X
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৩ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

রোহিঙ্গা ঢলের চার বছর

আফগানিস্তানের ঘটনার আড়ালে রোহিঙ্গা ইস্যু চলে যাক চায় না বাংলাদেশ

আপডেট : ২৫ আগস্ট ২০২১, ১৫:০০

বছর ঘুরে আবারও এসেছে ২৫ আগস্ট। ২০১৭ সালের আজকের দিনে মিয়ানমারে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত কয়েক লাখ  রোহিঙ্গা আসতে শুরু করে বাংলাদেশে। ঘটনাটির চার বছর পূর্ণ হলো আজ। গত চার বছরে লাখ লাখ রোহিঙ্গার একজনও তাদের মাতৃভূমিতে ফেরত যেতে পারেনি। রোহিঙ্গাদের মানবাধিকার চরমভাবে লঙ্ঘিত হলেও বন্ধুদেশগুলোর সহায়তার কারণে মিয়ানমার সরকার নির্যাতিত জনগোষ্ঠীকে ফেরত নেওয়ার জন্য রাখাইনে সহায়ক পরিবেশ তৈরি করেনি। এদিকে নতুন নতুন বৈশ্বিক সমস্যা তৈরি হওয়ার কারণে ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে রোহিঙ্গা ইস্যুর গুরুত্ব।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যু পঞ্চম বর্ষে পড়েছে। যেহেতু আফগানিস্তান, তালেবান ও আফগান উদ্বাস্তু নিয়ে যথেষ্ট আগ্রহ দেখা যাচ্ছে, সুতরাং আমরা চাইবো না রোহিঙ্গাদের বিষয়ে যে আগ্রহ আছে সেটি অন্যদিকে সরে যাক।’

হতাশ রোহিঙ্গা

রোহিঙ্গারা ফেরত যেতে না পারলেও মানবপাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে বিভিন্ন দিকে ছড়িয়ে পড়ছে।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘এই সংখ্যাটি এখনও এত বেশি নয়। বিষয়টি নিয়ে আমাদের স্টাডি করতে হবে‑ কি বিষয়, কারা এটি করছে, বাইরের কারো ইন্ধন আছে কিনা এবং মানবপাচারকারীরা জড়িত কিনা।’

রোহিঙ্গাদের মধ্যে মানবপাচারকারী আছে এবং সে কারণে বিষয়টি আরও ঘোলাটে হয়ে গেছে বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, তবে আমরা বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছি।

অন্যান্য উদ্বাস্তু পরিস্থিতি অনেক বছর ধরে চলেছে বা চলছে জানিয়ে তিনি বলেন, প্যালেস্টাইন বা আফ্রিকার কয়েকটি দেশে এধরনের অবস্থা ছিল বা রয়েছে।

রাখাইনে সহায়ক পরিবেশ

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, রাখাইনে যদি সহায়ক পরিবেশ না থাকে এবং রোহিঙ্গারা যদি বিপদ বোঝে, নিরাপদ বোধ না করে, তবে তারা ফেরত যেতে চাইবে না, এটিই স্বাভাবিক।

তিনি বলেন, ‘গোটা বিষয়টি স্বেচ্ছায় হতে হবে, অন্যথায় আন্তর্জাতিক নিয়মের পরিপন্থী হবে বিষয়টি।’

মানসিক প্রস্তুতি

রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে খুব স্বস্তির মধ্যে আছে এবং এখানেই থেকে যেতে চায় বলে মনে করেন না পররাষ্ট্র সচিব।

তিনি বলেন, আমাদের এখানে যা আছে সবই অস্থায়ী। মানবিক সহায়তাসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোর মধ্যে এটি সীমাবদ্ধ রাখছি।’

কিছু ক্ষেত্রে দক্ষতা বৃদ্ধি ও তাদের শিক্ষার বিষয়টি আসছে কিন্তু বাংলাদেশ চায় তাদেরকে মিয়ানমার কারিকুলামে শিক্ষা দেওয়া হোক। কারণ এর মাধ্যমে মিয়ানমারে ফেরত গেলে সেটি তাদের কাজে লাগবে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, ‘তাদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুত করছি আমরা যে তারা সেখানে ফিরে যাবে।’

রাখাইন পরিস্থিতি

চার বছর আগে রাখাইনে যে পরিবেশ ছিল তার থেকে এখন পরিবেশ অনেক ভালো বলে মনে করেন মাসুদ বিন মোমেন।

