X
শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ৬ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

ভাসানচরে যাওয়ার আগ্রহ বেড়েছে রোহিঙ্গাদের

আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২১, ১৫:২৬

ভাসানচরে জাতিসংঘ যুক্ত হওয়ায় সেখানে যাওয়ার বিষয়ে রোহিঙ্গাদের নতুন করে আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। যেসব সুবিধা রোহিঙ্গারা উখিয়া ও টেকনাফের ক্যাম্পগুলোতে পেতো ভাসানচরেও সেসব সুবিধা মিলবে বলে তারা ধারণা করছেন। তবে কেউ কেউ বলছেন, ভাসানচরের চেয়ে মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর জন্য জাতিসংঘের আরও উদ্যোগ নেওয়া উচিৎ। জাতিসংঘ ও বাংলাদেশ সরকার যেখানেই তাদের পাঠাবে, সেখানেই যাবেন। তবে মিয়ানমারে ফিরতে বেশি আগ্রহী তারা।

রবিবার (১০ অক্টোবর) রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বিভিন্ন মাঝির সঙ্গে কথা বলে ভাসানচরের বিষয়ে তাদের ইতিবাচক বক্তব্য পাওয়া গেছে।

উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্প ১ এর মাঝি করিম মুস্তফা বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ভাসানচরে জাতিসংঘ যুক্ত হওয়ায় আমরা খুশি। তবে সাধারণ রোহিঙ্গাদের মধ্যে একটা ভয় ছিল বন্যা  ও জলোচ্ছ্বাস নিয়ে। কিন্তু যারা গেছে তাদের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। তারা জানিয়েছে বন্যায় তেমন কোনও সমস্যা নেই। তবে বাজার সদাই, ওষুধ পানির সুযোগ সুবিধা নিয়ে তাদের আপত্তি ছিল। এখন সেই আপত্তি থাকবে না।’

এই রোহিঙ্গা নেতা বলেন, ‘আমাদের যেখানে নেবে সেখানেই যাবো। কিন্তু আমরা মিয়ানমারে যেতে চাই। আমাদের সেই ব্যবস্থাটা করতে পারলে ভালো হতো।’

রোহিঙ্গা ক্যাম্প

রোহিঙ্গা নেতা নুর বসর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি চেষ্টা করছি আমার আশেপাশে যারা রয়েছে তাদের বুঝানোর। আমরা জানি বাংলাদেশ সরকার ও জাতিসংঘ সর্বোচ্চ ভালোটাই চায়। তবে ভাসানচর নিয়ে সাধারণ রোহিঙ্গাদের মধ্যে কিছু বিষয়ে ভুল ধারণা রয়েছে। তারা অনেকেই ভাবে ভাসানচরে গেলে কোনও সাহায্য পাবে না, তবে জাতিসংঘ সেখানে যাওয়াতে এখন এই ভুলটাও তাদের ভেঙে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে নিজেরা বিষয়টা আলাপ করছি। জাতিসংঘ সেখানে যাওয়াতে রোহিঙ্গারা সকল সুবিধা পাবে এমন ধারণা ইতিমধ্যে রোহিঙ্গাদের মধ্যে শুরু হয়েছে।’

অনেক রোহিঙ্গা ভাসানচরে নিরাপদ মনে করে। সেখানে সন্ত্রাসী কার্যক্রম কম হবে বলেও মনে করেন তারা। রোহিঙ্গা মানবাধিকার কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী আউয়াল বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার ও জাতিসংঘ যেখানে রাখবে, রোহিঙ্গারা সেখানেই থাকবে। সাধারণ রোহিঙ্গারা নিরাপদে থাকতে চায়। কারণ ক্যাম্পকে ঘিরে একটি চক্র বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাতে চায়। যা সাধারণ রোহিঙ্গাদের পছন্দ না।’

রোহিঙ্গা ক্যাম্প

ভাসানচরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে জাতিসংঘের প্রতিষ্ঠানগুলোর সম্পৃক্তকরণের বিষয়ে সরকার ও জাতিসংঘের মধ্যে শনিবার (৯ অক্টোবর) চুক্তি সম্পন্ন হয়েছে। এ লক্ষ্যে সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমঝোতা স্মারক সই করেছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই-কমিশন (ইউএনএইচসিআর)।

