X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস

ছোট কাঁধে বড় ভার

আপডেট : ১৩ জুন ২০২১, ০০:০৫

আজ ১২ জুন বিশ্ব শিশুশ্রম প্রতিরোধ দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ছিলো- ‘মুজিববর্ষের আহ্বান, শিশু শ্রমের অবসান’। কিন্তু আজ সারাদেশের খবর বলছে, শিশুদের শ্রম বন্ধ তো হয়নি উপরন্তু শ্রমে শিশুদের অংশগ্রহণ আগের চেয়ে অনেকগুণ বেড়েছে। ২০২১ সালের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ও ২০২৫ সালের মধ্যে সব ধরনের শিশুশ্রম বন্ধে সরকারের আইন থাকলে দেশের জেলায়-জেলায় দেখা গেছে শিশুদের উদ্বেগজনক পরিস্থিতি। স্কুল-মাদ্রাসাসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ঝুঁকিপূর্ণ কাজে দিন-দিন শিশুদের ব্যবহার বেড়ে চলেছে। বাংলা ট্রিবিউন প্রতিনিধিদের সরেজমিন প্রতিবেদনে উঠে এসেছে শিশুশ্রমের উদ্বেগজনক চিত্র।

শিশু হাসাতের হাতে সংসারের হাল

দিনাজপুর থেকে বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি বিপুল সরকার সানি জানিয়েছেন, হাসাত আলী (১৪) কাজ করে দিনাজপুর সদর উপজেলার ১নং চেহেলগাজী ইউনিয়নের কোম্পানির মোড় এলাকার আজগরের ফার্নিচারের দোকানে। তার কর্মজীবনে হাতে খড়ি গত বছরের ডিসেম্বর মাসে। যে সময় তার বই-খাতা হাতে নিয়ে স্কুলে থাকার কথা, যে সময় থাকার কথা খোলা আকাশের নিচে মুক্ত বিহঙ্গের মত খেলার মাঠে ব্যাট-বল কিংবা সাইকেল নিয়ে, সেই সময় সে হাতুড়ি, বাটাল আর পেরেক হাতে নিয়ে জীবিকার তাগিতে কাজ করে আজগরের দোকানে। অর্থনৈতিক অসচ্ছলতা কেড়ে নিচ্ছে তার শৈশবের দুরন্তপনা।

হাসাত আলী একজন শিশুশ্রমিক। বাবা কবির আলী মারা গেছে যখন তার বয়স ১২ বছরের কোঠায়। মা হেনা এখন বিয়ে করে সংসার বেঁধেছেন অন্য একজনের সঙ্গে। এখন তার বর্তমান শেষ আশ্রয়স্থল নানার বাড়িতে। বাবা মায়ের পরিবর্তে অভিভাবক হয়েছে নানা আর নানী। সকাল ৮টায় শুরু হওয়া কর্মব্যস্ততা চলে রাত পর্যন্ত। কখনও ছুটি মেলে সন্ধ্যায়, কখন বা সন্ধ্যা গড়িয়ে রাতের ৯টা পর্যন্ত। খেলাধুলা কিংবা বই হাতে নেওয়ার এখন ফুসরত মেলে না তার জীবনে। নরম হাতে ধরেছে জীবিকার শক্ত হাল।

সরেজমিনে দেখা যায়, একটি হাতুড়ি আর পেরেক নিয়ে সোফা তৈরির কাজে ব্যস্ত হাসাত আলী। সন্ধ্যার মধ্যে ক্রেতার কাছে হস্তান্তর করতে হবে সোফাটি। তাই কথা বলার সময় নেই তার। তবুও কথা বলার চেষ্টা বৃথা হয়নি। কথা বলেছেন তার কর্মব্যস্ততা আর প্রতিদিনের কাজের সম্পর্কে। হাসাত বলেন, ‘এখানে আমার কাজ করার বয়স বেশি দিন হয়নি। আমি এখানেই আমরা নানির বাড়িতে থাকি। বাবা মারা গেছে শ্বাসকষ্টের কারণে, মায়ের কাছে হয়তো থাকতে পারতাম, সে সুযোগ হচ্ছে না। সংসারে অভাব তো রয়েছেই। তবে এখানে কাজ করে যা পাই তার কিছুটা মন চাইলে মায়ের কাছে দিয়ে আসি।’

