X
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ৮ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

জালিয়াতি করে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের ঘটনায় ব্যাংক ব্যবস্থাপক প্রত্যাহার

আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৪৫

সোনালী ব্যাংকের কেন্দুয়া শাখার এক নারী গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট থেকে সাত লাখ টাকা উধাওয়ের ঘটনায় ব্যবস্থাপক আরিফ আহম্মদকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পারভিন আক্তার নামের গ্রাহকের চেক জালিয়াতি করে টাকা তোলা হয় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) ব্যবস্থাপককে প্রত্যাহার করে সোনালী ব্যাংকের নেত্রকোনা আঞ্চলিক কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। ব্যাংকের সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার শাহজালাল মিয়াকে ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপকের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

ঘটনা তদন্তে হওয়া কমিটির প্রধান করা হয়েছে সোনালী ব্যাংকের নেত্রকোনা অঞ্চলের সহকারী মহাব্যবস্থাপক (এজিএম) রাসমোহন সাহাকে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার মিনহাজুল আলম ও প্রিন্সিপাল অফিসার আবু সিদ্দিক খান।

ব্যবস্থাপক আরিফ আহাম্মদকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ব্যাংকটির ময়মনসিংহ অঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মো. আবদুল মজিদ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চেক জালিয়াতি করে সাত লাখ টাকা তুলে নেওয়ার ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি ইতোমধ্যে কাজ শুরু করেছে। আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। 

তিনি আরও জানান, তদন্তে ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে জানান তিনি।

স্থানীয়রা জানান, কেন্দুয়া পৌর এলাকার বাদে আঠারোবাড়ি মহল্লার পূর্ণতা নামে এক নারী গত ৬ মাস ধরে ব্যাংকে এসে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, পেনশন ভোগীসহ অন্যান্য সহজ সরল গ্রাহকদের সঙ্গে মিশে তাদের হিসাব থেকে চেক লিখে দিয়ে টাকা তুলে দেওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা করে আসছেন। গত রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পূর্ণতা আক্তার (২৫) উপজেলার চিরাং ইউনিয়নের ছিলিমপুর গ্রামের পারভিন আক্তারের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে কৌশলে চেকের একটি পাতা ছিঁড়ে রেখে দেন। পরে পারভিনের স্বাক্ষর জাল করে ওই দিন দুপুরে ৭ লাখ টাকা ব্যাংক থেকে তুলে নেন। তার মোবাইলে ৭ লাখ টাকা উত্তোলনের মেসেজ যাওয়ার পর বিষয়টি টের পেয়ে পারভিন আক্তার ওই ব্যাংকের কর্মকর্তাদের শরণাপন্ন হন। পরে সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর)  স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যস্থতায় ওই টাকা উদ্ধার করা হয়। তবে স্থানীয়দের অভিযোগ, এই জালিয়াতির ঘটনায় ব্যাংকের লোকজনও জড়িত আছে। অভিযুক্ত পূর্ণতা আক্তারের বাড়ি কেন্দুয়া পৌর এলাকার বাদে আঠারবাড়ি মহল্লায়। তিনি ওই এলাকার মামুন মিয়ার স্ত্রী।

এ বিষয়ে প্রত্যাহার হওয়া শাখা ব্যবস্থাপক আরিফ আহম্মদের মোবাইলফোনে একাধিকবার কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

গফরগাঁওয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

গফরগাঁওয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

মাদকসহ সমাজসেবা কর্মকর্তা গ্রেফতার

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৩৬

মাদকসহ গ্রেফতার হয়েছেন কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মশিউর রহমান। শুক্রবার (২২ অক্টোবর) বিকালে রংপুরের শাপলা চত্বর এলাকা থেকে সাড়ে চার লিটার মদসহ তাকে গ্রেফতার করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১৩। ওই দিনই তাকে রংপুর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়। রবিবার র‌্যাব-১৩-এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মাহমুদ বশির আহমেদ এ তথ্য জানান।

মশিউর রহমান ২০১৯ সালের জুলাই থেকে উলিপুর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের (বিসিএস) ৩৭তম ব্যাচের সদস্য।

মাহমুদ বশির আহমেদ জানান, শুক্রবার বিকালে মশিউর রহমানকে সহযোগী রাসেলসহ গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দিয়ে রংপুর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

গ্রেফতার উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কী বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানতে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. রোকেনুল ইসলামকে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

শিশুকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে গ্রেফতার ১

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

নোয়াখালীতে পূজামণ্ডপ ভাঙচুর, ২৫ মামলায় গ্রেফতার ১৭৪

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেফতার সৈকতকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

হেফাজতের সহিংসতার মামলায় বিএনপি নেতা রিমান্ডে

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৪০

সম্প্রতি দেশের কয়েকটি স্থানে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় সরকারকে অভিযুক্ত করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘দেশ অশান্তিতে রয়েছে। মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারছে না। সাম্প্রতিক সময়ে দেশে যেসব সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনা ঘটছে, তাতে আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ জড়িত।’ রবিবার (২৪ অক্টোবর) সকালে সিলেটে হজরত শাহজালাল (রহ.) মাজার জিয়ারত শেষে এসব কথা বলেন তিনি। মাজার জিয়ারতের সময় বিএনপির মহাসচিবের সঙ্গে দলের সিলেটের নেতাকর্মীরাও অংশগ্রহণ করেন।

এদিন সকালে বিএনপি নেতা ফজলুল হক আসপিয়ার স্মরণসভায় যোগ দিতে সিলেটে আসেন মির্জা ফখরুল। সেখান থেকে তিনি সুনামগঞ্জে স্মরণসভায় যোগ দেবেন।

মাজার জিয়ারত করে বেরিয়ে এসে মির্জা ফখরুল সাংবাদিকদের বলেন, ‘দেশে সাম্প্রদায়িক সমস্যাগুলো তৈরি করা হয়েছে। আপনারা পত্রপত্রিকায় দেখেছেন, এর নেতৃত্ব দিচ্ছে কারা? নেতৃত্ব দিচ্ছে ছাত্রলীগের ছেলেরা, নেতৃত্ব দিচ্ছে আওয়ামী লীগের লোকেরা। আজও পত্রিকায় এসেছে, রংপুরের ঘটনার নেতৃত্ব দিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা সৈকত।’

তিনি বলেন, ‘এটা খুব পরিষ্কার, সরকারের যেহেতু জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক নেই, যেহেতু জনগণের ভোট তারা পায় না– সে জন্য জনগণের দৃষ্টিটাকে ভোটের অধিকার, গণতন্ত্রের অধিকার থেকে সরানোর জন্য এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে।’

সরকার সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা দিতে পারছে না বলে অভিযোগ ফখরুল বলেন, ‘আমাদের হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের যারা আছেন, তাদের নিরাপত্তা সরকার দিতে পারছে না। একই সঙ্গে আমাদের যে বৃহত্তর জনগোষ্ঠী আছে, মুসলমান সমাজ, ইসলাম ধর্মে যারা বিশ্বাস করেন, তাদেরও এখানে কোনও নিরাপত্তা নেই। সামগ্রিকভাবে জনগণের নিরাপত্তা দিতে সরকার সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে।’

জানা গেছে, সুনামগঞ্জ থেকে আজ রাতেই ঢাকায় ফিরে যাবেন মির্জা ফখরুল।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ‘বি’ ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা শুরু

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৪:৪৬

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুচ্ছ (জিএসটি) পদ্ধতিতে আয়োজিত সমন্বিত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়েছে। রবিবার (২৪ অক্টোবর) দুপুর ১২টা থেকে সারাদেশে একযোগে ২২টি পরীক্ষা কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এ পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন ৬৭ হাজার ১১৭ জন পরীক্ষার্থী।

পরীক্ষার বিষয়

‘বি’ ইউনিটে মানবিক বিভাগে ১০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তার মধ্যে বাংলায় ৪০, ইংরেজিতে ৩৫ ও আইসিটিতে ২৫ নম্বরের মান বণ্টনে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পরীক্ষায় প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে শূন্য দশমিক ২৫ নম্বর।

গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়।

‘বি’ ইউনিটের আসন বিন্যাস

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৯৬৫ জন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত হাজার ৭৯৩ জন, শেরে-ই-বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ১৭২ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৯৭ জন, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ২০০ জন,  খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ৩১৫ জন, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচ হাজার ১১৮ জন, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার জন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পাঁচ হাজার ৯২০ জন, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাত ২৫ জন, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৬০৩ জন, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৬৮২ জন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ৫০৫ জন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছয় হাজার ৪৯৭ জন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ২৭৬ জন, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭৭৮ জন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে তিন হাজার ৬০০ জন, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক হাজার ৯৮০ জন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‍দুই হাজার ২৬৯ জন, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই হাজার ২৯৩ জন, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৩২৯ জন এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০০ জন ভর্তিচ্ছু পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।

পরীক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি নিয়ে আয়োজকদের মন্তব্য

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা নেওয়ার জন্য শতভাগ প্রস্তুত। আগেই যথাযথ নিরাপত্তার সঙ্গে সব পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র, উত্তরপত্র ও উপস্থিতির তালিকা পাঠিয়ে দিয়েছি। এতে পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, আর্মড ফোর্সেস পুলিশ সহায়তা করছে। সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রশ্নপত্রের ট্র্যাংকে জিপিএস ট্র্যাকিং সিস্টেম লাগানো হয়েছে, যাতে প্রশ্নপত্র নিরাপদ থাকে।’

শিগগিরই ফলাফল প্রকাশ করা হবে উল্লেখ করে তিনি জানান, পরীক্ষার পর দ্রুত ফল প্রকাশের চিন্তাভাবনা রয়েছে। ফলাফল র‌্যাঙ্কের ভিত্তিতে ফল প্রকাশ না করে ১০০ নম্বরের মাঝে পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত নম্বর (স্কোর) প্রকাশ করা হবে। পরবর্তী সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর পৃথক পৃথক সার্কুলার ও শর্তের ভিত্তিতে প্রাপ্ত নম্বর বা স্কোর অনুযায়ী পছন্দের বিশ্ববিদ্যালয়ে পছন্দের বিষয়ে ভর্তির আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সাম্প্রদায়িক হামলায় আ.লীগ-ছাত্রলীগ জড়িত: মির্জা ফখরুল

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

সিলেট সফরে বিএনপির মহাসচিব

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

ইউপি নির্বাচন নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবক খুন

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলে জানুয়ারি থেকে বাড়বে ক্লাস: শিক্ষামন্ত্রী

বেগমগঞ্জে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ৩ জনের স্বীকারোক্তি

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৪

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী বাজারের পূজামণ্ডপ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে হামলা এবং হত্যার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত আট জনের মধ্যে তিন জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। রবিবার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো এক বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়। এ নিয়ে চার জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছেন।

এর আগে, ভিডিও ফুটেজ দেখে শনাক্ত ও গ্রেফতার আট জন এবং সন্দেহভাজন পাঁচ জনসহ ১৩ জনকে আটক করা হয়।

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেওয়া আসামিরা হলেন– রিপন আহামেদ মাহীর (১৯), আরাফাত হোসেন আবির (১৮) ও ইব্রাহিম খলিল ওরফে রাজিব (২৪)। এর আগে, বৃহস্পতিবার চৌমুহনী পৌরসভার করিমপুর গ্রামের আবদুল হাশিমের ছেলে আবদুর রহিম সুজন (১৯) স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেছিলেন।

ফুটেজ দেখে শনাক্ত আটক আট আসামি হলেন– সুবর্ণচর উপজেলার চর জব্বর ইউনিয়নের চর বহুলা গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে ফরহাদ (২৬), চৌমুহনী পৌরসভার গনিপুর গ্রামের মৃত সাহাব উদ্দিনের ছেলে শামীম (২৭), একই গ্রামের জয়নাল আবেদিনের ছেলে রিপন আহমেদ মাহীর (১৮), বেগমগঞ্জ উপজেলার ছয়ানি ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের দেলোয়ারের ছেলে জহিরুল ইসলাম জুয়েল (১৯), হাজীপুর ইউনিয়নের নুরুল হক ভূঁইয়ার ছেলে ইব্রাহিম খলিল ওরফে রাজিব (২৪), ছয়ানি ইউনিয়নের ছোট শরীফপুর গ্রামের কামরুল হাসানের ছেলে আরাফাত হোসেন আবির (১৮), চৌমুহনী পৌরসভার মধ্যম নাজিরপুর গ্রামের মৃত বাবুল হেসেনের ছেলে দুলাল হোসেন (৪০), সদর উপজেলার আন্ডারচর ইউনিয়নের পশ্চিম মাইজচরা গ্রামের তাজুল ইসলামের ছেলে কামাল হোসেন (৪৫)।

এ ছাড়া পূজামণ্ডপে হামলায় সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে বেগমগঞ্জ উপজেলার নরোত্তমপুর ইউনিয়নের নরোত্তমপুর গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে শহীদ (৪৫), চৌমুহনী পৌরসভার গনিপুর গ্রামের এতিম আলীর ছেলে হুমায়ুন (৬৩), একই গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে কাশেম বিন আবু জুবায়ের অরিন (২৫), মোস্তফার ছেলে ইমাম হোসেন রাজু (২৮) ও বাবলু মিয়ার ছেলে আলাউদ্দিন (৩৫)।

গ্রেফতার আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

চোরকে চিনে ফেলায় দম্পতিকে হত্যা

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

ক্যাম্পে ৬ রোহিঙ্গা হত্যার ঘটনায় মামলা

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

উগ্রবাদের স্থান বাংলাদেশে হবে না: হানিফ

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

পূজামণ্ডপে কোরআন রাখার ঘটনা সাজানো: ইনু

ট্রাকচাপায় বিমানবাহিনীর সদস্যসহ নিহত ২

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৭

সিরাজগঞ্জে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ‍দুই যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে একজন বিমানবাহিনীর সদস্য। শনিবার (২৩ অক্টোবর) দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর আঞ্চলিক সড়কের ছোনগাছা বাজার এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন– সিরাজগঞ্জ পৌর শহরের ১নং খলিপা পট্টি এলাকার জুলমত হোসেনের ছেলে সাব্বির হোসেন (২৪) এবং শহরের মুজিব সড়ক এলাকার হাজী রফিকুলের ছেলে হাসান (২৪)।

সিরাজগঞ্জ সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সেলিম মোল্লা বলেন, ‘মোটরসাইকেল যোগে দুই বন্ধু সাব্বির ও হাসান বগুড়া থেকে সিরাজগঞ্জে ফিরছিলেন। তারা ছোনগাছা এলাকায় পৌঁছলে দ্রুতগামী একটি ট্রাক তাদের চাপা দেয়। গুরুতর  আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। মৃতদেহ দুটি মর্গে রাখা রয়েছে।’

তিনি জানান, সাব্বির হোসেন যশোরে বিমানবাহিনীতে কর্মরত ছিলেন।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম

একসঙ্গে ৩ সন্তানের জন্ম

বেপরোয়া গতির ২ বাসের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো মা-ছেলের

বেপরোয়া গতির ২ বাসের সংঘর্ষে প্রাণ গেলো মা-ছেলের

রাজশাহীতে ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জন গ্রেফতার

রাজশাহীতে ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ জন গ্রেফতার

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

এখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজএখনও প্রণোদনার টাকা পাননি ৬৬ শতাংশ চিকিৎসক-নার্স

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে বিজিবি সদস্যের আত্মহত্যা

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

ময়মনসিংহে আরও ৩ রাজাকার গ্রেফতার 

গফরগাঁওয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

গফরগাঁওয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত ২

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার ৩

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার ৩

ময়মনসিংহে শনাক্তের সঙ্গে বেড়েছে মৃত্যু 

ময়মনসিংহে শনাক্তের সঙ্গে বেড়েছে মৃত্যু 

নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে জেলা জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ১৪ 

নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে জেলা জামায়াতের আমিরসহ গ্রেফতার ১৪ 

পুকুর থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার 

পুকুর থেকে কিশোরের লাশ উদ্ধার 

ট্রাক-ইজিবাইক মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

ট্রাক-ইজিবাইক মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

জামালপুরে জেলা জামায়াতের আমিরসহ ১৪ নেতাকর্মী আটক

জামালপুরে জেলা জামায়াতের আমিরসহ ১৪ নেতাকর্মী আটক

সর্বশেষ

৬০ বছরে ৬ বন্ড, সেরা কে

৬০ বছরে ৬ বন্ড, সেরা কে

আট মাসেও রুলের জবাব না পেয়ে হাইকোর্টের অসন্তোষ

অর্থপাচার মামলাআট মাসেও রুলের জবাব না পেয়ে হাইকোর্টের অসন্তোষ

জনবল নিচ্ছে জেমকন গ্রুপ

জনবল নিচ্ছে জেমকন গ্রুপ

শ্রীলঙ্কাকে হারাতে যা করতে হবে বাংলাদেশকে

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপশ্রীলঙ্কাকে হারাতে যা করতে হবে বাংলাদেশকে

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

টুইটারের স্পেসেস এখন সবার জন্য উন্মুক্ত

© 2021 Bangla Tribune