এই চুক্তির আলোকে জাতিসংঘ ভাসানচরে কাজ করবে।

নোয়াখালীর ভাসানচরে বর্তমানে ১৮ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা বসবাস করছে। উখিয়া ও টেকনাফের তুলনায় উন্নত বাসস্থান আর সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হয়েছে ওই আশ্রয়কেন্দ্রে। এরপরও ভাসানচরে যেতে রোহিঙ্গাদের অনাগ্রহ। এমনকি যারা সেখানে গেছেন, তাদের অনেকে পালিয়ে আসার চেষ্টাও করছেন। তবে জাতিসংঘের সঙ্গে চুক্তি হওয়ায় সেখানে যাবার আগ্রহ তৈরি হবে বলে রোহিঙ্গারা মনে করছেন।

 

/এমআর/

সম্পর্কিত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:৩৭

পূজার সময়ে সন্ত্রাসী ঘটনার প্রচারণা মোকাবিলার জন্য বিদেশে বাংলাদেশি মিশনগুলোকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এজন্য যেসব দেশে বাংলাদেশি কূটনীতিকরা কর্মরত রয়েছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা সাংবাদিকদের কাছে সঠিক তথ্য তুলে ধরার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরবরাহ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন এ তথ্য জানান।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘বিদেশে যদি এ বিষয় নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা চালানো হয়, তবে আমাদের দূতাবাসগুলো যাতে সেটি কাউন্টার করতে পারে, তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা ঘটলে সেটার বিষয়ে অগ্রগতি আমরা সবসময় আমাদের রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গে শেয়ার করে থাকি, যাতে তারা যে দেশে কাজ করছেন, ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বা সরকার বা  সংবাদপত্রকে এ বিষয়ে জানাতে পারেন।’

স্থিতিশীলতা

বাংলাদেশের মূল লক্ষ্য হচ্ছে স্থিতিশীলতার মাধ্যমে অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জন করা। কিন্তু এ ধরনের ঘটনার কারণে মূল লক্ষ্য থেকে বিচ্যুতি ঘটতে পারে।

এ বিষয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘স্থিতিশীলতার কারণেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি এবং এ ধরনের বিশৃঙ্খলা যদি শক্ত হাতে দমন না করা যায়, তাহলে আমাদের অগ্রগতি ব্যাহত হবে।’

সমাজের সবারই দায়িত্ব হচ্ছে এ ধরনের ঘটনা সমূলে উৎপাটন করা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘অনেক দেশ অর্থনৈতিকভাবে অগ্রগতি সাধন করেছে। কিন্তু সমাজে বিভিন্ন সমস্যা আছে, কিন্তু আমরা তো এ ধরনের সমাজ চাই না। প্রগতিশীল একটি দেশ হিসেবে এগিয়ে যেতে চাই, যেখানে অর্থনৈতিক ও সামাজিক অগ্রগতি একসঙ্গে হবে।’

সরকারের অবস্থান

এটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য বিষয় জানিয়ে মাসুদ বিন মোমেন বলেন, ‘আমরা চাই বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রীতি বজায় থাকুক। আমরা সবসময় বার্তা দিয়ে আসছি যে বাংলাদেশ ধর্মনিরপেক্ষ দেশ। ধর্ম যার যার উৎসব সবার—এই বার্তাটি আমরা সবসময় দিয়ে থাকি।’

গুজব বা আইসিটির মাধ্যমে অপপ্রচার অত্যন্ত বিপজ্জনক জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট অনেকে পছন্দ করেন না, কিন্তু এটি ছাড়া তো উপায় নাই।’

সরকারের অবস্থান শক্ত ছিল এবং কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছিল, যাতে ইন্টারনেটের মাধ্যমে অপপ্রচার দ্রুত না ছড়ায়, বলেন তিনি।

/এসএসজেড/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২১:১৩

লন্ডন সফররত রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সেখানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক, কলামিস্ট ও সাহিত্যিক আবদুল গাফফার চৌধুরীর চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যের বিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন বলেন, হাসপাতালে দর্শনার্থী সংক্রান্ত বিধিনিষেধের কারণে রাষ্ট্রপতি টেলিফোনে আবদুল গাফফার চৌধুরীর খোঁজ-খবর নেন। এসময় তিনি যুক্তরাজ্যের বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিমের মাধ্যমে আবদুল গাফফার চৌধুরীকে ফুলেল শুভেচ্ছা পাঠান।

প্রেস সচিব জানান, গাফফার চৌধুরী তার খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। রাষ্ট্রপতি আবদুল গাফফার চৌধুরীর আশু আরোগ্য কামনা করেন এবং আশা প্রকাশ করেন, তিনি সুস্থ হয়ে শিগগিরই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসবেন।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, গাফফার চৌধুরী নিউমোনিয়া জটিলতায় গত ৬ অক্টোবর থেকে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

