X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

সীসা দূষণের বিস্তৃতি রোধে প্রয়োজন জরুরি ও মাল্টি-সেক্টরাল পদক্ষেপ

আপডেট : ১৯ জুলাই ২০২১, ২১:২০

দেশে সীসা দূষণ রোধে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্বে মাল্টি-সেক্টরাল পন্থায় সকলকে কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

সোমবার (১৯ জুলাই) ‘এডভান্স আ লেড পলিউশন অ্যান্ড হেল্থ রোডম্যাপ ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক ভার্চুয়াল কর্মশালায় বক্তারা এসব কথা বলেন। 

‘সম্মিলিতভাবে, আমরা পারবো সীসা দূষণ রোধ করতে’ এই প্রত্যয়ে, পরিবেশ অধিদফতরের সমন্বয়ে ইউএসএআইডি, ওএকে ফাউন্ডেশন, সুইস এজেন্সি ফর ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড করপোরেশন এসডিসির সহযোগিতায় পিওর আর্থ বাংলাদেশ এ কর্মশালার আয়োজন করে।  

আয়োজনের উদ্দেশ্য ছিল সরকারি, বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, গবেষকসহ বিভিন্ন অংশীদারদের সীসা দূষণ রোধে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানানো এবং যে সমস্ত উৎস থেকে সীসা দূষণ হয় সে সম্পর্কে গবেষণার আলোকে আলোচনা করা এবং এর মাধ্যমে সামনের দিনগুলোতে যৌথভাবে সীসা দূষণ কমাতে দিকনির্দেশনামূলক পরিকল্পনা হাতে নেওয়া।   
 
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আহমেদ শামিম আল রাজি বলেন, করোনা এবং সীসা দূষণ হলো নীরব ঘাতক। দেশ থেকে সীসা দূষণ নির্মূল করা আমার মন্ত্রণালয়ের অন্যতম প্রাধান্য। পরিবেশ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে মূল ভূমিকা পালন করবে অন্যান্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায়। আমাদেরকে মাল্টি-সেক্টরাল পন্থা অবলম্বন করতে হবে সীসা দূষণ রোধে। পুরনো ব্যাটারির অবৈধ ও অনিরাপদ পুনঃচক্রায়নকে অনানুষ্ঠানিক থেকে আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়ায় নিয়ে আসার কার্যকরী উপায় খুঁজে বের করার জন্য গবেষক ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে তিনি এগিয়ে আসার অনুরোধ জানান। 

তিনি আরও বলেন, আমাদেরকে সীসা দূষিত লোকালয়গুলো খুঁজে বের করতে হবে যেখানে মানুষের স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে এবং সেগুলোকে পরিষ্কার করে পুনরায় নিরাপদ অবস্থায় নিয়ে যেতে হবে।         
 
সীসা দূষণের পরিধি বিস্তৃত। পুরনো ব্যবহৃত লেড এসিড ব্যাটারি থেকে শুরু করে দৈনন্দিন দিনের খাবারের মশলা বিশেষ করে হলুদে, লেড-যুক্ত দেয়াল পেইন্ট, প্রসাধনী, রান্নার জন্য অ্যালুমিনিয়ামের হাঁড়িপাতিল, আয়ুর্বেদিকসহ ইত্যাদি। এমন পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে অনুষ্ঠানের সভাপতি পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক আশরাফ উদ্দিন বলেন, আমরা নিজেদের অজান্তে খাচ্ছি, নিঃশ্বাস নিচ্ছি বিষাক্ত সীসা। দেশের সাধারণ মানুষ এবং আমাদের সকলের পরিবার, পরিজন সকলের এ বিষয়ে সচেতন হওয়া ও এ বিষয় নিয়ে কথা বলা প্রয়োজন। কীভাবে নিত্যদিনের মশলা ও খাদ্যদ্রবাদীর সঙ্গে, প্রসাধনীসহ অন্যান্য মাধ্যমে সীসা আমাদের পরিবেশ ও স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি বাড়াচ্ছে এ বিষয়ে গণসচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। মানুষের দেহে ও পরিবেশে এর ক্ষতি অপূরণীয়। 