তিনি বলেন, আমরা মনে করছি রাখাইনে চার বছর আগের থেকে এখন অনেক ভালো পরিস্থিতি রয়েছে। প্রকৃতপক্ষে এ বছরের পয়লা ফেব্রুয়ারির পরে মিয়ানমারে যে পরিবর্তন এসেছে, তার ফলে অনেক জায়গায় বিচ্ছিন্নতাবাদীরা আবার মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে কিন্তু রাখাইনে আমরা ওরকম কোন কিছু দেখিনি।

মিয়ানমারে জাতিসংঘের আরও বেশি কাজ করা উচিত এবং সীমান্তের ওপারে রাখাইনে তাদের কার্যক্রম আরও বাড়ানো দরকার বলে মনে করেন পররাষ্ট্র সচিব।

তিনি বলেন, ‘রাখাইনে অনেকগুলো বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গাদের জন্য ক্যাম্প রয়েছে এবং সেগুলোকে ভেঙে দিতে আমরা অনেকদিন ধরে বলছি। কারণ এর ফলে তারা যদি তাদের গ্রামে ফেরত যায়, বাংলাদেশে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা ফেরত যাওয়ার জন্য উৎসাহিত হবে।’

আসিয়ান দূত

মিয়ানমার বিষয়ে আসিয়ান দূত নিয়োগ দেওয়া হয়েছে এবং তাঁর সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ তৈরি হয়ে গেছে এবং আমরা তার সঙ্গে আগামীতে ভার্চুয়াল বৈঠক করব বলে জানান পররাষ্ট্র সচিব।

তিনি বলেন, ‘তাঁকে ঢাকায় আসার জন্যও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইতোমধ্যে দাওয়াত দিয়েছেন।’

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, আমরা চাইছি প্রত্যাবাসন বিষয়টিও যেন আসিয়ান গুরুত্বের সঙ্গে নেয় এবং এজন্য আমরা ঢাকায় দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে আমাদের রাষ্ট্রদূতরা যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি।

/এসএসজেড/এমএস/

সম্পর্কিত

ভাসানচরে যাওয়ার আগ্রহ বেড়েছে রোহিঙ্গাদের

ভাসানচরে যাওয়ার আগ্রহ বেড়েছে রোহিঙ্গাদের

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:২১

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট ছেলে শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাস ‘শেখ রাসেল দিবস’ উদযাপন করেছে।

সোমবার (১৮ অক্টোবর) অনুষ্ঠানের শুরুতে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এ ছাড়া দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করে শোনানো হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনেস্কো নির্বাহী পরিষদে বাংলাদেশের প্রতিনিধি তারিক সুজাত, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইউনেস্কো বাংলাদেশ জাতীয় কমিশনের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল সোহেল ইমাম খান।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি শেখ রাসেল সম্পর্কে স্মৃতিচারণ করে বলেন, রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম নেওয়া শেখ রাসেলও পরিবারের অন্য সদস্যদের মতো খুবই সাধারণ জীবনযাপন করতেন। রাষ্ট্র প্রধানের সন্তান হিসেবে কখনো তারা জীবন নির্বাহ করেননি।

চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স ও মিনিস্টার (রাজনৈতিক) এস.এম. মাহবুবুল আলম বলেন, মাত্র ১০ বছর বয়সে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট মানব ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাযজ্ঞে, কাপুরুষ-ঘাতকের বুলেটে ক্ষত-বিক্ষত হয়ে পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে শাহাদাৎ বরণ করেন শেখ রাসেল। ক্ষমতা দখল কিংবা রাজনৈতিক উদ্দেশ চরিতার্থ করার জন্য পৃথিবীর ইতিহাসে বহু দেশে বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড, সেনা অভ্যুত্থান হয়েছে। কিন্তু অন্তঃসত্ত্বা নারী ও কোমলমতি শিশু রাসেলসহ পুরো পরিবারের সঙ্গে বঙ্গবন্ধুকে যেভাবে হত্যা করা হয়েছে তা বিশ্বের ইতিহাসে বিরল।

পরে আলোচনা অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেন ফ্রান্স প্রবাসী বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বক্তারা শেখ রাসেলের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

অনুষ্ঠানে শেখ রাসেলের জীবনের ওপর নির্মিত একটি ভিডিও তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এ সময় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশি ও দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী উপস্থিত ছিলেন।

শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে দূতাবাস দুই দিনব্যাপী অনুষ্ঠান আয়োজন করে। গত ১৭ অক্টোবর   দূতাবাস প্রাঙ্গণে প্রবাসী শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে শিশু-কিশোররা অংশগ্রহণ করে। শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

/এমএস/

জাকাত ব্যবস্থাপনায় নতুন আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৭:১৯

