X
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

‘সারাদিনে আয় ৩০-৪০ টাকা, চলবো কীভাবে?’

আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২১, ১২:৪৬

‘আগে গড়ে প্রতিদিন চার থেকে পাঁচশ টাকা ইনকাম হতো। তাই দিয়ে ছেলেমেয়েদের পড়ালেখাসহ মোটামুটি চলতো সংসার। কিন্তু এখন ৩০-৪০ টাকা ইনকাম। কোনও কোনও দিন ৫০ টাকা, আবার কোনও দিন ১০০ টাকাও হচ্ছে। কিন্তু তা দিয়ে তো আর সংসার চলে না! লকডাউনের কারণে দোকান-পাট বন্ধ। মানুষজনও বাজারে আসছে না। কাজ হবে কীভাবে, আর আমরা চলবো কীভাবে?’

কথাগুলো বলছিলেন দিনাজপুরের হিলিতে ফুটপাতে বসা দর্জি আব্দুল খালেক। করোনা সংক্রমণরোধে লকডাউনের কারণে হিলিতে সব দোকান-পাট বন্ধ। লোকজনও তেমন আসতে না পারায় কাজ কমে গেছে। এতে অন্যান্য শ্রমজীবীদের মতো চরম বিপাকে পড়েছেন আব্দুল খালেকের মতো দর্জিরা। মাঝে মাঝে ৩০ থেকে ১০০ টাকা আয় হলেও, কোনও কোনও দিন খালি হাতে বাড়ি ফিরছেন তারা। এতে সংসার চালানোয় মুশকিল হয়ে পড়েছে। তার ওপর বিভিন্ন এনজিও থেকে নেওয়া ঋণের কিস্তি পরিশোধের বাড়তি চাপ মাথায়। সবমিলে চরম কষ্টে দিনাতিপাত করছেন তারা।

আব্দুল খালেক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কিছু দোকান চুরি করে খুললেও সবাই আতঙ্কের মধ্যে থাকে। সেভাবে লুঙ্গিসহ অন্য কিছু বেচাকেনাও হচ্ছে না। যে কারণে আমাদের আগের মতো কাজ নেই। মানুষের কাছে ধারদেনা করে অনেক কষ্টে কোনোরকম সংসার চলছে। কিন্তু এটাকে চলা বলে না। এর ওপর বিভিন্ন এনজিও থেকে লোন নেওয়া আছে। তারা কিস্তির জন্য চাপ দিচ্ছে। তারা তো আর লকডাউন মানছে না। যেখানে আমরা নিজেরাই চলতে পারছি না, সেখানে কিস্তি পরিশোধ করবো কীভাবে? সরকার থেকে যদি কিছু সাহায্য সহযোগিতা করতো, তাহলে পারেও আমরা চলতে পারতাম।’

লকডাউনে দোকান-পাট বন্ধ থাকায় আয় কমে গেছে

হিলি বাজারে আব্দুল খালেকসহ সাত জন দর্জি রয়েছেন। তারা ফুটপাতে বসে সাধারণ মানুষের লুঙ্গি, মশারিসহ, পুরনো পোশাক সেলাই করেন। এতে সারাদিনে যা আয় হতো তা দিয়ে কোনোরকমে সংসার চালিয়ে আসছিলেন। কিন্তু করোনার কারণে দফায় দফায় লকডাউন দেওয়ায় মানুষজনের চলাচল যেমন কমেছে, তেমনি দোকান-পাট না খোলায় চরম বিপাকে পড়েছেন তারা। ফলে এখন অনেক দর্জি নিয়মিত কাজে আসেন না। যারা আসেন তাদেরকে প্রায় খালি হাতেই বাড়ি ফিরতে হয়।

দর্জি আনোয়ার হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা তো এখন না খেয়ে মরছি। পেটতো আর লকডাউন মানে না! বাড়িতে ছেলেমেয়েরা তাকিয়ে থাকে আমার দিকে। কিন্তু রোজগার নেই। চাল-ডাল কিনতে পারছি না। যে কাজ করি, লকডাউনে তা বন্ধ।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগে তো সারাদিন কাজ কাম করে চার-পাঁচশ টাকা আয় হতো। এখন কামাই-রোজগার একেবারে নেই। লকডাউনের নির্দেশ পালন করতেই আমাদের যাচ্ছে। বাজারে দোকান-পাট বন্ধ। মানুষজন আসছে না। যে কারণে কোনও কাজ নেই। এতে আমাদের যা হওয়ার তাই হচ্ছে। এখন সরকারের পক্ষ থেকে যদি কোনও খাবারের ব্যবস্থা করতো তাহলে অন্তত ছেলেমেয়েদের নিয়ে ডাল-ভাত খেয়ে বাঁচতে পারতাম। যে অবস্থা দাঁড়িয়েছে, তাতে না খেয়ে মরার মতো অবস্থা।’

আরেক দর্জি জয়েন উদ্দিন বলেন, ‘এই যে এখন আমাদের কাজ কাম নেই, কোনও দিন ১০ টাকা আবার কোনও দিন ৫০ টাকার কাজ হচ্ছে। আবার কোনদিন একেবারেই হচ্ছে না। কোনও দিন বসার পর পর উঠেই দৌড় দিতে হচ্ছে। এভাবে কোনোরকম করে চলছি। মানুষের কাছে ধারদেনা, এনজিও থেকে লোন করে চলছি। এছাড়া তো আমাদের আর করার কিছু নেই। আমরা করবো কী? সকাল থেকে এসে বসে আছি কোনও কাজ নেই। আমি এখন পর্যন্ত সরকারিভাবে কোনও অনুদান পাইনি।’

চরম কষ্টে দিনাতিপাত করছেন এসব দর্জি

তিনি বলেন, ‘আগে গড়ে প্রতিদিন পাঁচ-সাতশ টাকার কাজ হতো। কোনও দিন হাজার টাকার কাজও হতো। আর এখন ১০০ টাকার কাজ করা কঠিন হয়ে গেছে। লকডাউনের আগে তো আমরা ভালো কাজ করেছি, মাঝে যে ঈদের আগে লকডাউন উঠে দিলো সে সময়ও ভালো কাজ করেছি। কিন্তু ঈদের পর লকডাউন দেওয়ায় আর কোনও কাজ নেই। লকডাউন শিথিল করলে বাইরে থেকে লোকজন আসলে কাজ হতো। আমরা বাজারে এসে মেশিন নিয়ে বসে থাকি। আজকে এখন পর্যন্ত একটা কাজও হয়নি। চুপচাপ বসে আছি। এখন আল্লাহ যদি ভাগ্যে কিছু রাখে তাহলে কিছু হবে, না হলে খালি হাতে উঠে বাড়ি যেতে হবে।’

হাকিমপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নূর-এ আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘পৌরসভা কেন্দ্রিক ১০ মেট্রিক টন চাল ও এক লাখ টাকার একটি বরাদ্দ পাওয়া গেছে। যেটা পৌরসভার মাধ্যমে শিগগিরই বিতরণ করা হবে। এছাড়া ইতোমধ্যে ৫০০ প্যাকেট ত্রাণ প্রস্তুত করেছি। যাতে চাল, ডাল, লবণ, তেল রয়েছে। শ্রমিকসহ ক্ষুদ্র দোকানি যারা রয়েছে তাদেরকে এই সহায়তার আওতায় আনা হবে। সামনে সপ্তাহ থেকে পৌরসভা ও আমাদের এই দুই কার্যক্রম একসঙ্গে চলবে।’

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৬

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার কাঠালবাড়িয়া গ্রামের একটি মাটির বসতঘর থেকে ১৬টি বিষধর কেউটে সাপ ও ১৪টি ডিম পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের কাঠালবাড়িয়া গ্রামের বিনয় রঞ্জন মন্ডলের বাড়ির দেওয়াল খুঁড়ে এগুলো উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের পর সাপগুলো মেরে ফেলা হয়েছে এবং ডিম নষ্ট করা হয়েছে।

বিনয় রঞ্জন জানান, বৃহস্পতিবার মাটির ঘরের দেওয়াল থেকে একটি কেউটে সাপের বাচ্চা বের হতে দেখে স্থানীয়রা। তারা কেউটের বাচ্চাটিকে লাঠির আঘাতে মেরে ফেলে। এরপর দেওয়াল ভেঙে একে একে ১৬টি কেউটের বাচ্চা উদ্ধার করা হয়। সেখানে আরও ১৪টি কেউটের ডিম পাওয়া যায়।

গত ১৬ সেপ্টেম্বর একই ঘরের খাটের নিচ থেকে সাড়ে চার হাত লম্বা একটি কেউটে সাপ দেখতে পাওয়া যায়। পরে সেটাকে মেরে ফেলেন বাড়ির মালিক।

