X
শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ৮ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

শহীদ মিনার দখল করে লিচুর পাইকারি বাজার

আপডেট : ৩১ মে ২০২১, ২১:৫০

বিভাগীয় নগরী রংপুরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার দখল করে লিচুর পাইকারি বাজার বসানোর অভিযোগ উঠেছে। শহীদ মিনারের বেদিতে জুতা ও স্যান্ডেল পরেই চলছেন ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা। এছাড়া বেদির পাশে বানিয়ে ফেলা হয়েছে অস্থায়ী প্রস্রাবখানা। এতে শহীদ মিনারের পবিত্রতা ও সম্মান নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ সচেতন মহলের। কিন্তু শহীদ মিনার দেখভালকারী রংপুর সিটি করপোরেশনের এ বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ না নেওয়ায় স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তারা দ্রুত এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি তুলেছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, রংপুর সিটি করপোরেশন কার্যালয়ের মাত্র একশ’ গজ দূরে ও পাবলিক লাইব্রেরি মাঠের একপাশে বিভাগীয় নগরীর একমাত্র শহীদ মিনারটির অবস্থান।

জানা যায়, এই শহীদ মিনার ও পাবলিক লাইব্রেরি মাঠটি জাতীয় জীবনের অনেক ঘটনার সাক্ষী। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান স্বাধীনতা যুদ্ধের আগে অনেকবার এই পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে জনসভায় বক্তব্য দিয়েছেন। এছাড়াও অনেক রাজনৈতিক দলের জনসভা এখনও এই পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে অনুষ্ঠিত হয়। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর সেখানেই তৎকালীন রংপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান ও খ্যাতিমান রাজনীতিবিদ মোহাম্মদ আফজালের উদ্যোগে নির্মান করা হয় শহীদ মিনারটি। মহান ২১ ফ্রেরুয়ারি ছাড়াও বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এই শহীদ মিনারে হয়ে থাকে।

তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, স্বাধীনতার ৫০ বছরেও শহীদ মিনারটি পূর্ণাঙ্গ শহীদ মিনারে রূপ লাভ করেনি। এছাড়া বছরের প্রায় পুরো সময় সবার শ্রদ্ধার জায়গা এ পবিত্র শহীদ মিনারটি অরক্ষিত থাকে। শুধুমাত্র বিশেষ বিশেষ দিনে শহীদ মিনারের ধোয়া মোছা ও আশপাশের এলাকা পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করা হয়। বাকি সময় থাকে অযত্ন ও অবহেলায়।

তবে এবার অবস্থা বেশ নাজুক। সরেজমিনে গিয়ে আরও দেখা যায়, পবিত্র এই শহীদ মিনারের বেদিসহ আশপশের পুরো এলাকা দখল করে বসেছে জমজমাট লিচুর বাজার। শহীদ মিনারের বেদিতে জুতা-স্যান্ডেল আর অপরিষ্কার ময়লা পায়ে যাতায়াত করছেন ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা। শহীদ মিনারের বেদিতে লিচু রেখে বানানো হয়েছে নোংরা-আবর্জনার স্তুপ। এছাড়া বেদির আশপাশে দুর্গন্ধ, যেখানে-সেখানে প্রস্রাব করে এলাকার পরিবেশকে নষ্ট করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বেশ কয়েকজন লিচু ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তারা একে অপরের ওপর দোষ চাপিয়ে বিষয়টিকে আড়াল করার চেষ্টা করেন।

এদিকে শহীদ মিনারের পবিত্রতা বিনষ্ট হওয়ার ঘটনায় বিভিন্ন মহল তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। রংপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি শাফিয়ার রহমান বলেন, শহীদ মিনারে লিচুর পাইকারি বাজার বসিয়ে পবিত্রতা বিনষ্ট করার ঘটনা খুবই দুঃখজনক। তিনি অবিলম্বে বাজারটি অপসারণ এবং পবিত্রতা রক্ষার জোর দাবি জানান।

সিপিবির উপদেষ্টা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাদত হোসেন বলেন, অনেক ইতিহাসের সাক্ষী শহীদ মিনারকে অপবিত্র করে লিচুর বাজার বসানো হয়েছে। কারা এর নির্দেশ দাতা, যারা এটা করেছেন তাদের বিষয়ে খতিয়ে দেখা উচিত। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি।

এছাড়া বাসদের জেলা সমন্বয়ক আনোয়ার হোসেন বাবলু বলেন, পবিত্র শহীদ মিনারকে যারা ব্যবসা কেন্দ্র বানিয়েছে ও এর পবিত্রতা বিনষ্ট করেছে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

তবে এ বিষয়ে কথা বললে বিষয়টি খতিয়ে দেখে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন রংপুর সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র টিটু।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২০:৫৪

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে মদপানে দুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও পাঁচজন।

মৃতরা হলেন- মেহেদী হাসান সোহাগ (৩২) ও তৌফিকুজ্জামান সৈকত (৩০)। এর মধ্যে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল ১১টায় বগুড়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় সোহাগের। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) রাত ১০টার দিকে হাসপাতালে নেওয়ার সময় মারা যান সৈকত।

সোহাগ গোবিন্দগঞ্জ পৌর শহরের চক গোবিন্দ পাঠানপাড়ার আলমগীর হোসেন প্রধানের ছেলে এবং সৈকত চক গোবিন্দ ঝিলপাড়ার মোশারফ হোসেনের ছেলে।

আহতরা হলেন- চক গোবিন্দ পশ্চিম চৌমাথা এলাকার নুরুল ইসলামের ছেলে রানা (৩২), সাজু মিয়ার ছেলে রানা (২৮), মৃত বাদল চন্দ্রের ছেলে বাঁধন সরকার (২৬), বাপ্পী (২৮) ও অভি (৩০)। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে গোবিন্দগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তাজুল ইসলাম জানান, মারা যাওয়ার কারণ উদ্ধারে পুলিশ তদন্তে নেমেছে। তবে মৃতদের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনও অভিযোগ করা হয়নি।

এ বিষয়ে মেহেদী ও সৈকতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তারা বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে রাজি হয়নি। স্থানীয়রা জানান, সোহাগ, সৈকতসহ অসুস্থরা বৃহস্পতিবার রাতে একসঙ্গে বসে মদপান করেন। মদপানের প্রায় দুই ঘণ্টা পর তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হলে রাতে সৈকত এবং আজ সকালে সোহাগের মৃত্যু হয়। অসুস্থ অন্যরা বগুড়ার শজিমেক ও রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

গোবিন্দগঞ্জ হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. শরিফুল ইসলাম জানান, সোহাগ, সৈকত ও রানা নামের তিন যুবককে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। অ্যালকোহল জাতীয় কিছু পান করার ফলে তারা অসুস্থ হয়ে পড়েন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

রেজিস্ট্রার অফিসের বারান্দায় সন্তান প্রসব!

রেজিস্ট্রার অফিসের বারান্দায় সন্তান প্রসব!

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২০:৩১

গাজীপুরের টঙ্গীতে চাকরির প্রলোভনে এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই তরুণী শুক্রবার (২৩ জুলাই) দুপুরে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি মামলা করেছেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে টঙ্গীর ভরান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদ মাসুদ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযুক্ত আসামিরা হলো- টঙ্গীর ভরান এলাকার জয় (২৫), সৈকত (২৬) এবং তাদের এক সহযোগী।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে ওসি জাবেদ মাসুদ জানান, বৃহস্পতিবার রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্টুরেন্টে ভুক্তভোগীর সঙ্গে অভিযুক্তদের পরিচয় হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ওই তরুণীকে টঙ্গীতে আসতে বলে অভিযুক্তরা। রাত সাড়ে ১২টায় টঙ্গীর ভরান এলাকায় গেলে স্থানীয় সাদিয়া ফার্নিচারের গোডাউনের পেছনে নিয়ে তরুণীকে জোরপূর্বক সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, সকালে অভিযুক্তরা ভুক্তভোগীকে ফেলে রেখে চলে যায়। ভুক্তভোগীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আজ দুপুরে মামলা নেওয়া হয়েছে। তাকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:৫৫

