X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

পৃথিবীর সর্ব উত্তরের দ্বীপের সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা

আপডেট : ৩০ আগস্ট ২০২১, ১১:৪০

ডেনমার্কের কোপেনহাগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক উত্তর মেরুর ভূপ্রকৃতি নিয়ে গবেষণার কাজে ওই অঞ্চলে গিয়েছিলেন। সেখানে কাজ করার সময় জিপিএস-এর ভুলে তারা একটি দ্বীপে গিয়ে পৌঁছান। তাদের ধারণা ছিল, তারা উদাক দ্বীপে গিয়ে পৌঁছেছেন। এতদিন ওই দ্বীপটিকেই উত্তর মেরুর সবচেয়ে উত্তরের দ্বীপ বলে ধরে নেওয়া হতো। ১৯৭৮ সালে আরেকটি ডেনিশ গবেষক দল ওই দ্বীপটি আবিষ্কার করেছিল। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই অভিযাত্রীরা বুঝতে পারেন, তাদের জিপিএস ভুল রিডিং দিচ্ছে। তারা উদাক দ্বীপ থেকেও প্রায় ৭৮০ মিটার উত্তর-পশ্চিমে চলে এসেছেন। সেখানে ইতোপূর্বে কোনও দ্বীপের সন্ধান মেলেনি। গবেষকরা বুঝতে পারেন, ভুলক্রমে তারা এক যুগান্তকারী আবিষ্কার করে ফেলেছেন। পৃথিবীর সর্ব উত্তরের দ্বীপ আবিষ্কার করেছেন তারা।

নতুন দ্বীপটির বিস্তার ৩০ মিটার। পানির স্তর থেকে দ্বীপের সর্বোচ্চ উচ্চতা তিন মিটার। বরফের তলায় মাটি এবং পাথর আছে। হিমবাহবাহিত মাটি ও পাথর দিয়ে দ্বীপটি তৈরি বলে মনে করা হচ্ছে। ছোট্ট দ্বীপটি খুব বেশিদিন আগে তৈরি নয় বলেই গবেষকদের ধারণা। তবে আরও গবেষণা প্রয়োজন বলে তারা জানিয়েছেন।

ভূবিজ্ঞানীরা তখনই কোনও স্থলভাগকে দ্বীপের স্বীকৃতি দেন, যখন ভরা জোয়ারেও তা পানির নিচে তলিয়ে যায় না। এই দ্বীপটির সে বৈশিষ্ট্য আছে বলে মনে করা হচ্ছে।

কোপেনহেগান বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক এবং ওই অভিযাত্রী দলের প্রধান মর্টেন রাচ সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা ভুল করে ওই দ্বীপে পৌঁছে গিয়েছিলাম। জিপিএস-এর ভুল সিগন্যালের জন্য। কিন্তু আমরা একটি নতুন দ্বীপ আবিষ্কার করতে পেরেছি। আমরা খুশি।’

ওই গবেষক দলটিকে স্পনসর করছিলেন একজন সুইস ব্যবসায়ী। সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, উদাক দ্বীপ ভেবেই সবাই ওখানে গিয়েছিল। গিয়ে দেখা যায়, নতুন একটি দ্বীপ। সবাই খুব আনন্দিত।

উত্তর মেরুর দখল নিয়ে তীব্র লড়াই আছে যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, কানাডা, ডেনমার্ক ও নরওয়ের মধ্যে। সবাই ওই অঞ্চলের অধিকাংশ ভূখণ্ডের দখল পেতে চায়। নতুন এই ভূখণ্ড নিয়েও রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হবে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। তবে নতুন দ্বীপটির এখনও কোনও নাম দেওয়া হয়নি। যে গবেষকরা দ্বীপটি আবিষ্কার করেছেন, তাদের বক্তব্য, উত্তর দ্বীপ হিসেবেই দ্বীপটির নামকরণ করা হোক। সূত্র: ডিডাব্লিউ।

/এমপি/

সম্পর্কিত

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

অনিরাপদ দেশে অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবেন না: পোপ ফ্রান্সিস

অনিরাপদ দেশে অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবেন না: পোপ ফ্রান্সিস

বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে থাকতে আপত্তি, তাই কারাগারে যাওয়ার আবেদন

বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে থাকতে আপত্তি, তাই কারাগারে যাওয়ার আবেদন

নতুন সেনাবাহিনী তৈরির পরিকল্পনা ইউরোপের পাঁচ দেশের

নতুন সেনাবাহিনী তৈরির পরিকল্পনা ইউরোপের পাঁচ দেশের

পশ্চিম তীরে নতুন ১৩০০ বাড়ি বানাবে ইসরায়েল

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৪:১৪

দখলকৃত পশ্চিম তীরে ইহুদি দখলদারদের জন্য নতুন করে বাড়ি নির্মাণের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে ইসরায়েল। তাৎক্ষণিকভাবে ফিলিস্তিনিদের পাশাপাশি এই ঘোষণার নিন্দা জানিয়েছে প্রতিবেশি জর্ডান।

রবিবার ইসরায়েলের ডানপন্থী প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেন্নেত সরকারের কন্সট্রাকশন ও আবাসন মন্ত্রণালয়ের তরফে বলা হয়, পশ্চিম তীরে নতুন এক হাজার ৩৫৫টি বাড়ি নির্মাণে টেন্ডার আহ্বান করা হয়েছে। ১৯৬৭ সালের ছয় দিনের মধ্যপ্রাচ্য যুদ্ধের সময় ওই এলাকা দখল করে ইসরায়েল।

আবাসনমন্ত্রী জেভ এলকিন এক বিবৃতিতে বলেন, জায়নবাদী দৃষ্টিভঙ্গির জন্য পশ্চিম তীরে ইহুদি উপস্থিতি বাড়ানো জরুরি।

ইসরায়েলি ঘোষণার পর মন্ত্রিসভার এক সাপ্তাহিক বৈঠকে এই পরিকল্পনা ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্য দেশগুলোর প্রতি আহ্বান জানান ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ সাতিয়াহ। এই বসতি নির্মাণ পরিকল্পনাকে তিনি ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর আগ্রাসন বলে আখ্যা দেন।

শুক্রবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন আবাসন পরিকল্পনা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন। উত্তেজনা বাড়াতে পারে এবং আলোচনার ভিত্তিতে দুই রাষ্ট্র ভিত্তিক সমাধানের পথে বাধা হতে পারে এমন এক পাক্ষিক পদক্ষেপ থেকে বিরত থাকতে তিনি ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের প্রতি আহ্বান জানান।

পশ্চিম তীরে প্রায় চার লাখ ৭৫ হাজার ইহুদি বসবাস করে। এসব বসতি আন্তর্জাতিক আইনে অবৈধ বলে বিবেচিত।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত: খামেনি

ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত: খামেনি

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৩:১৯

কানাডার প্রশান্ত মহাসাগর উপকূলে একটি কন্টেইনার জাহাজে অগ্নিকাণ্ডের সেখান থেকে ১৬ জনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। জিম কিংসটন নামের জাহাজটি থেকে বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হচ্ছে। তবে কর্মকর্তারা বলছেন, এর কারণে স্থলে থাকা মানুষদের কোনও নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই।

গত শনিবার রাতে অগ্নিকাণ্ড শুরুর সময়ে জাহাজটি ভ্যানকুভারের উদ্দেশে যাচ্ছিলো। উদ্ধারকারী জাহাজ রাতভর বাইরে থেকে পানি ছিটিয়ে কন্টেইনার জাহাজটিকে ঠান্ডা রাখার চেষ্টা করে। কিন্তু রাসায়নিক হওয়ায় আগুন নেভাতে সরাসরি পানি ছেটানো যায়নি।

কানাডার কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, জাহাজে আগুন জ্বলছে আর বিষাক্ত গ্যাস নির্গত হচ্ছে। অগ্নিকাণ্ডে দশটি কন্টেইনার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা।

কোস্ট গার্ড বলছে, ‘বর্তমানে তীরে থাকা মানুষের কোনও নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই। তবে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ অব্যাহত থাকবে।’

কানাডার কোস্ট গার্ড জানিয়েছি জাহাজটিতে ৫২ হাজারের বেশি কেজির রাসায়নিক রয়েছে। এসব রাসায়নিক আগুন ধরে যাওয়া দুইটি কন্টেইনারে রয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

ভারতে তৈরি অ্যারোমাথেরাপি স্প্রে থেকে ছড়াচ্ছে বিরল রোগ: যুক্তরাষ্ট্র

ভারতে তৈরি অ্যারোমাথেরাপি স্প্রে থেকে ছড়াচ্ছে বিরল রোগ: যুক্তরাষ্ট্র

মহামারিতে মার্কিন বিলিয়নিয়ারদের মুনাফা ছাড়িয়েছে ২ লাখ কোটি ডলার

মহামারিতে মার্কিন বিলিয়নিয়ারদের মুনাফা ছাড়িয়েছে ২ লাখ কোটি ডলার

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

শুটিং সেটে অ্যালেক বল্ডউইনের প্রপ গানের গুলিতে চিত্রগ্রাহক নিহত

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০২:১২

কলম্বিয়ার মোস্ট ওয়ান্টেড মাদক পাচারকারী দাইরো অ্যান্টোনিও উসুগাকে গ্রেফতার করেছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। শনিবার তাকে আটক করা হয়। এরপরই কলম্বিয়া জানিয়েছে ওটোনিয়েল নামে পরিচিত এই পাচারকারীকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

দাইরো অ্যান্টোনিও উসুগা কলম্বিয়ার সবচেয়ে বড় অপরাধী চক্রের নিয়ন্ত্রক। সেনা, বিমান ও পুলিশ বাহিনীর এক যৌথ অভিযানে তাকে আটক করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের মাদক নিয়ন্ত্রণ দফতর তাকে বহু বছর ধরেই খুঁজছে। ওয়াশিংটন তার মাথার দাম ৫০ লাখ ডলার নির্ধারণ করেছে। ওয়াশিংটনের অভিযোগ ২০০৩ সাল থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে অন্তত ৭৩ মেট্রিক টন কোকেইন যুক্তরাষ্ট্রে পাচার করেছে কলম্বিয়ার এই ড্রাগ লর্ড।

কলম্বিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী ডিয়েগো মোলানো বলেছেন, পরবর্তী ধাপ হলো কর্মকর্তারা যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যর্পণ আদেশ অনুসরণ করবেন। ড্রাগ লর্ড ওটোনিয়েলকে বর্তমানে রাজধানী বোগোতার একটি সামরিক ঘাঁটিতে রাখা হয়েছে।

টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভিডিও বার্তায় ড্রাগ লর্ডকে আটকের প্রশংসা করেছেন কলম্বিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভান ডুকু। তিনি বলেন, ‘আমাদের দেশে মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে এটাই এই শতাব্দির সবচেয়ে বড় আঘাত। এই আঘাতের সঙ্গে কেবল ১৯৯০ দশকে পাবলো এসকোবারের পতনের তুলনা চলে।’

পানামা সীমান্তবর্তী অ্যান্টিকুয়া প্রদেশের দুর্গম আস্তানা থেকে ড্রাগ লর্ড ওটোনিয়েল আটক করা হয়। অভিযানে পাঁচশ’ সেনা সদস্যের পাশাপাশি ২২টি হেলিকপ্টার অংশ নেয়। নিহত হয় এক পুলিশ কর্মকর্তা।

দুর্গম এলাকায় সেফ হাউজের নেটওয়ার্কের মধ্যেই চলাফেরা করতেন ওটোনিয়েল। কর্তৃপক্ষকে ফাঁকি দিতে ফোন ব্যবহার করতেন না। এর বদলে যোগাযোগের জন্য বাহকদের ওপর নির্ভর করতেন তিনি।

পুলিশ প্রধান জর্জ ভার্গাস জানান, স্যাটেলাইটে পাওয়া ছবি ব্যবহার করে ৫০টিরও বেশি সংকেত বিশ্লেষণ করে গোয়েন্দারা ড্রাগ লর্ডের অবস্থান শনাক্ত করতে সক্ষম হয়। তল্লাশিতে যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যও অংশ নেয়।

/জেজে/

সম্পর্কিত

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

ভারতে তৈরি অ্যারোমাথেরাপি স্প্রে থেকে ছড়াচ্ছে বিরল রোগ: যুক্তরাষ্ট্র

ভারতে তৈরি অ্যারোমাথেরাপি স্প্রে থেকে ছড়াচ্ছে বিরল রোগ: যুক্তরাষ্ট্র

মহামারিতে মার্কিন বিলিয়নিয়ারদের মুনাফা ছাড়িয়েছে ২ লাখ কোটি ডলার

মহামারিতে মার্কিন বিলিয়নিয়ারদের মুনাফা ছাড়িয়েছে ২ লাখ কোটি ডলার

টাইগ্রে অঞ্চলে নতুন অভিযান শুরু ইথিওপিয়ার

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৫

বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত টাইগ্রে অঞ্চলের উত্তরাংশে দ্বিতীয়বারের মতো বিমান হামলা চালিয়েছে ইথিওপিয়ার সেনাবাহিনী। টাইগ্রের পশ্চিমাঞ্চলে বিমান হামলা চালানোর কিছুক্ষণ পরই দ্বিতীয় অভিযানের কথা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে সেনাবাহিনী। এনিয়ে এক সপ্তাহের মধ্যে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় রবিবার সপ্তম ও অষ্টমবারের মতো হামলা চালানো ইথিওপিয়ার সেনাবাহিনী।

বিদ্রোহী গোষ্ঠী টাইগ্রে পিউপিল’স লিবারেশন ফ্রন্টকে (টিপিএলএফ) ইঙ্গিত করে ইথিওপিয়ার সরকারের মুখপাত্র সেলামাইত কাসা বলেন, ‘আজ সন্ত্রাসী গ্রুপ টিপিএলএফ এর প্রশিক্ষণ ও সামরিক কমান্ড হিসেবে ব্যবহৃত পশ্চিম ফ্রন্ট লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালানো হয়েছে।’

প্রথম হামলার ঘোষণা দেওয়ার পর টিপিএলএফ এর মুখপাত্র গেটাচেও রেডা বলেন রবিবার কোনও বিমান হামলার বিষয়ে তিনি অবগত নন। তবে হামলার বিষয়টি  সহকর্মীদের কাছে যাচাই করবেন বলে জানান তিনি।

গত বছরের নভেম্বর থেকে টিপিএলএফ এর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদের সরকার। তবে গত জুনে বিদ্রোহীরা নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর থেকেন টাইগ্রে অঞ্চলে খুব কমই যুদ্ধ হয়েছে।

তবে গত সোমবার ইথিওপিয়ার বিমান বাহিনী টাইগ্রে অঞ্চলের রাজধানী মেকেল্লেতে দুইটি হামলা চালায়। জাতিসংঘ জানিয়েছে ওই হামলায় তিন শিশু নিহত এবং আরও বেশ কয়েক জন আহত হয়। ওই হামলার পর মেকেল্লেতে আরও তিনবার হামলা হয়। এছাড়া আগবে শহরে হামলা চালিয়ে সরকার দাবি করে টিপিএলএফ এর অস্ত্র গুদামে হামলা চালানো হয়েছে।

এসব হামলার পাশাপাশি টাইগ্রের দক্ষিণাঞ্চলে আমহারা এলাকায় তীব্র লড়াই চালানো হচ্ছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ব্রিটিশ সতর্কতা জারির পর উগান্ডায় বোমা হামলা

ব্রিটিশ সতর্কতা জারির পর উগান্ডায় বোমা হামলা

সহকর্মীকে গুলি, পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

সহকর্মীকে গুলি, পুলিশ সদস্যদের চিকিৎসা দিচ্ছেন না নার্সরা

সেই মিশনারিদের জন্য ১ কোটি ৭০ লাখ ডলার মুক্তিপণ দাবি

সেই মিশনারিদের জন্য ১ কোটি ৭০ লাখ ডলার মুক্তিপণ দাবি

প্রতিশোধের অঙ্গীকার নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের

প্রতিশোধের অঙ্গীকার নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্টের

ইসরায়েলের সঙ্গে আরব দেশের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত: খামেনি

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০০:২৮

গত বছর যেসব আরব দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করেছে তারা পাপ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আলি খামেনি। রবিবার তিনি বলেন, এই সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উদ্যোগে ২০২০ সালে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চুক্তি স্বাক্ষর করে সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, সুদান এবং মরক্কো।

ইসরায়েলের দিকে ইঙ্গিত করে আলি খামেনি বলেন, ‘দুর্ভাগ্যজনকভাবে কয়েকটি সরকার বড় ভুল করেছে এবং নিপীড়ক ও দখলদার জায়নবাদী শাসকের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করে পাপ করেছে।’

ঈদে মিলাদুন্নবী উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠিত ইরানের সর্বোচ্চ নেতা বলেন, ‘এটা ইসলামিক ঐক্যের বিরোধী কাজ, তাদের অবশ্যই এই পথ থেকে ফিরতে হবে আর এই বড় ভুলের প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে।’

১৯৭৯ সালে ইসলামিক বিপ্লবের পর গত চার দশক ফিলিস্তিন ইস্যুর জোরালো রক্ষক হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে চায় ইরান। গত বছরের আগ পর্যন্ত কেবল মিসর ও জর্ডানই ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা দুই দেশ ছিলো।

খামেনি বলেন, ‘মুসলিমদের ঐক্য অর্জন করা গেলে ফিলিস্তিনি প্রশ্ন নিশ্চিতভাবে সবচেয়ে ভালোভাবে সমাধান করা যাবে।’

গত মে মাসে ইসরায়েলকে কোনও দেশ নয় সন্ত্রাসের ঘাঁটি হিসেবে আখ্যা দেন খামেনি।

/জেজে/

সম্পর্কিত

পশ্চিম তীরে নতুন ১৩০০ বাড়ি বানাবে ইসরায়েল

পশ্চিম তীরে নতুন ১৩০০ বাড়ি বানাবে ইসরায়েল

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

‘ইরাকে সরকার গঠনে বিদেশি হস্তক্ষেপ গ্রহণযোগ্য নয়’

আফগানিস্তানের প্রতিবেশীদের নিয়ে বৈঠক আহ্বান ইরানের

আফগানিস্তানের প্রতিবেশীদের নিয়ে বৈঠক আহ্বান ইরানের

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে: পুতিন

অনিরাপদ দেশে অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবেন না: পোপ ফ্রান্সিস

অনিরাপদ দেশে অভিবাসীদের ফেরত পাঠাবেন না: পোপ ফ্রান্সিস

বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে থাকতে আপত্তি, তাই কারাগারে যাওয়ার আবেদন

বাড়িতে স্ত্রীর সঙ্গে থাকতে আপত্তি, তাই কারাগারে যাওয়ার আবেদন

নতুন সেনাবাহিনী তৈরির পরিকল্পনা ইউরোপের পাঁচ দেশের

নতুন সেনাবাহিনী তৈরির পরিকল্পনা ইউরোপের পাঁচ দেশের

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

শুধু সম্মেলন নয়, আমাদের প্রয়োজন জনগণের চাপ: গ্রেটা থুনবার্গ

কোভিড প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হতে পারে হোম অফিস: বলছেন বিজ্ঞানীরা

কোভিড প্রতিরোধের সর্বোত্তম উপায় হতে পারে হোম অফিস: বলছেন বিজ্ঞানীরা

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ন্যাটোর জন্য ক্ষতিকর জোট নিয়ে তুরস্কের হুঁশিয়ারি

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

ইরানের বিরুদ্ধে পরমাণু সমঝোতা লঙ্ঘনের অভিযোগ ফ্রান্সের

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

‘শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য ন্যাটো তৈরি হয়নি’

অভিবাসীদের জন্য যেভাবে ইউরোপের সীমান্ত খুলে দিচ্ছে বেলারুশ

অভিবাসীদের জন্য যেভাবে ইউরোপের সীমান্ত খুলে দিচ্ছে বেলারুশ

সর্বশেষ

পশ্চিম তীরে নতুন ১৩০০ বাড়ি বানাবে ইসরায়েল

পশ্চিম তীরে নতুন ১৩০০ বাড়ি বানাবে ইসরায়েল

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

কানাডা উপকূলে ছড়াচ্ছে বিষাক্ত গ্যাস

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

১০ জন নিয়ে ড্র করলো পিএসজি

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

কলম্বিয়ার মাদক মাফিয়া আটক, পাঠানো হবে যুক্তরাষ্ট্রে

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

 র‌্যাব পরিচয়ে ব্যবসায়ীর ৮ লাখ টাকা ছিনতাই করে ধরা

© 2021 Bangla Tribune