X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

এক্সক্লুসিভ

অভিমান নিয়ে বাংলাদেশ ছেড়ে ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদে পৌঁছানোর গল্প

আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:০৫

ঢাকায় প্রায় দুই দশকের সংগীত ক্যারিয়ার। লিখে, সুর করে ও গেয়ে তৈরি করেছেন স্বতন্ত্র একটি অবস্থান। সফলতার কমতি না থাকলেও ছিলো হতাশা। যাকে বলা যায়, মনের কথাগুলো গানে গানে সঠিকভাবে বলতে না পারার জটিলতা। ছিলো গানের কপিরাইট-রয়্যালটি বাস্তবায়ন নিয়েও যুদ্ধ। সম্ভবত এসব বেদনা ভুলতে তার পরবাস জীবন বেছে নেওয়া। ২০১৬ সালে পাড়ি জমান যুক্তরাজ্যে। আগে থেকেই সেখানে ছিলেন অর্ধাঙ্গিনী স্মৃতি ফামি। সেখানে গিয়েও প্রথম চার বছর সঙ্গী ছিলেন সংগীতের। বানিয়েছেন গান, পড়েছেন মিউজিক নিয়ে। তবে ২০২০ সালে মহামারির বিশ্ব চোখ তুলে তাকালো এই সংগীতশিল্পীর দিকে। বনে গেলেন পুরোদস্তুর অভিনেতা! হুম, হলিউড অভিনেতা। নেটফ্লিক্স, ওয়ার্নার ব্রাদার্স, অ্যামাজন, সনির মতো আন্তর্জাতিক ওটিটি প্ল্যাটফর্মের দারুণ সব সিনেমা ও ওয়েব সিরিজে অভিনয় করছেন নিয়মিত। অভিনয়ের সুবাদে যিনি সম্প্রতি যুক্ত হলেন ব্রিটিশ রাজপরিবারের গল্পেও!  ব্রিটিশ অ্যাক্টর ও পারফর্মার হিসেবে এরমধ্যে এনলিস্টেড হয়েছেন। আর এসব বিষয়েই ‘বালিকা’-খ্যাত বাংলার সংগীতশিল্পী তথা ব্রিটিশ তরুণ অভিনেতা প্রীতম আহমেদের সঙ্গে কথা হলো বাংলা ট্রিবিউন-এর। 

বাংলা ট্রিবিউন: কেমন আছেন?

প্রীতম আহমেদ: পৃথিবী প্রায় উন্মুক্ত হওয়ার পথে হাঁটলেও আমি আটকে আছি কোয়ারেন্টিন আর কোভিড টেস্টের চক্করে! গত দেড় বছর ধরেই চলছে এভাবে। সর্বশেষ গতকাল (৯ সেপ্টেম্বর) ছাড়া পেলাম টানা ১৪ দিনের বন্দি জীবন থেকে। শুটিং ছিলো তিন দিনের। বাকি দিন কোয়ারেন্টিন আর টেস্ট। এরমধ্যে পর পর ৬ বার কোভিড টেস্ট করেছি। অথচ আমরা সবাই একই হোটেলেই ছিলাম।

বাংলা ট্রিবিউন: এটা কোন কাজের জন্য?

প্রীতম আহমেদ: সনি পিকচার্স প্রযোজিত শিশুদের জন্য একটা সিনেমা। বাজেট ৩৬ মিলিয়ন ডলার। সিনেমার মূল চরিত্রগুলোতে শিশুরাই, অভিভাবক হিসেবে এখানে আমিসহ অভিনয় করছেন অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড উইনার এমা স্টোন, এমা থমসনসহ অনেকে।

বাংলা ট্রিবিউন: ছবিটির নাম বা গল্পটা প্রসঙ্গে বলা যাবে? যদি কোনও বাধ্যবাধকতা না থাকে।

প্রীতম আহমেদ: ছবির নাম একদমই বলা যাবে না। ইনফ্যাক্ট ওদের বাইরে এসে কোনোকিছুই বলা যাবে না। দেশের মিডিয়া বলেই কিছু কিছু বলছি। এই ছবিটির প্রেক্ষাপট এমন, শিশুদের কল্পনা ও স্বপ্নের জগতকে মজবুত করতে হয় কঠিন বিষয়গুলোর বিনোদনমূলক উপস্থাপনার মাধ্যমে। তবেই শিশুটি বড় হয়ে দেশ গড়ায় নিজেকে সম্পৃক্ত করতে পারবে। আমরা আমাদের শিশুদের শুধু বাঁচার স্বপ্ন দেখাই, কিন্তু কী নিয়ে বাঁচবে, বেঁচে গেলে কি করবে সেসব কিছু বলি না। আমি জানি না, আমার দেশের শিশুদের জন্য শেষ কবে সিনেমা নির্মিত হয়েছিলো! আমরা এসব নিয়েই ভাবলামই না। 

ব্রিটিশ রাজপরিবার নিয়ে নেটফ্লিক্সের ‘দ্য ক্রাউন’ ছবিতে অভিনয় করলেও পোস্টারে নেই প্রীতম আহমেদ বাংলা ট্রিবিউন: দেশ নিয়ে আমরা হতাশার গল্পে না যাই। বরং ব্রিটিশ রাজপরিবারে আপনার যুক্ত হওয়ার গল্পটা শুনি।

প্রীতম আহমেদ: ব্রিটিশ রাজপরিবারের গল্প নিয়ে বিখ্যাত সিরিজ হচ্ছে ‘দ্য ক্রাউন’। এর একটি বিশেষ পর্বে বাংলাদেশ হাইকমিশনারের চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছি আমি। বিষয়টি উল্লেখযোগ্য তিনটি কারণে। প্রথমটি হলো ‘দ্য ক্রাউন’-এর মতো ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটের সিরিজে কাজ করা। দ্বিতীয়টি সনি পিকচার্সের মতো পৃথিবীর প্রথম শ্রেণির প্রযোজনা সংস্থার সাথে কোনও বাংলাদেশি শিল্পীর চুক্তিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করা। এবং শেষটা হলো বাংলাদেশের পোশাক ও দেশের নামটি বিশ্বজুড়ে উপস্থাপন করার সুযোগ পাওয়া।

বাংলা ট্রিবিউন: ছবিটির শুটিং কি সরাসরি রাজপ্রাসাদেই হলো?