সীসা দূষণ শুধুমাত্র পরিবেশ, স্বাস্থ্য এবং অর্থনৈতিক সমস্যা নয়, এটি শিক্ষা, সামাজিক স্থিতিশীলতা এবং সহিংসতা এবং জলবায়ু বিষয়ক সমাধানগুলিতেও নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। যদিও সমস্যা অনেক বিস্তর, কিন্তু এর বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়ার ক্ষেত্রে রয়েছে ধারাবাহিকতা ও সমন্বয়ের অভাব। এই বিষয়টিকে তুলে ধরে পিওর আর্থ এর স্ট্রেটিজি অ্যান্ড পার্টনারশিপ বিভাগের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রু ম্যাককার্টার বলেন, এই সমস্যা সমাধানের জন্য সরকারকে জাতীয় কৌশল প্রণয়নে নেতৃত্বমূলক ভূমিকা নিতে হবে। সামগ্রিকভাবে জাতীয় পর্যায়ে সীসা দূষণ রোধে পরিকল্পনার জন্য আমাদের লক্ষ্য এবং কৌশলগুলির সমন্বয় করে সম্মিলিতভাবে এর মোকাবিলা করতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, সীসা যদি মাটি দূষণ করে সেটা শতবছর ধরে মাটিতে বিদ্যমান থাকে। প্রজন্মের পর প্রজন্ম এই সীসা দূষণ দ্বারা ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার ঝুঁকিতে থাকে।  

এসময় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী এবং বক্তারা লেড এসিড ব্যাটারির পুনর্ব্যবহার বা রিসাইকেল করার প্রক্রিয়াকে অনানুষ্ঠানিক থেকে আনুষ্ঠানিক খাতে স্থানান্তর করার এবং আইনের প্রয়োগ, যথাযথ মনিটরিং ব্যবস্থার আহ্বান জানিয়েছেন। সীসা দূষণ সম্পর্কে বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের জ্ঞান এবং দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার এবং গণমাধ্যমের সহায়তায় এ বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন কর্মশালার আয়োজন করার পরামর্শও দিয়েছেন তারা।

 

 

/বিআই/এনএইচ/

সম্পর্কিত

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪৯

প্রাথমিকের প্রধান শিক্ষকদের উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য চেয়েছে সরকার। দেশের সব জেলা শিক্ষা অফিসারদের আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যে নির্ধারিত ছকে প্রয়োজনীয় তথ্য পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়।  

সোমবার (২৫ অক্টোবর) প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর থেকে এ সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করা হয়।  

অফিস আদেশে বলা হয়, প্রায়শই দেখা যায় হিসাবরক্ষণ অফিস যথাসময়ে প্রধান শিক্ষকদের উন্নীত স্কেলে বেতন নির্ধারণ না হওয়ার কারণে বছর ধরে বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। এ ধরনের কার্যক্রম মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়।

অফিস আদেশে জেলা শিক্ষা অফিসারদের নিজ নিজ জেলায় কতটি কেস আছে তার তথ্য আগামী ৭ নভেম্বরের মধ্যে পাঠাতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

নির্ধারিত ছকে জেলার নাম, উপজেলার নাম, প্রধান শিক্ষকের উন্নীত বেতন স্কেলে বেতন নির্ধারণ করা হয়নি এমন কেসের সংখ্যা পাঠাতে বলা হয়।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুটি পৃথক সালের শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য নিষ্পত্তির নির্দেশ

ইউজিসির খণ্ডকালীন সদস্য হলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য

ইউজিসির খণ্ডকালীন সদস্য হলেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:৪২

সাম্প্রদায়িক হামলার সঙ্গে জড়িতদের শাস্তি নিশ্চিত ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ সাত দফা দাবি পেশ করেছে ‘সম্প্রীতি বাংলাদেশ’।

সোমবার ( ২৫ অক্টোবর) দুপুর তিনটায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপচেষ্টার প্রতিবাদে সমাবেশ করে সংগঠনটি। এই সমাবেশে থেকে সাত দফা দাবি পেশ করা হয়।

সমাবেশের সঙ্গে সংহতি জানিয়ে উপস্থিত থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, ‘বাংলাদেশে সম্প্রীতি বিনষ্টকারী যেকোনও অপশক্তির বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায়,বঙ্গবন্ধুর চেতনায় উজ্জীবিত মানুষ যে  একনিষ্ঠ থাকে, আজকের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের এই সম্প্রীতি সমাবেশ তারই প্রমাণ। সাম্প্রদায়িক অপশক্তি যখন যেখানে মাথা ছাড়া দিয়ে ওঠবে, সেখানেই তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানানো, প্রতিরোধ গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি। সেই দিকেই আমরা অগ্রসর হবো। এটি একটি রাজনৈতিক সাম্প্রদায়িকতা।  যদি রাজনৈতিক সাম্প্রদায়িকতাই হয়, তাহলে রাজনৈতিক দলগুলো, যারা অন্তত অসাম্প্রদায়িক মানবিক চেতনায় বিশ্বাস করে, সেই মানুষগুলো সহমত পোষণ করে একই মঞ্চে আসতে হবে।’ সাম্প্রদায়িকতা রুখতে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন নাট্যকার ও সম্প্রীতি বাংলাদেশের আহ্বায়ক পীযূষ বন্দোপাধ্যায়। সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিককালে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী সাম্প্রদায়িক অপশক্তি আমাদের হাজার বছরের সংস্কৃতিকে ধ্বংস করতে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত করেছে এবং কিছু অপকর্ম ঘটিয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সকলে যদি আমরা সম্মিলিতভাবে দাঁড়াই, এই দেশ থেকে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিষদাঁত আমরা ভেঙে দেবোই দেবো। আজকের এই সম্প্রীতি সমাবেশ এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করছে— বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে, বাঙালি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী হয়ে, এই দেশের চলমান হাজার বছরের অসাম্প্রদায়িকতা,সম্প্রীতি এবং ভ্রাতৃত্ব আমরা রক্ষা করবো। এই দেশে আগামী দিনে সাম্প্রদায়িক শক্তির কোনও অস্তিত্ব থাকবে না!’