‘জাকাত তহবিল ব্যবস্থাপনা আইন, ২০২১’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গণভবন থেকে শেখ হাসিনা ও সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীরা বৈঠকে যোগ দেন।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, জাকাত তহবিল গঠন করা হবে। তহবিলের অর্থ সরকারিভাবে সংগৃহীত হবে। প্রবাসী বাংলাদেশি, বিদেশি যেকোনও ব্যক্তি বা সংস্থা থেকে প্রাপ্ত অর্থ যে কোনও তফসিলি ব্যাংকের জাকাত ফান্ডে জমা দিয়ে জাকাত আদায় করতে পারবেন। আর একটি বোর্ড থাকবে। ধর্মমন্ত্রী বা প্রতিমন্ত্রী এই বোর্ডের চেয়ারম্যান হবেন। জাকাত বোর্ডে সদস্য থাকবে ১০ জন। জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে কমিটি করে দেওয়া হবে ইসলামি ফাউন্ডেশন বা ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে। কালেকশন ও ডিস্ট্রিবিউশনটা তারা করবেন। কাকে কাকে কীভাবে দেবে, এটা তারাই ঠিক করবে। তাদের একটি অ্যাকাউন্ট থাকবে, সেখান থেকে তারা অর্থ সংগ্রহ করবে।

মন্ত্রিসভার বৈঠকে অনুমোদন পাওয়া আইনটিতে ১৪টি ধারা রয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সরকারিভাবে জাকাত সংগ্রহ ও বিতরণ করা হবে এবং আধুনিক তথ্য ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে সরকারিভাবে যাকাতদানে উদ্বুদ্ধ করা হবে। জাকাত সংগ্রহ কেন্দ্র স্থাপন, জাকাতদানে আগ্রহী ব্যক্তিদের যাকাতযোগ্য সম্পদের বিষয়টি খসড়া আইনে রয়েছে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সুরা তাওবায় প্রিসাইসলি সাতটি ক্যাটাগরি করে দেওয়া হয়েছে, প্রত্যেক ব্যক্তি যে জাকাতযোগ্য, সেই সাত ক্যাটাগরির যেকোনও একজনকে জাকাত দিতে পারবেন। বিভিন্ন ইসলামিক দেশগুলোতে বোর্ড আছে। অনেকেরই হয়তো ব্যক্তিগতভাবে দেওয়ার সুযোগ থাকে না, সে হয়তো যাকাত ফান্ডে দিয়ে দিলেন। তখন জাকাত ফান্ড তার পক্ষে জাকাত আদায় করে দেবে।’

সচিব বলেন, ‘কোরআনে পরিষ্কার বলে দেওয়া হয়েছে যে, তোমার যখন সাড়ে সাত ভরি স্বর্ণ বা ওই পরিমাণ টাকা যদি এক বছর থাকে, তাহলে আড়াই শতাংশ জাকাত দিতে হবে। সেটা যদি ব্যক্তিগতভাবে দিলেন তো দিলেন, না-হলে সরকারি ফান্ডে দিলে সেটাও দিতে পারবেন।’

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘আপনি যখন হজে যাবেন, আপনি কিন্তু কোরবানি করতে যাবেন না। আপনি টাকা জমা দিয়ে দেবেন, ব্যাংক একটা টাইম দিয়ে দেবে, ১০ তারিখ এতটার সময় আপনার কোরবানি হয়ে যাবে। সেজন্য এ সিস্টেমটা পুরো পৃথিবীতেই আছে।’

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে দিল্লি গেলেন নৌ সচিব

২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে দিল্লি গেলেন নৌ সচিব

‘পল্লবীর সাহিনুদ্দিন হত্যার ভিডিও নোয়াখালীর যতন সাহার বলে অপপ্রচার’

‘পল্লবীর সাহিনুদ্দিন হত্যার ভিডিও নোয়াখালীর যতন সাহার বলে অপপ্রচার’

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অ্যাকশন নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অ্যাকশন নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জাপানে প্রথম দিন যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

জাপানে প্রথম দিন যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৩

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সবচেয়ে ছোট ছেলে শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন স্মরণে ‘শেখ রাসেল দিবস’ উদযাপন করা হয়েছে।

কভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে স্থানীয় নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব মেনে স্থায়ী মিশনের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে সোমবার (১৮ অক্টোবর) আয়োজিত অনুষ্ঠানে মিশনের সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ অংশগ্রহণ করেন।

স্থায়ী মিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ মঙ্গলবার(১৯ অক্টোবর) জানানো হয়, অনুষ্ঠানের শুরুতেই শহীদ শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এরপর শেখ রাসেলের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী প্রদত্ত বাণী পাঠ করা হয়। পরে শেখ রাসেলের জীবন বিষয়ক একটি প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা। তিনি শহীদ শেখ রাসেলের জন্ম দিবসকে ‘ক’ শ্রেণীভুক্ত জাতীয় দিবস হিসেবে উদযাপনের সিদ্ধান্তকে অত্যন্ত সময়োপযোগী ও প্রশংসনীয় উদ্যোগ হিসেবে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, এর মাধ্যমে দেশের শিশু-কিশোররা শেখ রাসেল সম্পর্কে আরও জানতে পারবে যা তাদেরকে মানবতাবাদী ও অধিকারবোধসম্পন্ন ভবিষ্যৎ নাগরিকে পরিণত করবে। শহীদ শেখ রাসেলকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রচিত বই ‘আমাদের ছোট রাসেল সোনা’ পড়ার জন্য প্রবাসে বেড়ে ওঠা শিশু-কিশোরদের প্রতি আহবান জানান রাষ্ট্রদূত ফাতিমা।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে সপরিবারে জাতির পিতার নির্মম হত্যাকাণ্ডের কথা তুলে ধরে রাষ্ট্রদূত ফাতিমা বলেন ‘ঘাতকরা নিষ্পাপ ও কোমলমতি শিশু রাসেলকেও রেহাই দেয়নি।’ জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে প্রদত্ত ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৫ আগস্টের পালিয়ে থাকা খুনিদের বিচারের আওতায় আনতে বিশ্বসম্প্রদায়ের প্রতি যে আহবান জানিয়েছেন তা তুলে ধরে স্থায়ী প্রতিনিধি বলেন, বিদেশে পালিয়ে থাকা খুনিদের দেশে ফিরিয়ে নিয়ে বিচারের আওতায় আনতে সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে।

রাষ্ট্রদূতের স্বাগত বক্তব্যের পর মুক্ত আলোচনা পর্বে মিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশগ্রহণ করেন। তারা আশা প্রকাশ করেন, শেখ রাসেল দিবস উদযাপনের মাধ্যমে শেখ রাসেলের স্মৃতি আজীবন সকলের মাঝে বেঁচে থাকবে যা শিশু-কিশোরদের নতুনভাবে অনুপ্রাণিত করবে।

এছাড়া কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস এবং মেক্সিকোয় বাংলাদেশ দূতাবাসেও যথাযোগ্য মর্যাদায় শেখ রাসেল দিবস উদযাপন করা হয়।

সূত্র: বাসস

/এমএস/

সম্পর্কিত

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জ্যাকসনের সাক্ষাৎ

বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে জ্যাকসনের সাক্ষাৎ

সন্ত্রাসবাদকে কোনও বিশেষ ধর্ম বা জাতীয়তার সঙ্গে যুক্ত করা উচিত নয়: রাবাব ফাতিমা

সন্ত্রাসবাদকে কোনও বিশেষ ধর্ম বা জাতীয়তার সঙ্গে যুক্ত করা উচিত নয়: রাবাব ফাতিমা

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

মন্দিরে হামলার ঘটনায় সরকারের নিন্দা

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৬

সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন পূজামণ্ডপে ভাঙচুরের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে সরকার। পাশাপাশি মিডিয়াতে তথ্যপূর্ণ রিপোর্ট করার আশা প্রকাশ করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, দেশের জনগণ উৎসবের সঙ্গে যখন দুর্গাপূজা উদযাপন করেছিল, তখন বিভিন্ন মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের খবর প্রকাশিত হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায় ও অন্য ধর্মাবলম্বীদের প্রতিক্রিয়া আমলে নিয়েছে সরকার। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া হিসেবে ২২টি জেলার বেসামরিক প্রশাসনকে সাহায্য করার জন্য বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

এতে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দোষীদের বিচারের আওতায় আনার বিষয়ে আশ্বস্ত করা হয়েছে। তিনি সবাইকে সংযত আচরণের আহ্বান জানিয়েছেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এই পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রীয় সংস্থা ও দেশের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য সবাইকে শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বজায় রাখার আহ্বান জানিয়েছে সরকার। এ ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে সেজন্য সরকার বদ্ধপরিকর। সরকার আশা করে, এ ধরনের জটিলতা ও ভুল বোজাবুজি এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব, যদি মিডিয়াতে তথ্যনির্ভর খবর আসে।

 

/এসএসজেড/আইএ/

সম্পর্কিত

প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

জাকাত ব্যবস্থাপনায় নতুন আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

জাকাত ব্যবস্থাপনায় নতুন আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন

২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে দিল্লি গেলেন নৌ সচিব

২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে দিল্লি গেলেন নৌ সচিব

২৩ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিয়ে দিল্লি গেলেন নৌ সচিব

আপডেট : ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১৬:১৯

ভারতের নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে সচিব পর্যায়ের বৈঠক, ২১তম স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠক এবং দ্বিতীয় ইন্টার গভর্নমেন্টাল কমিটির বৈঠক শুরু হচ্ছে আগামীকাল বুধবার। এসব কর্মসূচি চলবে আগামী ২২ অক্টোবর পর্যন্ত।

বৈঠকে অংশ নিতে ২১ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল আজ নয়াদিল্লির উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছে। সচিব পর্যায়ের বৈঠক এবং ইন্টার গভর্নমেন্টাল কমিটির বৈঠকে নেতৃত্ব দেবেন নৌ সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী। আর প্রটোকল অন ইনল্যান্ড ওয়াটার ট্রানজিট অ্যান্ড ট্রেডের (পিআইডব্লিউটিটি) আওতাধীন ২১তম স্ট্যান্ডিং কমিটির বৈঠকে নেতৃত্ব দেবেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সংস্থা-১) এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী।

বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন- চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ শাহজাহান, মোংলা বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল  মোহাম্মদ মুসা, বাংলাদেশ স্থল বন্দরের চেয়ারম্যান মো. আলমগীর, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (সংস্থা-১) এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য জাকিয়া সুলতানা, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর আবু জাফর মো. জালাল উদ্দিন, চট্টগ্রাম বন্দরের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) মো. জাফর আলম, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এ টি এম মোনেমুল হক ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব।

দলে আরও রয়েছেন মো. আবদুস সামাদ আল আজাদ, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক এ টি এম রকিবুল হক, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব এস এম মোস্তফা কামাল, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. আমিনুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পরিচালক জাজরিন নাহার, বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী ও জাহাজ জরিপকারক মো. মঞ্জুরুল কবির, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব আকতার হোসেন, বাংলাদেশ কন্টেইনার শিপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট নাসির আহমেদ চৌধুরী, বাংলাদেশ কার্গো ভেহিক্যাল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল হক এবং কোস্টাল শিপ ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান শেখ মাহফুজ হামিদ।

প্রসঙ্গত, দু’দেশের নৌ সচিব পর্যায়ের শেষ বৈঠক ২০১৯ সালের ৪ ও ৫ ডিসেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়।

/এসআই/ইউএস/

সম্পর্কিত

জাকাত ব্যবস্থাপনায় নতুন আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

জাকাত ব্যবস্থাপনায় নতুন আইন মন্ত্রিসভায় অনুমোদন

‘পল্লবীর সাহিনুদ্দিন হত্যার ভিডিও নোয়াখালীর যতন সাহার বলে অপপ্রচার’

‘পল্লবীর সাহিনুদ্দিন হত্যার ভিডিও নোয়াখালীর যতন সাহার বলে অপপ্রচার’

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অ্যাকশন নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

হামলায় জড়িতদের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অ্যাকশন নেওয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জাপানে প্রথম দিন যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

জাপানে প্রথম দিন যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ভাসানচরে যাওয়ার আগ্রহ বেড়েছে রোহিঙ্গাদের

ভাসানচরে যাওয়ার আগ্রহ বেড়েছে রোহিঙ্গাদের

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘মুহিবুল্লাহ হত্যাকারীদের অবশ্যই বিচারের সম্মুখীন করা হবে’

‘মুহিবুল্লাহ হত্যাকারীদের অবশ্যই বিচারের সম্মুখীন করা হবে’

মুহিবুল্লাহ হত্যার পূর্ণ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

মুহিবুল্লাহ হত্যার পূর্ণ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

রাখাইনে মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তনই রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান: প্রধানমন্ত্রী

রাখাইনে মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তনই রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথের সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথের সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে

সর্বশেষ

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

টান দিলেই উঠে যাচ্ছে নতুন সড়কের কার্পেটিং

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

পেঁয়াজের ক্রেতা সংকট, আরেক দফা কমেছে দাম

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

সব সম্প্রদায়ের ধর্ম পালনের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে: ইউনাইটেড ইসলামী পার্টি

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যশস্য সংরক্ষণ সক্ষমতা ৩৫ লাখ টনে উন্নীত হবে: খাদ্যমন্ত্রী

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

ইসরায়েল উপকূলে মিললো ক্রুসেডারদের তলোয়ার

© 2021 Bangla Tribune