এ বয়সেই সোফা তৈরির কাজ করছে

হাসাত আলী জানায়, তার সাপ্তাহিক মজুরি ৩০০ টাকা। এই রুজির কিছু তার নানিকে দিয়ে বাকিটা হাসাত খরচ করে। হাসাতের ভাষ্য, নানি আমার জন্য টাকাটা জমিয়ে রাখে।

পড়াশোনার প্রসঙ্গে হাসাতের মন্তব্য, ‘স্কুলে যেতে তো ইচ্ছা করে, কিন্তু কী করবো মা এখানে ঢুকিয়ে দিয়ে গেছে। মা বলে কাজটা শিখ, দাম আছে। তাছাড়া স্কুল তো অনেক দিন থেকে বন্ধ। বসে থাকলে তো আর পেট চলবে না। যেহেতু কাজ শিখছি, ইচ্ছে আছে এখানে কাজ শিখে দোকান দেবো বড় একটা, জায়গা কিনবো।’

হাসাতের মতো দিনাজপুরের মোহাম্মদ আনারুল ইসলাম (১৬) তার বাবার সঙ্গে গ্রিলের দোকানে কাজ করেন। তার পড়াশোনাও বন্ধ রয়েছে। মাদ্রাসায় পড়াশোনা করতো আজমির ইসলাম (১৬)। করোনায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় সংসারে অভাব দূর করতে গ্রিলের দোকানে যোগ দিয়েছে সেও। আনারুল ইসলাম বলেন, ‘এখানে কাজ করে মাসে বেতন পাই ৫০০ টাকা করে। পড়ালেখা করার ইচ্ছা থাকলেও করার কিছু নেই। পরিবারে বাবা মাসহ একটা বোন আছে।’

শহরের দোকান মালিকদের দাবি, করোনার কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় অভিভাবকরা সন্তানদের কাজে যুক্ত করে দিচ্ছে। বিশেষ করে মাদক বা খারাপসঙ্গ থেকে রক্ষা করতে কাজে ঠেলে দিচ্ছে। ভাই-ভাই ওয়ার্কশপের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ হাসান বলেন, ‘আমার দোকানে যারা কাজ করছে, তাদের বাবা-মায়েরাই তাদের এখানে নিয়োগ করে গেছে। তাদের কথা হচ্ছে, স্কুল-কলেজ বন্ধ, বসে থাকলে খারাপসঙ্গ ধরবে, নেশা খাওয়া শিখবে। এর চেয়ে হাতের কাজ কিছু শিখুক।’

শিশুশ্রমিক রাখা নিষিদ্ধ, জানে না তারা

ময়মনসিংহ থেকে বাংলা ট্রিবিউন প্রতিনিধি আতাউর রহমান জুয়েল জানিয়েছেন, ময়মনসিংহে দিন-দিন শিশু শ্রমিকের সংখ্যা বেড়ে চলেছে। করোনাকালে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ঝরে পড়া শিশুরা যুক্ত হচ্ছে ঝুঁকিপূর্ণ ওয়েল্ডিং কারখানা, মোটর গ্যারেজ, হোটেল-রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন কাজে। কম খরচে শিশু শ্রমিক পাওয়ায় আইন মানছে না ওয়েল্ডিং কারখানা, মোটর গ্যারেজ, হোটেল-রেস্তোরাঁসহ বিভিন্ন কারখানা মালিকরা।

সরেজমিনে দেখা যায়, ময়মনসিংহ মহানগরীর চেয়ারম্যান হোটেলে গত এক বছর ধরে কাজ করছে জেলার হালুয়াঘাট উপজেলার কুতিকোড়া গ্রামের ভ্যানচালক ইব্রাহিম মিয়ার তৃতীয় শ্রেণি পড়ুয়া ছেলে ইয়াসিন মিয়া (১২)। প্রতিদিন কাজের বিনিময়ে ইয়াসিনকে দেওয়া হচ্ছে মাত্র ১০০ টাকা।