মুন্সীগঞ্জের ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কাশেম মোড়ল বলেন, বিনয় রঞ্জনের মাটির বসতঘরের দেওয়াল খুঁড়ে ১৬টি বিষধর কেউটে সাপ ও ১৪টি ডিম পাওয়া গেছে। এর আগেও তার ঘরে সাপ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় গ্রামবাসীর মাঝে সাপ আতঙ্ক বিরাজ করছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

যাত্রীবাহী গাড়িতে গুলি: ২৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৪৪

বান্দরবানে যাত্রীবা‌হী চাঁদের গাড়িতে গুলি ছোড়ার ঘটনায় ২৩ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩‌ সে‌প্টেম্বর) রাঙামাটির রাজস্থলীর গাইদ্যা ইউনিয়নের য়চিং খই (৩৩) বা‌দী হয়ে বান্দরবান সদর থানায় এ মামলা করেন।

মামলার আসামিদের মধ্যে রয়েছেন—পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদের সদস্য ও জেএসএস নেতা কেএসমং মার্মা‌ (৬০), রাজস্থলীর কিনাধন তংচঙ্গ্যার ছে‌লে গর্জন ত্রিপুরা ও রাঙামাটি চন্দ্রঘোনার মংনুচিং মারমা (৫০)। 

য়চিং খই ব‌লেন, ‘গত ১৭ সেপ্টেম্বর এলাকার ক‌য়েকজন মিলে বান্দরবানের রুমাতে বেড়া‌তে যাই। পরের‌ দিন (১৮ সেপ্টেম্বর) আমরা বান্দরবান থেকে রাঙামা‌টির রাজস্থলীর নিজ বা‌ড়ি‌তে ফেরার পথে বান্দরবানের কুহালংয়ের গলাচিপা এলাকায় হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি ছোড়ে সন্ত্রাসীরা। তা‌দের গু‌লি‌তে আমা‌দের গা‌ড়ির চাকা ফে‌টে যায় এবং এ‌তে ছয়জন গু‌লি‌বিদ্ধ হ‌য়। গা‌ড়ি‌টি মেরামত কর‌তে ৫০ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে।’

যাত্রীবাহী গাড়িটিতে সন্ত্রাসীদের ৪০-৫০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ

বান্দরবান সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী ব‌লেন, যাত্রীবা‌হী চাঁদের গাড়িতে গুলির ঘটনায় ২৩ জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। তদন্ত ক‌রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

হাসপাতালের সাবেক তত্ত্বাবধায়কসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

‘জিনের বাদশার’ কথায় ২৮ লাখ টাকা হারালেন প্রবাসী

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপির ৩ শীর্ষ নেতার আত্মসমর্পণ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

প্রবাসীর স্ত্রীকে ৭ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ

বাস-ট্রাক-কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষে প্রাণ গেলো ৩ জনের

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৩০

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলায় যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানের সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছে আরও একজন। 

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে ১১টার দিকে ঢাকা-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের ধলাটেঙ্গর এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এলেঙ্গা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন কর্মকর্তা মো. রাসেল জানান, মহাসড়কের ধলাটেঙ্গর এলাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে আসা একটি কাভার্ডভ্যানের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষ হয়। এ সময় পেছন দিন থেকে আসা যাত্রীবাহী বাস কাভার্ডভ্যানটিকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে একজন মারা যান। আহত হন আরও তিনজন। তাদেরকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ মো. নবিন বলেন, আহত অবস্থায় তিনজনকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তাদের মধ্যে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। অপর একজন চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

বাসচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ফেসবুক লাইভে এসে ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ছুটি নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে পুলিশ সদস্য নিহত

ছুটি নিয়ে বাড়ি যাওয়ার পথে পুলিশ সদস্য নিহত

প্রাইভেট পড়তে গিয়ে নিখোঁজ, পরদিন মিললো স্কুলছাত্রীর লাশ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০৯

সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর লাশ ‍উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টার দিকে উপজেলার টিকেট এলাকার একটি বাগান থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

সাতক্ষীরা গাভা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণিতে পড়তো ওই ছাত্রী। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন করেছে পুলিশ। এরপর ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ওই ছাত্রীর পরিবারের বরাত দিয়ে গাভা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক দীপঙ্কর বিশ্বাস জানান, বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রাইভেট পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেনি সে। ধারণা করা হচ্ছে, কেউ তাকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি বাগানে নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করেছে।

