X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

নারীদের পশুর সঙ্গে যৌন কর্মকাণ্ডে বাধ্য করছেন ফরাসি শান্তিরক্ষীরা

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০১৬, ১৭:৫০
image

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে শান্তিরক্ষীদের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ শান্তিরক্ষীদের ওপর যৌন নিপীড়নের অভিযোগের ধারাবাহিকতায় এবার মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী হিসেবে নিয়োজিত ফরাসি সেনাদের বিরুদ্ধে স্থানীয়দের ওপর ব্যাপক যৌন নিপীড়ন চালানোর অভিযোগ উঠেছে। বুধবার এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ জানায়, তাদের কাছে এমন অভিযোগ এসেছে যে ফরাসি সেনারা আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রের নারীদেরকে পশুর সঙ্গে যৌন কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হতে বাধ্য করছেন। এ ধরনের অভিযোগের সত্যতার ব্যাপারে নিশ্চিত হতে তদন্ত চলছে বলেও জানানো হয়েছে।
শান্তিরক্ষীদের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের নতুন অভিযোগটি এনেছে মানবাধিকার সংগঠন এইডস-ফ্রি ওয়ার্ল্ড। সে অভিযোগের ভিত্তিতে জাতিসংঘের বিবৃতিতে বলা হয়, ২০১৩ সাল থেকে ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে কেমো এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে। তবে ঠিক কতজন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন তা এখনও জানা যায়নি।
চলতি সপ্তাহে নিপীড়নের শিকার মানুষদের সঙ্গে কথা বলতে জাতিসংঘের একটি তদন্ত দল ঘটনাস্থলে যায়। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, তদন্ত চলাকালে বুরুন্ডি আর গ্যাবনের শান্তিরক্ষীদের তাদের ঘাঁটিতে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
এইডস-ফ্রি ওয়ার্ল্ড একটি বেসরকারি সংস্থা। এটি মূলত শান্তিরক্ষীদের যৌন নিপীড়নের ঘটনাগুলো মনিটর করে থাকে। সংস্থাটি জানায়, ২০১৪ সালে তিন নারী জাতিসংঘের অধিকারবিষয়ক এক কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ করে বলেছিলেন যে, ফরাসি সেনা কমান্ডার তাদের নগ্ন অবস্থায় একটি ক্যাম্পের ভেতর বেঁধে রেখেছিলেন এবং একটি কুকুরের সঙ্গে যৌন মিলনে বাধ্য করেছিলেন।

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে নিয়োজিত ফরাসি শান্তিরক্ষী

জাতিসংঘের কাছে দায়ের করা নতুন অভিযোগে বলা হয়, এক সেনা সদস্য চার নারীকে কুকুরের সঙ্গে যৌন মিলনে বাধ্য করেন। বৃহস্পতিবার একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ অভিযোগগুলো শোনার কথা রয়েছে।

গতবছর জাতিসংঘের ১০টি মিশনের শান্তিরক্ষীদের বিরুদ্ধে শিশু ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের ৬৯টি অভিযোগ ওঠে যা আগের বছরের চেয়ে বেশি। ২০১৪ সালে এই অভিযোগের সংখ্যা ছিল ৫২টি। যাদের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ উঠেছে, তাদের মধ্যে রয়েছে সামরিক সদস্য, আন্তর্জাতিক পুলিশ, অন্যান্য শাখার কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবীরাও। জাতিসংঘের নিয়ম অনুযায়ী, কোনও শান্তিরক্ষীর বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ উঠলে, সংশ্লিষ্ট দেশই তার তদন্ত করবে এবং ব্যবস্থা নেবে। তবে ব্যাপক হারে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ ওঠায় এ ধরণের ঘটনা রোধে জাতিসংঘের ব্যর্থতারও অভিযোগ ওঠে। এই প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘে একটি খসড়া প্রস্তাব পাস হয়। প্রস্তাব অনুযায়ী যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া যাবে, তাদের দেশে পাঠিয়ে দেয়া হবে। ওই অভিযোগ তদন্তে শান্তিরক্ষী কন্টিনজেন্টের গাফিলতি দেখা গেলে, পুরো দলটিকেই দেশে পাঠানো হবে।

এদিকে গত সোমবার নতুন দুটি যৌন নিপীড়নের ঘটনার কথা জানিয়েছে জাতিসংঘ। এর মধ্যে একটি অভিযোগ হলো বুরুন্ডি ও মরক্কোর সেনাদের দ্বারা ১৪ বছরের এক কিশোরীর যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়ার ঘটনা।