মোটর গ্যারেজে কাজ করছে ছোট্ট এ শিশু

রেলি মোড়ের জিহাদ মোটর গ্যারেজে কাজ করতে দেখা গেছে কৃষ্টপুর এলাকার কামাল হোসেনের ছেলে রাকিব মিয়াকে (১১)। রাকিব বাঘমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। গত ৬ মাস ধরে মোটর গ্যারেজে কাজ নিয়েছে সে। রাকিব জানায়, করোনায় স্কুল বন্ধ থাকায় বাবা তাকে গ্যারেজের কাজে লাগিয়েছে। প্রতিদিন তাকে ১০০ টাকা হারে মজুরি দেওয়া হয়। এ থেকে প্রতিদিন ৩০ টাকা খাওয়াতে চলে যায়, বাকি টাকা বাবাকে দিয়ে থাকে। এই দোকানের পাশে আরেকটি গ্যারেজের শিশু শ্রমিক কামরুল (১৪) জানায়, শহরের বেশিরভাগ মোটর গ্যারেজ, হোটেল ও ওয়ার্কশপে তার মতো শিশুরা কাজ করছে। এ বিষয়ে প্রশাসন থেকে তাদের কখনও নিষেধ করা হয়নি। জিহাদ মোটরস গ্যারেজের মালিক জিয়াদ হোসেন জানান, শিশু শ্রমিক রাখা আইনে নিষিদ্ধ এই বিষয়টি তাদের জানা নেই। কখনও প্রশাসনের লোকজন এসে তাদের নিষেধ করেনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক মো. এনামুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মহানগরী এবং জেলায় শিশুশ্রমিকের একটি জরিপ করে এরপর তাদের পুনর্বাসনের একটি পরিকল্পনা নেওয়া হবে।’

ন্যায্য পারিশ্রমিক থেকেও বঞ্চিত শিশুরা

জামালপুর থেকে বাংলা ট্রিবিউনের প্রতিনিধি বিশ্বজিৎ দেব জানান, জেলায় শিশুশ্রম আগের যেকোনও সময়ের চেয়ে বেড়েছে। একইসঙ্গে জেলায় শিশুদের উপযুক্ত পারিশ্রমিক থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। জামালপুর জজ কোর্টের অ্যাডভোকেট ইউসুফ আলী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আইনত নিষিদ্ধ হলেও পরিবারের আর্থিক অসচ্ছলতায় শিশু বয়সে কাজ করতে গিয়ে বেতন বৈষম্য ও শারীরিকভাবে নির্যাতিত হচ্ছে শিশুরা।’

বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার হিসাব মতে, শুধুমাত্র জেলা শহরেই কাজ করছে চার হাজারের বেশি শিশুশ্রমিক। আর জেলার সাত উপজেলা মিলে এ সংখ্যা অর্ধ-লক্ষাধিক। শিশুশ্রম বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের করে তাদের লেখাপড়ার সুযোগ করে দেওয়ার পাশাপাশি পুনর্বাসনের দাবি সবার।

জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুর্শেদা জামান বলেন, ‘দরিদ্রতার কারণে শিশুশ্রম বৃদ্ধি পেয়েছে। সরকারের শিশুবান্ধব বিভিন্ন কর্মসূচির কারণে শিশুশ্রম এখন কিছুটা কমে আসছে। এছাড়াও জামালপুরে ছেলে ও মেয়েদের জন্য দুটি পুনর্বাসন কেন্দ্র তৈরি করা হচ্ছে।’

স্কুল বন্ধ থাকায় নাটোরে বেড়েছে শিশুশ্রম

বাংলা ট্রিবিউনের নাটোর প্রতিনিধি কামাল মৃধা জানান, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় জেলায় শিশুশ্রম বেড়ে গেছে। সদর উপজেলার, ভাটোদাঁড়া গ্রামের রহমত আলী জানান, তার দুই ছেলে রাশেদ ও শাহেদ স্থানীয় দিঘাপতিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করত। করোনাকালে বিদ্যালয় বন্ধ থাকার ও তার কাজের সুযোগ কমে যাওয়ায় দুই ছেলেই রাজমিস্ত্রির যোগালদার হিসেবে কর্মে যোগ দিয়েছে।

ফ্যান মেরামত করছে ছোট্ট শিশু

বাগাতিপাড়ার তমালতলা বাজারে দেখা যায়, এক শিশু দোকান ঝাড়ু দিচ্ছে। জানতে চাইলে সে জানায়, পরিবারের সমস্যা থাকায় সে দোকানে চাকরি করছে। সিংড়া বাজারের পাশেই রাস্তা দিয়ে ভ্যান চালিয়ে যাচ্ছিল এক শিশু। জানতে চাইলে সে জানায়, তার বাবা না থাকায় পরিবারের প্রয়োজনে ভ্যান চালাচ্ছে সে। সে স্থানীয় স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী।

