X
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮

সেকশনস

পাহাড়ে রাস্তা ছাড়াই সেতু, ঘষে তুলে ফেলেছে নির্মাণ ব্যয়

আপডেট : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ২৩:০০

জনবসতিহীন পাহাড়ের ভেতর সড়ক ছাড়া একটি সেতু নির্মাণ করেছে মিরসরাই উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ। ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় উপজেলার হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ফরেস্ট অফিসের সড়কের শিমুলতলী ছড়ার ওপর ৩৪ ফুট দৈর্ঘ্যের সেতুটি নির্মাণ করা হয়। সেতুর নামফলকে নাম ও দৈর্ঘ্য লেখা থাকলেও কত টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে তা ঘঁষে তুলে ফেলা হয়েছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে একাধিকবার যোগাযোগ করেও সেতুর ব্যয় জানা যায়নি।

জানা গেছে, বারইয়ারহাট-খাগড়াছড়ি সড়কের সঙ্গে সংযুক্ত হিঙ্গুলী-ফরেস্ট অফিসের সড়কটি ২ নম্বর হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মেহেদীনগর গ্রামে অবস্থিত। সড়কের প্রায় ১২ কিলোমিটারের মধ্যে বসতি থাকলেও শেষাংশে পাহাড়। নেই জনমানব। পাহাড়ের পাদদেশে ধানসহ বিভিন্ন রবিশস্য চাষাবাদ হয়। প্রায় পাঁচ বছর আগে হওয়া সেতুর পশ্চিম পাশে সড়ক থাকলেও পূর্বপাশে নেই। সরু ছড়া দিয়ে পাহাড়ের ওপর থেকে পানি নামে। পাহাড়ে উৎপাদিত ধান, শাক-সবজি জমির আইল দিয়ে নিয়ে যান কৃষকরা। সড়ক ও জনমানববিহীন স্থানে সেতু হওয়ায় কাজে আসছে না।

হিঙ্গুলী ইউনিয়নের ফরেস্ট অফিসের সড়কের শিমুলতলী ছড়ার ওপর ৩৪ ফুট দৈর্ঘ্যের সেতুটি নির্মাণ করা হয়

সরেজমিনে দেখা যায়, হিঙ্গুলী-ফরেস্ট বিট সড়কের ফরেস্ট বিট অফিসের আধা কিলোমিটার পর মেহেদীনগর গ্রামে জনবসতি নেই। সড়কটি যতই পাহাড়ের দিকে গেছে ততই সরু হয়ে গেছে। সেতুর পশ্চিম পাশে সড়ক থাকলেও মাটি দেওয়া হয়নি। সেতুর পূর্বপাশে সড়ক নেই। সড়কবিহীন দাঁড়িয়ে আছে সেতুটি।

স্থানীয় কৃষক মো. জেবাল হক বলেন, পাহাড়ের ভেতর জনবসতি না থাকলেও প্রায় ৮০ একর জমিতে বোরো ও আমন ধান, রবিশস্য, লেবু চাষ করা হয়। সেতু নির্মাণের প্রায় পাঁচ বছর পেরিয়ে গেলেও এখনও সড়ক নির্মাণ হয়নি। যোগাযোগের অসুবিধার কারণে পাহাড়ের ভেতর অনেক জায়গায় চাষাবাদ হচ্ছে না। চাষ করলেও প্রায় ১৫-২০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ধান, সবজি বারইয়ারহাট পৌর বাজারসহ অন্যান্য বাজারে নেওয়া যায় না। আমরা চাই সেতুর সঙ্গে যেন সড়ক নির্মাণ করা হয়।

২ নম্বর হিঙ্গুলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন হারুন বলেন, হিঙ্গুলী-ফরেস্ট বিট সড়ক হিঙ্গুলী ইউনিয়নে পড়লেও সেতুর অবস্থান করেরহাট ইউনিয়নে। ওখানে সেতু নির্মাণের বিষয়টি আমি জানি না। সড়কের বিষয়টি করেরহাট ইউনিয়নের দেখার কথা। সেতুর ফলকে হিঙ্গুলী ইউনিয়ন লেখা থাকলেও এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

সেতুর নামফলকে নাম ও দৈর্ঘ্য লেখা থাকলেও কত টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয়েছে তা ঘঁষে তুলে ফেলা হয়েছে

