X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

হাইকোর্টে সিআইডির প্রতিবেদন

রাজারবাগ দরবার শরিফে পীরের ‘মামলা সিন্ডিকেট’

আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৫

ঢাকার শান্তিবাগ এলাকার বাসিন্দা একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় নারী নির্যাতন, ধর্ষণ, চুরি, ডাকাতি, মানবপাচারসহ অন্যান্য অভিযোগে ৪৯টি মামলা দায়ের করা হয়। অপরাধ না করেও এসব মিথ্যা মামলার আসামি হওয়া থেকে বাঁচতে তিনি দ্বারস্থ হয়েছিলেন হাইকোর্টের। তার রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে মামলার বাদীদের খুঁজে বের করতে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডিকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। এরই ধারাবাহিকতায় সিআইডি হাইকোর্টে প্রতিবেদন দাখিল করে। প্রতিবেদনে একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর সিন্ডিকেট কর্তৃক হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের বিষয়টি ওঠে আসে।

আজ বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার রতন কৃষ্ণনাথ হাইকোর্টে এ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, রিট আবেদনকারীর বিরুদ্ধে এ পর্যন্ত সর্বমোট ৪৯টি মামলা ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় দায়ের করা হয়েছে। এরমধ্যে জিআর মামলা ২৩টি এবং সিআর মামলা ২৬টি। ইতোমধ্যে জিআর ১৫টি মামলা এবং সিআর ২০টি মামলায় আবেদনকারী আদালত থেকে খালাস পেয়েছেন। বর্তমানে ১৪টি মামলা আদালতে বিচারাধীন। এরমধ্যে ৮টি জিআর এবং ৬টি সিআর মামলা রয়েছে। রিট পিটিশনে পক্ষভুক্ত ২০ জন ব্যক্তি আদালতে বাদীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলা দায়ের করেছেন। তাদের ছাড়াও আরও একাধিক ব্যক্তির তথ্য পাওয়া গেছে, যারা আবেদনকারীর বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক একাধিক মামলার বাদী ও সাক্ষীর ভূমিকা পালন করেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, অধিকাংশ মামলার নথিপত্র সংগ্রহের পর পর্যালোচনা করে দেখা যায়, আবেদনকারীর বিরুদ্ধে একাধিক মানবপাচার, নারী নির্যাতন, বিস্ফোরক দ্রব্য আইন, হত্যার চেষ্টা মামলাসহ প্রতারণা, জাল-জালিয়াতি, ডাকাতির প্রস্তুতিসহ বিভিন্ন ধর্তব্য ও অধর্তব্য ধারায় ঢাকাসহ ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলাগুলো সম্পর্কে প্রকাশ্য ও গোপনে অনুসন্ধান করে জানা যায়, অধিকাংশ মামলার বাদী, সাক্ষী, ভুক্তভোগীরা কোনও না কোনোভাবে রাজারবাগ দরবার শরিফ এবং ওই দরবার শরিফের পীরের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুর রহমান তার মুরিদ ও অনুসারীদের দিয়ে মামলার মাধ্যমে সাধারণ মানুষকে বিভিন্ন প্রকার হয়রানির বিষয়ে ২০২০ সালে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন অভিযোগ পেয়ে তদন্ত কমিশনের মাধ্যমে একটি তদন্ত পরিচালনা করে বলেও ওই প্রতিবেদনে বলা হয়।

মানবাধিকার কমিশনের তদন্ত প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে দেখা যায়, রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুর রহমান ও তার অনুসারীরা তাদের দরবার শরিফের নিজস্ব স্বার্থ হাসিলের জন্য নিরীহ জনসাধারণের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করে আসছে। ওই প্রতিবেদনে একরামুল আহসান কাঞ্চনের বিরুদ্ধে রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর সিন্ডিকেটের করা হয়রানিমূলক মামলা দায়েরের বিষয়টি উল্লেখ করা হয়। এছাড়াও সংবাদপত্র ও টিভি মিডিয়ায়ও বিষয়টি বিভিন্ন সময়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন আকারে প্রচার হয়েছে বলে সিআইডির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

রিট আবেদনে পক্ষভুক্ত ব্যক্তিরা এবং তদন্তকালে পাওয়া ব্যক্তিরাই কাঞ্চনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে। তারা রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুর রহমানের অনুসারী এবং মুরিদ হিসাবে তথ্য-প্রমাণে প্রতীয়মান হয়েছে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়।

সিআইডির প্রতিবেদনে বলা হয়, একরামুল আহসান কাঞ্চনের তিন ভাই এবং এক বোন। ১৯৯৫ সালে তার বাবা ডা. আনোয়ারুল্লাহ মারা যান। রাজারবাগ দরবার শরিফের পিছনে ৩ শতাংশ জমির ওপর ৩ তলা পৈতৃক বাড়ি তাদের। বাবার মৃত্যুর পর কাঞ্চনের বড় ভাই আক্তর-ই-কামাল, মা কোমরের নেহার ও বোন ফাতেমা আক্তার পীর দিল্লুর রহমানের মুরিদ হন। কিন্তু রিট আবেদনকারী ও তার অপর ভাই ডা. কামরুল আহসান বাদলকে বিভিন্নভাবে প্ররোচিত করেও ওই পীরের মুরিদ করা যায়নি। এরইমধ্যে রিট আবেদনকারীর মা, ভাই ও বোনের কাছ থেকে তাদের পৈতৃক জমির অধিকাংশই পীরের দরবার শরিফের নামে হস্তান্তর করা হয়। আবেদনকারী ও তার ভাইয়ের প্রাপ্য অংশটুকু পীর এবং তার দরবার শরিফের নামে হস্তান্তর করার জন্য ওই দুই ভাইয়ের ওপর দরবার শরিফের পীর দিল্লুর এবং তার অনুসারীরা বিভিন্নভাবে চাপ দিয়ে আসছিল। কিন্তু তারা সম্পত্তি হস্তান্তর না করায় পীর দিল্লুর রহমান ও তার অনুসারীদের সঙ্গে আবেদনকারীর শত্রুতা সৃষ্টি হয়। শত্রুতার কারণেই আবেদনকারীর বিরুদ্ধে ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় এসব হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করে পীর দিল্লুর রহমান এবং তার অনুসারীরা।

সিআইডির ওই তদন্ত প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, মামলাগুলো দায়েরের পেছনে রাজারবাগ দরবার শরিফের পীর দিল্লুর রহমান এবং ওই প্রতিবেদনে উল্লেখিত সব অনুসারী তাদের অশুভ স্বার্থ হাসিলের জন্য প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে জড়িত।

তদন্তে ওঠে আসা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করতে আদালতের নির্দেশনা প্রার্থনা করে সিআইডি।

রিটকারী কাঞ্চনের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এমাদুল হক বসির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আমরা আজ কোর্টে সিআইডির প্রতিবেদন তুলে ধরেছিলাম। আদালত এ বিষয়ে আগামী ১২ সেপ্টেম্বর শুনানি ও আদেশের দিন নির্ধারণ করেছেন।

প্রসঙ্গত, এ ঘটনা তদন্ত করতে সিআইডিকে গত ১৪ জুন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিলেন।

/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

জাপানি শিশুদের নিয়ে বাবা-মায়ের টানাপড়েন: উভয়পক্ষের রিটের শুনানি ২৮ অক্টোবর

জাপানি শিশুদের নিয়ে বাবা-মায়ের টানাপড়েন: উভয়পক্ষের রিটের শুনানি ২৮ অক্টোবর

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ২২ নভেম্বর

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ২২ নভেম্বর

সাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে ৩ মামলায় অভিযোগ গঠন পেছালো

সাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে ৩ মামলায় অভিযোগ গঠন পেছালো

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৯

কোভিড-১৯, সংঘাত, ক্ষুধা, দারিদ্র্য ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বিশ্ব নানা সংকটে রয়েছে। এসব সংকট পরিষ্কার করে দিয়েছে যে সংহতির মাধ্যমেই এগিয়ে যেতে হবে। জাতিসংঘ দিবস উপলক্ষে এক বার্তায় জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস এসব কথা বলেন।

গুতেরেস বলেন, ‘বড় চ্যালেঞ্জগুলো মোকাবিলায় এবং টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে আমাদের একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন।’

ওই বার্তায় তিনি বলেন, ‘৭৬ বছর আগের বিপর্যয়কর এক সংঘাতের ছায়া থেকে বিশ্বের উত্তরণের প্রত্যাশার বাহন হিসেবে জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা পায়। আজ জাতিসংঘের নারী-পুরুষেরা সেই প্রত্যাশাকে বিশ্বজুড়ে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন।’

জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হবে। এ জন্য বিশ্বের সব জায়গার সব মানুষকে কোভিড-১৯ এর টিকা নিশ্চিত করা জরুরি।’

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘ সনদকে  ৭৬ বছর ধরে শক্তি জুগিয়েছে যেসব মূল্যবোধ যেমন: শান্তি, উন্নয়ন, মানবাধিকার, সবার জন্য সমান সুযোগ—এগুলোর প্রয়োজনীয়তা কখনও ফুরিয়ে যাবে না।’

গুতেরেস বলেন, ’আজ এই জাতিসংঘ দিবস পালনের সময় আমি এসব আদর্শে সবাইকে একতাবদ্ধ হওয়ার এবং জাতিসংঘের প্রতিশ্রুতি, সম্ভাবনা ও এই বিশ্ব সংস্থার প্রতি প্রত্যাশা পূরণের আহ্বান জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘সব মানুষের, বিশেষত দরিদ্রতম ও সবচেযে সুবিধাবঞ্চিত মানুষ, নারী ও মেয়েশিশু এবং শিশু ও তরণদের অধিকার ও মর্যাদা নিশ্চিত ও সুরক্ষিত করার মাধ্যমে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। বিশ্বে সংঘাত নিরসনের পথ অনুসন্ধানের মাধ্যমে আমাদের অগ্রসর হতে হবে।’

গুতেরেস বলেন, ‘আমাদের এই গ্রহটাকে রক্ষা করতে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় বড় ধরনের প্রতিশ্রুতি এবং তা বাস্তবায়নের মাধ্যমে এগিয়ে যেতে হবে। অন্তর্ভুক্তিমূলক, আন্তঃসম্পর্কযুক্ত ও কার্যকর বৈশ্বিক সুশাসন প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে আমাদের অগ্রসর হতে হবে, যার বিস্তারিত আমার সাম্প্রতিক প্রতিবেদন ‘আওয়ার কমন অ্যাজেন্ডা’য় আমি তুলে ধরেছি।’

 

/এসএসজেড/আইএ/

সম্পর্কিত

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

জাতিসংঘ দিবস আজ

জাতিসংঘ দিবস আজ

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:২৪

রাজধানীর উত্তর বাড্ডার সাতারকুল এলাকায় একটি গোডাউনে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। শনিবার (২৩ অক্টোবর)  রাত সাড়ে ১১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

এর আগে রাত ৯টা ৫৮ মিনিটের দিকে এ আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভাতে কাজ করে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মিডিয়া শাখার কর্মকর্তা মো. রায়হান এসব তথ্য জানান।

রায়হান বলেন, ‘রাজধানীর উত্তর বাড্ডা সাতারকুল রোডের সাত তলা ভবনের নিচ তলায় আগুন লাগার সংবাদ পাই আমরা। ৬টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করেছে। পরে আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো যাবে।’

ফায়ার সার্ভিস জানায়, সাতারকুলের জিএম বাড়ি এলাকার তিন তলা ভবনের নিচ তলায় জ্যোতি লিকার স্টোরের কেমিক্যাল হতে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। আগুনে দ্বিতীয় তলার কাপড়ের দোকান এবং তৃতীয় তলার ইলেকট্রনিক ওয়ার্কসপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

 

 

/আইটি/আইএ/

সম্পর্কিত

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

জাতিসংঘ দিবস আজ

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০৫

আজ জাতিসংঘ দিবস। ১৯৪৫ সালের ২৪ অক্টোবর আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যক্রম শুরু করে জাতিসংঘ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য গঠিত এই সংস্থা কালের পরিক্রমায় কলেবরে অনেক বেড়েছে। ৫১টি সদস্য রাষ্ট্র নিয়ে ১৯৪৫ সালে যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানে এর সদস্য সংখ্যা ১৯৩। সারা পৃথিবীব্যাপী বিভিন্ন দ্বন্দ্ব নিরসনে, শান্তি প্রতিষ্ঠায় ও উন্নয়নের জন্য কাজ করছে জাতিসংঘ। ১৯৪৫ সালে জাতিসংঘ ভবন

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভের পর জাতিসংঘের সদস্য হওয়ার জন্য চেষ্টা করে বাংলাদেশ। ১৯৭২ সালে বাংলাদেশের আবেদন চীনের ভেটোর কারণে বাতিল হয়ে যায়। পরবর্তীতে ১৯৭৪ সালে বাংলাদেশ সদস্যপদ লাভ করে। ওই বছরই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রথমবারের মতো বাংলায় জাতিসংঘে বক্তব্য রাখেন।

প্রথম থেকেই বহুপাক্ষিক ব্যবস্থার সমর্থক বাংলাদেশ সবসময় জাতিসংঘের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছে এবং করছে। শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীতে অবদান রাখছে এমন দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। তবে একই সঙ্গে সংস্থাটির বিভিন্ন কার্যক্রম নিয়ে যেমন সমালোচনা রয়েছে তেমনি অনেক কাজ করতে সফল হয়নি বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠানটি।

এ বিষয়ে জেনেভাতে রাষ্ট্রদূত এবং জাতিসংঘে স্থায়ী প্রতিনিধি মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, সমালোচনা ও অসফলতা থাকলেও জাতিসংঘের কোনো বিকল্প নেই।

এটি একমাত্র বৈশ্বিক প্রতিষ্ঠান যেখানে ধনী-গরিব, ছোট-বড় সব দেশই সদস্য এবং একমাত্র প্ল্যাটর্ফম যেখানে সবাই একসঙ্গে আলোচনা করতে পারে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, ছোট বা কম শক্তিশালী দেশগুলো এখানে তাদের কথা বলতে পারে যা অন্য জায়গায় বলা সম্ভব হয় না।

জাতিসংঘকে কিভাবে আরও সফল করা যায় ‑ জানতে চাইলে তিনি বলেন, জাতিসংঘ একটি রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান এবং এটি ততটুকু সফল হবে যতটুকু এর সদস্য রাষ্ট্রগুলো চাইবে।

জাতিসংঘের সফলতা সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সদিচ্ছার ওপর নির্ভর করে জানিয়ে তিনি বলেন, এজন্য সবচেয়ে বেশি দায়িত্ব তাদের।

/এসএসজেড/এমএস/

সম্পর্কিত

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বাংলাদেশে ‘সাম্প্রদায়িক হামলা’র নিরপেক্ষ তদন্ত চায় জাতিসংঘ

বাংলাদেশে ‘সাম্প্রদায়িক হামলা’র নিরপেক্ষ তদন্ত চায় জাতিসংঘ

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

মালিতে ১৪০ পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদকে ভূষিত

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসায় ইউএনডিপি এবং আইওএম

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসায় ইউএনডিপি এবং আইওএম

বিএফইউজের সভাপতি ওমর ফারুক ও মহাসচিব দীপ আজাদ

আপডেট : ২৩ অক্টোবর ২০২১, ২৩:৫২

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে’র কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার উপপ্রধান বার্তা সম্পাদক ওমর ফারুক এবং মহাসচিব পদে নাগরিক টিভির হেড অব নিউজ দীপ আজাদ নির্বাচিত হয়েছেন। খায়রুজ্জামান কামাল নির্বাচিত হয়েছেন কোষাধ্যক্ষ পদে।

শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাতে ফল ঘোষণা করা হয়। এ দিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

এছাড়া, সহসভাপতি পদে মধুসূদন মণ্ডল, যুগ্ম মহাসচিব পদে শেখ মামুনুর রশিদ ও দফতর সম্পাদক পদে সেবিকা রানী নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাহী পরিষদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন চার জন; তারা হলেন, উম্মুল ওয়ারা সুইটি, উৎপল কুমার সরকার, নূরে জান্নাত আখতার ও শেখ নাজমুল হক সৈকত। 

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক শাহজাহান সরদার। নির্বাচনে ভোট পর্যবেক্ষণের জন্য শ্রম অধিদফতরের প্রতিনিধি নিযুক্ত ছিলেন।

 

/এসটিএস/আইএ/

সম্পর্কিত

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

বাড্ডায় ফার্নিচার গোডাউনে আগুন

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:১০

রাজধানীর উত্তর বাড্ডার সাতারকুল এলাকায় একটি ফার্নিচার গোডাউনে আগুন লেগেছে। শনিবার (২৩ অক্টোবর) রাত ৯টা ৫৮ মিনিটের দিকে এ আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নেভাতে কাজ করছে।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের মিডিয়া শাখার কর্মকর্তা মো. রায়হান এসব তথ্য জানান।

রায়হান বলেন, ‘রাজধানীর উত্তর বাড্ডা সাতারকুল রোডের সাত তলা ভবনের নিচ তলায় আগুন লাগার সংবাদ পাই আমরা। এখন পর্যন্ত ৬টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে এলে পরে আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো যাবে।’

ফায়ার সার্ভিস জানায়, সাতারকুলের জিএম বাড়ি এলাকার তিন তলা ভবনের নিচ তলায় জ্যোতি লিকার স্টোরের কেমিক্যাল হতে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। আগুনে দ্বিতীয় তলার কাপড়ের দোকান এবং তৃতীয় তলার ইলেকট্রনিক ওয়ার্কসপ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।’

 

/আরটি/আইএ/

সম্পর্কিত

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বড় চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় একসঙ্গে কাজ করা প্রয়োজন: গুতেরেস

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

বাড্ডার আগুন নিয়ন্ত্রণে

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জাপানি শিশুদের নিয়ে বাবা-মায়ের টানাপড়েন: উভয়পক্ষের রিটের শুনানি ২৮ অক্টোবর

জাপানি শিশুদের নিয়ে বাবা-মায়ের টানাপড়েন: উভয়পক্ষের রিটের শুনানি ২৮ অক্টোবর

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ২২ নভেম্বর

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ১১ মামলার শুনানি ২২ নভেম্বর

সাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে ৩ মামলায় অভিযোগ গঠন পেছালো

সাংবাদিক কাজলের বিরুদ্ধে ৩ মামলায় অভিযোগ গঠন পেছালো

কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে চাঁদা বা অর্থ সহায়তা না নেওয়ার নির্দেশ

কমিউনিটি পুলিশিং ডে উপলক্ষে চাঁদা বা অর্থ সহায়তা না নেওয়ার নির্দেশ

কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসের জামিন

কাউন্সিলর চিত্তরঞ্জন দাসের জামিন

বদরুন্নেসার সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

বদরুন্নেসার সহকারী অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

ই-জুডিশিয়ারি ও ই-কোর্ট রুম স্থাপনের অগ্রগতি ফের জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

ই-জুডিশিয়ারি ও ই-কোর্ট রুম স্থাপনের অগ্রগতি ফের জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট

যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠন না হওয়ায় ৪০ সচিবকে বিবাদী করে রিট

যৌন হয়রানি প্রতিরোধে কমিটি গঠন না হওয়ায় ৪০ সচিবকে বিবাদী করে রিট

এবার জাপানে থাকা ছোট মেয়েকে হাজির চেয়ে বাবার রিট

এবার জাপানে থাকা ছোট মেয়েকে হাজির চেয়ে বাবার রিট

সর্বশেষ

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

মালদ্বীপে আকর্ষণীয় হলিডে প্যাকেজ ঘোষণা ইউএস-বাংলার

মালদ্বীপে আকর্ষণীয় হলিডে প্যাকেজ ঘোষণা ইউএস-বাংলার

‘ইলেকট্রনিক্স শিল্প গার্মেন্টসকে ওভারটেক করবে’

সালমান এফ রহমানের ওয়ালটন কারখানা পরিদর্শন‘ইলেকট্রনিক্স শিল্প গার্মেন্টসকে ওভারটেক করবে’

এসডিজি অর্জনে ভূমিকা রাখবে উম্মুক্ত ডেটা

এসডিজি অর্জনে ভূমিকা রাখবে উম্মুক্ত ডেটা

© 2021 Bangla Tribune