জানতে চাইলে সদর উপজেলার তেলকুপি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামাল হোসেন বলেন, ‘করোনার কারণে শিক্ষার্থীরা বাড়িতে বসে অলস সময় কাটাচ্ছে। অনেকেই মোবাইল গেম এমনকি নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছে। এমন অবস্থায় অনেক অভিভাবকই সন্তানদের বিভিন্ন কর্মে নিয়োগ করছেন।’

নওপাড়া ওসমানগণি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নাসিমা বানু জানান, স্কুল বন্ধ থাকায় অনেক অভিভাবকই অল্প বয়সেই মেয়েদের বিয়ে দিয়ে মূলত তাদেরকে শিশুশ্রমে নিয়োগ করে চলেছেন।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা রমজান আলী জানান, বিভিন্ন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার পাশাপাশি প্রধান শিক্ষকদের মাধ্যমে তিনি অল্প বয়সে বিয়ে হওয়া আর করোনাকালে শিশুশ্রমে যুক্ত হওয়া শিশুদের সংখ্যা জানার চেষ্টা করছেন। এ বিষয়ে কাজ চলমান।

জেলা শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘করোনার আগে শিশুশ্রম বন্ধে তারা বিভিন্ন সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড করতেন। করোনায় সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও এর সঠিক পরিসংখ্যান তার কাছে নেই।’

শিশুশ্রমের প্রসঙ্গে বাংলা ট্রিবিউনকে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান জানিয়েছেন, সরকার শিশুশ্রম বন্ধে কাজ করছে। শিশুশ্রম নিরুৎসাহিত করতে স্কুলগামী শিশুদের নগদ অর্থ, খাবারসহ নানা সুবিধা দিচ্ছে সরকার। সরকারের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী আগামী ২০২৫ সালের মধ্যে শিশুশ্রম বন্ধে শতভাগ সফলতা আসবে বলেও জানান তিনি।

/এটিএস/ /এফআর/

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২০:৩১

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় আত্মহত্যা করেছেন এক তরুণী। নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুরে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। লিমা আক্তার নামের ওই তরুণী উপজেলার নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়নের মদিনানগর গ্রামের জাফর উদ্দিনের মেয়ে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে নিঝুম দ্বীপে আসা মো. ননু মিয়ার (৭১) সঙ্গে লিমার বিয়ে দেন তার মা মিনারা বেগম। এ বিয়েতে লিমার কোনও মত ছিল না। কিন্তু তার মা মিনারা বেগম জোরপূর্বক তাকে ওই বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেন। এ নিয়ে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) সন্ধ্যায় মায়ের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। এরপর রাত সাড়ে ৮টার দিকে পরিবারের অগোচরে বিষপানে আত্মহত্যা করেন লিমা।

তবে মা মিনারা বেগমের দাবি, তার মেয়ে শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।

নিঝুম দ্বীপ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সৌরজিৎ বড়ুয়া জানান, খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ ফাঁড়িতে আনা হয়। বুধবার ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে এলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

/এফআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ঘরের আড়ায় ঝুলছিল অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ 

ঘরের আড়ায় ঝুলছিল অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

অভিমানে চেয়ারম্যানের ছেলের আত্মহত্যা

অভিমানে চেয়ারম্যানের ছেলের আত্মহত্যা

নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আটক

নবম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গৃহশিক্ষক আটক

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২০:০২

কুমিল্লায় লকডাউনেও কমছে না করোনার সংক্রমণ। প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। সংক্রমণের হার কমাতে কঠোর অবস্থানে রয়েছে জেলা প্রশাসন। বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে প্রতিদিন। ২৩ জুলাই থেকে শুরু হওয়া লকডাউনের ছয় দিনে এক হাজার ২৩৯ মামলায় ১২ লাখ ৬৬ হাজার ৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

