X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

করোনাভাইরাস পরীক্ষায় জালিয়াতি

সাবরিনাসহ আটজনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ৪ জুলাই

আপডেট : ২৪ জুন ২০২১, ১৩:০৪

করোনাভাইরাস পরীক্ষায় জালিয়াতি করার অভিযোগে জেকেজি হেলথ কেয়ারের সিইও আরিফুল হক চৌধুরী ও চেয়ারম্যান সাবরিনা আরিফ চৌধুরীসহ আটজনের বিরুদ্ধে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামী ৪ জুলাই দিন ধার্য করেছেন আদালত।

ঢাকা ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরীর আদালত এইদিন ধার্য করেন। বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) আদালতের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে আদালতের স্বাভাবিক কার্যক্রম বন্ধ থাকায় মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ এতদিন বন্ধ ছিলো। আদালতের বিচার কার্যক্রম চালু হওয়ায় নতুন এ দিন ধার্য হলো।

মামলার অপর আসামিরা হলো আবু সাঈদ চৌধুরী, হিমু, তানজিলা, বিপুল, শফিকুল ইসলাম রোমিও ও জেবুন্নেসা। তাদের বিরুদ্ধে জালিয়াতি ও প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযুক্তদের মধ্যে হিমু, তানজিলা ও রোমিও দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে।

এর আগে গত ২০ আগস্ট ঢাকা ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সরাফুজ্জামান আনছারীর আদালত এ আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। গত ৬ আগস্ট ঢাকার চিফ ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জুলফিকার হায়াত মামলার চার্জশিট (অভিযোগপত্র) গ্রহণ করেন।

গত ৫ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে দুপুরের সাবরিনা ও আরিফসহ আটজনের বিরুদ্ধে চার্জশিটটি দাখিল করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। চার্জশিটে সাবরিনা ও আরিফকে মূলহোতা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। বাকিরা প্রতারণা ও জালিয়াতি করতে তাদের সহযোগিতা করেছে।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, এ মামলায় গত বছরের ২২ জুন জেকেজির সাবেক গ্রাফিক্স ডিজাইনার হুমায়ুন কবীর হিরু ও তার স্ত্রী তানজীন পাটোয়ারীকে আটক করে পুলিশ। হিরু স্বীকারোক্তি দিয়ে জানান, তিনি ভুয়া করোনা সার্টিফিকেটের ডিজাইন তৈরি করতেন; যার সঙ্গে জেকেজি গ্রুপের লোকজন জড়িত। ওই তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ জেকেজির সিইও আরিফুলসহ চারজনকে আটক করে। সিইও জানায়, প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীর জ্ঞাতসারেই সবকিছু হয়েছে।

এরপর গত বছরের ১২ জুলাই ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে গ্রেফতার করা হয়। ১৩ জুলাই তার তিন দিনের রিমান্ড হয়। ওই রিমান্ডের পর ১৭ জুলাই তার ফের দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। আর মামলায় গত ২৩ জুন আরিফ চৌধুরী গ্রেফতার হয়ে রিমান্ডে যায়। পরবর্তীতে গত ১৫ জুলাই তাকে ফের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। রিমান্ড শেষে সব আসামিই বর্তমানে কারাগারে রয়েছেন।

ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক। সাবরিনার কারণেই করোনার নমুনা সংগ্রহের কাজ পায় জেকেজি হেলথকেয়ার। প্রথমে তিতুমীর কলেজ মাঠে স্যাম্পল কালেকশন বুথ স্থাপনের অনুমতি মিললেও প্রভাব খাটিয়ে ঢাকা, নায়ায়ণগঞ্জ, নরসিংদী ও গাজীপুরসহ বিভিন্ন স্থানে ৪৪টি বুথ স্থাপন করেছিল। নমুনা সংগ্রহের জন্য মাঠকর্মী নিয়োগ দেয় তারা। তাদের হটলাইন নম্বরে রোগীরা ফোন দিলে মাঠকর্মীরা বাড়ি গিয়ে এবং বুথ থেকেও নমুনা সংগ্রহ করতেন। এভাবে নমুনা সংগ্রহ করে তারা ২৭ হাজার রোগীকে করোনার টেস্টের রিপোর্ট দেয়। যার মধ্যে ১১ হাজার ৫৪০ জনের করোনার নমুনা আইইডিসিআরের মাধ্যমে সঠিক পরীক্ষা করানো হয়েছিল। বাকি ১৫ হাজার ৪৬০ জনের রিপোর্ট প্রতিষ্ঠানটি জালিয়াতির মধ্যেমে তৈরি করে। প্রত্যেক সার্টিফিকেট প্রদানের বিনিময়ে তারা ৫ হাজার টাকা করে নিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

