X
রবিবার, ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

যে মূলমন্ত্রে জননেত্রী হয়ে ওঠেন বঙ্গবন্ধুকন্যা

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৩৫

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার ছয় বছর পর ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে আসেন শেখ হাসিনা। দল গুছিয়ে ক্ষমতায় আসতে অপেক্ষা করতে হয় আরও  ১৫ বছর। ততদিনে দক্ষ রাজনীতিবিদ হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলেছেন তিনি। ১৯৮১ সালে ঐক্যের ডাক দিয়ে দেশে প্রবেশ করেছিলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। এরপর কেটে গেছে ৪০ বছর। কোন মন্ত্রবলে তিনি হয়ে উঠলেন জননেত্রী? ইতিহাসের পাতা বলে, ১৯৮১ সালে দেশের মাটিতে পা রেখে ‘আমি নেতা নই’ তার এই বাক্য উচ্চারণের মাঝেই সকল শক্তি নিহিত, যিনি কিনা এতদিন পরে ২০২১ সালে এসেও বলতে পারেন— ‘আমি শুধু শাসক নই, বাংলাদেশের মানুষের সেবক।’

সাংবাদিক, সুশাল সমাজের প্রতিনিধিরা বলছেন, একজন আদর্শ নেতা অন্যের চাহিদা এবং প্রয়োজন বুঝে নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। যিনি নেতা তিনি নিজেকে নেতা ঘোষণা করতে পারেন না। দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেই মন্ত্র ধারণ করতে পেরেছেন।

১৯৮১ সালের ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছয় বছর পর দেশে ফিরে সাংগঠনিক ঐক্যের ডাক দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, ‘আসুন, আবারও আমরা এক হই।’ স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর শেখ হাসিনা এ দিন সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ আয়োজিত গণসংবর্ধনার সমাবেশে কান্নাজড়িত কণ্ঠে জনগণের কাছে তার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যার বিচার দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘এই ঢাকা শহরে আমার কেউ নাই।’ বাংলার দুঃখী মানুষের জন্য পিতার জীবনদানের কথা স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘এই সংগ্রামে আমিও জীবনদান করতে প্রস্তুত।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি নেতা নই। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠার একজন কর্মী। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়িত করার জন্য আপনাদের নিয়ে আমি নিরন্তর সংগ্রাম চালিয়ে যাবো।’

৪০ বছর পর ২০২১ সালের ২৯ মে বিশ্বব্যাপী শান্তি রক্ষায় জাতিসংঘের বিভিন্ন মিশনে দায়িত্বরত বাংলাদেশিদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও দৃপ্ত কণ্ঠে বলেন, ‘আমি শুধু প্রধানমন্ত্রী নই, জাতির পিতার মেয়ে। তাই, আমার ওপর আপনাদের অধিকার আছে। তাই যে কোনও প্রশ্ন করতে পারেন।’ ‘জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস’ উপলক্ষে সশস্ত্র বাহিনীর এক অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এ কথা বলেন।

গত  ৬ সেপ্টেম্বর নৌবাহিনী ও বিমান বাহিনীর নির্বাচনি পর্ষদের সদস্যদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের মেয়ে, আমি শুধু শাসক নই, বাংলাদেশের মানুষের সেবক। জনগণের সেবা ও কল্যাণ করাটাকেই আমি সবচেয়ে বড় কাজ বলে মনে করি।’

