না। ভালো পানেরও চাহিদা নেই। ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছি। একবিঘা জমিতে বরজ করতে দেড় লাখ টাকা খরচ হয়। এখন পান বিক্রি করছি ৭০-৮০ হাজার টাকার। লাভ তো দূরের কথা ৭০-৮০ হাজার টাকা লোকসান।

পান বিক্রেতা চন্দন কুমার ও আশরাফুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে জানান, পান চাষ করে খারাপ অবস্থা আমাদের। হাটে বেচাকেনা নেই বললেই চলে। সকাল থেকে পান নিয়ে হাটে ৩-৪ ঘণ্টা বসে থাকলেও বিক্রি হচ্ছে না। বাজারে পান বেশি, ক্রেতা নেই। এতে লোকসানের মুখে পড়েছি। একপোয়া চিকন পান বাজারে বিক্রি করতে হচ্ছে ১০০-২০০ টাকা। অথচ একপোয়া পান বরজ থেকে তুলতে খরচ হয় ২০০ টাকা।

হাকিমপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ড. মমতাজ সুলতানা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, করোনাকালীন বাজার না বসায় বরজ থেকে পান না উঠিয়ে বরজেই রেখে দিয়েছিলেন চাষিরা। এখন একসঙ্গে বরজ থেকে পান তোলায় দাম কমেছে। তবে খুব দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরবে। এই অঞ্চলে পান সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই। তবে চাষিদের দরকার হলে তারা গাছেই পানগুলো বেশি দিন রেখে সংরক্ষণ করতে পারেন।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

পেঁয়াজ মজুত করে মাথায় হাত পাইকারদের

পেঁয়াজ মজুত করে মাথায় হাত পাইকারদের

প্রতিষ্ঠান প্রধানের স্বাক্ষর জাল করে কেন্দ্র পরিবর্তনের অভিযোগ

প্রতিষ্ঠান প্রধানের স্বাক্ষর জাল করে কেন্দ্র পরিবর্তনের অভিযোগ

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রাইভেটকার চালক হত্যায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

প্রাইভেটকার চালক হত্যায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কারাগারে

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

ফরিদপুরে নির্বাচনি সহিংসতায় যুবক নিহত, ৫০ বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

ফরিদপুরে নির্বাচনি সহিংসতায় যুবক নিহত, ৫০ বাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যায় আজিজুলের দায় স্বীকার

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

ধর্ষণের ‘শাস্তি’ ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা!

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে যুবক গ্রেফতার

সর্বশেষ

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ার আহ্বান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় আরও ৪ জন গ্রেফতার

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় আরও ৪ জন গ্রেফতার

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় করা মামলা সিআইডিতে

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনায় করা মামলা সিআইডিতে

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে অক্সিজেন প্ল্যান্ট চালু

© 2021 Bangla Tribune