ঈদের পরদিন বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) বিয়ে করেছেন মো. রাসেল ও সোনিয়া আক্তার। কিন্তু করোনা রোধে শুক্রবার (২৩ জুলাই) থেকে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন শুরু হওয়ায় বিয়ের রাতে কর্মস্থলে ফিরতে নববধূকে নিয়ে লঞ্চের ডেকে বসেই ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন বরিশালের উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের বাসিন্দা রাসেল। এতে করে বর-কনের সাজে তাদের বিয়ের রাত কেটেছে লঞ্চের ডেকে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতেই পারাবত-১০ লঞ্চের চতুর্থতলায় লঞ্চ মাস্টারের সামনের খোলা জায়গায় চাদর বিছিয়ে সেখানেই সারারাত কাটিয়ে দেন এ নবদম্পতি। রোজার ঈদের সময় রাসেল ও সোনিয়ার দেখাদেখি শেষে বিয়ের পাকা কথা হয়। বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয় ঈদুল আজহার পরদিন। সিদ্ধান্ত ছিল, করোনার কারণে হাতেগোনা কয়েকজনের উপস্থিতিতে বিয়ে হবে। আর লকডাউনের কারণে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে নবদম্পতি চলে যাবে ঢাকায়।

ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করা রাসেল বলেন, ‘বসের সাফ কথা, কর্মস্থলে উপস্থিত থাকতে হবে। এ কারণে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে কোনোভাবে খাবার খেয়ে ঢাকায় যেতে বরিশাল নৌবন্দরে চলে আসি। কারণ মারাত্মক ভিড় হবে তাই আগেভাগেই আন্দাজ করেছি। বিকেলের মধ্যে বরিশাল নৌবন্দরে পৌঁছে পারাবত-১০ লঞ্চে উঠি। এর পূর্বে ঘাটে থাকা প্রতিটি লঞ্চে কেবিনের খোঁজ নিয়েছি। এমনকি স্টাফ কেবিনও খুঁজেছি। কিন্তু কোনও কিছুই ছিল না। ডেক থেকে শুরু করে ছাদেও যাত্রী ছিল। কোনোভাবে জায়গা ব্যবস্থা করতে না পেরে পারাবত লঞ্চের সারেংয়ের সামনে চাদর বিছিয়ে জায়গা করে নেই।’

রাসেল বলেন, ‘স্ত্রী বিয়ের কাপড়ে থাকায় বেশিরভাগ যাত্রীর দৃষ্টি ছিল আমাদের দিকে। বিয়ে করেই লঞ্চে ওঠার বিষয়টি সবাই বুঝতে পারে। এ নিয়ে একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীনও হতে হয়েছে আমাকে। অনেকে আবার আস্তে আস্তে বলছিল, লকডাউনের মধ্যে বিয়ে। বিষয়গুলোর আমার কানে এলেও চুপচাপ থাকি।’

শুক্রবার ভোরবেলা সদরঘাট পৌঁছান তারা। হাসি দিয়ে সুমন বললেন, ‘বিয়ের রাতের ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা হলো আমাদের দুইজনের।’

পারাবত-১০ লঞ্চের সুপারভাইজার মোখলেচুর রহমান বলেন, ‘আমারও তাদের কেবিন দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু এত যাত্রীর চাপ, এর মধ্যে কোনোভাবেই কেবিনের ব্যবস্থা করা যায়নি।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