এই যে ‘আমি নেতা নই’, সেটা বলতে পারার পাশাপাশি ধারণ করতে পারার কারণেই শেখ হাসিনা অন্য সবার থেকে আলাদা উল্লেখ করে সাংবাদিক জ্যেষ্ঠ আবেদ খান বলেন, ‘শেখ হাসিনা তার স্বমহিমায় উদ্ভাসিত। ১৯৮১ সালে যখন দেশে ফিরে আসেন, তখন তিনি যে মানসিক বিপর্যস্ততার মধ্যে ছিলেন, সেই সময় নেওয়া শপথ তার চালিকাশক্তি হবে, এটাই স্বাভাবিক। তিনি যে কথাগুলো সেদিন বলেছিলেন, তার মধ্যে অন্যতম হলো— ‘আমি নেতা নই’ বলতে পারা। তাতে তিনি নেতৃত্বের সুদৃঢ়তা অর্জন করেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনার যে কাজ, সেটার বীজ রোপণ করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। শেখ হাসিনা নিজের দক্ষতা দিয়ে সেই আলোকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন এবং তার ফল আমরা পাচ্ছি। তার ক্ষেত্রে এক কথায় বলা যায়— বৃক্ষ তোমার নাম কী, ফলে পরিচয়।’’

‘বাংলাদেশের রাজনীতিতে শেখ হাসিনার আগমন ছিল একটি নতুন যুগের সূচনা’— উল্লেখ করে দৈনিক আমাদের অর্থনীতির সম্পাদক মাসুদা ভাট্টি বলেন, ‘৭৫-পরবর্তীকালে দেশ ও দেশের রাজনীতির যে উল্টোযাত্রা শুরু হয়েছিল, তা থেকে উত্তরণে এবং দেশের সামরিকায়ন প্রক্রিয়া থেকে গণতান্ত্রিক রাজনৈতিকায়নে শেখ হাসিনার ভূমিকাকে আমরা বাংলাদেশকে দ্বিতীবার দেশ স্বাধীনের সঙ্গে তুলনা করতে পারি।’

কেবল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা হিসেবে নয়, তিনি একজন প্রকৃত বিশ্বনেতার মতোই বাংলাদেশকে পুনর্গঠনে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি বারবার বলেছেন যে, তিনি নেতা হতে আসেননি। তিনি নিজের ভাগ্য গড়তে আসেননি। এগুলো যে কেবল কথার কথা নয়, তার প্রমাণ পাওয়া যায় তার জীবনাচরণ এবং  বিভিন্ন সময়ে প্রকাশ হওয়া তার প্রতি জনগণের ভালোবাসা থেকে। কেবলমাত্র শাসক হলে তিনি গণমানুষের এত ভালোবাসা পেতেন না।

তার সমর্থকগোষ্ঠী তাকে ভালোবেসে যথার্থই দেশরত্ন খেতাব দিয়েছে। তিনি সত্যিই দেশরত্ন। কারণ, বাংলাদেশ তার মতো রত্নকে না পেলে হয়তো নতুন করে পরাধীন হতো। শেখ হাসিনা শুধু চিন্তাই করেন তা নয়, চিন্তাকে বাস্তবে রূপ দেন। আজকের বাংলাদেশের দিকে তাকালে সেটাই প্রত্যক্ষ করা যায় সর্বত্র।

/এপিএইচ/আপ-এনএইচ/

সম্পর্কিত

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ২০ অক্টোবর

ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ২০ অক্টোবর

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৭:৩০

দেশে করোনা সংক্রমণের নিম্নগতি অব্যাহত রয়েছে। গতকাল (১৬ অক্টোবর) চলতি বছরে প্রথম দিনের মতো দৈনিক শনাক্তের হার নেমে আসে দুইয়ের নিচে। সেই ধারা অব্যাহত রয়েছে আজও; গতকালের চেয়েও কমে এসেছে শনাক্তের হার। গত ২৪ ঘণ্টায় (১৬ অক্টোবর সকাল ৮টা থেকে ১৭ অক্টোবর সকাল ৮টা পর্যন্ত) করোনায় দৈনিক শনাক্তের হার এক দশমিক ৭৪ শতাংশ, গতকাল যা ছিল এক দশমিক ৮৮ শতাংশ।

তবে গতকালের তুলনার আজ শনাক্ত এবং মৃত্যু বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৩১৪ জন এবং মারা গেছেন ১৬ জন। যেখানে গতকাল শনাক্ত ২৯৩ এবং মৃত্যু ছিল ছয় জন।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদফতর আরও জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হওয়া ৩১৪ জনকে নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ৪৮৮ জন এবং ১৬ জনকে নিয়ে এখন পর্যন্ত মারা গেলেন ২৭ হাজার ৭৬৮ জন।

