X
রবিবার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বিশ্ব শরণার্থী দিবস

মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা

আপডেট : ২০ জুন ২০২১, ১২:৪৮

আজ ২০ জুন, বিশ্ব শরণার্থী দিবস। আজ যখন দিবসটি পালিত হচ্ছে, তখন কক্সবাজারে বিশ্বের সর্ববৃহৎ শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির সদস্যরা নিজ দেশে ফেরার অপেক্ষায় দিন গুনছেন। নির্যাতন-নিপীড়নের মুখে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা সদস্যরা জাতিগত স্বীকৃতি ও নাগরিক অধিকার নিয়ে স্বদেশে ফিরতে চান। তবে নাগরিকত্ব, নিরাপত্তা ও স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার নিশ্চয়তা নিয়ে আদৌ নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরে যেতে পারবেন কিনা তা নিয়েই তাদের যত উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা। 

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এত অস্ত্র কোত্থেকে এলো?

২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বর হামলা ও নির্যাতনের মুখে জীবন নিয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। এর আগে বিভিন্ন সময় বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা মিলিয়ে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্পে বর্তমানে রয়েছেন প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা সদস্য। পৃথিবীর সর্ববৃহৎ শরণার্থী ক্যাম্প বাংলাদেশের কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে অবস্থিত। পৃথিবীর সর্ববৃহৎ শরণার্থী ক্যাম্প নিয়ে নতুন চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে বাংলাদেশ।

 জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় মিয়ানমারের রাখাইনে এখনও রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি বলে দাবি করে আসছে। এছাড়া জাতিসংঘের সঙ্গে মিয়ানমারের চুক্তির পরও নিরাপদ প্রত্যাবাসন নিয়ে শঙ্কিত রোহিঙ্গারা। তাদের প্রধান দাবি রোহিঙ্গা হিসেবে তাদের জাতিগত স্বীকৃতি, নাগরিকত্ব প্রদান, নিজ ভিটে-মাটি ফেরত দেওয়ার পাশাপাশি স্বাধীনভাবে চলাচলের সুযোগ দিলে তারা মিয়ানমারে ফিরে যাবে।

কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং টিভি টাওয়ার এলাকার ৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মাঝি মোহাম্মদ ইদ্রিস বলেন, প্রাণ রক্ষায় এসেছিলাম, এবার ফিরে যেতে চাই। সহযোগিতা যতই পাই না কেন, শরণার্থী জীবন ভালো লাগে না। গরমে রোহিঙ্গা বস্তিতে থাকলেও মনটা রাখাইনে পড়ে থাকে। আমরা স্বপ্ন দেখি রাখাইনে ফিরে যাওয়ার।

মিয়ানমার নিয়ে জাতিসংঘের রেজুলেশনে হতাশ বাংলাদেশ

উখিয়ার বালুখালী ২ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আয়ুব আলী মাঝি জানান, ‘দীর্ঘ চার বছরের বেশি সময় ধরে আমরা বাংলাদেশে অবস্থান করছি। কিন্তু, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় রোহিঙ্গাদের মিয়ানমার ফেরাতে ব্যর্থ হয়েছে। মিয়ানমারের ছল-চাতুরির কাছে হেরে গেছে বিশ্ব সম্প্রদায়। আমরা যেকোনও মূল্যে মিয়ানমার ফেরত যেতে চাই’।

 শুধু মোহাম্মদ ইদ্রিস ও আয়ুব আলী মাঝি নয়, তাদের মতো উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নুরুল হাকিম, সেগুপা বেগম, লালু ও ফয়েজ উল্লাহ মাঝিসহ রোহিঙ্গা সদস্যরা বলেছেন, বাংলাদেশ শুধু চাইলে হবে না, মিয়ানমারকেও রাজি হতে হবে, নিরাপদ প্রত্যাবাসনে। আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগ করলে কেবল রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ার পথ খুলতে পারে।

রোহিঙ্গা শরনার্থী কমিউনিটির সহ-সভাপতি মাস্টার আব্দুর রহিম জানান, বর্তমানে মিয়ানমারে সামরিক বাহিনীর ক্ষমতা গ্রহণের পর রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন আরও জটিল হয়ে পড়েছে। আন্তর্জাতিক আদালতে মিয়ানমার সরকারের বিরুদ্ধে যে বিচার চলছে, তার রায় হলে এবং জাতিসংঘ জোরালো ভূমিকা পালন করলে রোহিঙ্গারা স্বদেশে ফিরে যেতে পারবে।

 উখিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, সঠিক উদ্যোগ না নেওয়ায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন যেমন সম্ভব হচ্ছে না, তেমনি দীর্ঘমেয়াদে অবস্থান করায় রোহিঙ্গাদের কারণে আর্থসামাজিক সহ শান্তিশৃঙ্খলা বিঘ্নিত হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনই আমাদের একমাত্র কাম্য। কিন্তু রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন ক্রমশ জটিল হয়ে পড়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৭৮ সালে বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের আসা শুরু হয়। এরপর থেকে কারণে-অকারণে দলে দলে অনুপ্রবেশ করে রোহিঙ্গারা। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ৯ অক্টোবর ও ২০১৭ সালের ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে পালিয়ে আসে সাড়ে ৭ লাখ রোহিঙ্গা। নতুন-পুরাতন মিলিয়ে ১১ লাখ ১৮ হাজার ৫৫৭জন রোহিঙ্গা কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় নিয়েছে। সব ধরনের সুযোগ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে তাদের। তবে রোহিঙ্গারা নানাভাবে দেশে ছড়িয়ে পড়ছে এবং সহিংস হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। সুষ্ঠুভাবে প্রত্যবাসনের মাধ্যমে এসব সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

/টিটি/

সম্পর্কিত

এগিয়ে আসেনি কেউ, নিজ গ্রামে হলো না সুমনের সৎকার

এগিয়ে আসেনি কেউ, নিজ গ্রামে হলো না সুমনের সৎকার

হাসপাতাল ভবন থেকে লাফিয়ে করোনা রোগীর আত্মহত্যার চেষ্টা

হাসপাতাল ভবন থেকে লাফিয়ে করোনা রোগীর আত্মহত্যার চেষ্টা

এমপি আলী আশরাফের জানাজায় ঢল, মা-বাবার পাশে শায়িত

এমপি আলী আশরাফের জানাজায় ঢল, মা-বাবার পাশে শায়িত

রাঙামাটিতে অস্ত্র-গুলিসহ ৪ ইউপিডিএফ সদস্য আটক

রাঙামাটিতে অস্ত্র-গুলিসহ ৪ ইউপিডিএফ সদস্য আটক

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০১:২২

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পৃথক স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই পোশাকশ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুইজন।

শনিবার (৩১ জুলাই) সন্ধ্যায় ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের উপজেলার ক্যাডেট কলেজ ও দেওহাটা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। গোড়াই হাইওয়ে থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আদম আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতরা হলেন- গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামধনভূয়ামারি গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে গোলাম হোসেন (৪০) ও জেলার মধুপুর উপজেলার আকাশি গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী নাজমা বেগম (২৮)। নিহত দুইজনই পোশাকশ্রমিক ছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গাইবান্ধা থেকে মোটরসাইকেলযোগে গোলাম হোসেন ঢাকায় নিজ কর্মস্থলে ফিরছিলেন। সন্ধ্যার দিকে মোটরসাইকেলটি মহাসড়কের উপজেলার ক্যাডেট কলেজ এলাকায় পৌঁছালে ঢাকাগামী একটি অজ্ঞাত গাড়ি এসে চাপা দিয়ে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের আরোহী গোলাম হোসেনের মারা যান।

এদিকে, সন্ধ্যায় পোশাকশ্রমিক নাজমা বেগম মোটরসাইকেলযোগে ঢাকায় নিজ কর্মস্থলে ফিরছিলেন। মোটরসাইকেলটি মহাসড়কের দেওহাটা এলাকায় পৌঁছালে অজ্ঞাত একটি গাড়ি এসে তাদেরকে চাপা দিয়ে চলে যায়। এতে মোটরসাইকেল আরোহী নাজমা ঘটনাস্থলে নিহত হন।

উভয় ঘটনায় দুই মোটরসাইকেল চালক আহত হয়েছেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০০:৫০

