X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সরকারের ওপর নতুন করে বিদেশি চাপ!

আপডেট : ১৩ মার্চ ২০১৬, ১৩:২৪

আওয়ামী লীগ চলতি বছর বিদেশ থেকে একের পর এক দুঃসংবাদ আসছে সরকারের কাছে। এসব দুঃসংবাদের ভেতর দিয়ে বিদেশি শক্তির চাপ অনুভব করতে শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। শীর্ষ পর্যায়ের কোনও কোনও নেতা সোজা-সাপ্টা বলছেন, বাংলাদেশকে নিয়ে আবার আন্তর্জাতিক খেলা শুরু হয়েছে। তবে এসব বলাবলি একবারেই ঘরোয়া ও একে অপরের আলাপ-আলোচনার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। বিষয়গুলো স্পর্শকাতর হওয়ায় এখনই সেগুলো নিয়ে নেতিবাচক কোনও মন্তব্য করতে নারাজ আওয়ামী লীগের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের নেতারা। হাইকমান্ড থেকেও বিদেশি ইস্যু নিয়ে মুখ না খেলার নির্দেশনা রয়েছে বলে জানা গেছে।

নিরাপত্তা ‘ঝুঁকির কথা’ বলে যুক্তরাজ্যের কার্গো বিমান বন্ধের সিদ্ধান্তের পাশাপাশি যাত্রীবাহী বিমানও বন্ধের আভাস পেয়েছে বাংলাদেশ। যুক্তরাজ্যের মতো নিরাপত্তা ঝুঁকির অজুহাত দেখিয়ে যুক্তরাষ্ট্রও বাংলাদেশের সঙ্গে আন্তর্জাতিক বিমান পরিচালনা বন্ধের ইঙ্গিত দিয়েছে সরকারকে। এ বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের পৃথক দু’টি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফরে আসবেন। এতে আন্তর্জাতিকভাবে বড় ধরনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের মুখোমুখি হতে পারে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকার।

উল্লিখিত দু’টি ঘটনার মধ্যেই শনিবার (১২ মার্চ) সরকারের কানে এসেছে আরেকটি দুঃসংবাদ। মালয়েশিয়া জি টু জি প্লাস পর্যায়ে বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিতে চুক্তি করেছিল তিন সপ্তাহ আগে। কিন্তু শনিবার (১২মার্চ) বাংলাদেশ থেকে কোনও শ্রমিক নেবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে দেশটি। হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের টাকা চুরির ঘটনাও সরকারকে চাপের মুখে ফেলে দিয়েছে। শুল্কমুক্ত অগ্রাধিকারমূলক সুবিধা (জিএসপি) বন্ধ করে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র এর আগে বড় ধরনের চাপে ফেলে রেখেছে সরকারকে। এই চাপ থেকে মুক্ত হতে সরকার যুক্তরাষ্ট্রের দেওয়া বিভিন্ন শর্ত পূরণ করলেও এখন পর্যন্ত জিএসপি সুবিধা ফিরে পাওয়া যায়নি। এ নিয়ে অনেকটা ক্ষুব্ধ হয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ সম্প্রতি বলেন, কেয়ামতের আগের দিনও যুক্তরাষ্ট্রের শর্ত আমরা পূরণ করতে পারবো না।

নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ের নেতৃস্থানীয়রা জানান,অব্যাহতভাবে এই দুঃসংবাদগুলো আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারকে চাপের মুখে ফেলে দিচ্ছে এটা স্বীকার করলেও এসব ইস্যু নিয়ে নেতিবাচক বক্তব্য দেবে না শীর্ষস্থানীয়রা। তারা মনে করছেন, বিষয়গুলো নিয়ে খোলামেলা মন্তব্য করলে সমস্যা সমাধানের পথে নতুন প্রতিবন্ধকতা তৈরি হতে পারে। আন্তর্জাতিক এসব চাপ থেকে বেরিয়ে আসার আশা রয়েছে সরকারের নীতি-নির্ধারণী মহলের। তবে বেরিয়ে আসার পথ যে খুব সহজ তা মনে করেন না নীতি নির্ধারকদের বড় একটি অংশ। তাদের মতে, বের হওয়ার সুযোগ থাকলেও এজন্য সরকারকে অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী খোলাসা করে কিছু বলতে চাননি। বাংলা ট্রিবিউনকে দেওয়া এক প্রতিক্রিয়ায় কৃষিমন্ত্রী বলেন, বিদেশি এসব ইস্যু নিয়ে এখনই কোনও কথা বলতে চাই না। এগুলো টেকনিক্যাল ও আইনগত ব্যাপার। বিষয়গুলো আরও পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের কিছু নেতা সরকারের জন্যে ‘বিপজ্জনক’ এসব সিদ্ধান্তের পেছনে ষড়যন্ত্র থাকতে পারে বলে মনে করেন। তাদের মতে, সরকার যখন সবকিছু নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে অনেকটা শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে ঠিক তখনই ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। ঠিক তখনই বিভিন্ন ছুঁতো ধরে আন্তর্জাতিক শক্তিগুলো সরকারকে ঘায়েল করতে চেষ্টা করছে। গত কয়েকদিনে আসা দুঃসংবাদগুলো সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হতে পারে বলে তারা মন্তব্য করেন।

জানতে চাইলে সভাপতিমণ্ডলীর অপর সদস্য নূহ-উল আলম লেনিন বলেন, বিদেশি এসব ঘটনা এখনি নেতিবাচকভাবে দেখতে চাই না। এটাকে এখনই ষড়যন্ত্রও মনে করছি না। আর এসবের কারণে আন্তঃরাষ্ট্র সম্পর্কের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছি না। বিষয়গুলো আরও পর্যবেক্ষণ করতে হবে।

প্রসঙ্গক্রমে তিনি বলেন, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র তাদের অবস্থান নিয়ে চলে, আমাদের অবস্থান নিয়ে আমরা চলি। পঁচাত্তর পরবর্তী সময় হলে হয়তো এসব শক্তিকে তৈলমর্দন করতাম। এখন সেই সময় নেই। 

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমও একই ধরনের মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, বিমান পরিচালনা বিষয়ে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানের বিষয়টিকে আমরা রাজনৈতিকভাবে দেখছি না। নিরাপত্তা ইস্যুতে তাদের কোনও অবস্থান থাকতেই পারে। কারণ বিশ্বে যেভাবে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে বিশ্ব রাজনীতির প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশও সেক্ষেত্রে বিচ্ছিন্ন নয়।

তবে ‘বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক না নেওয়ার বিষয়ে মালয়েশিয়া যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে এটা নিয়ে চিন্তার বিষয় রয়েছে’। তিনি বলেন, শ্রমিক নেওয়ার ব্যাপারে সরকারি পর্যায়ে চুক্তি সম্পাদনের পর সেটা এভাবে একতরফা বাতিল করা যায় কি-না সেই প্রশ্ন আমাদের রয়েছে। মালয়েশিয়া শ্রমিক না নেওয়ার যে কথা জানিয়েছে এটা সত্যি হলে ভবিষ্যতে তাদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে আরও ভাবতে হবে। 

/ইএইচএস/পিএইচসি/এমএসএম/এফএস/ 

সম্পর্কিত

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কোনও সমাধান নয়: জিএম কাদের

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪:৪৬

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জিএম) কাদের বলেছেন, ‘আমাদের দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবিলায় লকডাউন ও কারফিউ কোনও সমাধান নয়। করোনার গণটিকা কর্মসূচি আরও জোরদার করতে হবে। সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা স্বাভাবিক করতে হবে। পাশাপাশি সংক্রমণ প্রবণ এলাকায় করোনা চিকিৎসায় ফিল্ড হাসপাতাল নির্মাণ করে প্রয়োজনীয় সংখ্যক ডাক্তার ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকমী নিয়োগ দিতে হবে।’

শুক্রবার (৩০ জুলাই) দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জিএম কাদের এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, ‘আমাদের দেশের বাস্তবতায় লকডাউন সফল হবে না। লকডাউন চলছে, কিন্তু মানুষকে ঘরে আটকে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। বেশির ভাগ দরিদ্র্য মানুষের ঘরে খাবার নেই, পকেটে ওষুধ ও শিশুখাদ্য কেনার পয়সা নেই। এ ধরনের মানুষকে ঘরে আটকে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।’

 

/এসটিএস/আইএ/

সম্পর্কিত

আমাদের আন্দোলনে যেতে হবে: মির্জা ফখরুল

আমাদের আন্দোলনে যেতে হবে: মির্জা ফখরুল

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

ভিকারুননিসায় নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের দাবি মির্জা ফখরুলের

ভিকারুননিসায় নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের দাবি মির্জা ফখরুলের

মণি সিংহের ১২০তম জন্মবার্ষিকী কাল

মণি সিংহের ১২০তম জন্মবার্ষিকী কাল

করোনায় মারা গেছেন জাসদ-ছাত্রলীগনেতা মামুন

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪:৩৭

জাসদের সহযোগী সংগঠন-বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য ও ঢাকা মহানগর শাখার সহ-সভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন (৩৪) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকালে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

জাসদের দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন এ তথ্য জানান।

স্ত্রী ও এক কন্যা সন্তানসহ অসংখ্য স্বজন রেখে গেছেন মামুনুর রশীদ। শুক্রবার জুমার নামাজের পর জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে।

জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপি এবং সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি মামুনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

 

/এসটিএস/আইএ/

সম্পর্কিত

মণি সিংহের ১২০তম জন্মবার্ষিকী কাল

মণি সিংহের ১২০তম জন্মবার্ষিকী কাল

জাসদকে চীনের ক্ষমতাসীন দলের উপহার  

জাসদকে চীনের ক্ষমতাসীন দলের উপহার  

টিকা আমদানি জোরদার করার দাবি

টিকা আমদানি জোরদার করার দাবি

সংকট উত্তরণে জাতীয় ঐক্য ও সংহতির বিকল্প নেই: গানি

সংকট উত্তরণে জাতীয় ঐক্য ও সংহতির বিকল্প নেই: গানি

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৭:৫০

আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) আওয়ামী লীগের প্রতিটি ইউনিট কমিটি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মান্নাফী ও সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ নির্দেশ দেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তারা মোট ১১ দফার নির্দেশনা প্রদান করেন। তৃণমূল থেকে সংগঠনকে সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে আগামীতে অনুষ্ঠিতব্য থানা, ওয়ার্ড সম্মেলন সুন্দরভাব সফল করার জন্য ঢাকা দক্ষিণের অন্তর্গত ৮টি সংসদীয় আসনে দক্ষিণের নেতাদের সমন্বয়ে ৮টি টিমও গঠন করে দেন তারা।

এই টিমগুলোকে ১১টি নির্দেশনা দেওয়া হয়। নির্দেশনাগুলো হলো:

১. দায়িত্বপ্রাপ্ত টিমসমূহকে দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের পরামর্শগ্রহণ পূর্বক সংগঠনকে সুসংগঠিত করতে হবে।

২. টিমসমূহের সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও দায়িত্ব পালনে পদমর্যাদাক্রম অনুসরণ করতে হবে।

৩. এ লক্ষ্যে প্রতিটি ওয়ার্ডের আওতায় নির্বাচন কমিশন নির্ধারিত ভোটকেন্দ্র-ভিত্তিক ইউনিট গঠনের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের অনুসারী কর্মী বাছাই করে গঠনতন্ত্রের নির্দেশিকা পদ্ধতিতে কমিটি গঠন করে তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী স্থান দিতে হবে।

৪. আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রের ৩৫ ধারার ১ উপধারা অনুযায়ী কমপক্ষে ১৫০ জন সদস্য কোনও ইউনিটে না থাকলে সেটি শাখা ইউনিট মর্যাদাপ্রাপ্ত হবে না।

৫. নির্দিষ্ট সংসদীয় আসনের ওয়ার্ড, থানার আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্ব স্ব থানার আওতাধীন ওয়ার্ড ও ইউনিট কমিটি গঠন কার্যক্রমে সম্পৃক্ত থাকবেন এবং শক্তিশালী কমিটি গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন।

৬. কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ মনোনীত স্ব স্ব এলাকার সংসদ সদস্য ও দলীয় কাউন্সিলরের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে।

৭. ইউনিট ওয়ার্ড এবং থানা শাখা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্দেশিত পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে।

৮. উল্লিখিত শাখা কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে লক্ষ্য রাখতে হবে যেন চিহ্নিত চাঁদাবাজ, মাস্তান, নেশাগ্রস্ত এবং বিএনপি-জামায়াত থেকে আগত সুবিধাভোগীরা কমিটিতে স্থান না পায়।

৯. দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দ দায়িত্ব পালনে সততা, বিচক্ষণতা এবং গঠনতান্ত্রিক নির্দেশিকা অনুসরণ করবেন।

১০. দায়িত্বপ্রাপ্ত সব কমিটিকে ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে প্রতিটি ওয়ার্ডের ইউনিট কমিটি গঠন করে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অবহিত করতে হবে।

১১. কোনও থানা বা ওয়ার্ড নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কমিটি গঠনে ব্যর্থ হলে উক্ত থানা বা ওয়ার্ডের আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করতে হবে।

 

/পিএইচসি/আইএ/

সম্পর্কিত

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৮:১২

এমপি-মন্ত্রীদের সম্পদের হিসাব নেওয়ার বিষয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিলে আমাদের কারও আপত্তি থাকার কথা নয়। আমি নিজেও সম্পদের হিসাব দিতে প্রস্তুত।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলটির ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটির উদ্যোগে বিভিন্ন প্রতিনিধিদের মাঝে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শতভাগ সততা ও স্বচ্ছতার সাথে সরকার পরিচালনা করছেন। অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে তার সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর এবং স্পষ্ট।

তিনি বলেন, এমপি-মন্ত্রীসহ কেউই জবাবদিহিতার ঊর্ধ্বে নয়, স্বাধীন সংস্থা হিসেবে দুদক যে কোনও অপরাধের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে পারে। ইতোমধ্যে অনেক নেতাকর্মী এবং এমপির বিরুদ্ধে দুদক ব্যবস্থা নিয়েছে, সরকার কাউকে রক্ষা করতে যায়নি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দুর্নীতি, অনিয়মের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে দুদকের উপর সরকারের পক্ষ থেকে কোন হস্তক্ষেপ বা বাধা নেই। সম্পদের হিসাব বিবরণী দাখিলে আমাদের কারও আপত্তি থাকার কথা নয়। আমি নিজেও সম্পদের হিসাব দিতে প্রস্তুত।

তিনি বলেন, প্রতি বছর আয়কর-রিটার্নের মাধ্যমেও সম্পদের হিসাব দেওয়া হয়। সে হিসাব বা ট্যাক্স প্রদানে গড়মিল থাকলে তাও দুদক তদন্ত করে দেখতে পারবে। 

সবাইকে শতভাগ মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করার আহবান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভ্যাকসিনের চেয়েও কার্যকরী হচ্ছে মাস্ক। বাংলাদেশের যে পরিমাণ ভ্যাকসিন প্রয়োজন বিভিন্ন দেশ থেকে সে পরিমাণ ভ্যাকসিন পর্যায়ক্রমে আসবে। ভ্যাকসিন নিয়ে কোনও সংকট হবে না।

তিনি বলেন, সংকটে দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দলের ভূমিকা পালনের চরম ব্যর্থতা আড়াল করতে মিথ্যাচারই বিএনপির এখন একমাত্র অবলম্বন। বিএনপি নেতারা জনগণের পাশে দাঁড়ানোর অক্ষমতা ঢাকতেই সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে।

ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপকমিটিকে একাধিক টিম করে বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় জনগণকে সঠিকভাবে মাস্ক পরিধানে উৎসাহিত করার উপরও গুরুত্বারোপ করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে এতোগুলা রাজনৈতিক দল অথচ কেবল মাত্র আওয়ামী লীগই এখন সরেজমিনে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। একটি দল ঘরে বসে লিপসার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে কিন্তু জনগণ এখন লিপসার্ভিস চায় না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগ বিএনপির মতো কথা- সর্বস্ব কোন রাজনৈতিক দল নয়। নিজের সবকিছু নিয়ে অকাতরে মানুষের পাশে দাঁড়ায় বলেই জনগণ আওয়ামী লীগকেই বিপদে বন্ধু মনে করেন।

তিনি বলেন, সারা দুনিয়ায় আজ প্রশংসিত হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্ব। তার অসীম সাহসের কারণেই করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করে যাচ্ছে সরকার। শেখ হাসিনার নেতৃত্বের জন্য সারা বিশ্বের উন্নত দেশগুলো বাংলাদেশকে গুরুত্ব দিচ্ছে। বাংলাদেশকে আজ বিশ্ব দরবার মূল্যায়িত করছে কেবলমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষণ ও দক্ষ নেতৃত্বের কারণে।

এ সময় ঘরে ঘরে সচেতনতার দুর্গ গড়ে তোলার উপরও গুরুত্বারোপ করেন ওবায়দুল কাদের।

দলটির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আরও উপস্থিত ছিলেন‑ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, কেন্দ্রীয় কার্যকরী সদস্য রিয়াজুল কবির কাউছার ও সৈয়দ আবদুল আউয়াল শামীম, সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটের সভাপতি এম এ হামিদ, সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান প্রমুখ।

/পিএইচসি/এমএস/

সম্পর্কিত

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

আমাদের আন্দোলনে যেতে হবে: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ২২:০৭

বর্তমান সংকট উত্তরণে আন্দোলনের বিকল্প নেই বলে উল্লেখ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ‘আমরা এই অবস্থার পরিবর্তন চাই। সেজন্য আমাদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান, আমাদের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, যিনি বন্দি হয়ে আছেন, তাদের নেতৃত্বে আজকে দল সংগঠিত হচ্ছে। আমাদের আন্দোলনে যেতে হবে এবং এই ভয়াবহ যে দানব আমাদের বুকের ওপর চেপে বসে আছে, সেই দানবকে সরিয়ে দিতে হবে।’

বুধবার (২৮ জুলাই) ভার্চুয়াল এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এই অভিযোগ করেন।

স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রয়াত সভাপতি শফিউল বারী বাবুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির উদ্যোগে এই ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

ফখরুল বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে, এই দানব ছোটখাটো দানব নয়, এটা একটা ভয়াবহ দানব। এরমধ্যে আন্তর্জাতিক চক্রান্ত রয়েছে, সাম্রাজ্যবাদ এবং আধিপত্যবাদের চক্রান্ত রয়েছে। সব মিলিয়ে আমাদের অত্যন্ত শক্তি নিয়ে, আমাদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে, জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে এদের সরাতে হবে। এর কোনও বিকল্প নেই।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দেখলাম এই কোভিডে তারা কীভাবে পুরো বিষয়টাকে উদাসীনতা, অযোগ্যতা, ব্যর্থতা দিয়ে জনগণের জীবন-জীবিকাকে বিপন্ন করে ফেলেছে। এখন মানুষকে এত বেশি তারা প্রতারণা করে, এত মিথ্যা কথা বলে, এত ভাঁওতাবাজি করে, দেখেন টিকাই এখন পর্যন্ত পুরো সংগ্রহ হলো না। এ পর্যন্ত তিন কোটি টিকাই আনতে পারলো না ভারত থেকে।’