করোনা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫২৯ জন। এদের নিয়ে দেশে মোট সুস্থ হয়ে উঠলেন ১৫ লাখ ২৭ হাজার ৮৬২ জন।

দেশে এখন পর্যন্ত রোগী শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৫১ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৭৭ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৮ হাজার ৩০০টি, আর পরীক্ষা করা হয়েছে ১৮ হাজার ৯৭টি। দেশে এখন পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে এক লাখ ৯৪ হাজার ৯২২টি। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৭৩ লাখ ৮৯ হাজার ৪৩১টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ২৭ লাখ পাঁচ হাজার ৪৯১টি। 

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ১৬ জনের মধ্যে পুরুষ ১০ জন এবং নারী ছয় জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট পুরুষ মারা গেলেন ১৭ হাজার ৭৮৯ জন এবং নারী ৯ হাজার ৯৭৯ জন।

১৬ জনের মধ্যে বয়স বিবেচনায় সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে, পাঁচ জন। এরপর ৪১ থেকে ৫০ এবং ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন চার জন করে, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে আছেন দুই জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে রয়েছেন একজন।

বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের আছেন সর্বোচ্চ সাত জন, চট্টগ্রাম বিভাগের তিন জন এবং রাজশাহী, খুলনা ও ময়মনসিংহ বিভাগের আছেন দুই জন করে।

১৬ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১২ জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে চার জন।

 

 

 

/জেএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ২০ অক্টোবর

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৪৫

সরকার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবীর (সা.) ছুটি ১৯ অক্টোবরের পরিবর্তে আগামী ২০ অক্টোবর (বুধবার) পুননির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। রবিবার (১৭ অক্টোবর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অ্যালোকেশন অব বিজনেস অ্যামং দ্য ডিফারেন্স মিনিস্ট্রিস অ্যান্ড ডিভিশন্স-এর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় অংশে ৩৭ নম্বর ক্রমিকের বিধানে দেওয়া ক্ষমতাবলে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে সরকারি ছুটি আগামী ১৯ অক্টোবরের পরিবর্তে ২০ অক্টোবর পুননির্ধারণ করা হলো।

উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বায়তুল মোকাররম সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় জানানো হয়, বাংলাদেশের আকাশে কোথাও সফর মাসের চাঁদ দেখা যায়নি। সেই হিসাবে ২০ অক্টোবর ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) পালিত হবে।

প্রজ্ঞাপনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে- যে সব অফিসের সময়সূচি ও ছুটি তাদের নিজস্ব আইন-কানুন দিয়ে নিয়ন্ত্রিত হয় বা যেসব অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের চাকরি সরকারের অত্যাবশ্যক চাকরি হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট অফিস, সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান নিজস্ব আইন-কানুন অনুযায়ী জনস্বার্থ বিবেচনা করে এই ছুটি পুননির্ধারণ করবে।

মুসলিম ধর্মাবলম্বীরা ১২ রবিউল আউয়াল মহানবী হজরত মুহম্মদ (সা.) এর জন্ম ও মৃত্যু (ওফাত) দিবস হিসেবে পালন করে। কারণ এই দিনে রাসুল (সা.) ইন্তেকালও করেন। সেই হিসাবে আগামী ২০ অক্টোবর হবে ১২ রবিউল আউয়াল।

২০২১ সালের ছুটির বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী, ৮ অক্টোবর রবিউল আউয়াল মাস শুরু ধরে ১৯ অক্টোবর (মঙ্গলবার) ঈদে মিলাদুন্নবীর সরকারি ছুটি নির্ধারিত ছিল। কিন্তু এবার আরবি সফর মাস ৩০ দিনে শেষ হয় এবং রবিউল আউয়াল মাস শুরু হয় গত ৯ অক্টোবর। সেই হিসাবে এবার ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) ২০ অক্টোবর।