দেবহাটা থানার উপ-পদির্শক (এসআই) ফরিদ আহমেদ জানান, ওই ছাত্রীর শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। লাশ উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

সাঁতরে মসজিদে যাওয়া সেই ইমাম পেলেন নৌকা ও নগদ টাকা   

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

ভোটে হারায় রাস্তা বন্ধ করে দিলেন মেম্বার প্রার্থী

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

পানিবন্দি সাতক্ষীরার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

আজান দেওয়ার সময় ঢলে পড়লেন মুয়াজ্জিন

নিজ ঘরে রাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৬

যশোরের ঝিকরগাছায় নিজ ঘর থেকে ইমরুল কায়েস পরাগ (২৩) নামে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ২টার দিকে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে পুলিশে খবর দেয় পরিবারের লোকজন।

ইমরুল কায়েস ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের বিশেহরি গ্রামের শহীদুল ইসলামের ছেলে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

স্থানীয়রা জানায়, মায়ের কাছে ডিএসএলআর ক্যামেরা চান ইমরুল কায়েস। ক্যামেরা কিনে দিতে দেরি হওয়ায় তিনি অভিমান করেন। গতরাতে খাবারও খাননি। রাত ২টার দিকে তার মা ঘরে ঢুকে দেখেন, ফ্যানের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে ঝুলে আছেন।

ফেসবুকে হতাশা আর আত্মহত্যা নিয়ে পোস্ট করেন ইমরুল কায়েস

গঙ্গানন্দপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শহিদুল ইসলাম বলেন, ছেলেটা কেন যে আত্মহত্যা করেছে, তা জানতে পারিনি। তার মা একটি বেসরকারি সংস্থায় (এনজিও) চাকরি করেন। শুনেছি ছেলেটি একটি ক্যামেরা কিনে দিতে বলেছিল। ক্যামেরা দিতে দেরি হওয়ায় অভিমানে সে আত্মহত্যা করতে পারে।

কিছু দিন আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কয়েকদিন ধরে হতাশা আর আত্মহত্যা নিয়ে পোস্ট করেন ইমরুল কায়েস।

ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ, গণপিটুনিতে নিহত

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

ভারতে গেলো আরও ২০৯ টন ইলিশ

ভারতে গেলো ৭৮ টন ইলিশ

ভারতে গেলো ৭৮ টন ইলিশ

বিয়ের ৮ বছর পর একসঙ্গে চার সন্তানের মা হলেন লাক্সমিয়া

বিয়ের ৮ বছর পর একসঙ্গে চার সন্তানের মা হলেন লাক্সমিয়া

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

৫ স্কুলছাত্রীর করোনা শনাক্ত, ক্লাস বন্ধ

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

‘অক্টোবরে রংপুরে থানা-ওয়ার্ড কমিটি গঠনে আ.লীগের বর্ধিত সভা’

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

সব শিক্ষার্থীর ২ বছরের বেতন মওকুফ করলো বিদ্যালয়টি

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

তিস্তায় বিলীনের অপেক্ষায় কমিউনিটি ক্লিনিক

চাঁদপুরে ৩ কলেজ শিক্ষার্থীর করোনা শনাক্ত

চাঁদপুরে ৩ কলেজ শিক্ষার্থীর করোনা শনাক্ত

নীলফামারীর ৮৬৩ মণ্ডপে হবে শারদীয় দুর্গোৎসব

নীলফামারীর ৮৬৩ মণ্ডপে হবে শারদীয় দুর্গোৎসব

বেড়েছে কাঁচামরিচের ঝাঁজ

বেড়েছে কাঁচামরিচের ঝাঁজ

মোংলায় শিক্ষকের করোনা শনাক্ত

মোংলায় শিক্ষকের করোনা শনাক্ত

আমদানি কমার অজুহাতে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

আমদানি কমার অজুহাতে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম

সর্বশেষ

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

বসতঘরে মিললো ১৬ বিষধর সাপ

কাতালানের স্বাধীনতাকামী নেতা পুজদেমন ইতালিতে গ্রেফতার

কাতালানের স্বাধীনতাকামী নেতা পুজদেমন ইতালিতে গ্রেফতার

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজনকে বদলি

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার আটজনকে বদলি

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

বিএড পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ২৪ অক্টোবর থেকে

© 2021 Bangla Tribune