করোনাভাইরাস রোধে দেশব্যাপী সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন চলছে। এছাড়া গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এমতাবস্থায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার কুতুবপুর ইউনিয়নের ভুইঘর এলাকার আলী আকবর একাডেমি নামে একটি স্কুল খোলা রেখে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (৩১ জুলাই) স্কুলটিতে তৃতীয় থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ডেকে এনে পরীক্ষা নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

পরীক্ষা চলাকালে স্কুলের সামনে উপস্থিত থাকা কয়েকজন অভিভাবক অভিযোগ করেন, তাদের অনিচ্ছা সত্ত্বেও জোরপূর্বক শিশুদের স্কুলে উপস্থিত রেখে কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা নিয়েছে। করোনার কারণে সারাদেশে শিক্ষার্থীদের অনলাইনে ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে। অথচ সরকারি নির্দেশ অমান্য করে তারা বকেয়া বেতন ও পরীক্ষার ফি আদায়ের উদ্দেশে পরীক্ষার জন্য শিক্ষার্থীদের জোরপূর্বক স্কুলে উপস্থিত করেছে।

তারা আরও অভিযোগ করেন, এই করোনাকালে আমরা খুব আর্থিক সংকটের মধ্যে আছি। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ তা না ভেবে আমাদের কাছ থেকে জোরপূর্বক বেতন, পরীক্ষার ফিসহ অন্যান্য ফি আদায় করে পরীক্ষা নিচ্ছে। তারা শিশুদের করোনা ঝুঁকির কথা ভাবেনি। স্কুল চালু রাখায় কোমলমতি শিশুরা করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন বলে জানান অভিভাবকরা। এতে তারা ক্ষোভও প্রকাশ করেন।

এ বিষয়ে আলী আকবর একাডেমির প্রধান শিক্ষক ও মালিক মো. অলিউল্ল্যাহ বলেন, ‘আমাদের স্কুলের সব শিক্ষকরা মিলে ২০ মার্কের একটি পরীক্ষা নিয়েছেন। এটা কোনও সেমিস্টার পরীক্ষা নয়।’

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফা জহুরা বলেন, ‘এ অবস্থায় সশরীরে শিক্ষার্থীদের স্কুলে উপস্থিত করে পরীক্ষা, ক্লাস বা কোনও কিছুই নিতে পারবে না। এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

লকডাউনেও মহাসড়কে চলছে দূরপাল্লার বাস

লকডাউনেও মহাসড়কে চলছে দূরপাল্লার বাস

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০০:৩১

মাদারীপুরের শিবচরে মালামাল ও যাত্রীবোঝাই ট্রাক উল্টে খাদে পড়ে চার জন নিহত হয়েছেন। এ সময় আহত হয়েছেন আরও চার জন। শনিবার (৩১ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের শিবচরের আড়িয়াল খাঁ নদের টোল প্লাজার সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হাইওয়ে পুলিশ জানায়, গোপালগঞ্জ থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসা একটি ট্রাক আড়িয়াল খাঁ নদের সেতুর টোল প্লাজার সামনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে খাদে পড়ে যায়।

এ সময় পলক কুমার নামে টোল প্লাজার এক কর্মচারীসহ ঘটনাস্থলে দুই জন নিহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় পাঁচ জনকে পাঁচ্চর রয়েল হাসপাতালে নিয়ে গেলে আরও দুই জনের মৃত্যু হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, হাইওয়ে দিয়ে দ্রুতগতিতে এসে টোল প্লাজার সামনে রেলিং ভেঙে খাদে পড়ে যায় ট্রাকটি। ছাদ ঢালাইয়ের পাইপসহ অন্যান্য মালামাল ছিল ট্রাকে। মালামালের ওপর ২০ জনের মতো যাত্রী ছিলেন। তবে অন্যরা বড় ধরনের কোনও আঘাত পাননি।

শিবচর হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী বলেন, দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই দুই জন নিহত হন। হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও দুই জন মারা যান। টোল প্লাজার কর্মী ছাড়া অন্যদের পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

/এএম/

সম্পর্কিত

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

১৬ দিন পর টাঙ্গাইল হাসপাতালের আইসিইউ চালু

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২১, ০০:০৯

অগ্নিকাণ্ডের ১৬ দিন পর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) আংশিকভাবে চালু করা হয়েছে। শনিবার (৩১ জুলাই) বিকালে আইসিইউর ১০ বেডের মধ্যে চার বেড চালু করা হয়। ইতোমধ্যে চারটি বেডেই রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