গত ৯ অক্টোবর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য জার্মানির বার্লিনে যান রাষ্ট্রপতি। সেখান থেকে যুক্তরাজ্যের লন্ডন যান তিনি।

/ইএইচএস/এমআর/

সম্পর্কিত

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে মুসলিম উম্মাহকে রাষ্ট্রপতির শুভেচ্ছা

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

কৃষি উন্নয়নের মাধ্যমে সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে: রাষ্ট্রপতি 

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

ভোক্তার আস্থা অর্জনে বিএসটিআইকে আরও দায়িত্বশীল হতে হবে: রাষ্ট্রপতি

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যথাযথ গুরুত্ব দেওয়ার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:২০

সারা দেশে নবনির্মিত ৩৭টি সেতু উদ্বোধন করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) ভার্চুয়ালি “ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের’’ আওতায় এসব সেতু উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু বিভাগের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা শেখ ওয়ালিদ ফয়েজ।

অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী জানান, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের আওতায় প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ৮২টি সেতু নির্মাণ করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ পর্যন্ত ৬১টি সেতুর নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে। এরমধ্যে ২৫টি সেতু আগেই উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ ৩৫টি সেতু উদ্বোধন করা হলো।

মন্ত্রী আরও জানান, রংপুর সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-১-এর অধীনে প্রায় ৫৯৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৯টি সেতু এবং রাজশাহী সড়ক জোনের আওতায় প্যাকেজ-২-এর অধীনে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ১৬টি সেতু রয়েছে। অবশিষ্ট ২২টি সেতুর কাজ চলমান। এছাড়াও রংপুর সড়ক জোনের আওতায় জিওবি অর্থায়নে নির্মিত দুটি সেতু বুড়িতিস্তা ও শান্তিপুর-ললতই-ভাটা সেতুও আজ উদ্বোধন করা হলো।

তিনি জানান, সেতুগুলো দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে সড়ক নেটওয়ার্ক স্থাপন এবং সাসেক করিডোর, এশিয়ান হাইওয়ে, বিমসটেক ও সার্ক হাইওয়ের সঙ্গে সংযুক্তি ঘটাতে কার্যকর ভূমিকা রাখবে। এছাড়াও উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে ঢাকাসহ সারা দেশের নিরাপদ, উন্নত ও ব্যয়সাশ্রয়ী যোগাযোগ স্থাপনসহ দেশের জাতীয় অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে একটি উন্নত দেশে রূপান্তরের ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। 

অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত মি. ইতো নাওকি, জাইকা বাংলাদেশ অফিসের চিফ রিপ্রেজেনটেটিভ মি. ইহুও হায়েকাওয়া, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব নজরুল ইসলাম, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী আবদুস সবুর, ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্টের প্রকল্প পরিচালক খান মোহাম্মদ কামরুল আহসানসহ সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

/এসআই/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

কুমিল্লার ঘটনা সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কাজ: ওবায়দুল কাদের

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

‘২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে আমিনবাজার সেতুর কাজ শেষ হবে’

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে টানেল নির্মাণের চিন্তা আছে: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

ভারত কথা দিয়েছে সীমান্তে আর হত্যাকাণ্ড ঘটবে না: ওবায়দুল কাদের

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ২০:৩৯

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার্থীরা যেন নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে, সে লক্ষ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনার্স কোর্সের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে, যাতে শিক্ষার্থীরা নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে তৈরি করতে পারে। পাশাপাশি যেন তারা দেশে-বিদেশে কর্মসংস্থানের সুযোগ গ্রহণ করতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রী বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের গাজীপুর ক্যাম্পাসে উপাচার্যের কনফারেন্স রুমে ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আপনারা এই কোভিডের সময়ে অনলাইনে এবং সামনা-সামনি ক্লাস শুরু করতে যাচ্ছেন। এখন অনেক চ্যালেঞ্জ। আপনাদের অনেক নতুন স্বপ্ন রয়েছে। সেই স্বপ্নগুলো বাস্তবে রূপ দিতে হবে। সে জন্যে সরকার এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আপনাদের পাশে রয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সার্বিক দিকনির্দেশনা এবং পরামর্শে আপনাদের জন্য অনার্স ডিগ্রির পাশাপাশি নানা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে, যাতে আপনারা নানারকম দক্ষতা নিয়ে গড়ে উঠতে পারেন। দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হতে পারেন। নিজেরা উদ্যোক্তা হতে পারেন, কিংবা কর্মসংস্থানের জন্য দেশে-বিদেশে নানা সুযোগ তৈরি হয়, সেটি গ্রহণ করতে পারেন।’

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান শিক্ষার্থীদের রাষ্ট্র সৃষ্টির বিপ্লব সম্পর্কে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘তোমাদের মধ্যে ইতিহাস চেতনা থাকতে হবে। একইসঙ্গে আশা করবো, এই প্রজন্ম সমসাময়িক বিশ্ব সম্পর্কে সব রকমের ধারণা নিয়ে একটি সঠিক ধারায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য আত্মনিয়োগ করবে।’

তিনি শিক্ষার্থীদের দেশপ্রেমিক নাগরিক হয়ে গড়ে ওঠার আহ্বান জানিয়ে আরও বলেন, ‘আমাদের বিজ্ঞান ভাবনা, অসাম্প্রদায়িক সমাজ, ধর্মনিরপেক্ষ সমাজ, গণতান্ত্রিক সমাজ— এই যে অভীষ্ট লক্ষ্য, সেই লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য নবীন প্রজন্ম নিজেদের তৈরি করবে। খবর: বাসস

/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সন্ধ্যার পর বিচ্ছিন্ন থাকবে ভাসানচর: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তালিকা পেলে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা এ মাসেই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

‘খালেদা জিয়ার অন্তরে সবসময়ই ছিল পেয়ারে পাকিস্তান’

দুই হাসপাতালে নতুন পরিচালক

আপডেট : ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৯:০২

রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেক হাসপাতালে নতুন পরিচালক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এই নিয়োগ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নতুন পরিচালক নিয়োগ দিয়েছে সরকার। ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. ফজুলল কবীরকে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই সেনা কর্মকর্তাকে ওই পদে নিয়োগ দিতে তার চাকরি স্বাস্থ্যসেবা বিভাগে ন্যস্ত করা হয়।

অপরদিকে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল গোলাম কিবরিয়াকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিতে তার চাকরি সশস্ত্র বাহিনী বিভাগে ন্যস্ত করা হয়।

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিল আহমদকে সেনাবাহিনীতে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

 

 

 

 

/এসআই/আইএ/

সম্পর্কিত

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

ধর্মীয় সম্প্রীতি নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবিলার নির্দেশ

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

গাফফার চৌধুরীর খোঁজ নিলেন রাষ্ট্রপতি

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

৩৭ সেতু উদ্বোধন করলেন সেতুমন্ত্রী

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

‘শিক্ষার্থীরা যেন উদ্যোক্তা হতে পারে সে লক্ষ্যে পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে’

সর্বশেষসর্বাধিক
quiz

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি দরকার: পররাষ্ট্র সচিব

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জরুরি পদক্ষেপের আহ্বান বাংলাদেশের

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে আন্তর্জাতিক চাপ অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

‘মুহিবুল্লাহ হত্যাকারীদের অবশ্যই বিচারের সম্মুখীন করা হবে’

‘মুহিবুল্লাহ হত্যাকারীদের অবশ্যই বিচারের সম্মুখীন করা হবে’

মুহিবুল্লাহ হত্যার পূর্ণ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

মুহিবুল্লাহ হত্যার পূর্ণ তদন্ত চায় যুক্তরাষ্ট্র

রাখাইনে মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তনই রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান: প্রধানমন্ত্রী

রাখাইনে মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তনই রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধান: প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথের সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কমনওয়েলথের সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে

রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে

আফগানিস্তানের ঘটনার আড়ালে রোহিঙ্গা ইস্যু চলে যাক চায় না বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ঢলের চার বছরআফগানিস্তানের ঘটনার আড়ালে রোহিঙ্গা ইস্যু চলে যাক চায় না বাংলাদেশ

সর্বশেষ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২৪ কোটি ৩২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ২৪ কোটি ৩২ লাখ ছাড়িয়েছে

প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সেলফি তোলায় পুলিশ সদস্যদের নোটিস

প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে সেলফি তোলায় পুলিশ সদস্যদের নোটিস

‘স্বাধীনতাবিরোধীরাই সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা চালাচ্ছে’

‘স্বাধীনতাবিরোধীরাই সাম্প্রদায়িক অপতৎপরতা চালাচ্ছে’

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

'হামলার দায় এড়াতে পারেন না রাজনৈতিক নেতারা'

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

বেগমগঞ্জে হামলা চালিয়ে মালামাল লুটের ঘটনায় সুজনের স্বীকারোক্তি 

© 2021 Bangla Tribune