/এসআই/এমআর/

সম্পর্কিত

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৭

চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে রাজধানীর হযরত শাহজালাল (রহ.) বিমানবন্দরের পাশে প্রবাসী কর্মীদের জন্য একটি সাপোর্ট সেন্টার চালু করতে চায় সরকার। একইসঙ্গে প্রবাসীদের জন্য কম খরচে চিকিৎসা প্রদানের জন্য ভাটারায় একটি মেডিক্যাল সেন্টার করার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।

রবিবার (১৭ অক্টোবর) প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে প্রবাসী কর্মীদের জন্য ওয়েজ কল্যাণ বোর্ড কর্তৃক ‘প্রতিবন্ধী ভাতা’ প্রদান অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

প্রবাসী কর্মীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার করা প্রসঙ্গে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী জানান, যারা বিদেশে যেতে ইচ্ছুক এবং যারা বিদেশে যাবেন তাদের সহায়তা দেওয়ার জন্য এই সাপোর্ট সেন্টারটি করা হবে। আশা করি এটা ডিসেম্বরের মধ্যে চালু করতে পারবো।

প্রবাসীদের জন্য যা কিছু করা দরকার এক এক করে সরকার সব করবে আশ্বাস দিয়ে ইমরান আহমদ বলেন, ‘আমরা প্রবাসীদের কল্যাণে একটা মেডিক্যাল সেন্টারও করবো। যেখানে প্রবাসীরা কম খরচে চিকিৎসা সেবা নিতে পারবেন। এটার কাজ এখনও শুরু হয়নি।’

প্রবাসীদের সেবা দেওয়ার জন্য সরকার নতুন নতুন প্রকল্প হাতে নিচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা মন্ত্রণালয় থেকে ওয়েজ কল্যাণ বোর্ডের মাধ্যমে প্রবাসীদের জন্য ৩৩২ কোটি টাকা প্রবাসীদের সহায়তায় খরচ করেছি। সৌদিগামীদের কোয়ারেন্টাইনে ২৫ হাজার টাকা করে দিয়েছি। আমিরাত প্রবাসীদের জন্য পিসিআর টেস্টের জন্য ১ হাজার ৬০০ টাকা করে দিচ্ছি। বিদেশ ফেরত ৯২০ জন নারী কর্মীকে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে।’

এ সময় মন্ত্রী কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালককে উদ্দেশ করে বলেন, ‘প্রবাসীদের যেসব সন্তাদের ভাতা প্রদান করা হচ্ছে, তাদের মধ্যে যেসব প্রতিবন্ধী চিকিৎসার মাধ্যমে স্বাভাবিক অবস্থানে ফিরতে আসতে পারবে তাদের স্থায়ী চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।’ প্রবাসীদের কল্যাণে সব সেবা অনলাইনভিত্তিক করা হচ্ছে বলেও জানান মন্ত্রী ইমরান।

অনুষ্ঠানে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন বলেন, ‘যারা বৈধভাবে বিদেশ যায়, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় তাদের জন্য কাজ করছে। আজ যাদের ভাতা দেওয়া হচ্ছে, তারা পাঁচ বছরে মোট ৬০ হাজার টাকা পাবেন। সবার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা চলে যাবে। বর্তমানে আগের বাংলাদেশ নেই। উন্নয়নের ছোঁয়া গ্রামেও চলে গেছে, এতে প্রবাসীদের অবদান বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন।’

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক মো. হামিদুর রহমান। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. শহীদুল আলম প্রমুখ।