‘তারা এখন বলছে ই্উনিয়ন পর্যায়ে টিকা দেবে। এগুলো জাতিকে বিভ্রান্ত করা ছাড়া আর কিছু নয়। এই সরকার এই একটা জিনিস খুব ভালো পারে, অবলীলায় গোয়েবলসীয় পদ্ধতিতে মিথ্যা প্রচার করতে থাকে এবং সেই মিথ্যাকে সত্য প্রমাণিত করতে থাকে, যোগ করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, তারা ‘শিক্ষা ব্যবস্থা একেবারে ধ্বংস করে দিয়েছে। আপনারা দেখেছেন ভিখারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের মতো একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একজন সন্ত্রাসী দলবাজ মহিলাকে অধ্যক্ষ করা হয়েছে। আমরা দেখলাম যে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে যাদের উপাচার্য নিয়োগ দেওয়া হলো, তারা দুর্নীতি করছে, নিয়োগে দুর্নীতি করছে। এভাবে তারা শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে ফেলেছে এবং এই করোনার অজুহাতে তারা শিক্ষা বন্ধ করে দিয়েছে।’

‘স্বাস্থ্য ব্যবস্থা তো পুরোপুরি ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। ব্যাংকিং সেক্টরকে গিলে ফেলেছে। তারা আমাদের সব অর্জন ধ্বংস করছে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘মানুষকে জাগাতে হবে, তাদের নতুন স্বপ্ন দেখাতে হবে। মানুষকে সেই সুদিনের গান শোনাতে হবে, যেন তারা জেগে ওঠেন—তাদের সেই পথ দেখাতে হবে।’

/এসটিএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কোনও সমাধান নয়: জিএম কাদের

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কোনও সমাধান নয়: জিএম কাদের

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

ভিকারুননিসায় নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের দাবি মির্জা ফখরুলের

ভিকারুননিসায় নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের দাবি মির্জা ফখরুলের

সর্বশেষ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ঘরে থাকার নির্দেশ

টানা বৃষ্টিতে কক্সবাজারের ৪১৩ গ্রাম প্লাবিত

টানা বৃষ্টিতে কক্সবাজারের ৪১৩ গ্রাম প্লাবিত

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

মাদক ভয়ংকর-৫কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

ভারতের আরও দুই ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

ভারতের আরও দুই ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ আ.লীগের ইউনিট কমিটি করার নির্দেশ

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

সম্পদের হিসাব দিতে কারও আপত্তি থাকার কথা নয়, আমিও প্রস্তুত: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

শেখ হাসিনা বার্নের ওয়ার্ড বয়কে মারধর করা সেই ছাত্রলীগনেতা বহিষ্কার

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জয়ের নেতৃত্বের অপেক্ষায় আগামীর বাংলাদেশ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

দেশে করোনায় মৃত্যুর হার ভারতের চেয়ে বেশি: ওবায়দুল কাদের

আমি একজন মধ্যবয়সী প্রযুক্তি উদ্যোক্তা: জয়

আমি একজন মধ্যবয়সী প্রযুক্তি উদ্যোক্তা: জয়

জয়ের হাত ধরেই বিশ্বকে নেতৃত্ব দিবে বাংলাদেশ: ওবায়দুল কাদের

জয়ের হাত ধরেই বিশ্বকে নেতৃত্ব দিবে বাংলাদেশ: ওবায়দুল কাদের

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

সজীব ওয়াজেদ জয়ের ৫১তম জন্মদিন আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

স্বেচ্ছাসেবক লীগের ২৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

বিএনপি নেতারা বক্তব্য-বিবৃতির মাধ্যমে দুর্ভোগ বাড়াচ্ছেন: ওবায়দুল কাদের

বিএনপি নেতারা বক্তব্য-বিবৃতির মাধ্যমে দুর্ভোগ বাড়াচ্ছেন: ওবায়দুল কাদের

© 2021 Bangla Tribune