জানা গেছে, গত ১৫ জুলাই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের সূত্রপাত হয় হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা থেকে। ওই দিন ইউনিটের ১০টি বেডে থাকা রোগীদের তাড়াহুড়ো করে হাসপাতালের বাইরে রাখা হয়। অক্সিজেন সাপোর্ট না পেয়ে অনেকে রোগীর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। এ অবস্থায় একাধিক রোগীকে অন্যত্র রেফার্ড করেন চিকিৎসকরা। এর মধ্যে ওই দিন বাইরে কয়েকজনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সোহানা নাসরিনকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি প্রতিবেদনে জানায়, আইসিইউতে হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা মেশিনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার এবং নির্দেশনা অনুযায়ী মেশিন ব্যবহার না করার কারণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছিল। প্রতিবেদনে আটটি সুপারিশও করা হয়েছিল।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) শফিকুল ইসলাম সজিব বলেন, ‘আইসিইউর চারটি বেড চালু করা হয়েছে। বাকিগুলো চালু করতে একটু সময় লাগতে পারে।’

/এএম/

সম্পর্কিত

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

বাঁশের দোলনায় হাসপাতালে নেওয়া হলো অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ২৩:৫৮

সাতক্ষীরার শ্যামনগরে প্রসব যন্ত্রণায় কাতর এক অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূকে বাঁশের দোলনায় চড়িয়ে কাঁধে করে হাসপাতালে নিয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। অসহায় স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যদের এমন চেষ্টায় তাকে নৌকায় তুললে সেখানেই সন্তান প্রসব করেন।

শনিবার (৩১ জুলাই) দুপুর দেড়টার দিকে শ্যামনগর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের এ ঘটনা ঘটে।

গৃহবধূ কেয়া মনির শ্বশুর ইব্রাহিম হোসেন জানান, হাসপাতালে নিতে খোলপেটুয়া নদী পারে নৌকায় ওঠানো হলে সেখানে সন্তান প্রসব করে। এরপর তাদের শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। বর্তমানে মা ও নবজাতক দুইজনই সুস্থ আছেন। এমন কঠিন পরিস্থিতিতেও কয়েক কিলোমিটার হেঁটে খেয়াঘাট পৌঁছে নদী পথ পাড়ি দিয়ে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যেতে ১০-১২ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের চন্ডিপুর গ্রামটি চারদিকে নদী বেষ্টিত। নেই ভালো যোগাযোগ ব্যবস্থা। পাওয়া যায় না চিকিৎসা সেবা। মাঝেমধ্যেই নদী পথে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যাওয়ার আগেই ট্রলারে সন্তান জন্ম দেন অনেকে। অনেকে সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে রক্তক্ষরণে মারাও যান।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (৩০ জুলাই) মধ্যরাতে প্রসব যন্ত্রণা ওঠে শ্যামনগর উপজেলার চন্ডিপুর গ্রামের ইমরান হোসেনের স্ত্রী কেয়া মনির (২০)। দ্বীপ ইউনিয়ন হওয়ায় তাকে দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া সম্ভব হয় না। এমনিতেই দুর্গম পথ। এরপর ছিল মুষলধারে বৃষ্টি। রাস্তাঘাট কাদা। কোথাও পানিতে টইটম্বুর। মোটরসাইকেলই একমাত্র যানবাহন হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তা দিয়ে হাসপাতালে নেওয়াও সম্ভব না। এ অবস্থায় গ্রাম্য চিকিৎসক ও ধাত্রী দিয়ে স্বাভাবিক ডেলিভারির চেষ্টা করা হয় আজ বেলা ১২টা পর্যন্ত।

কিন্তু সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়। উপায় না পেয়ে স্বামী-শ্বশুর মিলে বাঁশ দিয়ে দোলনা বানিয়ে কাঁধে ঝুলিয়ে কেয়া মনিকে নিয়ে রওনা হন হাসপাতালের উদ্দেশে। সঙ্গে ছিল ধাত্রীসহ অন্যান্য স্বজন। খেয়াঘাটে পৌঁছে নিজেদের ট্রলারেই রওনা হন নওয়াবেকী ঘাটের উদ্দেশে। এর মধ্যে দুপুর দেড়টার দিকে ট্রলারেই ফুটফুটে একটি সন্তান প্রসব করেন কেয়া মনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কুষ্টিয়ার হাসপাতালে ১১টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা নষ্ট