 

/এমএইচজে/এনএইচ/

সম্পর্কিত

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:৩২

আওয়ামী লীগের উপ-কমিটি থেকে অব্যাহতি পাওয়া মহিলা বিষয়ক সম্পাদক হেলেনা জাহাঙ্গীর গ্রেফতার। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাতে গুলশান ২ নাম্বারের ৩৭ নম্বর রোডস্থ হেলেনা জাহাঙ্গীরে বাসায় অভিযান পরিচালনা শেষে তাকে আটক করা হয়।

র‍্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লে. কর্নেল খায়রুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

উদ্বারকৃত মদ তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‍্যাব সদর দফতরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। র‍্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু এক ব্রিফিংয়ে বলেন, হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় অনেক কিছু পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, তার বাসায় বিদেশী মদ, হরিণের চামড়া, ক্যাসিনো খেলার সরঞ্জাম, বিদেশি মুদ্রা, ওয়াকিটকি সেট, ড্রোন ক্যামেরা, ক্যাঙ্গারু চামড়া, অনেকগুলো চাকু জব্দ করা হয়েছে বাসা থেকে।

তার বিরুদ্ধে বন্য প্রাণী আইন, মাদকদ্রব্য,বিদেশি মুদ্রা রাখার অপরাধসহ একাধিক মামলা হবে বলেও জানিয়েছে র‍্যাব।

কিছুপর মিরপুরে হেলেনার মালিকানাধীন মিরপুরস্থ জয়যাত্রা টেলিভিশন কার্যালয়ে অভিযান চালানো হবে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের একজন কর্মকর্তা। তিনি জানান, যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছাড়াই তিনি ওই টেলিভিশন পরিচালনা করে আসছিলেন।

উদ্ধারকৃত চাকু উল্লেখ্য, সম্প্রতি আওয়ামী চাকরিজীবী লীগ নামে একটি সংগঠন খুলে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েন হেলেনা জাহাঙ্গীর। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে তিনি দাবি করেন, সংগঠনটির নাম এখনও সেভাবে পরিচিত না হলেও ইতোমধ্যে বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ লাখ লাখ মানুষ এর সদস্য হয়েছেন। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে নিয়োগের বিষয়ে বিজ্ঞপ্তি দেখা গেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এ নিয়ে তীব্র সমালোচনার পর রবিবার মেহের আফরোজ চুমকি স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে তাকে বহিষ্কার করা হয়। এর আগে গত মাসে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ থেকেও তাকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছেন উত্তর জেলা সভাপতি রুহুল আমিন। ক্যাসিনো সরঞ্জাম

আরও পড়ুন-

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

/এনএল/এফএএন/

সম্পর্কিত

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

ডাকটিকিট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তীর স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৬

বাংলাদেশের ডাকটিকিট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তী ২০২১ সালের ২৯ জুলাই। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ১৯৭১ সালের এই দিনে প্রথম ৮টি ডাকটিকিট মুজিবনগর সরকার প্রকাশ করে।  মুজিবনগর সরকার প্রকাশিত এই ডাকটিকিট মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের গৌরবোজ্জ্বল অংশ। দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখতে ডাক অধিদফতর স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করেছে। এ উপলক্ষে ভার্চুয়াল মাধ্যমে আলোচনা সভারও আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বাংলাদেশের প্রথম ডাক টিকেট প্রকাশের ঐতিহাসিক গুরুত্ব তুলে ধরেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধে মুক্তিবাহিনী ও দেশের জনগণের কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ডাকবিভাগের কর্মীদের লড়াই এর কথা স্মরণ করেন ও দেশের সকল শহীদদের পাশাপাশি ডাক বিভাগের শহীদ কর্মকর্তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ডাকটিকিট একটি জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও বিশিষ্ট ব্যক্তি সম্পর্কে কথা বলে। যাদের নিয়ে ডাকটিকিট প্রকাশ করা হয়, তারা ইতিহাসের খ্যাতনামা মানুষ। মুক্তিযুদ্ধসহ শিল্প-সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে অবদান রাখা মানুষগুলোকে নিয়ে স্মারক ডাক টিকিট প্রকাশের উদ্যোগ একটি বড় মহৎ কাজ বলে তিনি উল্লেখ করেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী জানান, ১৯৭১ সালের ২৯ জুলাই ভারতীয় নাগরিক বিমান মল্লিক (বিমান চাঁদ মল্লিক)- এর ডিজাইন করা আটটি ডাকটিকিট মুজিবনগর সরকার, কলকাতায় বাংলাদেশ মিশন ও লন্ডন থেকে প্রকাশিত হয়। তিনি বলেন, মুজিবনগর সরকার কূটনৈতিক প্রক্রিয়া হিসেবে স্বাধীনতার স্বপক্ষে বিশ্ব জনমত গড়ে তোলার জন্য এ উদ্যোগ গ্রহণ করে।

ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন ও বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার বক্তৃতা করেন। 

দিনটি উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যমানের একটি স্মারক ডাকটিকিট, ১০ টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম  ও পাঁচ টাকা মূল্যমানের একটি ডাটা কার্ড ও একটি বিশেষ সিলমোহর প্রকাশ করা হয়।  স্মারক ডাকটিকিট, উদ্বোধনী খাম ও ডাটাকার্ড বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) থেকে ঢাকা জিপিও’র ফিলাটেলিক ব্যুরো ও পরে দেশের অন্যান্য জিপিও এবং প্রধান ডাকঘর থেকে সংগ্রহ করা যাবে।

পরে মন্ত্রী বাংলাদেশের ডাকটিকিট প্রকাশের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে বাংলাদেশ ফিলাটেলিক অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত ডাকটিকিট প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন এবং এই উপলক্ষে একটি স্মারক উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত করেন।  অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ন্যাশনাল ফিলাটেলিক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কাজী শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্ব করেন।

/এইচএএইচ/এমআর/

সম্পর্কিত

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশে শিক্ষক-গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশে শিক্ষক-গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

ফের বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

ফের বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশে শিক্ষক-গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৩১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) মৌলিক ও প্রায়োগিক গবেষণার মান ও পরিধি বাড়াতে ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর সংবলিত আন্তর্জাতিক জার্নালে শিক্ষক ও গবেষকদের গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশনার জন্য অনুদান দেওয়া হবে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সিন্ডিকেট সভায় সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

 

 

/এসএমএ/আইএ/

সম্পর্কিত

ফের বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

ফের বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

এসএসসি-এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে জরুরি নির্দেশ

এসএসসি-এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে জরুরি নির্দেশ

ভিকারুননিসা অধ্যক্ষের আরেকটি ফোনালাপ ফাঁস

ভিকারুননিসা অধ্যক্ষের আরেকটি ফোনালাপ ফাঁস

ফের বাড়লো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:১৭

দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং এবতেদায়ি ও কওমি মাদ্রাসাগুলোর চলমান ছুটি আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সারাদেশে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় এবং কঠোর বিধিনিষেধ কার্যকর থাকায়,  শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তার বিবেচনায় করে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে পরামর্শক্রমে দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং এবতেদায়ি ও কওমি মাদ্রাসাগুলোর  চলমান ছুটি আগামী ৩১ শে আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

উল্লেখ, দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর গত বছর ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ছুটি ঘোষণা করে সরকার। করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় দফায় দফায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানো হয়। সর্বশেষ ৬ আগস্ট পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে আবারও ছুটি বাড়ানো হলো ৩১ আগস্ট পর্যন্ত।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশে শিক্ষক-গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

গবেষণা-প্রবন্ধ প্রকাশে শিক্ষক-গবেষকদের অনুদান দেবে ঢাবি

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

১৯ আগস্টের মধ্যে এসএসসির অ্যাসাইনমেন্টের তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

এসএসসি-এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে জরুরি নির্দেশ

এসএসসি-এইচএসসির অ্যাসাইনমেন্ট জমা দিতে জরুরি নির্দেশ

ভিকারুননিসা অধ্যক্ষের আরেকটি ফোনালাপ ফাঁস

ভিকারুননিসা অধ্যক্ষের আরেকটি ফোনালাপ ফাঁস

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২২:২৪

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাছিমা বেগম বলেছেন, মানবপাচার মামলার বিচার এতো কম হয়, নয় বছরের ৩৬টি মামলায় সাজা হয়েছে। আমি মনে করি এতে পাচারকারীরা কেন উৎসাহিত হবে না? তাহলে কিভাবে বন্ধ হবে। আবার সাজাও যেটা হয় সেটাও ভালো করে প্রচার হয় না। সাজাপ্রাপ্তদের বিষয়ে প্রচারণা দরকার।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে আন্তর্জাতিক মানব পাচার বিরোধী দিবস উপলক্ষে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম আয়োজিত ‘মানবপাচার ও অনিয়মিত অভিবাসন: পরিস্থিতি বিশ্লেষণ, চ্যালেঞ্জ ও ও করনীয় শীর্ষক আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি।’

নাছিমা বেগম বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে বলবো প্রসিকিউশনে বেশ কিছু ত্রুটি থাকে। আমরা যেন প্রসিকিউশনের ত্রুটিগুলোর দিকে খেয়াল রাখি। এখানে সিআইডি’র অনেক বড় একটা ভূমিকা আছে বলে আমি মনে করি। আবার অনেকেই মানবাপাচারের শিকার হয়ে ফেরত এসে বিচার চায় না। এ জায়গাগুলোতেও আমাদের কাজ করতে হবে, তাদেরকে মোটিভেশন করা দরকার।

তিনি আরও বলেন, আইনের অনেক কঠোর প্রয়োগ করতে হবে। অনেক ভালো আইন আছে আমাদের। কিন্তু প্রয়োগ হয় না। আগামী রবিবার – সোমবারের মধ্যে আমার এখান থেকে একটা চিঠি যাবে। চিঠিতে আমরা বলবো পুলশ প্রশিক্ষণ একাডেমিসহ সব বিভাগে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান আইন এবং মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইন ভালো করে শেখানোর জন্য। পাশাপাশি প্রশিক্ষণের সময় মানবাধিকারে যে মৌলিক বিষয়গুলো আছে, এগুলোকে মানবিক মূল্যবোধের দৃষ্টিকোণ থেকে মানবাধিকার নিয়ে যারা কাজ করে সবার ভেতরে একটা বোধ যেন গড়ে তোলা যায়। 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (রাজনৈতিক ও আইসিটি) জি এস এম জাফরুল্লাহ বলেন, যে কয়টি মামলা এখন পর্যন্ত নিষ্পত্তি হয়েছে এটি মোটেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যাক না। এই নিষ্পত্তির পরিমাণ বাড়াতে হবে। এসব মামলা নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে যেসব অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে পুলিশ প্রশাসনসহ সবাইকে সেটা নিয়ে আমাদের সবাইকে কাজ করতে হবে। পাচার রোধে ইতোমধ্যে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের সঙ্গে একটি টাস্কফোর্স গঠন করা হয়েছে। ভারত থেকে একটি কমন স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসেডিউর (এসওপি) তৈরির কাজ চলছে। 

জনশক্তি , কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) মহাপরিচালক শহীদুল আলম, এনডিসি বলেন, যারা বিদেশে যাচ্ছে কাজের উদ্দেশ্যে তারা কোথায় যাচ্ছে,  কীভাবে যাচ্ছে, কত টাকা বেতনে যাচ্ছে এসব দেখার প্রয়োজনই মনে করে না। আমরা স্লোগান দিয়েছিলাম- ‘মুজিব বর্ষের আহ্বান, দক্ষ হয়ে বিদেশ যান’ সেটি কেউ কর্ণপাতই করছে না। আমাদের প্রবণতা এমন যে –এখনই বিদেশ পাঠাতে হবে। ২ লাখ টাকার বেশি কোন দেশে যেতে খরচ হওয়ার কথা না। কিন্তু বাস্তবতা একদমই ভিন্ন।

পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) মানবপাচার বিষয়ক সেলের বিশেষ পুলিশ সুপার সাইদুর রহমান বলেন, পাচারের শিকার ব্যক্তির তথ্য না পাওয়া যাওয়ায় কিছু মামলার কার্যক্রম বিলম্ব হয়। সেই তথ্য না পেলে মামলা নিষ্পত্তি করা সম্ভব হয় না। বিদেশে যারা নির্যাতিত হচ্ছে এবং হয়ে ফেরত আসছে সংশ্লিষ্ট দেশে আমাদের দূতাবাস কাজ করছে। নির্যাতন কিন্তু ওইদেশের আইনেও অপরাধ। ভিক্টিমদের সেখানে স্থানীয় যে আইনগত সহায়তা বিষয় আছে সেগুলো কিন্তু আমরা দেখছি। মাঝে মাঝে কিছু দেশ থেকে নারীকর্মীর অনেকেই শিশুসহ দেশে ফেরত আসেন, তিনি কীভাবে সেই শিশুটিকে নিয়ে ফেরত আসলো। তাদের তো সেখানে স্থানীয় একটা আইন আছে। সেই আইনে যদি বিচার হতো তাহলে কিন্তু এই ধরনের অপরাধগুলো কমে যেতো। আবার ফেরত আসার সময় সংশ্লিষ্ট দেশের পুলিশের পাছে লিখিত দিয়ে আসে যে তাকে কোনও প্রকার নির্যাতন করা হয়নি, সে স্বেচ্ছায় দেশে ফেরত যাচ্ছে। আমরা যখন দূতাবাসের কাছে চাই তখন সেদেশের সরকার এই ধরনের ফিডব্যাক দেয়। ফলে দেশে এসে করা এই মামলাগুলোর তদন্ত করতেও আমাদের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। তাছাড়া মামলার ক্ষেত্রে একটা বড় অংশ কিন্তু আপস করে ফেলে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্র্যাকের সিনিয়র পরিচালক এম মোর্শেদ। এছাড়া মানবপাচার পরিস্থিতি নিয়ে প্রতিবেদন তুলে ধরেন ব্র্যাকের মাইগ্রেশন বিভাগের প্রধান শরিফুল হাসান।

 

/এসও/এফএএন/ 

সম্পর্কিত

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে: খেলাফত মজলিস

সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে: খেলাফত মজলিস

সর্বশেষ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীরের বাসায় র‌্যাবের অভিযান

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

৯৯ জনকে জরিমানা র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

লকডাউন অমান্য করায় রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৬৮

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে মৃত্যু: চার পরিবার পেলো ১ কোটি টাকা

ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনে মৃত্যু: চার পরিবার পেলো ১ কোটি টাকা

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের অগ্রাধিকার-ভিত্তিতে টিকা দিতে আইনি নোটিশ

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের অগ্রাধিকার-ভিত্তিতে টিকা দিতে আইনি নোটিশ

চাঁদাবাজির মামলায় বহিষ্কৃত সেই ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ড শেষে কারাগারে

চাঁদাবাজির মামলায় বহিষ্কৃত সেই ছাত্রলীগ নেতা রিমান্ড শেষে কারাগারে

৩৯তম বিসিএস থেকে নিয়োগ চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন

৩৯তম বিসিএস থেকে নিয়োগ চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

© 2021 Bangla Tribune