মধ্য আফ্রিকান প্রজাতন্ত্রে আফ্রিকার বেশ কয়েক হাজার সেনা রয়েছে। এর মধ্যে বিভিন্ন অভিযোগে ১৪ জনের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। সূত্র: বিবিসি, প্রেস টিভি

/এফইউ/বিএ/

সম্পর্কিত

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৭:২৮
image

আফগান সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তালেবানকে সহায়তা দিতে পাকিস্তানি যোদ্ধারা সীমান্ত পাড়ি দিচ্ছে বলে যে খবর সামনে এসেছে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মার্কিন সম্প্রচারমাধ্যম পিবিএস-এর নিউজ আওয়ার অনুষ্ঠানে উপস্থাপক জুডি উডোর্ফকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা চরম বাজে কথা।’

প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘ মেয়াদী যুদ্ধের কারণে পাকিস্তানকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। তিনি বলেন, তার সরকার যুক্তরাষ্ট্রকে পাকিস্তানের অভ্যন্তরে কোনও সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করে গোয়েন্দা কার্যক্রম বা সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান চালাতে দেবে না।

ইমরান খান বলেন, ‘আমাদের সীমানায় আর কোনও যুদ্ধ করার, আমাদের দেশে সন্ত্রাস করার সক্ষমতা আমাদের নেই।’ তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের যোগ দেওয়া সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধের সর্বোচ্চ পর্যায়ে সারা দেশ জুড়ে আত্মঘাতী হামলা হয়েছে। ব্যবসা ধসে গেছে, পর্যটন ধসে গেছে। সেকারণে আমরা আর কোনও সংঘাতের অংশ হতে চাই না।’

আফগানিস্তানের সংঘাত অবসানে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনা করতে পাকিস্তানই তালেবানদের চাপ দিয়েছে বলে দাবি করেন ইমরান খান। তিনি দাবি করেন আফগানিস্তানে একটি অংশগ্রহণমূলকই সরকারই দেশটির জন্য সবচেয়ে ভালো সমাধান। ইমরান খান বলেন, এটাই সবচেয়ে ভালো উপায়। আর কোনও উপায় নেই কারণ সামরিক সমাধান ব্যর্থ হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৬:৩৬
image

প্রায় দুইশ’ আফগান দোভাষী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছেছে। তালেবানবিরোধী যুদ্ধে মার্কিন বাহিনীকে সহায়তা দেওয়া প্রায় আড়াই হাজার দোভাষীকে যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া হবে। তারই অংশ হিসেবে প্রথম ধাপে দুইশ’ জনকে নেওয়া হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

শুক্রবার সকালে যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছায় আফগান দোভাষীদের বহনকারী বিমান। তাদের ভার্জিনিয়ার ফোর্ট লি সামরিক ঘাঁটিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে সেখানে তারা প্রায় এক সপ্তাহ থাকবেন। এই সময়ে তাদের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পর দেশটিতে দ্রুতগতিতে অগ্রসর হচ্ছে তালেবান। সশস্ত্র এই গোষ্ঠীর উত্থানে বিপদে পড়তে পারেন মার্কিন বাহিনীকে সহায়তা করা আফগান নাগরিকেরা। সেকারণেই এসব আফগান নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে পুনর্বাসন করা হচ্ছে।

২০০৮ সাল থেকে প্রায় ৭০ হাজার আফগান নাগরিককে যুক্তরাষ্ট্রে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। বিশেষ অভিবাসী ভিসা কর্মসূচির আওতায় এই আফগানদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া হয়েছে।

জুলাই মাসের মাঝামাঝি সময়ে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি জেন সাকি এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের জানান, তারা প্রত্যেকেই সাহসী মানুষ। আমরা তাদের নিশ্চিত করতে চাই যে, গত দু’দশক ধরে তারা আফগানিস্তান অভিযানে যে ভূমিকা পালন করেছেন, আমাদের কাছে তার যথেষ্ট গুরুত্ব রয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

কাতারে খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে আজ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০৭:৩৫

কাতারে পক্ষকালব্যাপী খেজুর উৎসবের পর্দা নামছে। গত ১৫ জুলাই শুরু হওয়া এই উৎসবের শেষ দিন আজ ৩০ জুলাই শুক্রবার। কাতারের পৌর ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় এবং শতবর্ষী ঐতিহ্যবাহী সুক ওয়াকিফ বাজার কর্তৃপক্ষ যৌথভাবে এর আয়োজন করেছে।

এ নিয়ে ষষ্ঠ বারের মতো এই খেজুর উৎসব পালিত হচ্ছে। এবারের আয়োজনের শেষ দিন শুক্রবার উৎসব চলবে বিকাল ৪টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত।