/এসও/ইউএস/

সম্পর্কিত

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৬

ধর্মীয় উগ্রবাদ ছড়ানোর মাধ্যমে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা চলছে বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। রবিবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন প্রাঙ্গণে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতর আয়োজিত ‘বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস-২০২১ উদযাপন’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, মেট্রোরেলসহ অনেক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে, যা বিশ্বদরবারে বাংলাদেশের সুনাম সৃষ্টি করেছে। এসব উন্নয়ন তাদের সহ্য হয় না বলে নানা কৌশল অবলম্বন করছে। ধর্মীয় উগ্রবাদ সৃষ্টি করে দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে ব্যাহত এবং বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার অপচেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান, মন্ত্রী, আমলা, কৃষক-শ্রমিকসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এ দেশেরই সন্তান। সবাই মিলে সৌহার্দ্য সম্প্রীতি নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করতে হবে।’

বাংলাদেশে সব ধর্মের মানুষ কোনও বাধাবিঘ্ন ছাড়াই নিজের ধর্ম পালন করছে উল্লেখ করে তাজুল ইসলাম বলেন, ‘অন্য ধর্মের প্রতি সম্মান ও মর্যাদা করার শিক্ষা ইসলামসহ সব ধর্মেই রয়েছে। কিন্তু একটি গোষ্ঠী ধর্মকে ব্যবহার করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।’

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করার পরই দেশে উন্নয়ন শুরু হয়। কিন্তু পরে ক্ষমতায় না আসায় উন্নয়নের ধারা স্থবির হয়ে পড়ে। এরপর পুনরায় শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে দেশকে নতুন এক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। এখন লক্ষ্যমাত্রা একটাই, ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত-সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বিনির্মাণ করা।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে হলে দরকার সঠিক নেতৃত্ব। আর সে নেতৃত্ব দেওয়ার সক্ষমতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আছে। যার নজির তিনি ইতোমধ্যে রেখেছেন এবং রেখে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশ্বে আজ উন্নয়নের রোল মডেল। বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে সারা বিশ্ব হতবাক।’

‘সুস্বাস্থ্যের জন্য হাত ধোয়া’ শুধু বাংলাদেশেই নয়, সারা বিশ্বে গুরুত্বসহ অনুসরণ করা হয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘শহর-নগর, গ্রামগঞ্জের সব মানুষকে এ বিষয়ে সচেতন করার কাজ চলছে।’ নিয়মিত হাত ধোয়া, সম্ভাব্য সংক্রমিত ব্যক্তির সঙ্গে মেলামেশা না করা এবং বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রদূত নাথালি চুয়ার্ড এবং ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি ভিরা মেন্ডোনকা। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

 

/এসএস/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

হাসিনা- জনসন বৈঠক

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:৫৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের মধ্যে আগামী মাসে অনুষ্ঠেয় বৈঠকে জলবায়ু পরিবর্তন, কোভিড সহযোগিতা, বাণিজ্য নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা আছে। এছাড়া যুক্তরাজ্যে অবস্থান করে যারা বাংলাদেশ বিরোধী প্রচারণা করছে- তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়েও আলোচনার সম্ভাবনা আছে।

জলবায়ু শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য শেখ হাসিনা ৩১ অক্টোবর গ্লাসগো যাচ্ছেন। সেখানে  যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক হওয়ার জোর সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ে বড় একটি আলোচনা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এ সংক্রান্ত যেসব বিষয়ে লন্ডন বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছে- সেসব জায়গায় বাংলাদেশে কীভাবে কাজ করতে পারে সেটি নিয়ে কথা হবে।’

কোভিড বিষয়ে বাংলাদেশ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা পাচ্ছে এবং বাংলাদেশকে ‘রেড লিস্ট’ থেকেও সরিয়ে দিয়েছে। সম্প্রতি বাংলাদেশের দেওয়া টিকা সার্টিফিকেটও গ্রহণের অনুমতি দিয়েছে দেশটির সরকার। এসব বিষয় উল্লেখ করে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘এসব বিষয়সহ কোভিক সহযোগিতা বাড়ানো যায় কিনা সেটা নিয়ে আলোচনার সুযোগ রয়েছে।’

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার

যারা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে- তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য গত সেপ্টেম্বরে দুই দেশের মধ্যে চতুর্থ স্ট্র্যাটেজিক ডায়ালগে ‘মিউচুয়াল লিগ্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স’ চুক্তি সইয়ের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সরকারের শক্ত অবস্থানের কারণে দুই শীর্ষ নেতার বৈঠকে এ বিষয়ে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আবারো আলোচনার সম্ভাবনা আছে।

মিউচুয়াল লিগ্যাল এসিস্ট্যান্স চুক্তি নিয়ে আলোচনা করার আগ্রহ রয়েছে বাংলাদেশের জানিয়ে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, যুক্তরাজ্যে কিছু লোক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে এবং তাদের বিষয়ে আমরা যুক্তরাজ্য সরকারকে জানিয়েছি।

তিনি বলেন, বিশেষ করে যারা সাজাপ্রাপ্ত আসামি রয়েছে- তাদের বিষয়ে ব্রিটিশ সরকারের অবস্থান এবং এ বিষয়ে আমাদের সঙ্গে সহযোগিতা কীভাবে বাড়ানো যায় সেটি নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা আছে।

ব্রেক্সিট পরবর্তী বাণিজ্য

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে গেছে যুক্তরাজ্য। ফলে দেশটির সঙ্গে বাণিজ্য সুবিধাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে হবে। পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ব্রেক্সিটের পরে স্বাভাবিকভাবেই নানা দিক থেকে আমাদের সম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের জিএসপি সুবিধার বদলে যুক্তরাজ্য কী দেবে সেটিও আমাদের আগ্রহের একটি জায়গা।

অভিবাসনের ক্ষেত্রে তারা এখন পয়েন্ট সিস্টেম করছে এবং সেখানে বাংলাদেশিরা যাতে বেশি সুযোগ পায়- তা কীভাবে নিশ্চিত করা যায় সেটিও আমাদের পক্ষ থেকে তোলার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

/এসএসজেড/ইউএস/

সম্পর্কিত

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

দ্বিতীয় দিনের মতো আজও শনাক্তের হার ২-এর নিচে

ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ২০ অক্টোবর

ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি ২০ অক্টোবর

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

ডিসেম্বরের মধ্যে প্রবাসীদের জন্য সাপোর্ট সেন্টার চালুর আশা

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

‘বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা চলছে’

এজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

হাসিনা- জনসন বৈঠকএজেন্ডায় থাকতে পারে ‘অপপ্রচারকারীদের’ ফিরিয়ে আনার ইস্যু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাঙালিদের শুভেচ্ছা নিয়ে জাপানে রওয়ানা দেন বঙ্গবন্ধু

বাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

প্যারিসে হাসিনা-ম্যাক্রোঁর বৈঠকবাণিজ্য, নিরাপত্তা ও জলবায়ু ইস্যু গুরুত্ব পাবে

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ত্রিপুরায় কবর দেওয়া মুক্তিযোদ্ধাদের দেহাবশেষ ফিরিয়ে আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই বিচারের আওতায় আনা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

৩০ অক্টোবরের মধ্যেই আমদানির চাল বাজারে ছাড়ার নির্দেশ

সর্বশেষ

আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আইনের আওতায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির শাস্তি দাবি রানা দাশগুপ্তের

আসিয়ান সম্মেলনে বাদ পড়ায় ‘চরম হতাশ’ মিয়ানমার জান্তা

আসিয়ান সম্মেলনে বাদ পড়ায় ‘চরম হতাশ’ মিয়ানমার জান্তা

সাফা কবিরের অন্তর্জাল সিনেমা ‘কুহেলিকা’ 

সাফা কবিরের অন্তর্জাল সিনেমা ‘কুহেলিকা’ 

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

করোনাকালীন প্রণোদনার দাবিতে নার্সদের বিক্ষোভ

যাত্রাবাড়ীতে হেরোইনসহ গ্রেফতার ১

যাত্রাবাড়ীতে হেরোইনসহ গ্রেফতার ১

© 2021 Bangla Tribune