সবশেষ বুধবার (২৮ জুলাই) ২৮টি অভিযান পরিচালনা করা হয়। জেলা ও ১৭ উপজেলা প্রশাসন বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ২৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ১৭০টি মামলা করেছেন। এসব মামলায় ১৭০ ব্যক্তিকে দুই লাখ ৮৯ হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, চলমান কঠোর লকডাউনের ছয় দিনে ২০৬টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন। অভিযানে এক হাজার ২৩৯টি মামলা করা হয়। জেলা প্রশাসনের ছয় জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে জেলা শহরে ২৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। এছাড়া আদর্শ সদর, সদর দক্ষিণ, চান্দিনা, মেঘনা, তিতাস, হোমনা, চৌদ্দগ্রাম লাকসাম, দেবিদ্বার ও মনোহরগঞ্জে একটি করে এবং বুড়িচং, দাউদকান্দি, মুরাদনগর, বরুড়া, নাঙ্গলকোট ও লালমাই দুটি করে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়।

কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বলেন, লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে বুধবার ২৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়েছে। পাশাপাশি জেলা প্রশাসন গত ছয় দিনে একা হাজার ১৩২ গরিব ও অসহায় পরিবারের মাঝে ত্রাণ সহায়তা বিতরণ করেছে। করোনা প্রতিরোধে সরকারের দেওয়া যেকোনও নির্দেশনা পালনে বিধিনিষেধ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

১৫ দিন ধরে ফাঁকা নেই করোনা ইউনিট, চালু হচ্ছে আরও ৫০ শয্যা

১৫ দিন ধরে ফাঁকা নেই করোনা ইউনিট, চালু হচ্ছে আরও ৫০ শয্যা

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:৪৯

চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নাসির উদ্দিন নামের এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন। ঘাতক ট্রাকটি নাসিরকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার পথ টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে গেছে। পরে ট্রাকের নিচ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে চাঁদপুর সদর উপজেলার চাঁনখার বাজারের চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের এম এম নুরুল হক উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক ট্রাক ও চালককে আটক করেছে পুলিশ।

নিহত নাসির উদ্দিন চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার ৯নং উত্তর গোবিন্দপুর ইউনিয়নের পূর্ব ধানুয়া গ্রামের মিজি বাড়ির মৃত সোলেমান মিজির ছেলে। তিনি এক ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জনক। কুমিল্লার শাসনগাছা এলাকায় থেকে ঠিকাদারির ব্যবসা করতেন তিনি।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, যশোর থেকে ছেড়ে আসা গাছ বোঝাই একটি ট্রাক চাঁদপুর হয়ে নাঙ্গলকোটের উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে ট্রাকটি চাঁদখার বাজার এলাকায় এলে ওই পথ দিয়ে যাওয়া একটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এ সময় মোটরসাইকেল চালক নাসির উদ্দিনকে বেপরোয়া ট্রাকটি প্রায় পাঁচ কিলোমিটার টেনে-হিঁচড়ে নিয়ে যায়। কিছুদূর যাওয়ার পর ট্রাকের নিচে দিয়ে মোটরসাইকেলটি বেরিয়ে গেলেও ট্রাকের নিচের কোনও এক স্থানে আটকে যান নাসির।

পরে ঘোষেরহাট এলাকার কয়েকজন সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক ট্রাকের নিচ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইকবাল হোসেন বলেন, সহযোগী পালিয়ে গেলেও চালক গোলাম মোস্তফা ডাবলুকে সিএনজি চালকরা আটক করে রাখেন। চালকের বাড়ি যশোরের মনিরামপুর উপজেলায়। আমরা ঘটনাস্থলে এসে ঘাতক ট্রাক ও চালককে আটক করে থানায় নিয়ে আসি।

এ বিষয়ে চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুর রশিদ বলেন, নিহত নাসির উদ্দিন পেশায় একজন ঠিকাদার ছিলেন। দুর্ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে চাঁদপুর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