বৃহস্পতিবার পৌর ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এবারের আয়োজনে বুধবার পর্যন্ত ১১৪ টন খেজুর বিক্রি হয়েছে। এর মধ্যে বিশেষ করে খালাস, শিশি, খেনিজি, বারহি প্রভৃতি জাতের খেজুর উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বিক্রি হয়েছে।

খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনের লক্ষ্যে খেজুর উৎপাদনসহ দেশের কৃষি খাতের উৎকর্ষ সাধনে কাতার সরকারের প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়ে থাকে। সূত্র: গালফ টাইমস।

/এমপি/

সম্পর্কিত

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

আফগান দোভাষীদের যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া শুরু

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুঁড়েছে ইসরায়েল

ফিলিস্তিনি শিশুর জানাজায় টিয়ার গ্যাস ছুঁড়েছে ইসরায়েল

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০৫:১০

দুনিয়াজুড়ে করোনাভাইরাস শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে। বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোরে আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারিতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৯টি দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ৭৭ হাজার ১১৫। এর মধ্যে ৪২ লাখ ১২ হাজার ৪০১ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে ১৭ কোটি ৮৪ লাখ ৭০ হাজার ৩৪৪ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। এক পর্যায়ে উৎপত্তিস্থল চীনে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে এর প্রকোপ বাড়তে শুরু করে। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ১১ মার্চ দুনিয়াজুড়ে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তবে আশার কথা হচ্ছে, এখন আক্রান্তের পর সুস্থ হওয়ার হার দ্রুত বাড়ছে। এরইমধ্যে করোনার একাধিক টিকাও আবিষ্কৃত হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ৫৫ লাখ ৬৬ হাজার ৭৬৫। মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ২৮ হাজার ৪৩১ জনের।

আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ১৫ লাখ ৭১ হাজার ২৯৫। এর মধ্যে চার লাখ ২৩ হাজার ২৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। ব্রাজিলে শনাক্তের সংখ্যা এক কোটি ৯৮ লাখ ৩৯ হাজার ৩৬৯। এর মধ্যে পাঁচ লাখ ৫৪ হাজার ৪৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশে শনাক্তের সংখ্যা ১২ লাখ ২৬ হাজার ২৫৩। এর মধ্যে ২০ হাজার ২৫৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৯২ হাজার ৮১১। এর মধ্যে চার হাজার ৬৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও দেশটির বিরুদ্ধে প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করার অভিযোগ রয়েছে। উহানের একজন স্বেচ্ছাসেবী বলেন, ‘বুদ্ধি-বিবেচনাসম্পন্ন যেকোনও মানুষ এই সংখ্যা (সরকারি পরিসংখ্যান) নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করবেন।’

মহামারির শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে আসছিল, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পেছনে চীনের ভূমিকা রয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের সেই দাবিকে আরও জোরালো করে চীনের উহানের ল্যাবের এক ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ানের বক্তব্য। লি মেং ইয়ান বলেন, চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে করোনাভাইরাস। এটি মানুষের তৈরি বলে তার কাছে শতভাগ প্রমাণ রয়েছে।

হংকংয়ে জন্ম নেওয়া ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তার দাবি, চীন হত্যা করতে চেয়েছিল বলে ভয়ে মার্কিন মুলুকে পালিয়ে যান তিনি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

করোনার 'সুপার স্প্রেডার' রাষ্ট্র হওয়ার পথে মিয়ানমার

বিমানবন্দরেই করোনার বিশাল হাসপাতাল

বিমানবন্দরেই করোনার বিশাল হাসপাতাল

করোনার আঁতুড়ঘর চীনেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপ

করোনার আঁতুড়ঘর চীনেই ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের প্রকোপ

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০৩:০৪

কিউবায় সাম্প্রতিক সরকারবিরোধী আন্দোলনে নির্বিচারে আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তির দাবি জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। বন্দিদের ওপর কর্তৃপক্ষের দমনপীড়ন নিয়েও উদ্বেগ জানিয়েছে ইউরোপীয় দেশগুলোর এই জোট। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে নিজেদের এমন দাবি ও উদ্বেগ তুলে ধরেছে ইইউ। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

ইইউ-এর শীর্ষ কূটনীতিক জোসেফ বোরেল বলেন, ‘কিউবা সরকারকে আমরা সার্বজনীন মানবাধিকার কনভেনশনে অন্তর্ভুক্ত মানবাধিকার ও স্বাধীনতার প্রতি সম্মান জানানোর আহ্বান জানাই।’

করোনা পরিস্থিতি সামাল দিতে ব্যর্থতা এবং অর্থনৈতিক সংকট বেড়ে যাওয়ায় সরকারের প্রতি কিউবার জনগণের ক্ষোভ বাড়ছিল। এক পর্যায়ে জুলাইয়ের গোড়ার দিকে রাস্তায় নেমে আসে তারা। ১৯৯৪ সালের পর এবারই সবচেয়ে বড় ধরনের সরকারবিরোধী বিক্ষোভের মুখে পড়েছে কিউবা। শুধু রাজধানী হাভানা নয়, পুরো দেশজুড়ে রাজপথে নামে হাজার হাজার মানুষ। এসব বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে ব্যাপক ধরপাকড় চালায় সরকারি বাহিনী।

বৃহস্পতিবার নির্বিচারে এই ধরপাকড়ের শিকার লোকজনের মুক্তি দাবি করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। যদিও এরইমধ্যে অনেকের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে।

মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে প্রায় ৭০০ মানুষকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্যে কম বয়সীরাও রয়েছে। সরকারিভাবে আটক বা গ্রেফতারকৃতদের সুনির্দিষ্ট কোনও সংখ্যা উল্লেখ করা হয়নি। তবে শুধু বিক্ষোভের কারণে কাউকে গ্রেফতারের কথা অস্বীকার করেছে কর্তৃপক্ষ। সরকারের দাবি, বিশৃঙ্খলা ও ভাঙচুরের মতো অপরাধের সঙ্গে যুক্তদেরই কেবল আটক করা হয়েছে।

/এমপি/

সম্পর্কিত

মাল্টার সাংবাদিক হত্যায় রাষ্ট্রই দায়ী: তদন্ত প্রতিবেদন

মাল্টার সাংবাদিক হত্যায় রাষ্ট্রই দায়ী: তদন্ত প্রতিবেদন

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

অ্যাসাঞ্জের নাগরিকত্ব বাতিল করলো ইকুয়েডর

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

ক্যাপিটলে হামলার লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন ৪ পুলিশ সদস্য

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

সর্বশেষ

নাগালের বাইরে চলে গেছে যে সব পণ্যের দাম

নাগালের বাইরে চলে গেছে যে সব পণ্যের দাম

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

তালেবানকে সহায়তার কথা অস্বীকার করলেন ইমরান খান

রংপুর মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

রংপুর মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

প্রেমিকের পরিকল্পনায় স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

প্রেমিকের পরিকল্পনায় স্কুলছাত্রীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

জোকোভিচের সোনার স্বপ্ন শেষ

অলিম্পিক টেনিসজোকোভিচের সোনার স্বপ্ন শেষ

ক্যান্সারে আক্রান্ত হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী ফিরোজ বাঁচতে চায় 

ক্যান্সারে আক্রান্ত হাবিপ্রবি শিক্ষার্থী ফিরোজ বাঁচতে চায় 

লক্ষ্মীপুরে একদিনে রেকর্ড শনাক্ত

লক্ষ্মীপুরে একদিনে রেকর্ড শনাক্ত

জমির ভাগ নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় বাবার মৃত্যু

জমির ভাগ নিয়ে ছেলেদের সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় বাবার মৃত্যু

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

করোনা কোথায়? (ফটোস্টোরি)

অলিম্পিকে সেরা টাইমিং পেলেন বাংলাদেশের আরিফুল

অলিম্পিকে সেরা টাইমিং পেলেন বাংলাদেশের আরিফুল

গৃহহীনদের এত ঘর দেয়নি কোনও সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী 

গৃহহীনদের এত ঘর দেয়নি কোনও সরকার: তথ্য প্রতিমন্ত্রী 

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সংসদ সদস্য ও সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফ মারা গেছেন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাট, ২৫ হাজার সেনা মোতায়েন করছে সরকার

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাট, ২৫ হাজার সেনা মোতায়েন করছে সরকার

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটে অংশ নিচ্ছে পুলিশ সদস্যরাও

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটে অংশ নিচ্ছে পুলিশ সদস্যরাও

দক্ষিণ আফ্রিকার সহিংসতায় বাড়ছে নিহতের সংখ্যা

দক্ষিণ আফ্রিকার সহিংসতায় বাড়ছে নিহতের সংখ্যা

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটের পাশাপাশি বাড়ছে মৃত্যুও

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটের পাশাপাশি বাড়ছে মৃত্যুও

বিক্ষোভ মোকাবিলায় দ. আফ্রিকায় সেনা মোতায়েন

বিক্ষোভ মোকাবিলায় দ. আফ্রিকায় সেনা মোতায়েন

© 2021 Bangla Tribune