এসময় তিনি সমাবেশের পক্ষ থেকে সাত দফা দাবি পেশ করেন। দাবিগুলো হচ্ছে—

১. সাম্প্রতিক ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

২. অতীতের ঘটনার দ্রুত বিচার সম্পন্ন করতে হবে।

৩. সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের ঘটনা আর যেন না ঘটে, সেজন্য প্রশাসনকে আরও বেশি তৎপর হতে হবে।

৪. সাম্প্রতিক ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি-ঘর এবং উপাসনালয় দ্রুত সংস্কারের ব্যবস্থা করতে হবে।

৫. মুক্তিযুদ্ধ, বঙ্গবন্ধু এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদসহ শিক্ষা ব্যবস্থায় মানবিক মূল্যবোধ ও সহনশীলতার বিষয় অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

৬. আবহমান বাংলার সংস্কৃতি চর্চায় তরুণ ও যুব সমাজকে অধিকতর সম্পৃক্ত করতে যথাযথ উদ্যোগ নিতে হবে।

৭. সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও উসকানি বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হবে।

/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:১৭

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দুর্যোগ মোকাবিলায় বিশ্বে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল বলে জানিয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক। তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি তিস্তার পানি বেড়ে গেলে ডিজিটাল ব্যবস্থায় স্থানীয় তিন হাজার  মানুষকে পূর্বাভাস মেসেজ দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর সময়োপযোগী পদক্ষেপে দুর্যোগ মোকাবিলা করেও বাংলাদেশে অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল রয়েছে।’

সোমবার (২৫ অক্টোবর) রাজধানীর গ্রিনরোডে পানি ভবনে ‘ডিজিটাল বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ ব্যবস্থা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভার্চুয়ালি এ অনুষ্ঠানে যুক্ত ছিলেন।

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতেক এ তথ্য জানানো হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের তথ্য প্রযুক্তিলব্ধ জ্ঞানের বাস্তব প্রতিফলন আজকের ডিজিটাল বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য ‘সুখী, সমৃদ্ধ ও উন্নত বাংলাদেশ’ গঠনে এবং ‘ডেল্টাপ্ল্যান-২১০০’ বাস্তবায়নে ডিজিটাল বাংলাদেশ একটি সহায়ক শক্তির নাম।’

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেন,  ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বললে বিএনপি আগে টিপ্পনী কাটতো। কিন্তু আজ ডিজিটাল ব্যবস্থায় হাওরসহ সব এলাকায় আমরা সঠিক পূর্বাভাস পাঠাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার  দুর্যোগ মোকাবিলায় শিক্ষকের ভূমিকা পালন করছে।’

অনুষ্ঠানের সভাপতি পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার তার বক্তব্যে সারাদেশের জন্য সমন্বিত ডিজিটাল পূর্বাভাস ব্যবস্থা শক্তিশালীকরণে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উপসচিব মাহমুদুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন— পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক ফজলুর রশিদ। এছাড়াও এটুআই প্রোগ্রামের পলিসি উপদেষ্টা আনির চৌধুরী, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্টের মহাসচিব ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসিন সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন।

এর আগে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে গুগলের ভাইস প্রেসিডেন্ট উশি মাতিয়াস বক্তব্য রাখেন। এ সময় মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সকল সংস্থা প্রধানসহ র্কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘করোনাকালে ৭২ লাখ মানুষ  টেলিমেডিসিন সেবা নিয়েছে। দেশের ৭১ শতাংশ মানুষ প্লাবন সমভূমিতে বাস করে। তাই এই পূর্বাভাস ব্যবস্থা ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসে সাহায্য করবে।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:৫৫