১ নম্বর করেরহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন, হিঙ্গুলী-ফরেস্ট বিট সড়ক যেহেতু হিঙ্গুলী ইউনিয়নে; তাই সেতুর অবস্থানও হিঙ্গুলী ইউনিয়নে। ওটি যদি করেরহাট ইউনিয়নে হতো আমি অবশ্যই সড়ক নির্মাণের ব্যবস্থা করতাম।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. ছাইফুল্লাহ মজুমদার বলেন, ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের আওতায় সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। পাহাড়ের ভেতর জনবসতি না থাকলেও কৃষিকে গুরুত্ব দিয়ে সেতুটি নির্মাণ করা হয়েছিল। আমাদের দায়িত্ব সেতু করা, সড়ক নির্মাণ করা নয়। সড়ক তৈরির কাজ এলজিইডির। সেতু নির্মাণের প্রায় পাঁচ বছর পরও কেন সড়ক হয়নি তা স্থানীয় চেয়ারম্যান জানেন।

সেতুর নির্মাণ ব্যয়ের বিষয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, ব্যয় কত হয়েছিল তা জানি না। সেতুটি প্রায় পাঁচ বছর আগে নির্মাণ করা হয়েছিল। অনেকগুলো ফাইলের মধ্যে এটির ফাইল নিচে চলে গেছে। ফাইল খুঁজে পেতে একটু সময় লাগবে। সেতুর ফলক থেকে ব্যয় ঘঁষে তুলে ফেলার বিষয়টি আমার জানা নেই।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি) উপজেলা প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান বলেন, ভেতর দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের ব্রীজ নির্মাণ ও সড়কের সংযোগ না থাকার বিষয়ে আমি খবর নিয়ে বলতে পারবো। 

/এএম/

সম্পর্কিত

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

‘নির্বাচনে সহিংসতার কথা চিন্তা করলে, মাঠে দেখা হবে’

‘নির্বাচনে সহিংসতার কথা চিন্তা করলে, মাঠে দেখা হবে’

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার 

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার 

হেলে পড়া তিন ভবন ঝুঁকিপূর্ণ কিনা জানা যাবে ৭ দিন পর

হেলে পড়া তিন ভবন ঝুঁকিপূর্ণ কিনা জানা যাবে ৭ দিন পর

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

‘নির্বাচনে সহিংসতার কথা চিন্তা করলে, মাঠে দেখা হবে’

‘নির্বাচনে সহিংসতার কথা চিন্তা করলে, মাঠে দেখা হবে’

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার 

কাউন্সিলরসহ দুজনকে হত্যা: আরও ২ আসামি গ্রেফতার 

হেলে পড়া তিন ভবন ঝুঁকিপূর্ণ কিনা জানা যাবে ৭ দিন পর

হেলে পড়া তিন ভবন ঝুঁকিপূর্ণ কিনা জানা যাবে ৭ দিন পর

ভ্যানের পেছনে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, সেনা সদস্যসহ নিহত ২

ভ্যানের পেছনে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, সেনা সদস্যসহ নিহত ২

হত্যার ৩ দিন আগে সন্ত্রাসীদের তালিকা দিয়ে গেছেন কাউন্সিলর সোহেল

হত্যার ৩ দিন আগে সন্ত্রাসীদের তালিকা দিয়ে গেছেন কাউন্সিলর সোহেল

চট্টগ্রামে চালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ 

চট্টগ্রামে চালককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ, প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ 

আলীকদম ও রুমা ভ্রমণে একদিনের নিষেধাজ্ঞা

আলীকদম ও রুমা ভ্রমণে একদিনের নিষেধাজ্ঞা

প্রবাসীর সঙ্গে স্কুলছাত্রীর বিয়ের আয়োজন, বন্ধ করলেন ইউএনও

প্রবাসীর সঙ্গে স্কুলছাত্রীর বিয়ের আয়োজন, বন্ধ করলেন ইউএনও

সকালে নেভালেন আগুন, দুপুরে ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে

সকালে নেভালেন আগুন, দুপুরে ঢলে পড়লেন মৃত্যুর কোলে

সর্বশেষ

শেষ মুহূর্তের দুই গোলে ভিয়ারিয়ালকে হারালো বার্সেলোনা

শেষ মুহূর্তের দুই গোলে ভিয়ারিয়ালকে হারালো বার্সেলোনা

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

৪০ টাকার বিনিময়ে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

ভোটের সরঞ্জাম নিয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার পথে সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তার মৃত্যু

মোবাইল নম্বর ব্লকলিস্টে রাখায় স্কুলছাত্রীকে হত্যাচেষ্টা, যুবক গ্রেফতার 

মোবাইল নম্বর ব্লকলিস্টে রাখায় স্কুলছাত্রীকে হত্যাচেষ্টা, যুবক গ্রেফতার 

আন্তর্জাতিক যাত্রীদের জন্য পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করলো যুক্তরাজ্য

আন্তর্জাতিক যাত্রীদের জন্য পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক করলো যুক্তরাজ্য

© 2021 Bangla Tribune