১৫ দিন ধরে ফাঁকা নেই করোনা ইউনিট, চালু হচ্ছে আরও ৫০ শয্যা

১৫ দিন ধরে ফাঁকা নেই করোনা ইউনিট, চালু হচ্ছে আরও ৫০ শয্যা

চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল শুরু ১ আগস্ট

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:২৫

দীর্ঘ ৬৫ বছর পর আগামী ১ আগস্ট থেকে চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথে পণ্যবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে। এতে বাংলাদেশ ও ভারত মধ্যে বাণিজ্যের নতুন দুয়ার খুলছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে এ উপলক্ষে ভারতীয় রেলওয়ের দুটি ইঞ্জিন নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ছেড়ে হলদিবাড়ি সীমান্ত দিয়ে নীলফামারীর চিলাহাটি সীমান্ত অতিক্রম করে পরীক্ষামূলক যাত্রা সম্পন্ন করে পুনরায় ফিরে যায়।

এ সময় ইঞ্জিনগুলোর সঙ্গে আসেন ট্রেন পরিচালক ও ইঞ্জিন চালক। সঙ্গে আরও ছিলেন- গৌরব বুথা, লিটু রাজ, অর্কদাস, রাকেশ কুমার, অরিজিৎ রায়, এম পি চৌধুরী ও ডি একান্দ চৌধুরী।

চিলাহাটিতে তাদের ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেন বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের ডেপুটি প্রজেক্ট ম্যানেজার নাজমুল হক রকি, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সৈয়দপুর অফিসের প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম, ডোমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজার রহমান, চিলাহাটি রেল স্টেশন মাস্টার আশরাফুল ইসলাম প্রমুখ।

ভারতীয় প্রতিনিধিরা জানান, ১ আগস্ট থেকে এই পথে দুইটি পণ্যবাহী ট্রেন চালু হতে যাচ্ছে। শুরুতে পণ্যবাহী ট্রেনে ভারত থেকে পাথর ও গম আসবে। এই পথে অক্সিজেনবাহী ট্রেনও চলাচল করতে পারে।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ১৭ ডিসেম্বর চিলাহাটি থেকে হলদিবাড়ি পর্যন্ত পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করেছিলেন বাংলাদেশ ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নরেন্দ্র মোদি। এছাড়া চলতি বছরের ২৭ মার্চ দুই প্রধানমন্ত্রী যৌথভাবে ঢাকা থেকে নিউ জলপাইগুড়ি পর্যন্ত আন্তঃদেশীয় যাত্রীবাহী মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করেন। যাত্রীবাহী ট্রেনটি উদ্বোধন করা হলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে এখনও চালু হয়নি। অনুকূল পরিবেশ এলেই দুই দেশের পতাকা উড়িয়ে চলাচল শুরু করবে মিতালী।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, দীর্ঘদিন পর ফের হুইসেল বাজিয়ে ১ আগস্ট ৩০ ওয়াগন পণ্য নিয়ে বাংলাদেশে আসবে ভারতীয় ট্রেন। যেসব ট্রেন পরিচালক ও ইঞ্জিন চালক আজ ইঞ্জিন নিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে এসেছেন তারাই ১ আগস্ট পণ্যবাহী ট্রেন নিয়ে বাংলাদেশে আসবেন।

দুই দেশের পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলের ক্লিয়ারেন্স দেওয়া হয়েছে বলে জানান বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। এ রেলপথে আসা ট্রেনের গন্তব্য হবে বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম তীর। তবে ভারতীয় ইঞ্জিন চিলাহাটি পর্যন্ত এসে থেকে যাবে। চিলাহাটি থেকে বাংলাদেশের ইঞ্জিন ওয়াগনগুলো নিয়ে যাবে নির্দিষ্ট গন্তব্যে। পণ্য খালাস শেষে ফের ওয়াগন নিয়ে যাবে ভারতীয় ইঞ্জিন।

অপরদিকে, উভয় দেশের যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচলের সব ব্যবস্থাই ঠিকঠাক রয়েছে। তবে করোনার কারণে থেমে রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