প্রীতম আহমেদ: তা হবে কেন! পুরো রাজপ্রাসাদই বানানো হয়েছে শুটিং সেটে। যা মুভিতে দেখে বোঝার উপায় থাকবে না, আসল না নকল!

বাংলা ট্রিবিউন: বিধিনিষেধের কারণে অনেক কিছুই হয় তো বলতে পারবেন না। কিন্তু একটু ধারণা তো দিতে পারেন- অন্য কাজগুলো প্রসঙ্গে।

প্রীতম আহমেদ: ঠিকই বলেছেন। এখানে এইসব বিষয়ে খুবই সিরিয়াস। কারণ আমাদের ওখানে তো কাজের চেয়ে সেলফি আর আগাম নিউজই বেশি বেশি হয়। বলতে দ্বিধা নেই, আমি নিজেও সেই প্র্যাকটিসের অংশ ছিলাম। বাট এখানে এসে দেখলাম পরিস্থিতি পুরো উল্টো। এখানে কাজটাই মুখ্য। যাইহোক, এখানে প্রথমত আমি ভিনদেশি। অভিনয়েও নতুন। মাত্র তো এক বছর হলো কাজ শুরু করলাম। তবে এই করোনাকালেও আমি যা করেছি বাংলাদেশি হিসেবে- সেটি অন্য আর কেউ করেছে বলে আমার জানা নেই। 

বাংলা ট্রিবিউন: কাজগুলোর নাম-পরিচয় বা ধরন বলা যাবে?

প্রীতম আহমেদ: তা বলা যাবে না। তবে এটুকু বলতে পারি, এরমধ্যে কিছু উল্লেখযোগ্য সিনেমায় আমার মুখ দেখা যাবে বিশ্ববরেণ্য অভিনেত্রী ক্লেইরি ফয়, এমা স্টোন, এলিজাবেথ ডেভিকি, জেমস বন্ড বা পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ানের স্যার জোনাথন প্রাইস, হ্যারিপটার-এর ইমেলডা স্টাটান, ডমেনিক ওয়েস্ট- এমন অভিনেতাদের সঙ্গে। আপাতত এটাই কম কি!

বাংলা ট্রিবিউন: এরা আসলেই বিশ্বখ্যাত অভিনেতা। অনুভূতি বা অভিজ্ঞতা কেমন এক সেটে কাজ করার?

প্রীতম আহমেদ: সাধারণভাবে দেখতে গেলে এদের মতো শিল্পী বা পরিচালকদের সেটে ছায়া হওয়াটাও সৌভাগ্যের বিষয়। সেখানে আমি চরিত্র রূপায়ণ করছি তাদের সঙ্গে, এটা আমার ব্যক্তিগত জীবনের শৈল্পিক অর্জন বলেই ধরে নিচ্ছি। কারণ, বিষয়টি এতো সহজ ও সরল ছিলো না।

‘দ্য ক্রাউন’ ছবিতে বাংলাদেশ অ্যাম্বাসির হাইকমিশনার হিসেবে এই গেটআপে আসছেন প্রীতম আহমেদ বাংলা ট্রিবিউন: যা বলছেন ধরে নেওয়া যাক সবই শতভাগ সত্যি। কিন্তু মূল সত্যিটা তো ভিজ্যুয়াল বা পোস্টার বা ট্রেলার বা প্রমোতে নিহিত। যেখানে আপনার মুখ দেখা যেতে পারে!

প্রীতম আহমেদ: মিথ্যে বলে তো আর আমি ঢালিউডের শাকিব খানের পদবিটা নিয়ে নিচ্ছি না! ফলে মিথ্যের কারণ নেই। সব ডকুমেন্টস আমার ড্রয়ারে আছে। সমস্যা একটাই এখানকার বিধিনিষেধ।

এবার কাজের কথায় আসি। গত এক বছরে সনি পিকচার্স, স্কাই টিভি, অ্যাপল টিভি, বিবিসি প্রোডাকশন, ওয়ার্নার ব্রাদার্স, অ্যামাজন ও নেটফ্লিক্স-এর মোট ৫টি সিনেমা এবং ৮টা সিরিজে কাজ করেছি। যার বোশিরভাগই প্রকাশ হতে থাকবে ২০২২ সাল থেকে। কিছু সিনেমায় অডিও প্রোডাকশনের কাজও করছি কিন্তু চুক্তির কারণে এখনই কোনও নাম বলতে পারছি না। 

আরেকটি কথা, এসব কাজের পোস্টারে আমার ছবি আশা করা আর আমাকে বিব্রত করা সমান কথা হবে। এরমধ্যে ‘দ্য ক্রাউন’-এর পোস্টার রিলিজ হয়েছে। আমার এক বন্ধু ঢাকা থেকে গালি দিয়ে বললো, তোর ছবি কই পোস্টারে? জবাবে বললাম, আমি কি প্রিন্স চার্লস! ফলে একটু সময় লাগবে। আমাকে সময় দিন। মনে রাখতে হবে, আমাদের কমিউনিটি (বাংলাদেশি) এখানে (যুক্তরাজ্য) রান্না ও রেস্টুরেন্ট-এর জন্য সমাদৃত। ফলে আমাকে যদি বাবুর্চি চরিত্রের বাইরে অন্য কোনও চরিত্রে অভিনয় করতে দেখেন, সেটাই আমার বড় অর্জন।

বাংলা ট্রিবিউন: একটু পেছনে যাওয়া দরকার। ২০১৬ সালে ঢাকা থেকে লন্ডন গিয়েছেন। ২০ সালে ঢুকে পড়লেন হলিউড প্রজেক্টে। ২১ সালের মধ্যে ১৫টি কাজ! কেমন করে সম্ভব?

প্রীতম আহমেদ: এক কথায় বললে- ভাগ্য। ভাগ্যই আমাকে এখানে টেনে এনেছে। এখন আমারা এটাই পেশা। অভিনয়। অথচ আমার শিরায় শিরায় বইছে মিউজিক। মিউজিকের জন্য আমি ঘর, প্রেম, দেশ- সব ছেড়েছি। দিনের পর দিন জীবননাশের হুমকি পেয়েছি। মামলায় জড়িয়েছি। নিজে দেশে এখন আমি যাযাবর। ঢাকায় গিয়ে থাকার ঘর খুঁজে পাই না। এরসবটাই মিউজিকের জন্য। সেই আমি এখন ফুলটাইম ব্রিটিশ অভিনেতা!

এবার আসি প্র্যাকটিক্যাল আলাপে। লন্ডনের মিডলসেক্স ইউনিভার্সিটিতে বিএ অনার্স পড়ছি এখন। আমার ইউনিভার্সিটির ফিল্ম ডিপার্টমেন্টের বন্ধুদের মাধ্যমেই ব্রিটিশ সিনেমার কাস্টিং ডিরেক্টরদের কাছাকাছি পৌঁছাতে পেরেছি। তারা আমার জন্য উপযুক্ত চরিত্রে অভিনয়ের অডিশনে ডাকেন। সেভাবেই নিয়মিত কাজ করছি। যদিও ইংল্যান্ড বা আমেরিকার সমাজের গল্পে আমার গায়ের রং বা চেহারার আকৃতির মানুষের তেমন কোনও ভূমিকা নেই, তাই চট করেই ইংরেজ সমাজের সিনেমায় লিডিং ক্যারেক্টার পাওয়ার আশাও করছি না। 

শুটিংয়ে সহশিল্পীর সঙ্গে প্রীতম বাংলা ট্রিবিউন: নেটফ্লিক্স হোক আর ব্রিটিশ রাজপ্রাসাদ; দেশটাকে মিস করেন না? এখানকার বিটিভি আর পাটুয়াটুলি থেকেই তো আপনার উত্থান! 

প্রীতম আহমেদ: আমি আজও মনে-প্রাণে বাঙালি। বাংলা ভাষা, সাহিত্য, শব্দচয়ন ও সুরচর্চার বাইরে আমার কোনও আরাধনা ছিলো না। ডাক্তারি বা ইঞ্জিনিয়ারিং না পড়ে সংগীত নিয়ে পড়ালেখা করেছি। গানের মান ও দর্শন নিয়ে এতোটাই সিরিয়াস ছিলাম, বিয়ে, গায়ে হলুদ বা ক্লাব-বারে হালকা গান গেয়ে সহজ পথে জনপ্রিয় হবার বাসনা করিনি কখনও। বছরের পর বছর সাহিত্য ও সংগীত চর্চা করে নিজেকে যতটা পেশাদার কাজের জন্য প্রস্তুত রেখেছি, ততোটা সুযোগ আমি দেশের মানুষের কাছ থেকে পাইনি। এটা অভিযোগ বা বিচার নয়, অভিমান। 

আমার সোনার বাংলায় বছরে যে কয়টা সিনেমা হয় ঐসব গানের কাজ চাচা-ভাতিজা সম্পর্কের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে। জীবনের যে সময়টা এভাবে চলে গেছে সেটা নিয়ে আর আফসোস করতে চাই না। এখানে এখন আমি কত বড় বড় কাজ করছি সেটা বড় কথা নয়, পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শিল্পী ও পরিচালকদের সাথে সময় কাটাতে পারছি, শিখতে পারছি- সেটাই আমার আত্মতৃপ্তি। দেশেও আমি এই শিল্পের খোঁজটাই করেছি, পাইনি তার কানাকড়ি। 

বাংলা ট্রিবিউন: অভিনয় করতে করতে, বিশ্ব তারকাদের ছায়াতলে থেকে থেকে- নিজ সংগীতটাকে এড়িয়ে যাচ্ছেন না তো! বলছি, সংগীতের প্রীতম আহমেদ হারিয়ে যাচ্ছে না তো?

প্রীতম আহমেদ: আমার যেসব বন্ধুরা বড় বড় ওপেন এয়ার কনসার্ট থেকে আমার নাম কেটে দিয়েছিলো, বিভিন্ন সিনেমার পরিচালককে আমার সম্পর্কে ভুলভাল বলে ফিরিয়ে নিয়েছে- তাদের এখন খুব মিস করি আমি। আর যাইহোক, দিনশেষে তো ওরা আমার আড্ডাতেই আসতো, না হয় আমি যেতাম। দেখা হতো, কথা হতো- এখন সেটা হয় না। আমি সংগীতকেন্দ্রিক সেই যন্ত্রণাগুলো এখন মুছে ফেলেছি। কিন্তু সংগীতটাকে রেখে দিয়েছি পরম মমতায়।

এখানে (লন্ডন) সংগীতে আন্তর্জাতিক মানের উচ্চশিক্ষা নিচ্ছি, যেন একটা সময় পৃথিবীর যে কোনও কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর যোগ্যতা অর্জন করি। নিজেকে এতটাই যোগ্য করে তুলতে চাই, যাতে সংগীতের আর কোনও ক্ষুদ্র প্রতিযোগীদের সাথে লড়াই করতে না হয়। আন্তর্জাতিক সংগীতে আমার সংগীত ভাবনা ও গবেষণার প্রতিধ্বনি দিতে চাই।   

অন্য এক শুটিংয়ে সহশিল্পীদের সঙ্গে প্রীতম বাংলা ট্রিবিউন: শেষ করা যাক সামনের পরিকল্পনা নিয়ে।

প্রীতম আহমেদ: অভিনয় এখন আমার মূল পেশা। তবে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনায় রয়েছে মিউজিকই। আমি চাই ব্রিটেনের কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ইস্ট-ওয়েস্ট মিউজিকের ফিউশন বিষয়ে শিক্ষকতা করার। এই লক্ষ্যে  পড়াশোনা করছি। এরমধ্যে সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং কোর্সও শেষ করেছি। আর প্রায় প্রতিদিনই একটু একটু একটু করে গান বাঁধছি। যা নিয়মিতভাবেই প্রকাশ হচ্ছে এবং হবে আমার ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজে। সম্প্রতি ৮০’র দশকের গেটআপে সহশিল্পীর সঙ্গে প্রীতম আহমেদ

/এমএম/

সম্পর্কিত

বাংলাদেশের গায়ক ব্রিটিশ বিজ্ঞাপনের মডেল! (ভিডিও)

বাংলাদেশের গায়ক ব্রিটিশ বিজ্ঞাপনের মডেল! (ভিডিও)

এ সপ্তাহে নেটফ্লিক্সে নতুন

এ সপ্তাহে নেটফ্লিক্সে নতুন

মানি হাইস্ট-এ ববি নাকি বিরাট কোহলি, নেটপাড়ায় শোরগোল

মানি হাইস্ট-এ ববি নাকি বিরাট কোহলি, নেটপাড়ায় শোরগোল

থ্রিলারগুলো আছে নেটফ্লিক্সে

থ্রিলারগুলো আছে নেটফ্লিক্সে

৫০-এ সালমান শাহ

তিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:৫৪

সালমান ও শাকিব এমন রীতি ঢালিউডে খুব একটা মেলে না, সাম্প্রতিক সময়ে যেমনটা দেখাচ্ছেন শাকিব খান। সতীর্থদের জন্ম ও মৃত্যুদিনে- নিয়মিত নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে স্মরণ করছেন এই শীর্ষ নায়ক।

যেমন ঢালিউডের ক্ষণজন্মা বরপুত্র সালমান শাহকে উদ্দেশ করে শাকিব খান দাবি করেন, ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক সালমান শাহ। শনিবার দিবাগত মধ্যরাতে (১৯ সেপ্টেম্বর রাত ১২টা ১ মিনিট) সালমান শাহ পা রাখলেন ৫০তম জন্মবার্ষিকীতে। ঠিক সেই ক্ষণে শাকিব খান তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লেখেন দীর্ঘ শুভেচ্ছা পত্র।  

যাতে তিনি উল্লেখ করেন এভাবে, দ্যুতিময় এক শিল্পীর নাম সালমান শাহ। বেঁচে থাকলে তিনি আজ (১৯ সেপ্টেম্বর) ৫০ বছরে পা রাখতেন। হয়তো বয়সের ছাপ ফুটে উঠতো তাঁর হাসিতে। গলায় ভর করতো গাম্ভীর্য। দুয়েকটা সাদা চুল দেখা গেলেও তাঁর নায়কসুলভ ব্যক্তিত্বের সামনে হয়তো কেউ পাত্তাই পেত না! তাকে নিয়েই ৫০তম জন্মদিনের সুর্বণজয়ন্তী পালন করতাম আমরা।
 
সালমান শাহকে অল্প সময়ে হারানোর ক্ষত নিয়ে শাকিব খান বলেন, ‘বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে ক্ষণজন্মা এ মানুষটি ২৫ বছর আগে চলে গেলেও আজও আমার মনে সেই ২৫ বছরের তরুণ নায়ক হয়ে দাগ কেটে আছেন। যে দাগটা তাঁর প্রস্থানের এতো বছর পরেও জ্বলজ্বলে।’

সালমান শাহের জনপ্রিয়তা টেনে বলেন, ‘অভিনয় জীবনে অল্প সময়ে এতো মানুষের ভালোবাসা পাওয়া যে সত্যি দুর্লভ ভাগ্যের ব্যাপার, সেটা সালমান শাহকে দেখলে বোঝা যায়। আজও বাংলার মানুষ তাকে আবেগ ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে, ভবিষ্যতেও করে যাবে।
একজন মানুষ অমরত্ব পায় তার কর্মের মাধ্যমে। সালমান শাহ নামক মহান শিল্পী অকালে চলে গিয়েও আমাদের কাছে অমর হয়ে আছেন। তিনি বেঁচে থাকবেন তার ভক্ত অনুরাগীদের হৃদয়ে, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে।’ 

আজ (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢালিউডের ক্ষণজন্মা নক্ষত্র সালমান শাহের ৫০তম জন্মদিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে নানার বাড়ি সিলেটের জকিগঞ্জে তার জন্ম। মৃত্যু ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর। মাত্র ২৫ বছরের জীবন।

সালমান শাহ-পরবর্তী সময়ে যারা চলচ্চিত্রে নায়ক হওয়ার জন্য এসেছেন তারা প্রত্যেকেই বলেছেন, বলছেন এখনও- সালমান শাহ-ই ছিলেন তাদের অনুপ্রেরণার প্রধান উৎস। মাত্র চার বছরে ২৭টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। সব শ্রেণির দর্শক-সমালোচকদের মন জয় করে তারকা হওয়ার জন্য সময়টা যথেষ্ট নয়। এরমধ্যে প্রায় দশটি অসমাপ্ত ছবি। প্রথম ছবি ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ থেকেই দর্শকদের মনে জায়গা করে নিয়েছিলেন।

হয়তো অল্প সময়ের জন্য এসেছিলেন বলেই এত দ্যুতি ছড়াতে পেরেছিলেন, কেটে গেছেন দাগ। যে দাগটা তার প্রস্থানের টানা এতো বছর পরেও জ্বলজ্বলে। তার অনুপস্থিতি আর অকাল প্রস্থান আজও পোড়াচ্ছে অগুনতি মানুষের মন।

১৯৮৫/৮৬ সালের দিকে হানিফ সংকেতের গ্রন্থনায় ‘কথার কথা’ নামে একটি ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান প্রচার হতো। এর কোনও একটি পর্বে ‘নামটি ছিল তার অপূর্ব’ নামের একটি গানের মিউজিক ভিডিও পরিবেশিত হয়। হানিফ সংকেতের কণ্ঠে গাওয়া এই মিউজিক ভিডিওতে মডেল হওয়ার মাধ্যমেই সালমান শাহ মিডিয়ায় প্রথম সবার নজর কাড়েন। তখন অবশ্য তিনি ইমন নামেই পরিচিত ছিলেন।

আরও কয়েক বছর পর প্রয়াত নাট্যজন আব্দুল্লাহ আল মামুনের প্রযোজনায় ‘পাথর সময়’ ধারাবাহিক নাটকে একটি ছোট চরিত্র এবং কয়েকটি বিজ্ঞাপনচিত্রেও কাজ করেছিলেন। তবে রুপালি পর্দায় সালমান সাম্রাজ্যের সূচনা হয় ৯০ দশকের শুরুর দিকে সোহানুর রহমান সোহানের ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মধ্য দিয়ে। বাকিটা ইতিহাস। সালমান শাহ

গায়ক হিসেবেও সালমানের পরিচিতি ছিল। ছোটবেলা থেকেই শিল্প-সংস্কৃতির প্রতি দারুণ আগ্রহ ছিল তার। বন্ধুমহলে সবাই তাকে কণ্ঠশিল্পী হিসেবে চিনতেন। ১৯৮৬ সালে ছায়ানট থেকে পল্লীগীতিতে উত্তীর্ণ হয়েছিলেন তিনি।

/এমএম/

সম্পর্কিত

সভাপতি প্রার্থী শাকিব খান, সম্পাদক পদে জায়েদ, পরীমণি অনিশ্চিত!

সভাপতি প্রার্থী শাকিব খান, সম্পাদক পদে জায়েদ, পরীমণি অনিশ্চিত!

ছোট পর্দার জন্য জুটি বাঁধলেন শাকিব-ফারিয়া

ছোট পর্দার জন্য জুটি বাঁধলেন শাকিব-ফারিয়া

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

‘এলেন, দেখলেন, জয় করলেন আবার চলেও গেলেন’

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

পর্দায় সালমান শাহকে দেখেই নায়ক হওয়ার ইচ্ছে জেগেছিল: নিরব 

গেয়েও মুগ্ধ করলেন জয়া আহসান (ভিডিও)

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:১৫

জয়া আহসান, থেমে থেমে প্রতিভার বিস্ফোরণ ঘটানোই যেন তার কাজ! ঢালিউড, টলিউড হয়ে বলিউডে পৌঁছানোর গল্প তো সবারই জানা। দুই বাংলার সেরা পুরস্কারগুলোতেও রয়েছে তার নিয়মিত অংশগ্রহণ। 

মাঝে অভিনয়ের বাইরে দাঁড়িয়ে একটি সিনেমায় গাইবার কথা, সেটির খবরও মিলেছে ২০১৯-এর দিকে। এবার পাওয়া গেলো তার ফল। উন্মুক্ত হলো জয়ার গাওয়া প্রথম গান ‌‘সুখের মাঝে’। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কথা-সুরের গানটি যে শুধু গাইবার জন্য গাওয়া, তা কিন্তু নয়। এই গাওয়াটিও অভিনয়ের স্বার্থেই। গানটি ব্যবহার হলো সদ্য মুক্তি পাওয়া অতনু ঘোষের ‘বিনিসুতোয়’ চলচ্চিত্রে। যা কলকাতায় মুক্তি পেয়েছিল ২০ আগস্ট। ছবিতে গানটির সঙ্গে জয়া আহসান ঠোঁটও মেলালেন। তার সঙ্গে ছিলেন নায়ক ঋত্বিক চক্রবর্তী।
 
ছবি মুক্তির পর গানটি সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে ইকো বেঙ্গলি মিউজিকের ইউটিউব চ্যানেলে। প্রশংসা মিলছে তুমুল। যেমন, ‘কি সুন্দর মোহের আবেশ তৈরি করলো জয়ার কণ্ঠে রবীন্দ্রসংগীতটি। মোহাচ্ছন্ন হয়ে শুনলাম গানটি। আহা! কি কণ্ঠস্বর।’ আরেকজন লিখলেন, ‘এতো ভালো রবীন্দ্রসংগীত অনেক প্রথিতযশা শিল্পীও গাইতে পারে না আজকাল। জয়া যা গাইলো, যেভাবে যে যে জায়গায় দম নিলো, যেভাবে ‘পেয়েছি’র ‘পে’ থেকে ‘য়ে’-টা আলাদা করে বললো, অনেক ভালোলাগা বেড়ে গেলো ওর প্রতি।’ জয়া আহসান

জয়ার কণ্ঠটিকে ঘিরে এমন অসংখ্য মন্তব্য ছড়িয়ে পড়েছে ইউটিউব হয়ে সোশ্যাল হ্যান্ডেলে। বিপরীতে জয়ার কণ্ঠে বিনয়ের সুর, ‘নিজের মতো করে চেষ্টা করেছি গাইবার। আশা করছি, আপনাদের ভালো লাগবে।’

প্রশ্ন ছিল, এবারই কি প্রথম গাইলেন? জয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বললেন, ‘‘এবারই প্রথম। তবে ‘ডুব সাঁতার’-এ গুন গুন করে ‘তোমার খোলা হাওয়ায়’ গানটি একটু গেয়েছিলাম। ওটাকে ঠিক গাওয়া বলা যাবে না। এবার তো রীতিমতো প্রফেশনালি গাইলাম। যদিও কতোটা ভালো হয়েছে সেটা শ্রোতা-সমালোচকরাই ভালো বলতে পারবেন।’’

জয়ার গলার প্রশংসা করছেন পরিচালক অতনু ঘোষও। তিনি কলকাতার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, জয়ার অভিনয়ের সঙ্গে দর্শকের জন্য বাড়তি পাওয়া হিসেবে এসেছে তার কণ্ঠের গান। এ গানটির কথা আলাদা করে বলছেন দর্শক।

অতনু বলেন, ‘গান গাওয়ার আগে জয়া নিজের গলা যথেষ্ট ঘষামাজা করেছেন। সেটা তার গায়কীই বলে দিচ্ছে। তার কথা বলার নিজস্বতা রয়েছে। সেখানে অন্য কোনও কণ্ঠ গানটি গাইলে মানাত না। জয়া অনেক শ্রম দিয়েছেন এ গানে।’

গত ২০ আগস্ট কলকাতার মাত্র একটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে ‘বিনিসুতোয়’। ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারজয়ী নির্মাতা অতনু ঘোষ পরিচালিত এই সিনেমায় জয়া আহসানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। তৃতীয় সপ্তাহে এসে নন্দন ১-এর পাশাপাশি চলছে নজরুল তীর্থতেও। ক্রমশ বাড়ছে দর্শক চাপ।

ছবিতে কাজল ও শ্রাবণীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন ঋত্বিক ও জয়া। মধ্য তিরিশের এই দুই মানুষের একে অপরের সঙ্গে পরিচয় হয় একটি রিয়েলিটি শোয়ের অডিশনে। দু’জনের জীবনের গল্পে বেশ কিছুটা মিল থাকায় খুব তাড়াতাড়িই পরস্পরের সঙ্গে মিশে যান তারা। কিন্তু এরই মাঝে এক দুর্ঘটনায় আহত হন শ্রাবণী। দ্রুত তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান কাজল। যাওয়ার পথে তারা একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করেন জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতের গল্প। এ নিয়েই ‘বিনিসুতোয়’।

জয়া-ঋত্বিক ছাড়াও ছবিতে অভিনয় করেছেন চান্দ্রেয়ী ঘোষ, কৌশিক সেন, রেশমি সেন, খেয়া চট্টোপাধ্যায় প্রমুখ। জয়া আহসান

/এমএম/

সম্পর্কিত

‘প্রীতিলতা’র ফাঁকে ‘পদ্মাপুরান’! (ভিডিও)

‘প্রীতিলতা’র ফাঁকে ‘পদ্মাপুরান’! (ভিডিও)

ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলেই শখের?

ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলেই শখের?

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

‘প্রীতিলতা’র ফাঁকে ‘পদ্মাপুরান’! (ভিডিও)

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৫৪

সাম্প্রতিক সময়ে নির্মাতা রাশিদ পলাশ মূলত ব্যস্ত আছেন পরীমণিকে নিয়ে! মানে ‘প্রীতিলতা’। ৩৫ ভাগ কাজ শেষ করেছেন, জোর প্রস্তুতি চলছে আবারও মাঠে নামার। মাঝে পরীমণির জেল-ঘটন নিয়েও তাকে পোহাতে হয়েছে উৎকণ্ঠা।

তবে এর ফাঁকেই শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টায় রাশিদ পলাশ প্রকাশ করলেন তার আরেক ছবি ‘পদ্মাপুরান’-এর টিজার। ঘোষণা দিলেন মুক্তির তারিখও। 

সিনেমাটির অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে ৩৪ সেকেন্ডের এই টিজারটি প্রকাশ করে বললেন, ‘‘এসে গেল ‘এক ঝলক পদ্মাপুরান’। দেখুন। আপনার মূল্যবান মতামত জানান। সিদ্ধান্ত নিন দেশের সিনেমা দেখার।’’ 

জানান, ৮ অক্টোবর মুক্তি পেতে যাচ্ছে চলচ্চিত্রটি। বর্তমানে ছবির নির্মাতা ও কলাকুশলীরা ব্যস্ত আছেন ছবির প্রচারণার কাজে। 

রাশিদ পলাশ বলেন, ‘আমরা নদী পাড়ের মানুষের জীবনের একটা গল্প বলতে চেয়েছি এই ছবিতে। যেটা একেবারেই আমাদের গল্প। পদ্মার পাড়ের মানুষের গল্প।’

 

‘পদ্মাপুরান’-এর বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন সাদিয়া মাহি, প্রসূন আজাদ, শম্পা রেজা, জয়রাজ, সুমিত সেনগুপ্ত, কায়েস চৌধুরী, সূচনা শিকদার, রেশমী, হেদায়েত নান্নু, আশরাফুল আশিষ, সাদিয়া তানজিন প্রমুখ।

/এমএম/

সম্পর্কিত

গেয়েও মুগ্ধ করলেন জয়া আহসান (ভিডিও)

গেয়েও মুগ্ধ করলেন জয়া আহসান (ভিডিও)

ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলেই শখের?

ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলেই শখের?

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

অবশেষে সেলিমের সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন পরীমণি

অবশেষে সেলিমের সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হলেন পরীমণি

আশা করি তারা সব দায় শোধ করে গ্রাহকের পাশে থাকবে: শবনম ফারিয়া

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:১১

চলতি বছরের ১ জুন আলোচিত-সমালোচিত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালিতে মিডিয়া ও কমিউনিকেশনস প্রধানের দায়িত্ব নিয়েছিলেন ‌‘দেবী’-খ্যাত অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটির এমডি মো. রাসেল ও চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেফতারের পর সমালোচনায় পড়েন এই তারকা। 

অনেকেই জানতে চায়, ইভ্যালি দুর্দিনে তারকামুখগুলো কোথায়? বিষয়টি নিয়ে নানা মাধ্যমে বিভিন্ন রকমের খবর আসতে শুরু করে। এটি নিয়ে এবার বাংলা ট্রিবিউনের কাছে লিখিত ব্যাখ্যা দিলেন ফারিয়া। জানালেন, তিনি আর ইভ্যালিতে নেই। গত আগস্টে চাকরিকে বিদায় বলেছেন। এটাও আশা করেছেন, ইভ্যালি সব দায় শোধ করে গ্রাহকের পাশে থাকবে।

এই প্রতিষ্ঠান থেকে চাকরি ছাড়া প্রসঙ্গে এই তারকা বলেন, ‘‘আমি চাকরি ছাড়ার পর কেন জানাইনি! কারণ আমি অহেতুক আলোচনার অংশ হতে চাইনি। আরিফ আর হোসাইন ভাই যখন বললেন, ‘তিনি আর এখানে কাজ করছেন না।’ তখনও আপনারা তাকে নিয়ে ট্রোল করলেন। চাকরি ছাড়লেও সমস্যা, কাজ করলেও সমস্যা! কোথায় যাব? অপ্রয়োজনীয় আলোচনার অংশ হতে ভাল লাগে না। কিন্তু আমার ভাগ্য এত খারাপ, কেন যেন আমাকেই সবসময় আলোচনা/সমালোচনায় পড়তে হয়। এখন আরেকটা কথা; কিছু গণমাধ্যম লিখছে আমি নাকি অভিযোগ করেছি বেতন পাইনি! কাকে অভিযোগ করেছি? কখন অভিযোগ করেছি? কীভাবে করেছি? এই প্রমাণ কেউ দিচ্ছে না! আমার অভিযোগ থাকলে সেটা আমি প্রতিষ্ঠানটির এইচআর ডিপার্টমেন্টে করবো। সাংবাদিক ভাইদের কেন করবো? তারা কি আমাকে বেতন দেবে? আমি যেই কোম্পানিতে কাজ করেছি তারা এখন একটা খারাপ পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে। আশা করবো, তারা সব দায় পরিশোধ করে গ্রাহকদের পাশে থাকবে!’’

ফারিয়া তার লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন, ‘‘ক্যারিয়ারের শুরু থেকে আমি অনুভব করি, গণমাধ্যমকর্মীদের কেন যেন আমার প্রতি বিশেষ ভালোবাসা আছে। তবে কয়েকজন কারণে অকারণে আমাকে জড়িয়ে সংবাদ প্রকাশে বিশেষভাবে আগ্রহী থাকেন। সম্ভবত, আমি সবসময় কল রিসিভ করতে পারি না, ভণিতা করি না, কাউকে তেলানোর ক্ষমতা আমার নেই- এমন আরও কিছু কারণ থাকতে পারে। তাই বেশিরভাগ সাংবাদিক ভাইদের প্রিয় তালিকায় আমার নাম একদম শেষের দিকে। কিছু বিষয় এখন পরিষ্কার করার সময় এসেছে। আমি জুন-জুলাই এই দুই মাস ‘একটি ই-কমার্স সাইটে’ তাদের গণসংযোগ বিভাগে কাজ করেছি। আমি সেখানে যোগদানের ১৫ দিন পর থেকেই বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি রিপোর্ট চলে আসায় তাদের কার্যক্রম অনেকটাই কমে এসেছিল। জুলাইয়ের পর আমার দাফতরিক কোনও কাজই ছিল না! তাই আগস্টে আমি চাকরি ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্তে আসি।’’

শবনম ফারিয়া এদিকে ইভ্যালির অর্ডার বিষয়ে নানা চাপের তথ্যও সোশ্যাল হ্যান্ডেলে আসে। বিষয়টি নিয়ে এই অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘‘অনেকেই জানতে চেয়েছেন, আমাকে দেখে কেউ অর্ডার করে থাকলে তাতে আমার মতামত কী? আমি যোগদানের পরের সপ্তাহ থেকেই ‘সাইক্লোন’ অফার বন্ধ হয়ে ‘টি-টেন’ চালু হয়েছে। যেটি ছিল, যেখানে পণ্য পেলেই টাকা দেবে! সুতরাং আমাকে দেখে অর্ডার দিয়ে ফেঁসে যাওয়ার কোনও সুযোগই নেই। কেউ নিজেকে এসব বলে সান্ত্বনা দিলে কিংবা নিজ স্বার্থ হাসিলে শুধু হেনস্তা করার জন্য আমাকে টানলে আমার সত্যিই কিছু বলার/করার নেই। তাছাড়া আমি কখনও প্রকাশ্যে কোথাও এই কোম্পানি প্রমোট করিনি। কখনও বলিনি, আপনারা বিশ্বাস রাখেন কিংবা আস্থা রাখেন। কারণ সেখানে দাফতরিক কাজের বাইরে আমার কোনোকিছু প্রচার-প্রকাশের চুক্তি ছিল না। যেহেতু আমি পেশায় অভিনেত্রী সুতরাং আমাকে কোনও কোম্পানির প্রচারের কাজে অংশ নিলে আলাদা সম্মানী দিতে হয়। সেখানে সেই সুযোগ নেই।’’ 

প্রসঙ্গত, এর আগে ইভ্যালিতে শুভেচ্ছাদূত হিসেবে যুক্ত হয়েছিলেন তাহসান খান ও রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা। তারা দুজনই প্রতিষ্ঠানটি ছেড়েছেন। চুক্তি বাতিলের নন-ডিসক্লোজার শর্ত অনুযায়ী এই বিষয়ে তারা বিস্তারিত বলেননি। তবে ফারিয়া তার পদত্যাগের কথা এবার ব্যাখ্যা করলেন। শবনম ফারিয়া

/এম/এমএম/
টাইমলাইন: ইভ্যালি
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৪৭
আশা করি তারা সব দায় শোধ করে গ্রাহকের পাশে থাকবে: শবনম ফারিয়া
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৪৯
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:২০
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:৪২

সম্পর্কিত

ইভ্যালির সঙ্গে থাকা না থাকা প্রসঙ্গে মিথিলা ও ফারিয়া

ইভ্যালির সঙ্গে থাকা না থাকা প্রসঙ্গে মিথিলা ও ফারিয়া

ইভ্যালিতে নেই তাহসান

ইভ্যালিতে নেই তাহসান

সিদ্ধার্থ শুক্লা ও সাইবার বুলিং নিয়ে আবেগঘন শবনম ফারিয়া

সিদ্ধার্থ শুক্লা ও সাইবার বুলিং নিয়ে আবেগঘন শবনম ফারিয়া

‘মেয়েদের বাবা না থাকলে জীবনটা কঠিন হয়ে যায়’

‘মেয়েদের বাবা না থাকলে জীবনটা কঠিন হয়ে যায়’

ভাইরাল হওয়া ছবিটি আসলেই শখের?

আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৩১

মা হচ্ছেন মডেল ও অভিনেত্রী আনিকা কবির শখ- খবরটি গত সপ্তাহেই তার ভক্তরা পেয়েছেন। এবার সোশ্যাল হ্যান্ডেলে শখের নামে ভাইরাল হলো একটি ছবি। যেটি দেখে বেশিরভাগই বিস্মিত হচ্ছেন, বলছেন- এটা শখ হতেই পারে না!  

এতে দেখা যায়, অন্তঃসত্ত্বা হওয়ায় ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে শখের শরীরে। পরিবর্তন হয়েছে চেহারারও। অনেকেই পূর্বের ও বর্তমানের ছবি নিয়ে তুলনা করে বুঝতে চাইছেন আসলে এটি শখ কিনা! চলছে- প্রশ্ন, আলোচনা ও স্তুতিও। 

তাই ফেসবুকজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এখন শখ। জানা যায়, এটি মূলত এই তারকার বেবি শাওয়ারের ছবি। ছোট পরিসরে এর আয়োজন করা হয়। এতে দুই পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত হন। আয়োজনে সবাই মিলে কেককেটে নতুন অতিথিকে স্বাগত জানিয়েছেন। 

এদিকে, হবু মায়ের এমন ছবিতে অনেকেই মেতেছেন তার প্রশংসায়। তবে শুধু ভক্তরা নন, তার এই স্তুতিতে সামিল হয়েছেন তারকারাও। 

চিত্রনায়িকা জাহরা মিতু লিখেছেন, ‘মডেল, অভিনেত্রী শখ। যার রূপের যাদুতে মুগ্ধ সবাই। ব্যক্তিগতভাবে আমারও ধারণা, শখের মতন সুন্দরী মেয়ে বাংলাদেশে কম জন্মেছে। শখের বর্তমান অবস্থা দেখে বোঝাই যাচ্ছে তিনি অবশ্যই প্র্যাগনেন্সি সময়ের যে শারীরিক প্রভাবগুলো হয় তাতে প্রভাবিত। প্রতিটি মেয়ের জীবনের সেরা সময়টা মাতৃত্বকালীন। তাই তাকে এই সময়ের জন্য অভিনন্দন। প্রতিটি মেয়েই চায় একটি সুখী পরিবার, তার মুখের হাসি বলে দিচ্ছে তিনি ভালো আছেন। প্রিয় শখের জন্য শুভকামনা, ভালোবাসা।’

বেবি শাওয়ার অনুষ্ঠানে পরিবারের সদস্যদের মাঝে শখ তবে ভাইরাল হওয়া এই ছবিটি নিয়ে কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি আনিকা কবির শখের।

শখের স্বামীর নাম আতিকুর রহমান জন। তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী। গাজীপুরের কালিয়াকৈরের বলিয়াদে গ্রামে স্বামীর বাড়িতেই অবস্থান করছেন শখ। তবে রাজধানীর উত্তরায়ও তাদের বাসা রয়েছে।

/এম/এমএম/

সম্পর্কিত

গেয়েও মুগ্ধ করলেন জয়া আহসান (ভিডিও)

গেয়েও মুগ্ধ করলেন জয়া আহসান (ভিডিও)

‘প্রীতিলতা’র ফাঁকে ‘পদ্মাপুরান’! (ভিডিও)

‘প্রীতিলতা’র ফাঁকে ‘পদ্মাপুরান’! (ভিডিও)

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

অর্ণবকে নিয়ে চলচ্চিত্র, অভিনয়ে আছেন তারাও

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

এক দশক পর ভেলভেট উইংস (ভিডিও)

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বাংলাদেশের গায়ক ব্রিটিশ বিজ্ঞাপনের মডেল! (ভিডিও)

বাংলাদেশের গায়ক ব্রিটিশ বিজ্ঞাপনের মডেল! (ভিডিও)

এ সপ্তাহে নেটফ্লিক্সে নতুন

এ সপ্তাহে নেটফ্লিক্সে নতুন

মানি হাইস্ট-এ ববি নাকি বিরাট কোহলি, নেটপাড়ায় শোরগোল

মানি হাইস্ট-এ ববি নাকি বিরাট কোহলি, নেটপাড়ায় শোরগোল

থ্রিলারগুলো আছে নেটফ্লিক্সে

থ্রিলারগুলো আছে নেটফ্লিক্সে

প্রতীক্ষিত ১০ ভারতীয় ওয়েব সিরিজ

প্রতীক্ষিত ১০ ভারতীয় ওয়েব সিরিজ

নেটফ্লিক্স অরিজিনাল: যা আসছে ১২ আগস্ট পর্যন্ত

নেটফ্লিক্স অরিজিনাল: যা আসছে ১২ আগস্ট পর্যন্ত

নেটফ্লিক্সে বাংলাদেশবিরোধী সংলাপ, দর্শকদের ক্ষোভ 

নেটফ্লিক্সে বাংলাদেশবিরোধী সংলাপ, দর্শকদের ক্ষোভ 

নেটফ্লিক্সে নতুন: যা থাকছে এই সপ্তাহে

নেটফ্লিক্সে নতুন: যা থাকছে এই সপ্তাহে

মনোজকে নিয়ে আমাজনের টুইট, জবাবে যা বললো নেটফ্লিক্স

মনোজকে নিয়ে আমাজনের টুইট, জবাবে যা বললো নেটফ্লিক্স

গান চুরির অভিযোগ: প্রীতমের কাছে ক্ষমা চাইলেন সাথী

গান চুরির অভিযোগ: প্রীতমের কাছে ক্ষমা চাইলেন সাথী

সর্বশেষ

‘শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না যুক্তরাষ্ট্রকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে’   

‘শুধু ক্ষমা চাইলেই হবে না যুক্তরাষ্ট্রকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে’   

আগারগাঁওয়ে ছয়তলা ভবন থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

আগারগাঁওয়ে ছয়তলা ভবন থেকে পড়ে যুবকের মৃত্যু

শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে সৌদি আরব গুরুত্ব দিয়ে আসছে: সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বকে সৌদি আরব গুরুত্ব দিয়ে আসছে: সৌদি বাণিজ্যমন্ত্রী

‘ই-কমার্সের জন্য নতুন আইন দরকার’

‘ই-কমার্সের জন্য নতুন আইন দরকার’

তিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

৫০-এ সালমান শাহতিনি ইতিহাসের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নায়ক: শাকিব খান

© 2021 Bangla Tribune