অনিবন্ধিত ও নির্ধারিত স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশে সংরক্ষণ ও প্রক্রিয়া অনুসরণ না করে খাদ্য তৈরির অপরাধে ধানমন্ডির আড্ডা রেস্টুরেন্টকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার (২৫ অক্টোবর) নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট উছেন মে অভিযান চালিয়ে এই জরিমানা করেন।

নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষকে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন, সংরক্ষণ, প্রক্রিয়াকরণ, মজুত ও বিক্রয়ে নিরাপদ খাদ্য আইনের বিধি অনুযায়ী পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা, খাদ্য সংরক্ষণ ও ভোক্তাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে নিয়ম মানতে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

আড্ডা রেস্তোরাঁয় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে পাওয়া খাদ্যপণ্য

অভিযানে সার্বিক সহায়তায় ছিলেন নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মো. আসলাম ভূইয়া ও বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের সহকারীরা। আনসার বাহিনীর একটি টিম ছিল আইনশৃঙ্খলার দায়িত্বে।

 

/এসও/এফএ/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ভারতের কেরালা রাজ্যে বন্যায় প্রাণহানিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক

ভারতের কেরালা রাজ্যে বন্যায় প্রাণহানিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর শোক

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ২০:০৬

উচ্চ আদালতের নির্দেশনা অনুসারে সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠনের রায় বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন হাইকোর্ট। 

সোমবার (২৫ অক্টোবর) বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দা নাসরিন ও মো. শাহীনুজ্জামান। 

এর আগে উচ্চ আদালতের দেওয়া নির্দেশনা বাস্তবায়ন অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠন না করায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়। ওই রিটে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ ৪০টি মন্ত্রণালয়ের সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে বিবাদী করা হয়। একইসঙ্গে রিট আবেদনে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়নের আরজি জানানো হয়।

মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মো. শাহীনুজ্জামান রিটটি দায়ের করেন।  

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সালের ৭ আগস্ট বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবী সমিতির নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট সালমা আলী কর্মস্থল এবং শিক্ষাঙ্গনে নারী ও শিশুদের যৌন হয়রানি প্রতিরোধের জন্য দিক-নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে জনস্বার্থে একটি রিট দায়ের করেন।
 
সে রিটের শুনানি শেষে ২০০৯ সালের ১৪ মে বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের (বর্তমানে প্রধান বিচারপতি) নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণা করেন। ওই রায়ে হাইকোর্ট দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সব প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রানি প্রতিরোধে অভিযোগ গ্রহণের জন্য ‘যৌন হয়রানি প্রতিরোধ কমিটি’ গঠন সহ বেশ কিছু নির্দেশনা দিয়েছিলেন।

তবে ওই রায়ের পর প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় অতিবাহিত হলেও রায়টি বাস্তবায়ন হয়নি। তাই রায়টির বাস্তবায়ন চেয়ে পুনরায় হাইকোর্টে রিট দায়ের করে আইন ও সালিশ কেন্দ্র।

/বিআই/এমআর/

সম্পর্কিত

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

‘দুর্যোগ মোকাবিলা করেও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন গতিশীল’

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

ধানমন্ডির আড্ডা রেস্তোরাঁকে এক লাখ টাকা জরিমানা

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

যৌন হয়রানি রোধে রায়ের বাস্তবায়ন চাওয়া রিট কার্যতালিকা থেকে বাদ 

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

ফৌজদারি কার্যবিধি আধুনিকায়নে ৯ সদস্যের কমিটি

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

যাত্রাবাড়ীর দুই প্রতিষ্ঠানকে আট লাখ টাকা জরিমানা

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেওয়া নিয়ে হাইকোর্টের রুল

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

সর্বশেষ

হেফাজতের হরতালে সহিংসতার মামলায় কাউন্সিলর গ্রেফতার

হেফাজতের হরতালে সহিংসতার মামলায় কাউন্সিলর গ্রেফতার

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

উন্নীত স্কেলে বেতন নিশ্চিত করতে তথ্য পাঠানোর নির্দেশ

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সাম্প্রদায়িক হামলায় জড়িতদের শাস্তি ও ক্ষতিগ্রস্তদের বাড়িঘর সংস্কারসহ ৭ দফা দাবি

সুদানে অভ্যুত্থানে বিশ্বের প্রতিক্রিয়া

সুদানে অভ্যুত্থানে বিশ্বের প্রতিক্রিয়া

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

স্ত্রী হত্যায় স্বামীর যাবজ্জীবন

© 2021 Bangla Tribune