যমজ সন্তান জন্মের এক সপ্তাহ পর করোনা আক্রান্ত মায়ের মৃত্যু

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৬

যমজ সন্তান জন্মের এক সপ্তাহ পর মারা গেছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) বাংলা বিভাগের মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী শারমিন সুলতানা শাম্মি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ড. এম আব্দুল আলীম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শারমিন সুলতানার বাড়ি পাবনা পৌর শহরের কলাবাগান মহল্লায়। তিনি করোনা পজিটিভ ছিলেন। এক সপ্তাহ আগে যমজ সন্তানের মা হন। গত ১৩ জুলাই সকালে আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় করোনার উপসর্গ নিয়ে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তির জন্য যান। শারীরিক অবস্থা অনেক খারাপ হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় রেফার্ড করেন। রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) খুঁজে না পেয়ে রাজারবাগের একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

পরে স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞরা ১৫ জুলাই তার ডেলিভারি করানোর সিদ্ধান্ত নিলে শাম্মি যমজ কন্যা সন্তান জন্ম দেন। জন্মের পর থেকে বাচ্চা দুইটিকে এনআইসিইউতে রাখা হয়। এরপর শাম্মির শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় এবং শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে তার মৃত্যু হয়।

শারমিনের মৃত্যুতে পাবিপ্রবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে শোকবার্তা জানিয়েছেন পাবিপ্রবি শিক্ষক ড. এম আব্দুল আলীম, ড. আওয়াল কবির জয়, কামাল হোসেন প্রমুখ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

খুলনা বিভাগে আরও ৩০ জনের মৃত্যু

খুলনা বিভাগে আরও ৩০ জনের মৃত্যু

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

যশোর জেনারেল হাসপাতালে ৬ মৃত্যু

যশোর জেনারেল হাসপাতালে ৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ২২ জনের মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ২২ জনের মৃত্যু 

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:০২

করোনাভাইরাস রোধে দেশব্যাপী আরোপিত লকডাউন অমান্য করায় নীলফামারীর সৈয়দপুরে ২১ মামলায় পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া একজনকে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডও দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

লকডাউন বাস্তবায়নে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দণ্ডাদেশ ও জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রমিজ আলম।

তিনি জানান, শাটার অর্ধেক তুলে শহরের শহীদ ডা. শামসুল হক রোডের নাজ সু স্টোরের মালিক সানোয়ার হোসেন (৪২) ব্যবসা করায় তাকে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া অযথা ঘোরাঘুরি ও মাস্ক না পরার দায়ে ২০ পথচারীকে ২১ মামলায় পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

সম্পর্কিত

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

তবুও বাইরে মানুষ

তবুও বাইরে মানুষ

ঈদ উপলক্ষে আত্মীয়ের বাসায় ঘুরতে বেরিয়ে গুনতে হচ্ছে জরিমানা

ঈদ উপলক্ষে আত্মীয়ের বাসায় ঘুরতে বেরিয়ে গুনতে হচ্ছে জরিমানা

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

সর্বশেষ

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

করোনার মাঝেও অলিম্পিকের বর্ণাঢ্য উদ্বোধন

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

অলিম্পিক গেমস উপলক্ষে গুগলের ডুডল

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

দ্বিতীয় ঢেউয়েও বাংলাদেশের অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানো অব্যাহত: এডিবি

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

কোরবানির মাংস সংগ্রহ করেন প্রকৌশলী রিমন, কিন্তু কেন?

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

ময়লার ভাগাড় ও রাস্তায় পড়ে আছে চামড়া

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

রংপুরে আরও ১৫ মৃত্যু, খালি নেই আইসিইউ বেড

খুলনার পাঁচ হাসপাতালে মৃত্যু কমেছে

খুলনার পাঁচ হাসপাতালে মৃত্যু কমেছে

বড় রাস্তায় কঠোর অবস্থা, গলিতে যেমন-তেমন 

বড় রাস্তায় কঠোর অবস্থা, গলিতে যেমন-তেমন 

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১৫ মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune