X
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১০ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ফেন্সিংয়ের সাবেক সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে তদন্ত কমিটি

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:৩৪

ফেন্সিং অ্যাসোসিয়েশনে অ্যাডহক কমিটি হয়েছে গত ১২ আগস্ট। নতুন কমিটি এসেই দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ এনেছে সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে এ নিয়ে অভিযোগও করা হয়েছে। সেই প্রেক্ষিতে ৬ সেপ্টেম্বর মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে প্রেরণের জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

কামরুল ইসলামের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পরিচালক (প্রশাসন) শেখ হামিম হাসানকে করা হয়েছে তদন্ত কর্মকর্তা।

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব মাসুদ করিম শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফোনে এ প্রসঙ্গে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘ফেন্সিংয়ের বর্তমান কমিটি আগের সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলামের বিরুদ্ধে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ করেছে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের তদন্ত করতে বলা হয়েছে। আমরা দিন কয়েক আগে এক সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। তদন্ত কর্মকর্তাকে দ্রুততম সময়ে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।’

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পরিচালক (প্রশাসন) শেখ হামিম হাসানও এই প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘আমি এখনও চিঠি পাইনি। তাই কিছু বলতে পারছি না। চিঠি পেলে তখন ব্যবস্থা নেবো।’

/টিএ/এফআইআর/

সম্পর্কিত

অনুশীলনে সোহানের চোট

অনুশীলনে সোহানের চোট

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

অনুশীলনে সোহানের চোট

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২২:০৫

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সুপার টুয়েলভের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে দুঃসংবাদ বাংলাদেশ দলে। অনুশীলনে চোট পেয়েছেন ‍নুরুল হাসান সোহান। তাসকিন আহমেদের একটি বল সোহানের তল পেটে আঘাত করে, আর তাতেই অনুশীলন ছাড়তে হয় এই উইকেটকিপার ব্যাটারকে। টিম ম্যানেজমেন্ট সূত্রে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

বুধবার আবুধাবির শেখ জায়েদ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ম্যাচ শুরু বাংলাদেশ সময় বিকাল ৪টায়। টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে এই ম্যাচে জয় পাওয়া ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু ঘুরে দাঁড়ানোর মিশনে নামার আগেই বাংলাদেশ দলে ধাক্কা। ম্যাচের আগে সোহানের চোট নিশ্চিতভাবেই দুশ্চিন্তা বাড়িয়েছে দলে।

জানা গেছে, শেষ পর্যন্ত সোহান খেলতে না পারলে উইকেটের পেছনের দায়িত্ব সামলাবেন মুশফিকুর রহিম। আর সোহানের বদলে সুযোগ মিলতে পারে যুব বিশ্বকাপজয়ী দলের ক্রিকেটার শামীম হোসেনের।

 

/আরআই/কেআর/

সম্পর্কিত

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২১:৫৯

আগের ম্যাচে ভারতকে শুরুতেই গুঁড়িয়ে দিয়েছিলেন শাহীন আফ্রিদি। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে উইকেট না পেলেও আঁটসাঁট বোলিংয়ে চেপে ধরেছিলেন ঠিকই। প্রথম ওভারেই মেডেন। হারিস রউফ হয়ে উঠলেন আরও ভয়ঙ্কর। একই সঙ্গে মোহাম্মদ হাফিজ-ইমাদ ওয়াসমিরা জ্বলে ওঠায় কিউইদের রানের চাকা বেশি দূর যায়নি। পাকিস্তানের দুর্দান্ত বোলিংয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৪ রান করতে পেরেছে নিউজিল্যান্ড।

আজ (মঙ্গলবার) শারজা স্টেডিয়ামে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে নেমেছে নিউজিল্যান্ড। টস হেরে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ পেয়ে ফর্মে থাকা পাকিস্তান বোলারদের সামনে সুবিধা করতে পারেনি। উদ্বোধনী জুটিতে ৩৬ রা্ন এসেছে, তবে সংগ্রাম করেছেন দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও ড্যারেল মিচেল। গাপটিল ২০ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ১৭ রান করে ফেরেন প্যাভিলিয়নে। মিচেল কিছুটা হাত খুলতে পেরেছিলেন। ইমাদ ওয়াসিমের বলে ফেরার আগে ২০ বলে ১ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায় খেলে যান ২৭ রানের ইনিংস।

ব্যাটিং অর্ডারের বদলে প্রমোশন পেয়ে চারে নামেন জিমি নিশাম। তবে কিউইদের ‘বাজি’ কাজে আসেনি। মাত্র ১ রান করে তার বিদায়। পরের সময়টা প্রতিরোধ গড়েছিলেন কেন উইলিয়ামসন ও ডেভন কনওয়ে। যদিও খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। উইলিয়ামসন দুঃখজনক রান আউটে ফেরেন ২৫ রানে। ২৬ বলের ইনিংসে ২ চারের সঙ্গে এক ছক্কার মার। কনওয়ে ২৪ বলে ৩ বাউন্ডারিতে করেন ২৭ রান।

এরপর গ্লেন ফিলিপস (১৫ বলে ১৩), টিম সেইফার্ট (৮ বলে ৮) ও মিচেল স্যান্টনারের (৫ বলে ৬) ব্যর্থতায় ৮ উইকেটে ১৩৪ রানে থামে কিউইরা।

পাকিস্তানের সবচেয়ে সফল বোলার রউফ। এই পেসার ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট। শাহীন ৪ ওভারে ২১ রান দিয়ে পেয়েছেন ১ উইকেট। তার মতো একটি করে উইকেট শিকার ইমাদ ও হাফিজের।

/কেআর/

সম্পর্কিত

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩২

মঞ্চটা যখন বিশ্বকাপের তখন ভারতের জয় নিশ্চিত। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে এই ছিল সমীকরণ। ওয়াডে ও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ মিলিয়ে খেলা ১২ বারের প্রত্যেকটিতে হেরেছিল পাকিস্তান। কিন্তু দুবাইয়ের ম্যাচে ইতিহাস এমনভাবে পাল্টে দিলো বাবর আজমরা যে, এতদিনের সব হতাশা মিলিয়ে গেলো দূর দিগন্তে। ১০ উইকেটের জয়, পাকিস্তানের সমর্থকরাও হয়তো চিন্তা করেননি। ভারতের এমন ভরাডুবির কারণ বের করেছেন ইনজামাম। একাদশ নির্বাচনের দিকে আঙুল পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়কের।

বিরাট কোহলির দলে ষষ্ঠ বোলার না থাকাকেই ‘বিপত্তি’র জায়গা হিসেবে দেখছেন ইনজামাম। আরও স্পষ্ট করে বললে হার্দিক পান্ডিয়ার একদাশে থাকাকে ‘ভুল’ মনে করছেন এই কিংবদন্তি ব্যাটার। চোটের কারণে আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে বোলিং করেননি পান্ডিয়া। পাকিস্তান ম্যাচেও বল হাতে নিতে পারেননি। বিশেষ করে, তার কাঁধের সমস্যা দেখে ইনজামাম পড়ে ফেলেছিলেন, মানসিকভাবে কতটা ভঙ্গুর এই ভারত।

ইনজামাম মনে করছেন, মূল পাঁচ বোলারের ব্যাকআপ হিসেবে কেউ ছিলেন না কোহলি পরিকল্পনায়। আর পান্ডিয়ার কাঁধে হাত দিয়ে রাখার দৃশ্যে ফুটে ওঠে কতটা চাপে আছে ভারত। পাকিস্তানের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এভাবে পান্ডিয়ার ‘প্রকাশ’ ভারতকে আরও ব্যাকফুটে ফেলে দেয়।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে সাবেক পাকিস্তানি অধিনায়ক বলেছেন, ‘ভারতের সবচেয়ে বড় বিপত্তি ঘটেছিল যেখানে, সেটা হলো হার্দিক পান্ডিয়াকে খেলানো। দল নির্বাচনে সঠিক ছিল না ভারত। বাবর আজম জানতো তার একাদশ নিয়ে সে কী করতে যাচ্ছে, তবে ভারত জানতো না।’

দুবাইয়ের ম্যাচে পান্ডিয়া সাত নম্বরে নেমে ৮ বলে করেন ১১ রান। ব্যাটিংয়ের সময় শাহীন আফ্রিদির একটি ডেলিভারি কাঁধে আঘাত করে তার। সঙ্গে সঙ্গে তিনি কাঁধ ধরে ফেলেন, যাতে স্পষ্ট ফুঠে ওঠে তার অস্বস্তি। এই অলরাউন্ডার আর মাঠে ফেরেননি এবং পাঠানো হয় স্ক্যান করতে।

ইনজামামের বক্তব্য, ‘আমার মনে হয় না পান্ডিয়ার এভাবে কাঁধ ধরাটা ঠিক হয়েছে। এরকম হাইভোল্টেজ ম্যাচে আপনি ব্যথা পেলেও প্রতিপক্ষকে কোনও ইঙ্গিত দিতে পারেন না যে আপনি ব্যথা পেয়েছেন। আমি ভারতীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে শচীন টেন্ডুলকারকে দেখেছি আঘাত পাওয়ার পরও ওই জায়গায় ঘষা পর্যন্ত দেয়নি। তারা ব্যথা পেলেও কোনও ইঙ্গিত করতো না।’

সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আমি হার্দিকের ওই দৃশ্য দেখে তখনই বুঝে যাই, ভারত চাপে আছে। এটা মোটেও ভালো ইঙ্গিত নয়। পরবর্তীতে সে আর মাঠেও আসেনি, বলও করেনি।’ ভারতের একাদশের দিকে আঙুল তুলে এই কিংবদন্তি বলেছেন, ‘যদি ভারত ষষ্ঠ বোলার ব্যবহার করতো, তাহলে অবশ্যই ভালো হতো। বাবর আজম যেমন লাভবান হয়েছে মোহাম্মদ হাফিজকে ব্যবহার করে। তার হাতে শোয়েব মালিকও ছিল।’

/কেআর/

সম্পর্কিত

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

হেসেখেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারালো দক্ষিণ আফ্রিকা

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৫১

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন তারা। এবারের আসরেও ফেভারিট ধরা হচ্ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। কিন্তু মূল লড়াইয়ে অন্যরকম এক দলের উপস্থিতি। বড্ড বিবর্ণ তাদের মাঠের পারফরম্যান্স। ইংল্যান্ড ম্যাচে ৫৫ রানে অলআউট হওয়ার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পারলো না দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। হেসেখেলে ক্যারিবিয়ানদের হারিয়েছে প্রোটিয়ারা। ৮ উইকেটের জয়ে এবারের বিশ্বকাপে প্রথমবার হাসলো দক্ষিণ আফ্রিকা। বিপরীতে টানা দুই ম্যাচে হার কাইরন পোলার্ডদের।

আজ (মঙ্গলবার) দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের করা ১৪৩ রান মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ১০ বল আগেই টপকে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শুরুতে তেম্বা বাভুমা রান আউটের শিকার হয়ে ফিরলে যা একটু অস্বস্তি তৈরি হয়েছিল। পরের সময়টা শুধু দক্ষিণ আফ্রিকার। এইডেন মারক্রামের ঝড়ো হাফসেঞ্চুরির সঙ্গে রাসি ফন ডের ডুসেন ও রিজা হেনড্রিকসের চমৎকার ব্যাটিংয়ে এসেছে সহজ জয়।

পুঁজি ছিল অল্প, তাই বোলিংয়ে শুরুটা দারুণ প্রয়োজন ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের। পেয়েও যায় আন্দ্রে রাসেলের মাপা থ্রোতে বাভুমা মাত্র ২ রান করে ফিরে গেলে। তবে প্রোটিয়াদের চাপে পড়তে দেননি হেনড্রিকস ও ফন ডের ডুসেন। দ্বিতীয় উইকেটে ৫৭ রানের জুটি গড়ার পথে হেনড্রিকস ৩০ বলে ৪ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায় ৩৯ রান করে ফেরেন আকিল হোসেনের বলে।

এরপর আর কোনও বিপদ নয়। ফন ডের ডুসেনের ঠাণ্ডার মাথার ব্যাটিং ও মারক্রামের আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে বড় জয় পায় দক্ষিণ আফ্রিকা। মারক্রাম ২৬ বলে ২ বাউন্ডারি ও ৪ ছক্কায় অপরাজিত থাকেন ৫১ রানে, অন্যদিকে ফন ডের ডুসেন ৫১ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ম্যাচ শেষ করেন অপরাজিত ৪৩ রানে।

এক একটা নাম শুনলেই গা শিউরে ওঠার কথা বোলারদের। ক্রিস গেইল, কিয়েরন পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, এভিন লুইস, ডোয়াইন ব্রাভো... টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে যারা অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। তো এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের বোলারদের কীভাবে উড়িয়ে-গুঁড়িয়ে দেবেন, সেটি দেখার অধীর অপেক্ষায় ছিল গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। কিন্তু হচ্ছে তার উল্টোটা! ‘অধিক সন্ন্যাসীতে গাজর নষ্ট’ প্রবাদটা একেবারে মিলে যায় ক্যারিবিয়ানদের সঙ্গে।

গেইল-সিমন্সরা যেন ‘টেস্ট বিশ্বকাপ’ খেলছেন!

এত সব বড় নাম একসঙ্গে খেলায় দলে সমন্বয়ের মারাত্মক ঘাটতি। তাই ক্যারিবিয়ান ঝড় তো উঠছেই না, বরং মন্থর ব্যাটিংয়ে ডুবছে হতাশায় সমুদ্রে। গেইল আর টি-টোয়েন্টি সমার্থক হয়ে উঠেছে, অথচ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যেন ‘টেস্ট’ খেলছেন তিনি। লেন্ডল সিমন্সের অবস্থা তো আরও খারাপ। গেইল কিছুটা হলেও স্বস্তি পাবেন তার ব্যাটিং দেখে। শুধু তারা নয়, দলের কোনও ব্যাটারই সুবিধা করতে পারছেন না। তাই ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অলআউট হয় ৫৫ রানে। আজ (মঙ্গলবার) দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে উন্নতি হয়েছে, তারপরও ৮ উইকেটে ১৪৩ রান ঠিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ-সুলভ স্কোর নয়।

যে দলে টি-টোয়েন্টির সেরা সব পারফর্মার, তাদের স্কোর দেড়শ পর্যন্ত না যাওয়া ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছেই জুতসই নয়। তারপরও না হয় মানা গেলো, কিন্তু সিমন্স যা করছেন, সেটির কোনও ব্যাখ্যা হয় না। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৩৫ বলে ১৬ রান! কাগিসো রাবাদা বলে আউট হওয়ার আগে কোনও বাউন্ডারি নেই এই ওপেনারের। টেস্ট ব্যাটিং ছাড়া আর কি বলা যায়! ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেও প্রায় একই অবস্থা, ৭ বলে করে যান মাত্র ৩ রান।

গেইলের অবস্থাও তো সুবিধার নয়। নিজেকে হারিয়ে খুঁজে চলা এই ব্যাটার একটা ছক্কা মেরেছেন বটে, কিন্তু রান করেছেন ১২ বলে ১২। গেইল ১২ বলে খেলে দ্বিগুণ রান তুলবেন, ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রত্যাশায় তো এটাই থাকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের চিত্রটাও একই, ১৩ বলে ১৩ রান।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নিকোলাস পুরানের ৭ বলে ১২, রাসেলের ৪ বলে ৫, পোলার্ডের ২০ বলে ২৬ রানের ইনিংসগুলো তাদের নামের পাশে বেমানান। তারপরও ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১৪৩ পর্যন্ত গিয়েছে লুইসের হাফসেঞ্চুরিতে। সিমন্স যেখানে কঠিন সংগ্রাম করছিলেন, সেখানে উল্টো পাশে ৩৫ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ৬ ছক্কায় ৫৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন এই ওপেনার।

দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে সফল বোলার ডোয়াইন ‍প্রিটোরিয়াস। এই পেসার ২ ওভারে ১৭ রান দিয়ে নেন ৩৩ উইকেট। ৪ ওভারে ২৪ রান খরচায় ২ উইকেট কেশব মহারাজের। আর একটি করে ‍উইকেট পেয়েছেন কাগিসো রাবাদা ও আনরিখ নর্কিয়া।

/কেআর/

সম্পর্কিত

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

ভারতের ‘ভুল’ ধরিয়ে দিলেন ইনজামাম

গেইল-সিমন্সরা যেন ‘টেস্ট বিশ্বকাপ’ খেলছেন!

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮:২১

এক একটা নাম শুনলেই গা শিউরে ওঠার কথা বোলারদের। ক্রিস গেইল, কিয়েরন পোলার্ড, আন্দ্রে রাসেল, এভিন লুইস, ডোয়াইন ব্রাভো... টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটকে যারা অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। তো এই ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষের বোলারদের কীভাবে উড়িয়ে-গুঁড়িয়ে দেবেন, সেটি দেখার অধীর অপেক্ষায় ছিল গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। কিন্তু হচ্ছে তার উল্টোটা! ‘অধিক সন্ন্যাসীতে গাজর নষ্ট’ প্রবাদটা একেবারে মিলে যায় ক্যারিবিয়ানদের সঙ্গে।

এত সব বড় নাম একসঙ্গে খেলায় দলে সমন্বয়ের মারাত্মক ঘাটতি। তাই ক্যারিবিয়ান ঝড় তো উঠছেই না, বরং মন্থর ব্যাটিংয়ে ডুবছে হতাশায় সমুদ্রে। গেইল আর টি-টোয়েন্টি সমার্থক হয়ে উঠেছে, অথচ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যেন ‘টেস্ট’ খেলছেন তিনি। লেন্ডল সিমন্সের অবস্থা তো আরও খারাপ। গেইল কিছুটা হলেও স্বস্তি পাবেন তার ব্যাটিং দেখে। শুধু তারা নয়, দলের কোনও ব্যাটারই সুবিধা করতে পারছেন না। তাই ওমান ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে অলআউট হয় ৫৫ রানে। আজ (মঙ্গলবার) দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে উন্নতি হয়েছে, তারপরও ৮ উইকেটে ১৪৩ রান ঠিক ওয়েস্ট ইন্ডিজ-সুলভ স্কোর নয়।

যে দলে টি-টোয়েন্টির সেরা সব পারফর্মার, তাদের স্কোর দেড়শ পর্যন্ত না যাওয়া ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছেই জুতসই নয়। তারপরও না হয় মানা গেলো, কিন্তু সিমন্স যা করছেন, সেটির কোনও ব্যাখ্যা হয় না। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ৩৫ বলে ১৬ রান! কাগিসো রাবাদা বলে আউট হওয়ার আগে কোনও বাউন্ডারি নেই এই ওপেনারের। টেস্ট ব্যাটিং ছাড়া আর কি বলা যায়! ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেও প্রায় একই অবস্থা, ৭ বলে করে যান মাত্র ৩ রান।

গেইলের অবস্থাও তো সুবিধার নয়। নিজেকে হারিয়ে খুঁজে চলা এই ব্যাটার একটা ছক্কা মেরেছেন বটে, কিন্তু রান করেছেন ১২ বলে ১২। গেইল ১২ বলে খেলে দ্বিগুণ রান তুলবেন, ক্রিকেটপ্রেমীদের প্রত্যাশায় তো এটাই থাকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচের চিত্রটাও একই, ১৩ বলে ১৩ রান।

প্রোটিয়াদের বিপক্ষে নিকোলাস পুরানের ৭ বলে ১২, রাসেলের ৪ বলে ৫, পোলার্ডের ২০ বলে ২৬ রানের ইনিংসগুলো তাদের নামের পাশে বেমানান। তারপরও ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১৪৩ পর্যন্ত গিয়েছে লুইসের হাফসেঞ্চুরিতে। সিমন্স যেখানে কঠিন সংগ্রাম করছিলেন, সেখানে উল্টো পাশে ৩৫ বলে ৩ বাউন্ডারি ও ৬ ছক্কায় ৫৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন এই ওপেনার।

দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে সফল বোলার ডোয়াইন ‍প্রিটোরিয়াস। এই পেসার ২ ওভারে ১৭ রান দিয়ে নেন ৩৩ উইকেট। ৪ ওভারে ২৪ রান খরচায় ২ উইকেট কেশব মহারাজের। আর একটি করে ‍উইকেট পেয়েছেন কাগিসো রাবাদা ও আনরিখ নর্কিয়া।

/কেআর/

সম্পর্কিত

অনুশীলনে সোহানের চোট

অনুশীলনে সোহানের চোট

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

আবারও জ্বলে উঠলেন পাকিস্তানের বোলাররা

quiz
সর্বশেষসর্বাধিক
© 2021 Bangla Tribune