কুষ্টিয়ার হাসপাতালে ১১টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা নষ্ট

পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে বন্ধুর বাবাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

পাবজি গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে বন্ধুর বাবাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

খুলনায় ডুবে গেছে ৭৬৬৪ হেক্টর বীজতলা ও সবজি

খুলনায় ডুবে গেছে ৭৬৬৪ হেক্টর বীজতলা ও সবজি

সাতক্ষীরায় ডুবেছে ১৯ হাজার মাছের ঘের, ক্ষতি ৫৩ কোটি

সাতক্ষীরায় ডুবেছে ১৯ হাজার মাছের ঘের, ক্ষতি ৫৩ কোটি

সর্বশেষ

এখনও শেষ হয়নি বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার

এখনও শেষ হয়নি বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে মিয়ানমার জান্তা

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

উচ্ছেদ হবেন লাখ লাখ মার্কিনি!

আগস্টের প্রথম প্রহরে শত আলো জ্বললো

আগস্টের প্রথম প্রহরে শত আলো জ্বললো

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্স

বিক্ষোভে উত্তাল ফ্রান্স

‘দূরপাল্লার বাসে শ্রমিকরা আসতে চাইলে, সেই বাস পুলিশ ধরবে না’

‘দূরপাল্লার বাসে শ্রমিকরা আসতে চাইলে, সেই বাস পুলিশ ধরবে না’

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

কর্মস্থলে ফেরা হলো না ২ পোশাকশ্রমিকের

ফের বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

ফের বাবা হচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

শিক্ষার্থীদের স্কুলে এনে সশরীরে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ

কারখানা খুলতে মানতে হবে ১৫ শর্ত

কারখানা খুলতে মানতে হবে ১৫ শর্ত

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

শিবচরে ট্রাক খাদে পড়ে নিহত ৪

আরেক মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

আরেক মামলায় হেলেনা জাহাঙ্গীরের ৭ দিনের রিমান্ড চায় পুলিশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

এগিয়ে আসেনি কেউ, নিজ গ্রামে হলো না সুমনের সৎকার

এগিয়ে আসেনি কেউ, নিজ গ্রামে হলো না সুমনের সৎকার

হাসপাতাল ভবন থেকে লাফিয়ে করোনা রোগীর আত্মহত্যার চেষ্টা

হাসপাতাল ভবন থেকে লাফিয়ে করোনা রোগীর আত্মহত্যার চেষ্টা

এমপি আলী আশরাফের জানাজায় ঢল, মা-বাবার পাশে শায়িত

এমপি আলী আশরাফের জানাজায় ঢল, মা-বাবার পাশে শায়িত

রাঙামাটিতে অস্ত্র-গুলিসহ ৪ ইউপিডিএফ সদস্য আটক

রাঙামাটিতে অস্ত্র-গুলিসহ ৪ ইউপিডিএফ সদস্য আটক

মিরসরাইয়ের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পানিবন্দি ৫ শতাধিক পরিবার

মিরসরাইয়ের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, পানিবন্দি ৫ শতাধিক পরিবার

সাক্ষী হারানোর ‘শঙ্কা’ মেজর সিনহার পরিবারের

সিনহা হত্যার এক বছরসাক্ষী হারানোর ‘শঙ্কা’ মেজর সিনহার পরিবারের

লক্ষ্মীপুরের লঞ্চ-ফেরিঘাটে পোশাক শ্রমিকদের ভিড়

লক্ষ্মীপুরের লঞ্চ-ফেরিঘাটে পোশাক শ্রমিকদের ভিড়

আইসিইউ বেডের জন্য হাহাকার, মিলছে না সাধারণ বেডও

আইসিইউ বেডের জন্য হাহাকার, মিলছে না সাধারণ বেডও

রাজশাহী মেডিক্যালে জুলাইয়ে ৫৬৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে জুলাইয়ে ৫৬৬ মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune