X
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

বেড়াতে এসে চাকরিতে ঢুকেছিল কিশোরী, আগুনে গেলো প্রাণ

আপডেট : ০৯ জুলাই ২০২১, ২১:৫১

চৌদ্দ বছরের কিশোরী কম্পা রাণী বর্মণ, বাবা-মায়ের সঙ্গে থাকতো মৌলভীবাজারে। দিন ১৫ আগে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ফুপু প্রতিরাণীর বাড়িতে বেড়াতে এসেছিল সে। তার সঙ্গে এসেছিলেন দাদি প্রভাতি রাণী বর্মণও। দাদি চেয়েছিলেন, মাস দুয়েক যেহেতু মেয়ের এখানে থাকবেন, নাতনি কম্পা একটু কাজ করুক। তাতে যদি কিছু পয়সা হাতে আসে। সেই চিন্তা থেকেই কম্পাকে হাসেম ফুড লিমিটেডের কারখানায় হেলপার হিসেবে কাজে দেওয়া হয়েছিল। আট দিনের মাথায় সেই কিশোরী আগুনে পুড়ে নিষ্প্রাণ হয়ে গেলো।

কম্পার মতো এরকম অনেকেই হাসেম ফুড লিমিটেডের এই কারখানায় যোগ দিয়েছিলেন সদ্যই, যারা ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে মারা গেছেন। ঈদের আগে বেশি বেশি উৎপাদনের জন্য অনেক কর্মী নিয়োগ করেছিল সজীব গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান হাসেম ফুড লিমিটেড, যাদের বেশিরভাগই বয়সে তরুণ কিংবা কিশোর-কিশোরী।

শুক্রবার (৯ জুলাই) বিকালে ঢাকা মেডিক্যাল মর্গের সামনে মেয়ে কম্পার ছবি হাতে নিয়ে বিলাপ করছিলেন বাবা পরভী চন্দ্র বর্মণ। মেয়ের কারখানায় আগুন লাগার খবর পেয়ে সকালে মৌলভীবাজার থেকে ছুটে এসেছেন স্ত্রীকে নিয়ে। বিলাপ করে বলছিলেন, ‘মেয়েটাকে আমি চাকরিতে দিতাম চাই নাই। আমার মায়ে কইলো একটা চাকরি করুক। অভিজ্ঞতা হইবো। কিছু পয়সাও পাওয়া যাইবো। আহারে মেয়েটা আমার পুইড়া মইরা গেলো।’

 মর্গের সামনে মোবাইলে কম্পার ছবি দেখিয়ে বিলাপ করছেন বাবা পরভী চন্দ্র বর্মণ কম্পার বাবা পরভী চন্দ্র বর্মণ জানান, তার মেয়ে কারখানার চতুর্থ তলায় ললিপপ সেকশনে কাজ করতো। ৪ হাজার ৮০০ টাকা বেতনের চাকরি ছিল তার। তার কাছে কোনও মোবাইল ফোন ছিল না। আগুন লাগার পর বের হওয়ার কোনও চেষ্টা করেছিল কিনা, সেসব বিষয়ে কোনও কিছুই বলতে পারছেন না তিনি। মর্গের সামনে মেয়ের ছবি হাতে নিয়ে ঢুকরে কাঁদছিলেন তিনি।

সরেজমিন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ঘুরে দেখা গেছে, স্বজনদের কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে মর্গের পরিবেশ। লকডাউনের বিধিনিষেধ পেরিয়ে স্বজনদের খোঁজে ছবি হাতে ভিড় করেছেন অনেকেই। মর্গের নিচতলায় আগুনে পোড়া মৃতদেহগুলো রাখা হয়েছিল সারি সারি করে। সাধারণ চোখে দেখে কাউকে চেনার উপায় নেই। পুড়ে অঙ্গার হয়েছেন কেউ, কারও মুখমণ্ডল-শরীর ঝলসে গেছে আগুনে। তবু যদি দেখে কাউকে চিনতে পারে, তাই স্বজনরা লাশের মুখাবয়ক দেখতে চান।

মর্গের গেটে বিষণ্ন মুখে বসে আছেন হাছান শিকদার। মাঝে মধ্যেই ঢুকরে কেঁদে উঠছেন তিনি। তাকে ঘিরে সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টা করছেন স্বজনরা। হাছানের ছোট ভাই মাহাবুবুর রহমান সজীব গ্রুপের সেই জুস কারখানার চতুর্থ তলার ব্যবস্থাপক হিসেবে কাজ করতেন। আগুন লাগার পর থেকে ভাইয়ের কোনও খোঁজ পাচ্ছেন না তিনি।

হাছান শিকদার জানান, তার ভাই ঢাকার ইবাইস ইউনিভার্সিটি থেকে ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে চার বছর ধরে এই কোম্পানিতে চাকরি করতো। তিন মাসে আগে তার একটি মেয়ে হয়েছে। ঈদের ছুটিতে তার বাড়ি যাওয়ার কথা ছিল। ছোট্ট মেয়েটাকে নিয়ে তার কত স্বপ্ন ছিল, সব শেষ হয়ে গেলো এক নিমিষেই।

ভাবি ও ভাতিজা বউয়ের ছবি নিয়ে মর্গের সামনে অপেক্ষা করছেন লিটন দুই হাতে দুটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি হাতে নিয়ে ঘুরছেন লিটন। একটি তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী জাহানারার (৩৫), আরেকটি ভাতিজার স্ত্রী ফাকিমার (৩৬)। লিটন জানান, তার ভাবি ও ভাতিজার স্ত্রী কারখানায় চতুর্থ তলায় কাজ করতো। আগুন লাগার পর ভাবির সঙ্গে মোবাইল ফোনে তার কথা হয়েছে। ভাবি জাহানারা তাকে জানিয়েছিলেন, ম্যানেজার তাদের একটি এসি রুমে নিয়ে আটকে রেখেছে। আগুন ওপরে আসবে না বলে তাদের আশ্বস্ত করা হয়েছে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি তাদের। সেই কক্ষে থাকা সবাই মারা গেছেন বলে ধারণা করছেন তিনি।

লিটন বলেন, ‘ভাবি ও ফাকিমাসহ অন্যদের আটকায়ে না রেখে ছাদে পাঠাইতে পারলে হয়তো বাইচ্যা যাইতো। এই বিচার এখন কারে দিমু। এখন তো ভাবি-ভাতিজা বউয়ের লাশই পাইতেছি না।’ ভাবি জাহানারা তিন বছর আর ফাকিমা আড়াই বছর ধরে ওই কারখানায় কাজ করতেন বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, রূপগঞ্জে সজীব গ্রুপের অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান হাসেম ফুড অ্যান্ড বেভারেজের সেজান জুস কারখানায় বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৫টায় আগুনের সূত্রপাত হয়। এ সময় কারখানার ছয়তলা ভবনটিতে তখন প্রায় চার শতাধিক কর্মী কাজ করছিলেন। কারখানায় প্লাস্টিক, কাগজসহ মোড়ক তৈরি করার প্রচুর সরঞ্জাম থাকায় আগুন মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে সব ফ্লোরে।

প্রচুর দাহ্য পদার্থ থাকায় কয়েকটি ফ্লোরের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিসের ১৮টি ইউনিটের ২০ ঘণ্টার বেশি সময় লাগে। শুক্রবার (৯ জুলাই) দুপুরে কারখানার ভেতর থেকে ৪৯ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এর আগে, আগুনে পুড়ে তিন জনের মৃত্যু হয়। সব মিলে এ পর্যন্ত ৫২ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। কারখানায় আগুনের ঘটনায় প্রায় অর্ধশতাধিক ব্যক্তি নিখোঁজ রয়েছেন। ঘটনা তদন্তে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:

ফায়ার সার্ভিসের গাড়িতে ৪৯ লাশ 

দীর্ঘ সময়েও আগুন নেভাতে না পারায় স্থানীয়দের হামলা

যে কারণে দীর্ঘ সময়েও নিয়ন্ত্রণে আসেনি জুস ফ্যাক্টরির আগুন

১৭ ঘণ্টায় নেভেনি জুস কারখানার আগুন, নিহত ৩

কান্না চোখে স্বজনের খোঁজ (ফটো স্টোরি)

নারায়ণগঞ্জে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

রূপগঞ্জে কারখানায় আগুন, হাতিয়ার ৩ শ্রমিক নিখোঁজ

কারখানার সামনে মেয়ের জন্য মায়ের আহাজারি

নারায়ণগঞ্জে আগুনে হতাহতের ঘটনায় প্রধানমন্ত্রীর শোক

 

/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমি মন্ত্রণালয় অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে: ভূমিমন্ত্রী

অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমি মন্ত্রণালয় অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে: ভূমিমন্ত্রী

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

‘দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে’

‘দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে’

ঢাবির শতবর্ষ উদযাপন: চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

ঢাবির শতবর্ষ উদযাপন: চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমি মন্ত্রণালয় অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে: ভূমিমন্ত্রী

অর্থনৈতিক উন্নয়নে ভূমি মন্ত্রণালয় অর্পিত দায়িত্ব পালন করছে: ভূমিমন্ত্রী

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তিতাস কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা

‘দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে’

‘দেশে তামাক কোম্পানির হস্তক্ষেপ বেড়েছে’

ঢাবির শতবর্ষ উদযাপন: চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

ঢাবির শতবর্ষ উদযাপন: চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি

রাজধানীতে ৯ মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১৯

রাজধানীতে ৯ মাসে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১৯

‘আশা করেছিলাম ছেলে হত্যা মামলার রায় আজ হয়ে যাবে’

‘আশা করেছিলাম ছেলে হত্যা মামলার রায় আজ হয়ে যাবে’

আবরার হত্যা মামলার রায় পেছালো

আবরার হত্যা মামলার রায় পেছালো

আবরার হত্যা মামলার আসামিরা আদালতের এজলাসে

আবরার হত্যা মামলার আসামিরা আদালতের এজলাসে

লাল তালিকাভুক্ত ২৩ টিচার্স ট্রেনিং কলেজ নিয়ে বিভ্রান্তি

লাল তালিকাভুক্ত ২৩ টিচার্স ট্রেনিং কলেজ নিয়ে বিভ্রান্তি

আবরার হত্যা মামলার রায়: আদালত প্রাঙ্গণে নিরাপত্তা জোরদার

আবরার হত্যা মামলার রায়: আদালত প্রাঙ্গণে নিরাপত্তা জোরদার

সর্বশেষ

বিএনপি’র ফন্দি-ফিকির আমরা বুঝি: তথ্যমন্ত্রী

বিএনপি’র ফন্দি-ফিকির আমরা বুঝি: তথ্যমন্ত্রী

১৫ গুণ ভোট বেশি পেয়ে লক্ষ্মীপুরের মেয়র হলেন মোজাম্মেল

১৫ গুণ ভোট বেশি পেয়ে লক্ষ্মীপুরের মেয়র হলেন মোজাম্মেল

ভয়ানক চোটে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ভয়ানক চোটে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়লেন নেইমার

ট্রেনের বগিভর্তি লাশ, নির্মিত হলো ‘শ্বাপদ’

ট্রেনের বগিভর্তি লাশ, নির্মিত হলো ‘শ্বাপদ’

বিজয়ী নারী সদস্যের ভাগনেকে কুপিয়ে হত্যা

বিজয়ী নারী সদস্যের ভাগনেকে কুপিয়ে হত্যা

© 2021 Bangla Tribune