রংপুরে বিভাগে ২৯ দিনে ৪৪৪ জনের মৃত্যু

রংপুরে বিভাগে ২৯ দিনে ৪৪৪ জনের মৃত্যু

সিনোফার্মের টিকা নিলেন ২২৬ চীনা নাগরিক

সিনোফার্মের টিকা নিলেন ২২৬ চীনা নাগরিক

নির্মাণাধীন সড়ক ভবনের ছাদ ধসে ৩ শ্রমিক আহত

নির্মাণাধীন সড়ক ভবনের ছাদ ধসে ৩ শ্রমিক আহত

ক্যাম্প থেকে পালিয়ে কুড়িগ্রামে আটক ৯ রোহিঙ্গা

ক্যাম্প থেকে পালিয়ে কুড়িগ্রামে আটক ৯ রোহিঙ্গা

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৯:১২

নামের মিল না থাকার পরও যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির বদলে মিনু আক্তার নামে এক নারীর সাজা ভোগের ঘটনায় মূল আসামি কুলসুম আক্তার ও তার এক সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোরে চট্টগ্রাম নগরীর পতেঙ্গা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা হলেন লোহাগাড়া উপজেলার গোরস্থান মাঝের পাড়া আহাম্মদ মিয়ার বাড়ির আনু মিয়ার মেয়ে যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত কুলসুম আক্তার (৪০) ও তার সহযোগী মর্জিনা আক্তার (৩০)।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নেজাম উদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন কোতোয়ালি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আকাশ মাহমুদ ফরিদ। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার এজাহার ও আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৬ সালের জুলাই মাসে মোবাইলে কথা বলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে নগরীর রহমতগঞ্জের একটি বাসায় পোশাককর্মী কোহিনুর আক্তার পারভীনকে গলা টিপে হত্যা করা হয়। এরপর তার লাশ একটি গাছের সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি করেন কুলসুম আক্তার। ওই ঘটনায় করা অপমৃত্যু মামলার তদন্ত শেষে আদালতে হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ এনে প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ।

২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে তৎকালীন অতিরিক্ত চতুর্থ মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. নুরুল ইসলাম আসামি কুলসুম আক্তারকে পারভীন হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। সেই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। 

ওই সাজা পরোয়ানায় কুলসুম আক্তারের পরিবর্তে মিনু আক্তার ২০১৮ সালের ১২ জুন কারাগারে যান। মিনু দুই বছর নয় মাস ১০ দিন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে ছিলেন। এরপর বিষয়টি তার পরিবার আইনজীবীর মাধ্যমে আদালতের নজরে আনলে জামিনে মুক্তি পান। গত ২৮ জুন রাতে বায়েজিদ লিংক রোডে দুর্ঘটনায় মিনু নিহত হন। মিনু নিহতের ঘটনাকে রহস্যজনক দাবি করে সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানিয়েছেন আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ।

ওই সময় তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, মিনুর মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। মাত্র ১৩ দিন আগে কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। বাসা থেকে চার কিলোমিটার দূরে রাস্তায় মিনু সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন, নাকি অন্য কেউ মিনুকে হত্যা করেছে? এটি তদন্ত হওয়া উচিত। পরে এ ঘটনায় বায়েজিদ থানায় মামলা করে পুলিশ। মামলাটি তদন্তাধীন।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানির অভিযোগে মাদ্রাসা সভাপতি গ্রেফতার

শিক্ষিকাকে যৌন হয়রানির অভিযোগে মাদ্রাসা সভাপতি গ্রেফতার

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

সর্বশেষ

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

সিনোফার্মের আরও ৩০ লাখ ডোজ টিকা আসছে রাতে

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

পিপিপি কনসেপ্ট আমরা এখনও ভালোভাবে নিতে পারিনি: অর্থমন্ত্রী

এবার অভিযুক্ত নির্মাতা বান্নাহ, চাইলেন ক্ষমা

এবার অভিযুক্ত নির্মাতা বান্নাহ, চাইলেন ক্ষমা

জনদুর্ভোগ কমাতে এসিল্যান্ডদের নির্দেশ দিয়ে পরিপত্র জারি

জনদুর্ভোগ কমাতে এসিল্যান্ডদের নির্দেশ দিয়ে পরিপত্র জারি

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

সরকারি ৮ হাসপাতালের আইসিইউতে বেড ফাঁকা নেই

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

প্রথমবারের মতো কাতারে অনুষ্ঠিত হবে আইনসভার নির্বাচন

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

স্বাগতিকদের কাঁদিয়ে সেমিতে জোকোভিচ 

স্বাগতিকদের কাঁদিয়ে সেমিতে জোকোভিচ 

বিমানবন্দরেই করোনার বিশাল হাসপাতাল

বিমানবন্দরেই করোনার বিশাল হাসপাতাল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

© 2021 Bangla Tribune